ধৰ্ম্মপুস্তক অর্থাৎ পুরাতন ও নূতন নিয়মের অন্তর্গত গ্রন্থসমূহ/দ্বিতীয় বিবরণ

○ 8bデ অন্ত বংশে যাইবে না ; ইস্রায়েল-সন্তানগণ প্রত্যেকে আপন আপন পিতৃবংশের অধিকারভুক্ত থাকিবে। ৮ আর ইস্রায়েল-সন্তানগণ প্রত্যেকে যেন আপন আপন পৈতৃক অধিকার ভোগ করে, এই জন্ত ইস্রায়েলসন্তানগণের কোন বংশের মধ্যে অধিকারিণী প্রত্যেক কন্যা আপন পিতৃবংশীয় গোষ্ঠীর মধ্যে কোন এক ৯ পুরুষের স্ত্রী হইবে । এইরূপে এক বংশ হইতে অন্ত বংশে অধিকার যাইবে না, কারণ ইস্রায়েল-সন্তানগণের প্রত্যেক বংশ আপন আপন অধিকারভুক্ত থাকিবে । গণনাপুস্তক—দ্বিতীয় বিবরণ। [ ○S ; セー> ; 2 ుసె ১• মেশিকে সদাপ্ৰভু যেরূপ আজ্ঞা করিলেন, সলফা১১ দের কন্যাগণ তদ্রুপ কৰ্ম্ম করিল। ফলতঃ মহল, তিস1, হগল, মিল্ক ও নোয়, সলফাদের এই কস্তাগণ আপন ১২ আপন পিতৃব্য-পুত্রদের সহিত বিবাহিত হইল। যোষেফের পুত্র মনঃশির সন্তানদের গোষ্ঠীর মধ্যে তাহদের বিবাহ হইল ; তাহাতে তাহদের অধিকার তাহদের পিতৃগোষ্ঠীর সম্পৰ্কীয় বংশেই রহিল। সদাপ্রভু যিরাহের নিকটস্থ যাদনের সমীপে মোয়াবের তলভূমিতে মোশি দ্বারা ইস্রায়েল-সন্তানগণকে এই সমস্ত আজ্ঞ ও বিচার আদেশ করিলেন । 3○ দ্বিতীয় বিবরণ। মোশির প্রথম বক্তৃত। প্রান্তরযাত্রী ইস্রায়েলীয়দের ইতিহাস । S যর্দনের পূর্বারস্থিত প্রান্তরে, সুফের সন্মুখস্থিত অরবি তলভূমিতে, পারণ, তোফল, লাবন, হৎ সেরোৎ ও দীষহিবের মধ্যস্থান মেশি সমস্ত ইস্রায়েল২ কে এই সকল কথা কহিলেন । সেয়ীর পক্বত দিয়া হোরেব অবধি কাদেশ-বর্ণেয় পৰ্য্যন্ত যাইতে এগার ৩ দিন লাগে। সদাপ্রভু যে যে কথা ইস্রায়েল-সন্তানগণকে বলিতে মোশিকে আজ্ঞা দিয়াছিলেন, তদনুসারে মোশি চল্লিশ বৎসরের একাদশ মাসে, মাসের প্রথম ৪ দিনে তাহাদিগকে কহিতে লাগিলেন। হিন্থবোননিবাসী ইমোরীয়দের রাজা সীহেনকে, এবং ইদ্রিয়ীতে অষ্টারোৎ-নিবাসী বাশনের রাজা ওগকে আঘাত করিলে ৫ পর, যদিনের পূর্বপারে মোয়াব দেশে মোশি এই ব্যবস্থ৷ ব্যাখ্যা করিতে লাগিলেন ; তিনি বলিলেন, ৬ আমাদের ঈশ্বর সদ্যপ্ৰভু হোরেলে আমাদিগকে বলিয়াছিলেন, তোমরা এই পৰ্ব্বতে অনেক দিন অব৭ স্থিতি করিয়াছ ; এখন ফির, তোমরা যাত্রা কর, ইমোরীয়দের পর্বতময় দেশ এবং তন্নিকটবৰ্ত্তী সকল স্থান, আরাবী তলভূমি, পাহাড় অঞ্চল, নিম্নভূমি, দক্ষিণ প্রদেশ ও সমুদ্রতীর, মহানদী ফরৎ নদী পৰ্য্যন্ত ৮ কনানীয়দের দেশে ও লিবানোনে প্রবেশ কর। দেখ, আমি সেই দেশ তোমাদের সম্মুখে দিয়াছি ; তোমাদের পিতৃপুরুষ অব্রাহাম, ইসহাক ও যাকেবিকে এবং তাহীদের পরে তাহীদের বংশকে যে দেশ দিতে সদাপ্রভু দিব্য করিয়াছিলেন, তোমরা সেই দেশে প্রবেশ করিয় তাহ। অধিকার কর । ৯ তৎকালে আমি তোমাদিগকে এই কথা বলিয়াছিলাম, তোমাদের ভার বহন করা এক আমার 14S ১০ অসাধ্য। তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদের বৃদ্ধি করিয়াছেন, আর দেখ, তোমরা অদ্য আকাশের তারার ১১ দ্যায় বহুসংখ্যক হইয়াছ ; তোমরা যেরূপ আছ, তোমাদের পিতৃগণের ঈশ্বর সদা প্ৰভু তাহ হইতে তোমাদের আরও সহস্র গুণ বৃদ্ধি করুন, আর তোমাদিগকে যেরূপ ১২ বলিয়াছেন, তদ্রুপ আশীৰ্ব্বাদ করুন। আমি কেমন করিয়া একা তোমাদের বোঝা, তোমাদের ভার ও ১৩ তোমাদের বিবাদ সহ করতে পারি ? তোমরা আপন আপন বংশের মধ্যে জ্ঞানবান, বুদ্ধিমান ও পরিচিত লোকদিগকে মনোনীত কর, আমি তাহাদিগকে তোমা১৪ দের অধ্যক্ষরূপে নিযুক্ত করিব । তোমরা আমাকে উত্তর করিলে, বলিলে, তুমি যাহা বলিতেছ, তাহাই করা ১৫ ভাল। তাই আমি তোমাদের বংশসমূহের প্রধান, জ্ঞানবান ও পরিচিত লোকদিগকে গ্রহণ করিয়৷ তোমাদের উপরে প্রধান, তোমাদের বংশানুসারে সহস্ৰপতি, শতপতি, পঞ্চাশৎপতি, দশপতি ও কৰ্ম্মচারী করিয়া নিযুক্ত করিলাম। আর তৎকালে তোমাদের বিচারকত্তাদিগকে এই আজ্ঞ করিলাম, তোমরা তোমাদের ভ্রাতাদের কথা শুনিয়া বাদীর ও তাহার ভ্রাতার কি সহবাসী বিদেশীর মধ্যে দ্যায্য বিচার ১৭ করিও। তোমরা বিচারে কাহারও মুখাপেক্ষা করিবে না; সমভাবে ক্ষুদ্র ও মহান উভয়ের কথা শুনিবে ; মনুষ্যের মুখ দেখিয়া ভয় করিবে না, কেননা বিচার ঈশ্বরের ; এবং যে কথা তোমাদের পক্ষে কঠিন, তাহা আমার কাছে আনিবে, আমি তাহ শুনিব । ১৮ সেই সময়ে তোমাদের সমস্ত কৰ্ত্তব্য কৰ্ম্মের বিষয়ে আমি আজ্ঞা করিয়াছিলাম । পরে আমরা আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞানুসারে হোরেব হইতে প্রস্থান করিলাম, এবং ইমোরীয় >○ Sసి * ; २० - ९ ; 8 । } দের পর্বতময় দেশে যাইবার পথে তোমরা সেই যে বৃহৎ ও ভয়ঙ্কর প্রান্তর দেখিয়াছ, তাহার মধ্য দিয়া ২• যাত্রা করিয়া কাদেশ-বর্ণেয়ে পহুছিলাম। পরে আমি তোমাদিগকে কহিলাম, আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাদিগকে যে দেশ দিতেছেন, ইমোরীয়দের সেহ ২১ পর্বতময় দেশে তোমরা উপস্থিত হইলে । দেখ, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু সেই দেশ তোমার সম্মুখে দিয়াছেন ; তুমি আপন পিতৃপুরুষগণের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞানুসারে উঠিয়া উহ। অধিকার কর ; ভীত ও নিরাশ হইও না । তখন তোমরা সকলে আমার নিকটে আসিয়া কহিলে, অগ্রে আমরা সে স্থানে লোক পাঠাই ; তাহার আমাদের জন্ত দেশ অনুসন্ধান করুক, এবং আমা ལས་མ་ འདྲི་ দিগকে কোন পথ দিয়া উঠিয়া যাইতে হইবে, ও কোন | কোন নগরে উপস্থিত হইতে হইবে, তাহার সংবাদ ২৩ লইয়। আইসুক। তখন আমি সে কথায় সন্তুষ্ট হইয়৷ তোমাদের প্রত্যেক বংশ হইতে এক এক জন করিয়া ২৪ বার জনকে গ্রহণ করিলাম। পরে তাহার। যাত্র। করিয়া পৰ্ব্বতে উঠিল, এবং ইস্কোল উপত্যকায় ২৫ উপস্থিত হইয়া দেশ অনুসন্ধান করিল। আর সেই দেশের কতকগুলি ফল হস্তে লইয়া আমাদের নিকটে আসিয়া সংবাদ দিল, কহিল, আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাদিগকে যে দেশ দিতেছেন, সে উত্তম দেশ। ২৬ তথাপি তোমরা সেই স্থানে যাইতে অসম্মত হইলে : ও তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞার বিরুদ্ধাচারী ২৭ হইলে ; আর আপন আপন তাম্বুতে বচসা করিয়া কহিলে, সদাপ্রভু আমাদিগকে ঘৃণা করিলেন বলিয়া আমরা যেন বিনষ্ট হই, তাই ইমোরীয়দের হস্তে সমপণ করিবার নিমিত্তে আমাদিগকে মিসর দেশ ২৮ হইতে বাহির করিয়া আনিলেন। তামরা কোথায় যাইতেছি ? আমাদের ভ্রাতৃগণ আমাদের মনোভঙ্গ করিল, বলিল, আমাদের অপেক্ষী সেই জাতি মহৎ ও দীর্ঘকায়, এবং নগরগুলি অতি বৃহৎ ও গগনস্পশী প্রাচীরে বেষ্টিত ; আরও সে স্থানে আমরা অনাকীয়২৯ দের সন্তানদিগকেও দেখিয়াছি। তখন আমি তোমাদিগকে কহিলাম, উদ্বিগ্ন হইও না, তাহদের হইতে ৩• ভীত হইও না। তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু যিনি তোমাদের অগ্রগামী, তিনি মিসর দেশে তোমাদের চক্ষুর্গোচরে তোমাদের জন্য যে সমস্ত কাৰ্য্য করিয়াছিলেন, তদনুসারে তোমাদের জন্ত যুদ্ধ করিবেন। ৩১ এই প্রান্তরেও তুমি তদ্রুপ দেখিয়াছ ; যেহেতুক পিত যেমন আপন পুত্রকে বহন করে, তেমনি এই স্থানে তোমাদের আগমন পৰ্য্যন্ত যে পথে তোমরা আসিয়াছ, সেই সমস্ত পথে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে ৩২ বহন করিয়াছেন। তথাপি এই কথায় তোমরা আপনা৩৩ দের ঈশ্বর সেই সদাপ্রভুতে বিশ্বাস করিলে না, যিনি তোমাদের শিবির রাখিবার স্থান অন্বেষণ করণার্থে যাত্রাকালে তোমাদের অগ্রগামী হইয়। রাত্রিতে অগ্নি দ্বিতীয় বিবরণ।

  • 8 -)

দ্বারা ও দিবসে মেঘ দ্বারা তোমাদের গন্তব্য পথ প্রদর্শন করিতেন । ৩৪ আর সদাপ্রভু তোমাদের বাক্যের রব শুনিয়া ক্রুদ্ধ ৩৫ হইলেন, ও এই দিব্য করিলেন, আমি তোমাদের পিতৃপুরুষদিগকে যে দেশ দিতে শপথ করিয়াছি, এই দুষ্ট বংশীয় মনুষ্যদের মধ্যে কেহই সেই উত্তম দেশ দেখিতে ৩৬ পাইবে না, কেবল যিফুল্লির পুত্র কালেব তাহ দেখিবে; এবং সে যে ভূমিতে পদার্পণ করিয়া আসিয়াছে, সেই ভূমি আমি তাহাকে ও তাহার সন্তানগণকে দিব ; কেননা সে সম্পূর্ণরূপে সদাপ্রভুর অনুগমন করিয়াছে। ৩৭ (সদাপ্রভু তোমাদের নিমিত্তে আমার প্রতিও ক্রুদ্ধ হইলেন, তিনি আমাকে এই কথা কহিলেন, তুমিও ৩৮ সে স্থানে প্রবেশ করিবে না । তোমার সম্মুখে দণ্ডায়মান নুনের পুত্ৰ যিহোশূয় সেই দেশে প্রবেশ করিবে: তুমি তাহাকেই আশ্বাস দেও, কেনন। সে ইস্রায়েলকে ৩৯ তাহ অধিকার করাইবে । ) আর ইহারা লুটিত হইবে, এই কথা তোমরা আপনাদের যে বালকগণের বিষয়ে কহিলে, এবং তোমাদের যে সস্তানগণের ভাল মন্দ জ্ঞান অদ্যাপি হয় নাই, তাহারাই সেই স্থানে প্রবেশ করিবে ; তাহাদিগকেই আমি সেই দেশ দিব, ৪০ এবং তাহারাই তাহ অধিকার করবে। কিন্তু তোমর। ফির, স্থফসাগরের পথ দিয়া প্রান্তরে গমন কর। ৪১ তখন তোমরা উত্তর করিয়া আমাকে বলিলে, আমর সদাপ্রভুর বিরুদ্ধে পাপ করিয়াছি ; আমরা আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর সমস্ত আজ্ঞানুসারে উঠিয়া গিয়া যুদ্ধ করিব। পরে তোমরা প্রত্যেক জন যুদ্ধাস্ত্রে সসজ্জ হইলে, এবং পৰ্ব্বতে উঠা লঘু বিষয় মনে করিলে। ৪২ তখন সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, তুমি তাহাদিগকে বল, তোমরা উঠিও না, যুদ্ধ করিও না, কেননা আমি তোমাদের মধ্যবৰ্ত্তী নহি ; পাছে শক্রদের সম্মুখে ৪৩ আহত হও । আমি তোমাদিগকে সেই কথা কহিলাম, কিন্তু তোমরা সে কথায় কাণ দিলে না ; বরং সদাপ্রভুর আজ্ঞার বিরুদ্ধাচারী ও দুঃসাহসী হইয়। ৪৪ পৰ্ব্বতে উঠিতেছিলে। আর সেই পৰ্ব্বতবাসী ইমোরীয়ের তোমাদের বিরুদ্ধে বাহির হইয়া, মধুমক্ষিক। যেমন করে, তেমনি তোমাদিগকে তাড়া করিল, এবং ৪৫ সেয়ীরে হর্ম পৰ্য্যন্ত আঘাত করিল। তখন তোমরা ফিরিয়া আসিলে ও সদাপ্রভুর কাছে রোদন করিলে ; কিন্তু সদাপ্রভু তোমাদের রবে কর্ণপাত করিলেন না, ৪৬ তোমাদের কথায় কাণ দিলেন না। আর তোমরা অবস্থিতি-কালানুসারে কাদেশে অনেক দিন বাস করিলে । পরে সদাপ্রভু আমাকে যেরূপ বলিয়াছিলেন, ९ তদনুসারে আমরা ফিরিয়া স্বফসাগরের পথে প্রান্তর দিয়া যাত্রা করিলাম, এবং অনেক দিন যাবৎ সেয়ীর ২ পৰ্ব্বত প্রদক্ষিণ করিলাম। পরে সদাপ্রভু আমাকে ৩ কহিলেন, তোমরা অনেক দিন এই পৰ্ব্বত প্রদক্ষিণ ৪ করিতেছ; এখন উত্তরদিকে ফির। আর তুমি লোক 149 * @ 2 সমূহকে এই অজ্ঞা কর, সেয়ীর-নিবাসী তোমাদের ভ্রাতৃগণের অর্থাৎ এক্ষ্মেী-সন্তানদের সীমার নিকট দিয়৷ তোমাদিগকে যাইতে হইবে, আর তাহার তোমাদের হইতে ভীত হইবে ; অতএব তোমরা অতি সাব৫ ধান হইবে। তাহদের সহিত বিরোধ করিও না, কেননা আমি তোমাদিগকে তাহীদের দেশের অংশ দিব না, এক পাদ পরিমিত ভূমিও দিব না ; কেননা সেয়ীর পর্বত অধিকারার্থে আমি এলেকে দিয়াছি। ৬ তোমরা তাহদের নিকটে টাকা দিয়া খাদ্য ক্রয় করিয়া ভোজন করিবে ; ও টাকা দিয়া জলও ক্রয় ৭ করিয়৷ পান করিবে। কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার হস্তের সমস্ত কৰ্ম্মে তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করিয়াছেন ; এই মহাপ্রান্তরে তোমার গমন তিনি জানেন ; এই চল্লিশ বৎসর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সহবত্তী আছেন ; তোমার কিছুরই অভাব হয় নাই । ৮ পরে আমরা আরাবী তলভূমির পথ হইতে, এলS ও ইৎসিয়োন-গেবর হইতে, সেয়ীর নিবাসী আমাদের ভ্রাতৃগণ এফেী সন্তানদের সন্মুখ দিয়া গমন করিলাম। আর আমরা মোয়াবের প্রান্তরের পথে ফিরিয়া যাত্রা করি৯ লাম। আর সদপ্রভু আমাকে কহিলেন, তুমি মোয়াবীয়দিগকে ক্লেশ দিও না, এবং যুদ্ধ দ্বার। তাহদের সহিত বিরোধ করিও না ; কারণ আমি অধিকারাথে তাহীদের দেশের কোন অংশ তোমাকে দিব না ; কেননা আমি লেটের সন্তানগণকে আৰু নগর তাধি১০ করে করিতে দিয়াছি। (পূৰ্ব্বে ঐ স্থানে এময়ের বাস করিত, তাহার। অনাকীয়দের দ্যায় মহৎ, বহু১১ সংখ্যক ও দীর্ঘকায় জাতি । অনাকীয়দের হ্যায় তাহা রাও রফায়ীয়দের মধ্যে গণিত, কিন্তু মোয়াবীয়ের ২২ তাহাদিগকে এমীয় বলে । আর পূৰ্ব্বে হোরায়েরাও সেয়ীরে বাস করিত, কিন্তু এঘের সন্তানগণ তাহাদিগকে অধিকারচু্যত ও আপনাদের সম্মুখ হইতে বিনষ্ট করিয়া তাহদের স্থানে বাস করিল ; যেমন ইস্রায়েল সদাপ্রভুর দত্ত আপন অধিকার-ভূমিতে ১৩ করিল। ) এক্ষণে তোমর উঠ, সেরদ নদী পার হও । ১৪ তখন আমরা সেরদ নদী পার হইলাম। কাদেশবর্ণেয় অবধি সেরদ নদী পার হওয়া পৰ্য্যন্ত আমাদের বত্রিকাল আটত্রিশ বৎসর ব্যাপী ; সেই সময়ের মধ্যে শিবিরের মধ্য হইতে তৎকালীন যোদ্ধগণ সকলে উচ্ছিন্ন হইল, যেমন সদাপ্রভু তাহদের সম্বন্ধে শপথ ১৫ করিয়াছিলেন। আবার শিবিরের মধ্য হইতে তাহাদিগকে নিঃশেষে লোপ কর।াথে সদাপ্রভুর হস্ত তাহ১৬ দের বিরুদ্ধে ছিল। সেই সমস্ত যোদ্ধ ম রয়া লোকদের ১৭ মধ্য হইতে উচ্ছন্ন হইলে পর সদাপ্রভু আমাকে ১৮ কহিলেন, অন্য তুমি মোয়াবের সীমা অৰ্থাৎ আর ১৯ পার হইতেছ; যখন তুমি অন্মোন-সন্তানগণের সম্মুখে উপস্থিত হও, তখন তাহাদিগকে ক্লেশ দিও না, ‘তাঁহাদের সহিত বিরোধ করিও না ; কারণ আমি তোমাকে অধিকারথে অন্মোন-সন্তানদের দেশের অংশ দ্বিতীয় বিবরণ। & ; 6 - నిరి দিব না, কেনন। আমি লোটের সন্তানগণকে তাহ ২০ অধিকার করতে দিয়াছি । ( সেই দেশও রফায়ীয়দের দেশ বলিয়। গণিত ; রফায়ীয়েরা পূৰ্ব্বকালে সে স্থানে বাস করিত ; কিন্তু অন্মোনীয়ের তাহাদিগকে সমৃ২১ সুন্মীয় বলে । তাহারা অনাকীয়দের হ্যায় মহৎ, বহুসংখ্যক ও দীর্ঘকায় এক জাতি ছিল, কিন্তু সদ্যপ্ৰভু উহাদের সম্মুখ হইতে তাহাদিগকে বিনষ্ট করিলেন : আর উহার তাহাদিগকে অধিকারচু্যত করিয়া তাহা২২ দের স্থানে বসতি করিল। তিনি সেয়ার-নিবাসী এধেীর সন্তানগণের নিমিত্তেও তদ্রুপ কৰ্ম্ম করিলেন, ফলতঃ তাহদের সম্মুখ হইতে হোরীয়দিগকে বিনষ্ট করলেন, তাহাতে উহার তাহাদিগকে অধিকারচু্যত করিয়া অদ্যাপি তাহদের স্থানে বাস করিতেছে । তার অববীয়গণ, যাহারা ঘসা পৰ্য্যন্ত গ্রামসমূহে বাস করিত, তাহাদিগকে কপ্তোর হইতে আগত কপ্তোরীয়েরা ২৪ বিনষ্ট করিয়া তাহীদের স্থানে বাস করল । ) তোমরা উঠ, যাত্রা কর, অর্ণোন উপত্যক পার হও ; দেখ, আমি হিষ্ণুবোনের রাজা ইমোরীয় সীtহানকে ও তাহার দেশ তোমার হস্তে সমর্পণ করিলাম ; তু ম উহা অধিকার করিতে আরম্ভ কর, ও যুদ্ধ দ্বারা তাহার সহিত ২৫ বিরোধ কর । অদ্যাবধি আমি সমস্ত তাকাশমণ্ডলের নীচে স্থিত জাতিগণের উপরে তোম৷ হইতে আশঙ্ক ও ভয় স্থাপন করিতে আরম্ভ করিব : তাহার তোমার সমাচার পাইবে, ও তোমার ভয়ে কম্পমান ও ব্যথিত হইবে। পরে আমি কদেমোৎ প্রান্তর হইতে হিন্থবোনের রাজ সহোনের নিকটে দূত দ্বারা এই শান্তির বাক্য বলিয়া পাঠাইলাম, তুমি আপন দেশের মধ্য দিয়া আমাকে যাইতে দেও, আমি পথ ধরিয়াই যাইব, ২৮ দক্ষিণে কি বামে ফিারব না । আমাদের ঈশ্বর সদtপ্রভু আমাদিগকে যে দেশ দিতেছেন, আমরা যদ্দন পার হইয়। যাবৎ সেই দেশে উপস্থিত ন হই, তাবৎ তুমি টাকা লইয়। আমাকে ভোজনাখ খাদ্য দিবে, ও টকা লইয়া পানার্থক জল দিবে ; আম কেবল ২৯ পদব্রজে পার হইয়া যাইব ; সেয়ীর নিবাসী এষেীসন্তানগণ ও আর-নিবাসী মোয়াবীয়েরাও আমার প্রতি ৩০ সেইরূপ করিয়াছে। কিন্তু হিবোনের রাজা সহোন তাহার নিকট দিয়া যাইবার অনুমতি আমাদিগকে দেন নাই, কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তাহীর মন কঠিন করিলেন ও তাহার হৃদয় শক্ত করলেন, যেন তোমার হস্তে তাহাকে সমর্পণ করেন, যেমন অদ্য ৩১ পয্যন্ত রহিয়াছে। আর সদাপ্রভু আমাকে কহিলন, দেখ, আমি সীcইiনকে ও তাহার দেশকে তোমার সম্মুখ দিতে আরম্ভ করিলাম ; তুমিও তাহার দেশ ৩২ অধিকারার্থে লইতে আরম্ভ কর। তখন সীহোন ও তাহার সমস্ত প্রজালোক আমাদের প্রতিকুলে বাহির ৩৩ হইয়৷ ঘহসে যুদ্ধ করিতে আসিলেন। আর আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাদের সম্মুখে তাহাকে সমর্পণ o ○ ーや 월 R 150 २ ; ७8 - ७ ; २8 । ] করিলেন ; আমরা তাহাকে, তাহার পুত্রগণকে ও ৩৪ সমস্ত প্রজালোককে আঘাত করিলাম। আর সেই সময়ে তাহার সমস্ত নগর হস্তগত করিলাম, এবং স্ত্রীলোক ও বালকবালিকা শুদ্ধ সমস্ত বসতি-নগর নিঃশেষে বিনষ্ট করিলাম ; কাহাকেও অবশিষ্ট রাখিলম না ; ৩৫ কেবল পশুগণকে ও যে যে নগর হস্তগত করিয়াছিলাম, তাহার লুটিত বস্তু সকল আমরা আপনাদের ৩৬ জন্য গ্রহণ করিলাম। অর্ণোন উপত্যকার সীমস্থ অরোয়ের তাবধি ও উপত্যকার মধ্যস্থিত নগর অবধি গিলিয়দ পর্য্যন্ত এক নগরও আমাদের অজেয় হইল না ; আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু সে সমস্ত আমাদের সম্মুখে ৩৭ দিলেন। কেবল অন্মোন-সন্তানদের দেশ,যবেবাক নদীর পার্শ্বস্থ সকল প্রদেশ ও পর্বতময় দেশস্থ নগর সকল, এবং যে কোন স্থানের বিষয়ে আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু নিষেধ করিয়াছিলেন, সেই সকলের নিকটে তুমি উপস্থিত হইলে না । ථ ... ’’ আমরা ফিরিয়া বাঁশনের পথে উঠিয়। চলিলাম : তাহাতে বাশনের রাজা ওগ এবং তাহার সমস্ত প্রজালোক আমাদের সহিত যুদ্ধ করণাথে ২ বাহির হইয়া ইদ্রিয়ীতে আসিলেন । তখন সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, তুমি উহাকে ভয় করিও না, কেননা আমি উহাকে, উহার সমস্ত প্রজালোককে ও উহার দেশ তোমার হস্তে সমৰ্পণ করিলাম ; তুমি যেমন হিষ বান-নিবাসী ইমোরীয়দের রাজা সাহেনের ৩ প্রতি করিয়াছ, তেমনি উহার প্রতিও করবে। এইরূপে আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু বাশনের রাজ ওগকে ও তাহার সমস্ত প্রজালোককে তামাদের হস্তে সমর্পণ করিলেন ; তlহাতে তামরা তাইicক এমন আঘাত ৪ করিলাম যে, তাহার কেহ অবশিষ্ট থাকিল না। সেই সময় আমরা তাহার সমস্ত নগর হস্তগত করিলাম ; এমন এক নগরও থাকিল না, যাহা তাহদের হইতে লহ নাই ; ষষ্টি নগর, অর্গোবের সমস্ত অঞ্চল, বাশনস্থ ৫ ওগের রাজ্য লইলাম। সেই সমস্ত নগর উচ্চ প্রাচীর, দ্বার ও অর্গল দ্বারা সুরক্ষিত ছিল ; আর প্রাচীর৬ বিহীন অনেক নগরও ছিল। আমরা হিষ্ণুবোনের রাজ। সহোনের প্রতি যেমন করিয়াছিলাম, সেইরূপ তাহাদিগকে নিঃশেষ বিনষ্ট করিলাম, স্ত্রীলোক ও বালকবালিকা শুদ্ধ তাহদের সমস্ত বসতি নগর বিনষ্ট করি৭ লাম। কিন্তু তাহীদের সমস্ত পশু ও নগরের দ্রব্যাদি ৮ লুট করিয়া আপনাদের জন্ত গ্রহণ করিলাম। সেই সময়ে আমরা যদিনের পূর্বপারস্থ ইমেরীয়দের দুই রাজার হস্ত হইতে অর্ণোন উপত্যক তাবধি হর্মেণ ৯ পর্বত পৰ্য্যন্ত সমস্ত দেশ হস্তগত করলাম। (সীদোনীয়ের ঐ হমেণকে সিরিয়োণ বলে, এবং ইমোরী১০ য়েরা তাহাকে সনীর বলে । ) আমরা সমভূমির সমস্ত নগর, সল্‌খ ও ইদ্রিয়ী পৰ্য্যন্ত সমস্ত গিলিয়দ এবং সমস্ত বশন, বাশন স্থত ওগ-রাজ্যের নগরসমূহ ১১ হস্তগত করিলাম। (ফলতঃ অবশিষ্ট রফায়ীয়দের দ্বিতীয় বিবরণ।

  • G \

মধ্যে কেবল বাশনের রাজ ওগ মাত্র অবশিষ্ট ছিলেন ; দেখ, তাহার খট্টা লৌহময় : তাহ কি অন্মোন সন্তু নগণর রববা নগরে নাই ? মনুষ্যের হস্তের পরিমাণানুসারে তাই। দীৰ্ঘে নয় হস্ত ও প্রস্থে চারি হস্ত । ) সেই সময়ে আমরা এই দেশ অধিকার করিলাম ; অর্ণোন উপত্যকীস্থ অরোয়ের অবধি, এবং পর্বতময় গিলিয়দ দেশের অৰ্দ্ধেক ও তথকার নগর সকল ১৩ রূ বণীয় ও গাদীয়দিগকে দিলাম। আর গিলিয়দের অবশিষ্ট অংশ ও সমস্ত বাশন অর্থাৎ ওগের রাজ্য, সমস্ত বাশনের সহিত অর্গোবের সমস্ত অঞ্চল আমি মনঃশির অৰ্দ্ধ বংশকে দিলাম । ( তাহাই রফায়ীয় ১৪ দেশ বলিয়া বিখ্যাত। মনঃশির সন্তান যায়ীর গঙ্গুরীয়দের ও মাখার্থীয়দের সম পৰ্য্যন্ত তার্গোবের সমস্ত অঞ্চল লইয়া আপন নামানুসারে বাশন দেশের সেই সকল স্থানের নাম হবেবাৎ-যায়ীর রীথিল ; SR ১৫ অদ্য পৰ্য্যন্ত { সেই নাম চলিত আছে ] । ) আর ১৬ তামি মার্থীরক গিলিয়দ দিলাম। তার গিলিয়দ হইতে অর্ণোন উপত্যক। পর্যন্ত, উপত্যকার মধ্যস্থান ও তৎপরিসীম, এবং অন্মোন-সন্তানগণের সীম। যবেরক নদী পয্যন্ত ; আর অরাব৷ তলভূমি, যৰ্দ্দন ও তৎপরিসাম, কিন্নেরৎ হইতে আরাবার সমুদ্র, অর্থাৎ পূৰ্ব্বদিকে পিস্গা-পার্শ্বর নীচে লবণসমুদ্র পর্য্যন্ত রূবেণীয় ১৮ ও গাদায়দিগকে দিলাম। আর সেই সময় তোমাদিগকে এই আজ্ঞ করিলাম, তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু অধিকারার্থে এই দেশ তোমাদিগকে দিয়াছেন । তোমাদের সমস্ত যোদ্ধ সসজ্জ হইয়া তোমাদের ভ্রাতুগণের অর্থাৎ ইস্রায়েল-সন্তানগণর সম্মুখ পার হইয়। ১৯ যাইবে । আমি তেমদিগকে যে সকল নগর দিলাম, তোমাদের সেই সকল নগরে তোমাদের স্ত্রীলোক, বালকবালিক ও পশুগণ বাস করবে ; তামি জানি, তোমাদের অনেক পশু আছে । পরে সদাপ্রভু তোমাদের ভ্রাতৃগণকে তোমাদের দ্যায় বিএম দিলে, যর্দনের ওপারে যে দেশ তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্ৰভু তাহাদিগকে দিতেছেন, তাহারাও সেই দেশ অধিকার করিবে ; তখন তোমরা প্রত্যক আমার দত্ত তাপন আপন অধিকারে ফিরিয়া আসবে। আর সেই সময়ে আমি যিহাশূয়কে আজ্ঞা করিলাম, তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু সেই দুই রাজার প্রতি যাহা করিয়াছেন, তাহ। তুমি স্বচক্ষে দেখিয়াছ ; তুমি পার হহয় যে যে রাজ্যের বিরুদ্ধে যাইবে, সে সমস্ত ২২ রাজ্যের প্রতি সদাপ্রভু তদ্রুপ করবেন। তোমরা তাহাদিগকে ভয় করিও না ; কেননা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আপনি তোমাদের জন্ত যুদ্ধ করিবেন। ২৩ সেই সময়ে আমি সদ্যপ্রভুকে সধ্যসাধন করিয়া ২৪ কহিলাম, হে প্ৰভু সদাপ্রভু, তুমি আপন দাসের কাছে আপন মহিমা ও বলবান হস্ত প্রকাশ করিতে আরম্ভ করিলে ; তোমার কায্যের মত কাৰ্য্য ও তোমার বিক্রম-কৰ্ম্মের মত কৰ্ম্ম করিতে পারে, স্বর্গে So ミ? 151 》@ & ২৫ কি পৃথিবীতে এমন ঈশ্বর কে আছে ? বিনয় করি, আমাকে ওপারে গিয়া যদ্দনপারস্থ সেই উত্তম দেশ, সেই রমণীয় গিরিপ্রদেশ ও লিবানান দেখিতে দেও ! ২৬ কিন্তু সদাপ্রভু তোমাদের জন্ত আমার প্রতিকূলে ক্রুদ্ধ হওয়াতে আমার কথা শুনিলেন না; সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, তোমার পক্ষে এই যথেষ্ট, এ বিষয়ের কথা ২৭ আমাকে আর বলিও না। পিসগার শৃঙ্গে উঠ, এবং পশ্চিম, উত্তর, দক্ষিণ ও পূৰ্ব্ব দিকে দৃষ্টিপাত কর ; আপন চক্ষে নিরীক্ষণ কর, কেননা তুমি এই যদিন ২৮ পার হইতে পাইবে না। কিন্তু তুমি যিহোশূয়কে আজ্ঞা কর, তাহাকে আশ্বাস দেও, এবং তাহাকে বীৰ্য্যবান্‌ কর, কেননা সে এই লোকদের অগ্রগামী হইয়৷ পার হইবে, আর যে দেশ তুমি দেখিবে, সেই দেশ ২৯ সে তাহাদিগকে অধিকার করাইবে । এইরূপে আমরা বৈৎ-পিয়োরের সন্মুখস্থিত উপত্যকায় বাস করিলাম। 8 এক্ষণে, হে ইস্রায়েল, আমি যে যে বিধি ও শাসন পালন করিতে তোমাদিগকে শিক্ষা দিই, তাহা শ্রবণ কর ; যেন তোমরা বাচিতে পার, এবং তোমাদের পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদিগকে যে দেশ দিতেছেন, তাহার মধ্যে প্রবেশ করিয়া তাহ ২ অধিকার করিতে পার । আমি তোমাদিগকে যাহা আজ্ঞা করি, সেই বাক্যে তোমরা আর কিছু যোগ করিবে না, এবং তাহার কিছু হ্রাস করিবে না। আমি তোমাদিগকে যাহা যাহা আদেশ করিতেছি, তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর সেই সকল আজ্ঞা পালন করিবে । ৩ বাল-পিয়োরের বিষয়ে সদাপ্রভু যাহা করিয়াছিলেন, তাহা তোমরা স্বচক্ষে দেখিয়াছ ; ফলতঃ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু বাল-পিয়োরের অনুগামী প্রত্যেক জনকে ৪ তোমার মধ্য হইতে বিনষ্ট করিয়াছিলেন; কিন্তু তোমরা যত লোক তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুতে আসক্ত ছিলে, ৫ সকলেই অদ্য জীবিত আছ। দেখ, আমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাকে যেরূপ আজ্ঞা করিয়াছিলেন, আমি তোমাদিগকে সেইরূপ বিধি ও শাসন শিক্ষা দিয়াছি ; যেন,তোমরা ষে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, সেই ৬ দেশের মধ্যে তদনুসারে ব্যবহার কর । অতএব তোমরা সে সমস্ত মাস্ত করিও, ও পালন করিও ; কেননা জাতি সকলের সমক্ষে তাঁহাই তোমাদের জ্ঞান ও বুদ্ধি স্বরূপ হইবে ; এই সকল বিধি শুনিয়া তাহার বলিবে, সত্যই, এই মহাজাতি জ্ঞানবান ও বুদ্ধিমান লোক ; ৭ কেননা কোন বড় জাতির এমন নিকটবৰ্ত্তী ঈশ্বর আছেন, যেমন আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু ? যখনই ৮ আমরা তাহাকে ডাকি, তিনি নিকটবৰ্ত্তী। আর আমি অদ্য তোমাদের সাক্ষাতে যে সমস্ত ব্যবস্থা দিতেছি, তাহার মত যথার্থ বিধি ও শাসন কোন বড় জাতির ৯ আছে ? কিন্তু তুমি নিজের বিষয়ে সাবধান, তোমার প্রাণের বিষয়ে আত সাবধান থাক; পাছে তুমি যে সকল ব্যাপার স্বচক্ষে দেখিয়াছ, তাহা ভুলিয়া যাও ; আর পাছে জীবন থাকিতে তোমার হৃদয় হইতে তাহ লুপ্ত হয় : দ্বিতীয় বিবরণ। ২৩ অধিকার করিবে । তোমরা আপনাদের বিষয়ে সাব152 [ © ; २¢- 8 ; २७ ।। তুমি আপন পুত্র পৌত্রদিগকে তাহ শিক্ষা দেও। ১০ সেই দিন, যে দিন তুমি হোরেবে আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুখে দাড়াহুয়াছিল, সেই দিন সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, তুমি আমার নিকটে লোকদিগকে একত্র কর, আমি আপন বাক্য সকল তাহাদিগকে শুনাইব ; তাহারা পৃথিবীতে যত দিন জীবিত থাকে, তত দিন যেন আমাকে ভয় করে, এই বিষয় তাহার ১১ শিখিবে, এবং আপন সন্তানগণকেও শিখাইবে। তাহাতে তোমরা নিকটবৰ্ত্তী হইয়া পৰ্ব্বতের তলে দাড়াইয়াছিলে ; এবং সেই পৰ্ব্বত গগনের অভ্যন্তর পর্য্যন্ত অগ্নিতে জ্বলিতেছিল, অন্ধকার, মেঘ ও ঘোর তিমির ১২ ব্যাপ্ত ছিল। তখন অগ্নির মধ্য হইতে সদাপ্রভু তোমাদের কাছে কথা কহিলেন ; তোমরা বাক্যের রব শুনিতেছিলে, কিন্তু কোন মূৰ্ত্তি দেখিতে পাইলে না, ১৩ কেবল রব হইতেছিল। আর তিনি আপনার যে নিয়ম পালন করিতে তোমাদিগকে আজ্ঞা করিলেন, সেই নিয়ম অর্থাৎ দশ আজ্ঞ তোমাদিগকে আদেশ করিলেন, এবং দুইখান প্রস্তরফলকে লিখিলেন। তোমরা যে দেশ অধিকার করিতে পার হইয়া যাইতেছ, সেই দেশে তোমাদের পালনীয় বিধি ও শাসন সকল তোমাদিগকে শিক্ষা দিতে সদাপ্রভু সেই সময়ে ১৫ আমাকে আজ্ঞা করিলেন। যে দিন সদাপ্ৰভু হোরেবে অগ্নির মধ্য হইতে তোমাদের সহিত কথা কহিতেছিলেন, সেই দিন তোমরা কোন মূৰ্ত্তি দেখ নাই ; অতএব আপন আপন প্রাণের বিষয়ে অতিশয় সাবধান ১৬ হও; পাছে তোমরা ভ্ৰষ্ট হইয়া আপনাদের জন্ত কোন আকারের মূৰ্ত্তিতে ক্ষোদিত প্রতিমা নিৰ্ম্মাণ করা: ১৭ পাছে পুরুষের বা স্ত্রীর প্রতিকৃতি, পৃথিবীন্থ কোন পশুর প্রতিকৃতি, আকাশে উড়ডীয়মান কোন পক্ষীর ১৮ প্রতিকৃতি, ভূচর কোন সরীস্বপের প্রতিকৃতি, অথবা ভূমির নীচস্থ জলচর কোন জন্তুর প্রতিকৃতি নিৰ্ম্মাণ ১৯ কর ; আর আকাশের প্রতি চক্ষু তুলিয়া স্বৰ্য্য, চন্দ্র ও তারা, আকাশের সমস্ত বাহিনী দেখিলে, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যাহাদিগকে সমস্ত আকাশমণ্ডলের নীচে স্থিত সমস্ত জাতির জন্ত বণ্টন করিয়াছেন, পাছে ভ্রান্ত হইয়া তাহীদের কাছে প্ৰণিপাত কর ও তাহীদের ২• সেবা কর । কিন্তু সদাপ্রভু তোমাদিগকে গ্রহণ করিয়াছেন, লৌহের হাফর হইতে, মিসর হইতে তোমাদিগকে বাহির করিয়া আনিয়াছেন, যেন তোমরা তাহার ২১ অধিকাররূপ প্রজা হও, যেমন অদ্য আছ । আর তোমাদের জন্ত সদাপ্রভু আমার প্রতিও ক্রুদ্ধ হইয়া এই দিব্য করিয়াছেন যে, তিনি আমাকে যদিন পার হইতে দিবেন না, এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ অধিকারার্থে দিতেছেন, সেই উত্তম দেশে ২২ আমাকে প্রবেশ করিতে দিবেন না। যাস্তবিক এই দেশেই আমাকে মরিতে হইবে ; আমি যদিন পার হইয়া যাইব না ; কিন্তু তোমরা পার হইয়া সেই উত্তম দেশ > 8 G ; > l ধান থাকিও,তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদের সহিত যে নিয়ম স্থির করিয়াছেন, তাহ ভুলিয়। যাইও না, কোন বস্তুর মূৰ্ত্তিবিশিষ্ট ক্ষোদিত প্রতিম। নিৰ্ম্মাণ করিও ২৪ ন ; উহা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর নিষিদ্ধ। কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু গ্রাসকারী অগ্নিস্বরূপ : তিনি স্বগৌরব রক্ষণে উদূযোগী ঈশ্বর। সেই দেশ পুত্র পৌত্ৰগণের জন্ম দিয়া বহুকাল বাস করিলে পর যদি তোমরা ভ্ৰষ্ট হও, ও কোন বস্তুর মূৰ্ত্তিবিশিষ্ট ক্ষোদিত প্রতিমা নিৰ্ম্মাণ কর, এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর দৃষ্টিতে যাহা মন্দ, তাহা করিয়া তাহাকে ২৬ অসন্তুষ্ট কর; তবে, আমি আদ্য তোমাদের বিরুদ্ধে স্বৰ্গ মৰ্ত্তাকে সাক্ষী মানিয়া কহিতেছি, তোমরা যে দেশ অধিকার করিতে যদিন পার হইয়া যাইতেছ, সেই দেশ হইতে শীঘ্র নিঃশেষে বিনষ্ট হইবে, তথায় বহুকাল অবস্থিতি করিবে না, কিন্তু নিঃশেষে উচ্ছিন্ন হইবে । ২৭ আর সদাপ্রভু জাতিগণের মধ্যে তোমাদিগকে ছিন্ন ভিন্ন করবেন ; যেখানে সদাপ্রভু তোমাদিগকে লইয়া যাইবেন, সেই জাতিগণের মধ্যে তোমরা অল্পসংখ্যক হইয়া ২৮ অবশিষ্ট থাকিবে। আর তোমরা সেখানে মনুষ্যের হস্তকৃত দেবগণের—দর্শনে, শ্রবণে, ভোজনে ও অস্ত্ৰাণে ২৯ অসমর্থ কাঠ ও প্রস্তরখণ্ডের-সেবা করিবে । কিন্তু সেখানে থাকিয় যদি তোমরা আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর অন্বেষণ কর, তবে তাহার উদ্দেশ পাইবে ; সমস্ত হৃদয়ের সহিত ও সমস্ত প্রাণের সহিত তাহার অন্বেষণ ৩০ করিলেই পাইবে । যখন তোমার সঙ্কট উপস্থিত হয়, এবং এই সমস্ত তোমার প্রতি ঘটে, তখন সেই ভাবী কালে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর প্রতি ফিরিবে, ও ৩১ তাহার রবে অবধান করিবে । কারণ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু কৃপাময় ঈশ্বর ; তিনি তোমাকে ত্যাগ করিবেন না, তোমাকে বিনাশ করিবেন না, এবং দিব্য দ্বারা তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে যে নিয়ম করিয়া৩২ ছেন, তাহ ভুলিয়। যাইবেন না। কারণ, পৃথিবীতে ঈশ্বর কর্তৃক মনুষ্যের স্বষ্টিদিনাবধি তোমার পূৰ্ব্বে যে কাল গিয়াছে, সেই পুরাতন কালকে এবং আকাশমণ্ডলের এক প্রান্ত হইতে অন্ত প্রান্তকে জিজ্ঞাসা কর, এই মহাকার্য্যের তুল্য কাৰ্য্য কি আর কখনও হইয়াছে ? ৩৩ কিম্বা এমন কি শুনা গিয়াছে ? তোমার মত কি আর কোন জাতি অগ্নির মধ্য হইতে বাক্যবাদী ঈশ্বরের রব ৩৪ শুনিয়া বাচিয়াছে ? কিম্বা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু মিসরে তোমাদের সাক্ষাতে যে সকল কৰ্ম্ম করিয়াছেন, ঈশ্বর কি তদনুসারে গিয়া পরীক্ষসিদ্ধ প্রমাণ, চিহ্ন, অদ্ভুত লক্ষণ, যুদ্ধ, বলবান হস্ত, বিস্তারিত বাহু ও ভয়ঙ্কর মহামহাকৰ্ম্ম দ্বারা অন্ত জাতির মধ্য হইতে আপনার জন্ত এক জাতি গ্রহণ করিতে উপক্রম করি৩৫ য়াছেন? সদাপ্রভুই ঈশ্বর, তিনি ব্যতীত আর কেহ নাই, ইহা যেন তুমি জ্ঞাত হও, তন্নিমিত্তে ঐ সকল ৩৬ তোমাকেই প্রদর্শিত হইল। উপদেশ দিবীর জন্ত তিনি স্বৰ্গ হইতে তোমাকে আপন রব শুনাইলেন, ও পৃথি 8 ; २8 - 36 দ্বিতীয় বিবরণ । > @ ○ বীতে তোমাকে আপন মহা অগ্নি দেখাইলেন, এবং তুমি অগ্নির মধ্য হইতে তাহার বাক্য শুনিতে পাইলে। ৩৭ তিনি তোমার পিতৃপুরুষদিগকে প্রেম করিতেন, তাই তাহাদের পরে তাহদের বংশকেও মনোনীত করিলেন, এবং আপন শ্ৰীমুখ ও মহাপরাক্রম দ্বারা তোমাকে ৩৮ মিসর দেশ হইতে বাহির করিয়া আনিলেন ; যেন তোমা অপেক্ষ মহান ও বিক্রমী জাতিদিগকে তোমার সম্মুখ হইতে দূর করিয়া তাহদের দেশে তোমাকে প্রবেশ করান, ও অধিকারার্থে তোমাকে সে দেশ দেন, ৩৯ যেমন অদ্য দেখিতেছ। অতএব অদ্য জ্ঞাত হও, মনে রখ যে, উপরিস্থ স্বর্গে ও নীচস্থ পৃথিবীতে সদাপ্রভুই ৪০ ঈশ্বর, অন্ত কেহ নাই । আর তোমার মঙ্গল ও তোমার ভাবী সন্তানগণের মঙ্গল যেন হয়, এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে ভূমি চিরকালের জন্ত দিতেছেন, তাহার উপরে যেন তোমার দীর্ঘ পরমায়ু হয়, এই জন্য আমি তাহার যে সকল বিধি ও আজ্ঞা অদ্য তোমাকে আদেশ করিলাম, তাহ পালন করিও । ৪১ তৎকালে মোশি যদ্দনের পারে হুর্য্যোদয়ের দিকে ৪২ তিনটা নগর পৃথক্ করিলেন ; যেন নরহন্ত। সেখানে পলায়ন করিতে পারে: যে কেহ আপন প্রতিবাসীকে পুৰ্ব্বে দ্বেষ না করিয়া অজ্ঞানতঃ বধ করে, সে যেন এই সকলের মধ্যে কোন নগরে পলাইয়া বাচিতে ৪৩ পারে ; নগর তিনটী এই এই, রূবেণীয়দের জন্য সমভূমিতে প্রান্তরস্থ বেৎসর, গাদীয়দের জন্ত গিলিয়দস্থিত রামোৎ, এবং মনঃশীয়দের জন্ত বাশনস্থিত গেলেন। মোশির দ্বিতীয় বক্তৃত । দশ আজ্ঞার পুনরুক্তি । ৪৪ মোশি ইস্রায়েল-সন্তানগণের সম্মুখে এই ব্যবস্থ ৪৫ স্থাপন করিয়াছিলেন ; মিসর হইতে বাহির হইয়া আসিলে মোশি যদিনের পুৰ্ব্বপারে, বৈৎ-পিয়োরের সম্মুখস্থ উপত্যকাতে, হিৰ্ষবোন নিবাসী ইমোরীয় রাজা সৗহোনের দেশে ইস্রায়েল-সন্তানগণের কাছে এই সকল প্রমাণবাক্য, বিধি ও শাসন বিবৃত করিয়াছিলেন। ৪৬ মিসর হইতে বাহির হইয়া আসিলে মোশি ও ইস্রায়েল৪৭ সন্তানগণ সেই রাজাকে আঘাত করিয়াছিলেন ; এবং তাহার ও বাশনের রাজা ওগের দেশ, যদিনের পূর্বপারে সুৰ্য্যোদয়ের দিকে ইমোরীয়দের এই দুই রাজার ৪৮ দেশ, অর্ণোন উপত্যকার সীমাস্থ অরোয়ের অবধি ৪৯ সাঁওন পৰ্ব্বত অর্থাৎ হর্মোণ পৰ্য্যন্ত সমস্ত দেশ, এবং পিস্গাপার্থের অধঃস্থিত অরবি তলভূমির সমুদ্র পর্যন্ত যর্দনের পুর্ধ্বপারস্থ সমস্ত আরাবী তলভূমি অধিকার করিয়ছিলেন । {{ তখন মোশি সমস্ত ইস্রায়েলকে ডাকিলেন, ও তাহাদিগকে কহিলেন, হে ইস্রায়েল, আমি তোমাদের কর্ণগোচরে অদ্য যে সকল বিধি ও শাসন 153 * G 8 বলি, সে সকল শুন, তোমরা তাহ শিক্ষা কর, ও ২ যত্নপূর্বক পালন কর । আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু হোরেবে আমাদের সহিত এক নিয়ম করিয়াছেন । ও সদাপ্রভু আমাদের পিতৃপুরুষদের সহিত সেই নিয়ম করেন নাই, কিন্তু অদ্য এই স্থানে সকলে জীবিত ৪ আছি যে আমর, আমাদেরই সহিত করিয়াছেন। সদাপ্রভু পৰ্ব্বতে অগ্নির মধ্য হইতে তোমাদের সহিত ও সম্মুখাসম্মুখি হইয়৷ কথা বলিলেন। সেই সময়ে আমিই তোমাদিগকে সদাপ্রভুর বাক্য জ্ঞাত করিবার জন্ত সদাপ্রভুর ও তোমাদের মধ্যে দণ্ডায়মান ছিলাম ; কেননা অগ্নি হইতে ভীত হওয়াতে তোমরা পৰ্ব্বতে উঠ নাই । তিনি বলিলেন, ৬ আমি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু, যিনি মিসর দেশ হইতে, দাস-গৃহ হইতে, তোমাকে বাহির করিয়া আনিলেন । ৭ আমার সাক্ষাতে তোমার অন্ত দেবতা না থাকুক । ৮ তুমি আপনার নিমিত্তে ক্ষোদিত প্রতিমা নিৰ্ম্মাণ করিও না ; উপরিস্থ স্বর্গ, নীচস্থ পৃথিবীতে ও পৃথিবীর নীচস্থ জলে যাহ। ঘাই আছে, তাহীদের কোন ৯ মূৰ্ত্তি নিৰ্ম্মাণ করিও না ; তুমি তাহদের কাছে প্রণিপাত করিও না, এবং তাহদের সেবা করিও না ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আমি স্বগৌরব রক্ষণে উদযোগী ঈশ্বর ; আমি পিতৃগণের অপরাধের প্রতিফল সন্তানদিগের উপরে বর্তীই, যাহারা আমাকে দ্বেষ করে, তাহদের তৃতীয় চতুর্থ পুরুষ পৰ্য্যন্ত বৰ্ত্তাই ; ১০ কিন্তু যাহারা আমাকে প্রেম করে ও আমার অজ্ঞা সকল পালন করে, অামি তাহদের সহস্র [পুরুষ] পৰ্য্যন্ত দয়া করি । তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর নাম অনৰ্থক লইও না, কেনন যে কেহ তাহার নাম অনৰ্থক লয়, সদাপ্ৰভু তাহাকে নির্দোষ করিবেন না । ১২ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞানুসারে বিশ্রামদিন ১৩ পালন করিয়া পবিত্র করিও । ছয় দিন শ্রম করিও, ১৪ আপনার সমস্ত কাৰ্য্য করিও; কিন্তু সপ্তম দিন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে বিশ্রামদিন ; সেই দিন তুমি কি তোমার পুত্র কি কস্তা, কি তোমার দাস কে দাসী, কি তোমার গোরু, কি গর্দভ, কি অন্ত কোন পশু, কি তোমার পুরদ্বারের মধ্যবত্তী বিদেশী, কেহ কোন কাৰ্য্য করিও না ; তোমার দাস ও তোমার ১৫ দাসী যেন তোমার দ্যায় বিশ্রাম পায়। স্মরণে রাখিও, মিসর দেশে তুমি দাস ছিলে, কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদtপ্রভু বলবান হস্ত ও বিস্তারিত বাহু দ্বারা তথা হইতে তোমাকে বাহির করিয়৷ অনিলেন ; এই জন্ত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু বিশ্রামদিন পালন করিতে তোমাকে আজ্ঞা করিয়াছেন । তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞানুসারে তোমার পিতাকে ও তোমার মাতাকে সমাদর করিও ; যেন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দেন, Y 3 > 。 দ্বিতীয় বিবরণ। [ ৫ ; ২ – ৩২ ৷ সেই দেশে তোমার দীর্ঘ পরমাৰু হয় ও তুমি মঙ্গল 의 33 || ১৭ নরহত্য করিও না । ১৮ ব্যভিচার করিও না । ১৯ চুরি করিও না । • ২• তুমি প্রতিবাসীর বিরুদ্ধে মিথ্য সাক্ষ্য দিও না । ২১ তোমার প্রতিবাসীর স্ত্রীতে লোভ করিও না : প্রতিবাসীর গৃহে কি ক্ষেত্রে, কিম্ব তাহার দাসে কি দাসীতে, কিম্বা তাহার গোরুতে কি গর্দভে, প্রতিবাসীর কোন বস্তুতেই লোভ করিও না । সদাপ্রভু পৰ্ব্বতে অগ্নির, মেঘের ও ঘোর অন্ধকারের মধ্য হইতে তোমাদের সমস্ত সমাজের নিকটে এই সমস্ত বাক্য মহারবে বলিয়াছিলেন, আর কিছুই বলেন নাই। পরে তিনি এই সমস্ত কথা দুইখান প্রস্তরফলকে ২৩ লিখিয়া আমাকে দিয়াছিলেন । কিন্তু যখন তোমরা অন্ধকারের মধ্য হইতে সেই রব শুনিতে পাইলে, এবং অগ্নিতে পৰ্ব্বত জ্বলিতেছিল, তখন তোমরা, তোমাদের বংশীধ্যক্ষগণ ও প্রাচীনগণ সকলে আমার নিকটে ২৪ আসিয়া কাহলে, দেখ, আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাদের কাছে আপন প্রতাপ ও মহম। প্রদর্শন করিলেন, এবং আমরা অগ্নির মধ্য হইতে তাহার রব শুনিতে পাইলাম ; মনুষ্যের সহিত ঈশ্বর কথা কহিলেও সে ২৫ বাচিতে পারে, ইহ। আমরা অদ্য দেখলাম। কিন্তু আমরা এখন কেন মরিব ? ঐ মহ। অগ্নি ত অামাদিগকে গ্রাস করিবে ; আমরা যদি আমাদের ঈশ্বর ২৬ সদাপ্রভুর রব আবার শুনি, তবে মারা পড়িব । কেননা যাহার। মাংসময়, তাহাঁদের মধ্যে এমন কে আছে যে, আমাদের ছায় অগ্নির মধ্য হইতে বা ক্যবাদী জীবৎ ২৭ ঈশ্বরের রব শুনিয়া বাচিয়াছে ? তুমিই নিকটে গিয়া আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু যে সমস্ত কথা কহেন, তাহী শুন ; আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যাহা যাহা বলিবেন, সেই সমস্ত কথা তুমি আমাদিগকে বলিও ; আমরা তাহ শুনিয়া পালন করব । তোমরা যখন আমাকে এই কথা কহিলে, তখন সদাপ্রভু তোমাদের সেই বাক্যের রব শুনিলেন; আর সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, এই লোকের তোমাকে যাহ। যহ বলিয়াছে, সেই বাক্যের রব আমি শুনিলাম ; উহারা যাহ। যাহা বলিয়াছে, সে সমস্ত ভালই ২৯ বলিয়াছে । আহা, সৰ্ব্বদ। আমাকে ভয় করিতে ও আমার আজ্ঞ সকল পালন করিতে যদি উহাদের এইরূপ মন থাকে, তবে উহাদের ও উহাদের সন্তান৩০ দের চিরস্থায়ী মঙ্গল হইবে । তুমি যাও, উহাদিগকে ৩১ আপন আপন তাম্বুতে ফিরিয়৷ যাইতে বল। কিন্তু তুমি আমার নিকটে এই স্থানে দাড়াও, তুমি উহাদিগকে যাই যাহা শিক্ষ। দিবে, আম তোমাকে সেই সমস্ত আজ্ঞ, বিধি ও শাসন বলয় দিই ; যেন আমি যে দেশ অধিকারাথে উহাদিগকে দিতেছি, সেই ৩২ দেশে উহার তাহ পালন করে । অতএব তোমাদের ーペ ミbr 154 ৫ ; ৩৩ – ৭ ; ২ । ] ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদিগকে যেমন আজ্ঞা করিলেন, তাহা যত্বপূর্বক পালন করিবে, তাহার দক্ষিণে কি ৩৩ বামে ফিরিবে না। তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদিগকে যে যে পথে চলিবার আজ্ঞা দিলেন, সেই সমস্ত পথে চলিবে ; যেন তোমরা বাচিতে পার ও তোমাদের মঙ্গল হয়, এবং যে দেশ তোমরা অধিকার করবে, তথায় তোমাদের দীর্ঘ পরমায়ু হয়। আজ্ঞাবহ হইতে অনুরোধ । Wり তোমাদিগকে শিক্ষা দিবীর নিমিত্তে তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আমাকে এই আজ্ঞ, ও এই এই বিধি ও শাসন আদেশ করিয়াছেন ; যেন তোমরা যে দেশ অধিকার করিতে পার হইয়। যাইতেছ, সেই ২ দেশে সে সমস্ত পালন কর; যেন তাপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় করিয়া তুমি, তোমার পুত্র ও তোমার পোত্ৰাদি যাবজ্জীবন আমার আজ্ঞাপিত তাহার এই আজ্ঞা ও বিধি সকল পালন কর, এই রূপে যেন ৩ তোমার দীর্ঘ পরমায়ু হয়। অতএব হে ইস্রায়েল, শুন, এ সমস্ত যত্বপূর্বক পালন করিও, তাহাতে তোমার পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যেরূপ বলিয়াছেন, তদনুসারে দুগ্ধমধুপ্রবাহী দেশে তোমার মঙ্গল হইবে ও তোমরা অতিশয় বদ্ধিষ্ণু হইবে। ৪ হে ইস্রায়েল, শুন ; আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু একই ৫ সদাপ্রভু ; আর তুমি তোমার সমস্ত হৃদয়, তোমার সমস্ত প্রাণ ও তোমার সমস্ত শক্তি দিয়া আপন ঈশ্বর ৬ সদাপ্রভুকে প্রেম করবে। আর এই যে সকল কথা আমি অদ্য তোমাকে আজ্ঞা করি, তাহা তোমার ৭ হৃদয়ে থাকুক। আর তোমরা প্রত্যেকে আপন আপন সন্তানগণকে এ সকল যত্নপূর্বক শিক্ষা দিবে, এবং গৃহে বসিবার কিম্বা পথে চলিবার সময়ে এবং শয়ন কিম্ব গাত্ৰোখান কালে ঐ সমস্তের কথোপকথন ৮ করিবে । আর তোমার হস্তে চিহ্নস্বরূপে সে সকল বাধিয়। রাখিবে, ও সে সকল ভূষণস্বরূপে তোমার দুই ৯ চক্ষুর মধ্যস্থানে থাকিবে। আর তোমার গৃহদ্বারের কপালে ও তোমার বহিদ্বারে তাহ লিখিয়া রাখবে। ১০ তোমার পিতৃপুরুষ অব্রাহীমের, ইস্হাকের ও যাকোবের কাছে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দিতে শপথ করিয়াছেন, সেই দেশে তিনি তোমাকে উপস্থিত করিলে পর তুমি যাহা গাথ নাই, এমন বৃহৎ ১১ বৃহৎ ও সুন্দর স্বন্দর নগর, এবং যাহাতে কিছুই সঞ্চয় কর নাই, উত্তম উত্তম দ্রব্যে পরিপূর্ণ এমন সকল গৃহ, ও যাহা খুদ নাই, এমন সকল খনিত কুপ, এবং যাই। প্রস্তুত কর নাই, এমন সকল দ্রাক্ষাক্ষেত্র ও জিতক্ষেত্র ১২ পাইয়। যখন তুমি ভোজন করিয়া তৃপ্ত হইবে, তৎকালে আপনার বিষয়ে সাবধান থাকিও, যিনি মিসর দেশ হইতে, দাস-গৃহ হইতে, তোমাকে বtiহর করিয়া অliনয়াছেন, সেই সদাপ্রভুকে ভুলিয়া যাইও না । ১৩ তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকেই ভয় করবে, তাহারই দ্বিতীয় বিবরণ। > G. & সেবা করিবে, ও তাঁহারই নাম লইয়া দিব্য করবে। ১৪ তোমরা অস্ত্য দেবগণের, চারিদিকের জাতিদের দেব১৫ গণের অনুগামী হইও না ; কেননা তোমার মধ্যবৰ্ত্তী তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু স্বগৌরব রক্ষণে উদ্‌যাগী ঈশ্বর। সাবধান, পাছে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর ক্রোধ তোমার প্রতিকুলে প্রজ্বলিত হয়, আর তিনি ভুমণ্ডল হইতে তোমাকে উচ্ছিন্ন করেন। ১৬ তোমরা মঃসাতে যেমন করিয়াছিলে, তেমনি আপ১৭ নাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর পরীক্ষা করিও না । তোমরা আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আদিষ্ট তাজ্ঞ, প্রমাণবাক্য ১৮ ও বিধি সকল যত্নপূর্বক পালন করিবে। তার সদাপ্রভুর দৃষ্টিতে যাহা হায্য ও উত্তম, তাহাই করবে, যেন তোমার মঙ্গল হয় ; এবং সদাপ্রভু যে দেশের বিষয়ে তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে এই দিব্য করিয়াছেন যে, তিনি তোমার সম্মুখ হইতে তোমার সমুদয় ১৯ শক্র দূরীকৃত করিবেন, যেন তুমি সদাপ্রভুর বাক্যনুসারে সেই উত্তম দেশে প্রবেশ করিয়া তাহ অধিকার করিতে পার। ভাবী কালে যখন তোমার সন্তান জিজ্ঞাসা করিবে, আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদিগকে যে সকল প্রমাণবাক্য, বিধি ও শাসন দিয়াছেন, সে সকল কি ? ২১ তখন তুমি আপন সন্তানকে বলিবে, আমরা মিসর দেশে ফরেীণের দাস ছিলাম, আর সদাপ্রভু বলবান হস্ত দ্বারা মিসর হইতে আমাদিগকে বাহির করিয়া ২২ আনিলেন ; এবং আমাদের সাক্ষাতে সদাপ্রভু মিসরে, ফরেণে ও তাহার সমস্ত কুলে মহৎ ও ক্লেশদায়ক নানা ২৩ চিহ্ন ও অদ্ভুত লক্ষণ দেখাইলেন। আর তিনি অমাদিগকে তথা হইতে বাহির করিয়৷ অনিলেন, যেন আমাদের পিতৃপুরুষদের কাছে যে দেশের বিষয় দিব্য করিয়াছিলেন, সেই দেশ অমাদিগকে দিবার জন্য ২৪ তথায় পহুছইয়া দেন। আর সদপ্রভু আমাদিগকে এই সমস্ত বিধি পালন করিতে, আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় করিতে অজ্ঞা করিলেন, যেন যাবজ্জীবন আমাদের মঙ্গল হয়, তার তিনি অদ্যকার মত যেন ২৫ আমাদিগকে জীবিত রাখেন। আর আমরা আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞানুসারে তাহার সম্মুখে এই সমস্ত বিধি যত্বপূর্বক পালন করিলে আমাদের ধাৰ্ম্মিকতা হইবে । R ø কনানীয়দের হইতে পৃথক্ থাকিতে আদেশ । R তুমি যে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, সেই দেশে যখন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে লইয়া যাইবেন, ও তোমার সম্মুখ হইতে অনেক জাতিকে, হিৰ্ত্তীয়, গির্গশীয়, ইমোরীয়, কনানীয়,পরিষীয়, হিববীয় ও বিবুধীয়, তোমা হইতে বৃহৎ ও বলবান এই সাত ই জাতিকে, দূর করবেন ; আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু 155 * @ や যখন তোমার সম্মুখে তাহাদিগকে সমর্পণ করিবেন, এবং তুমি তাহাদিগকে আঘাত করিবে, তখন তাহাদিগকে নিঃশেষে বিনষ্ট করিবে ; তাহীদের সহিত কোন নিয়ম ৩ করিবে না, বা তাহদের প্রতি দয়া করিবে না। আর তাহাদের সহিত বিবাহ-সম্বন্ধ করিবে না ; তুমি তাহার পুত্রকে আপনার কষ্ঠ দিবে না, ও আপন পুত্রের জন্ত ৪ তাহার কন্ত গ্রহণ করিবে না । কেননা সে তোমার সন্তানকে আমার অনুগমন হইতে ফিরাইবে, আর তাহার অন্ত দেবগণের সেবা করিবে ; তাই তোমাদের প্রতি সদাপ্রভুর ক্রোধ প্রজ্বলিত হইবে, এবং ৫ তিনি তোমাকে শীঘ্ৰ বিনষ্ট করিবেন । কিন্তু তোমরা তাহীদের প্রতি এইরূপ ব্যবহার করিবে ; তাহদের যজ্ঞবেদি সকল উৎপাটন করিবে, তাহাদের স্তম্ভ সকল ভাঙ্গিয়া ফেলিবে, তাহীদের আশের-মূৰ্ত্তি সকল ছেদন করিবে, এবং তাহদের ক্ষোদিত প্রতিমা সকল অগ্নিতে ৬ পোড়াইয় দিবে। কেননা তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর পবিত্র প্রজী ; ভূতলে যত জাতি আছে, সে সকলের ধ্যে আপনার নিজস্ব প্রজা করিবার জন্ত তোমার ঈশ্বর ৭ সদাপ্রভু তোমাকেই মনোনীত করিয়াছেন। অন্ত সকল জাতি অপেক্ষ। তোমর সংখ্যাতে অধিক, এই জন্ত যে সদাপ্রভু তোমাদিগকে স্নেহ করিয়াছেন ও মনোনীত করিয়াছেন, তাহ নয় ; কেননা সমস্ত জাতির মধ্যে ৮ তোমরা অল্পসংখ্যক ছিলে। কিন্তু সদাপ্রভু তোমাদিগকে প্রেম করেন, এবং তোমাদের পিতৃপুরুষদের কাছে যে দিব্য করিয়াছেন, তাহ রক্ষা করেন, তন্নিমিত্ত সদাপ্রভু বলবান হস্ত দ্বারা তোমাদিগকে বাহির করিয়া আনিয়াছেন, এবং দাস-গৃহ হইতে, মিসর-রাজ ফরোণের হস্ত হইতে, তোমাদিগকে মুক্ত করিয়াছেন। ৯ অতএব তুমি জ্ঞাত হও, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুই ঈশ্বর ; তিনি বিশ্বসনীয় ঈশ্বর, যাহার। তাহাকে প্রেম করে, ও তাহার আজ্ঞা পালন করে, তাহদের পক্ষে সহস্র পুরুষ = ০ পৰ্য্যন্ত নিয়ম ও দয়া রক্ষা করেন। কিন্তু যাহারা তাহাকে দ্বেষ করে, তাহাদিগকে সংহার করিতে তাহীদের সাক্ষাতেই তাহাদিগকে প্রতিফল দেন ; তিনি তাহার বিদ্বেষীর বিষয়ে বিলম্ব করেন না, তাহার সাক্ষাতেই ১১ তাহাক প্রতিফল দেন। অতএব আমি অদ্য তোমাকে যে আজ্ঞা, ও যে সকল বিধি ও ব্যবস্থা বলি, সে সকল যত্বপূর্বক পালন করিবে । তোমরা যদি এই সকল শাসন শুন, এ সমস্ত রক্ষা ও পালন কর, তবে তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে যে নিয়ম ও দয়ার বিষয়ে দিব্য 2৩ করিয়াছেন, তোমার পক্ষে তাহ রক্ষা করিবেন ; এবং তিনি তোমাকে প্রেম করিবেন, আশীৰ্ব্বাদ করবেন ও বদ্ধিষ্ণু করবেন ; আর তিনি যে দেশ তোমাক দিতে তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে দিব্য করিয়াছেন, সেই দেশে তোমার শরীরের ফল, তোমার ভূমির ফল, তোমার শস্ত, তোমার দ্রীক্ষারস, তোমার তৈল, তোমার গোরু দের বৎস ও তোমার মেধীদের শাবক, এই সকলেতে > R দ্বিতীয় বিবরণ। [ १ ; ७-२७ ।। ১৪ আশীৰ্ব্বাদ করবেন। সকল জাতির মধ্যে তুমি আশীঃপ্রাপ্ত হইবে, তোমার মধ্যে কি তোমার পশুগণের মধ্যে কোন পুরুষ কিম্বা কোন স্ত্রী নিঃসন্তান হইবে না। ১৫ আর সদাপ্রভু তোমা হইতে সমস্ত ব্যাধি দূর করবেন ; এবং মিস্ট্রীয়দের যে সকল উৎকট রোগ তুমি জ্ঞাত আছ, তাই তোমাকে দিবেন না, কিন্তু তোমার সমুদয় ১৬ বিদ্বেষীকে দিবেন। আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু তোমার হস্তে যে সমস্ত জাতিকে সমর্পণ করিবেন, তুমি তাহাদিগকে কবলিত করিবে ; তোমার চক্ষু তাহীদের প্রতি দয়া না করুক, এবং তুমি তাহদের দেবগণের সেবা করিও না, কেননা তাহা তোমার ফাদস্বরূপ । ১৭ যদি তুমি মনে মনে বল, এই জাতিগণ আম হইতেও বহুসংখ্যক, আমি কেমন করিয়া ইহাদিগকে অধি১৮ কারচু্যত করিব ? তুমি তাহদের হইতে ভীত হইও ন ; তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু ফরোণের ও সমস্ত মিসরের ১৯ প্রতি যাহা করিয়াছেন, আর পরীক্ষণসিদ্ধ যে সকল প্রমাণ তুমি স্বচক্ষে দেখিয়াছ, এবং যে সকল চিহ্ন, অদ্ভুত লক্ষণ, এবং যে বলবান হস্ত ও বিস্তারিত বাহু দ্বারা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে বাহির করিয়া আনিয়াছেন, সেই সকল নিশ্চয়ই স্মরণে রাখিবে ; তুমি যাহাদিগকে ভয় করিতেছ, সেই সমস্ত জাতির প্রতি ২• তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তদ্রুপ করিবেন। তদ্ভিন্ন যাহার অবশিষ্ট থাকিয় তেম৷ হইতে আপনাদিগকে গোপন করিবে, যাবৎ তাহীদের বিনাশ না হয়, তাবৎ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তাহদের মধ্যে ভিমরুল প্রেরণ করি ২১ বেন । তুমি তাহীদের হইতে ত্ৰাসযুক্ত হইও না, কেনন। তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার মধ্যবৰ্ত্তী, তিনি মহান ২২ ও ভয়ঙ্কর ঈশ্বর। আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সন্মুখ হইতে ঐ জাতিগণকে অল্পে অল্প দূর করিবেন; তুমি তাহাদিগকে সম্পূর্ণরূপে বিনষ্ট করিতে পরিবে না, পাছে তোমার প্রতিকূলে বনপশুগণ বৰ্দ্ধিত হয়। ২৩ কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সম্মুখে তাহা দিগকে সমপণ করিবেন ; এবং যে পৰ্য্যন্ত তাহার। বিনষ্ট না হয়, তাবৎ মহাব্যাকুলতায় তাহাদিগকে, ২৪ ব্যাকুল কারবেন। আর তিনি তাহীদের রাজগণকে তোমার হস্তগত করিবেন, এবং তুমি আকাশমণ্ডলের নীচে হইতে তাহদের নাম লোপ করিবে ; যে পৰ্য্যন্ত তাহাদিগকে বিনষ্ট না করিবে, তাবৎ তোমার সম্মুখে কেহ দাড়াইতে পরিবে না। তোমরা তাহীদের ক্ষোদিত দেবপ্রতিমা সকল অগ্নিতে পোড়াইয়া দিবে ; তুমি যেন ফাদে না পড়, এই জষ্ঠ তাহদের গাত্রের রৌপ্যে কি স্বর্ণে লোভ করিবে না, ও আপনার জন্ত তাহা গ্রহণ করিবে না, কেনন। ২৬ তাহ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর ঘৃণিত বস্তু ; আর তুমি ঘৃণিত বস্তু আপন গৃহে আনিবে না, পাছে তাহার মত বর্জিত হও ; কিন্তু তাহ অতিশয় ঘৃণা করিবে, ও অতিশয় অবজ্ঞা করিবে, যেহেতুক তাই বজ্জনীয় বস্ত ।

156 ly ; ) = ఎ ; ఆ | ] ইস্রায়েলের প্রতি ঈশ্বরের দয়া। Ե- অদ্য আমি তোমাদিগকে যে সকল আজ্ঞা দিতেছি, তোমরা যত্নপুৰ্ব্বক সে সকল পালন করিবে, যেন বঁচিতে পার ও বৃদ্ধি পাও, এবং সদাপ্রভু যে দেশের বিষয়ে তোমাদের পিতৃপুরুষদের কাছে দিব্য করিয়াছেন, সেই দেশে প্রবেশ করিয়া তাহ অধিকার ২ কর। আর তুমি সেই সমস্ত পথ স্মরণে রাখিবে, যে পথে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে এই চল্লিশ বৎসর প্রান্তরে যাত্রা করাইয়াছেন, যেন তোমার পরীক্ষা করিবার নিমিত্তে, অর্থাৎ তুমি তাহার আজ্ঞা পালন করিবে কি না, এই বিষয়ে তোমার মনে কি আছে ৩ জানিবার নিমিত্তে তোমাকে নত করেন । তিনি তোমাকে নত করিলেন, ও তোমাকে ক্ষুধিত করিয়া তোমার অজ্ঞাত ও তোমার পিতৃপুরুষদের অজ্ঞাত মান্ন। দিয়া প্রতিপালন করিলেন; যেন তিনি তোমাকে জানাইতে পারেন যে, মনুষ্য কেবল রুটীতে বাচে না, কিন্তু সদাপ্রভুর মুখ হইতে যাহা যাহ নিৰ্গত হয়, তাহতেই ৪ মনুষ্য বাচে। এই চল্লিশ বৎসর তোমার গাত্রে তোমার ৫ বস্ত্র জীর্ণ হয় নাই, ও তোমার পা ফুলে নাই। আর মনে বুঝিয়া দেখ, মনুষ্য যেমন আপন পুত্রকে শাসন করে, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে তদ্রুপ শাসন করেন। ৬ আর তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞ সকল পালন করিয়া তাহার পথে গমন করিবে, ও তাঁহাকে ভয় ৭ করবে। কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে এক উত্তম দেশে লইয়া যাইতেছেন ; সেই দেশে উপত্যকা ও পৰ্ব্বত হইতে নির্গত জলস্রোত, উলুই ও ৮ গভীর জলাশয় আছে : সেই দেশে গোধুম, যব, দ্রাক্ষীলতা, ডুমুর গাছ ও দাড়িম্ব, এবং তৈলদায়ক জিতত্ত্বক্ষ ৯ ও মধু উৎপন্ন হয় ; সেই দেশে আহারের বিষয়ে ব্যয়কুণ্ঠ হইতে হইবে না, তোমার কোন বস্তুর অভাব হইবে না; সেই দেশের প্রস্তর লৌহ, ও তথাকার পর্বত হইতে ১০ তুমি পিত্তল খুদিবে। আর তুমি ভোজন করিয়া তৃপ্ত হইবে, এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর দত্ত সেই উত্তম ১১ দেশের নিমিত্ত তাহার ধন্যবাদ করিবে । সাবধান, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভুলিয়া যাইও না ; আমি আদ্য র্তাহার যে সকল আজ্ঞা, শাসন ও বিধি তোমাকে ১২ দিতেছি, সে সকল পালন করিতে ক্ৰটি করিও না। তুমি ভোজন করিয়া তৃপ্ত হইলে, উত্তম গৃহ নিৰ্ম্মাণ করিয়া ১৩ বাস করিলে, তোমার গোমেষাদির পাল বৃদ্ধি পাইলে, তোমার স্বর্ণ ও রৌপ্য বৃদ্ধি পাইলে, এবং তোমার ১৪ সকল সম্পত্তি বৃদ্ধি পাইলে তোমার চিত্তকে দপিত হইতে দিও না ; এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভুলিয়। যাইও না, যিনি মিসর দেশ হইতে, দাস-গৃহ হইতে, ১৫ তোমাকে বাহির করিয়া অনিয়াছেন ; যিনি সেই ভয়ানক মহাপ্রান্তর দিয়া, জ্বালাদায়ী বিষধর ও বৃশ্চিকে পরিপূর্ণ নির্জল মরুভূমি দিয়া, তোমাকে গমন করাইলেন, এবং চক্ৰমকিপ্রস্তরময় শৈল হইতে তোমার দ্বিতীয় বিবরণ। S C & ১৬ নিমিত্তে জল নির্গত করিলেন ; যিনি তোমার পিতৃপুরুষদের অজ্ঞাত মান্না দ্বারা প্রান্তরে তোমাকে প্রতিপালন করিলেন ; যেন তিনি তোমার ভাবী মঙ্গলার্থে তোমাকে নত করিতে ও তোমার পরীক্ষা করিতে ১৭ পারেন। আর মনে মনে বলিও না যে, আমারই পরাক্রমে ও বাহুবলে আমি এই সকল ঐশ্বৰ্য্য পাইয়াছি। ১৮ কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুকে স্মরণে রাখিবে, কেননা তিনি তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে আপনার যে নিয়ম বিষয়ক দিব্য করিয়াছেন, তাহ অদ্যকার মত স্থির করণার্থে তিনিই তোমাকে ঐশ্বৰ্য্য লাভের সামর্থ্য ১৯ দিলেন। আর যদি তুমি কোন প্রকারে আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভুলিয় যাও, অন্ত দেবগণের পশ্চাদগামী হও, তাহীদের সেবা কর, ও তাহদের কাছে প্ৰণিপাত কর, তবে আমি তোমাদের বিরুদ্ধে অদ্য এই সাক্ষ্য ২• দিতেছি, তোমরা নিশ্চয়ই বিনষ্ট হইবে । তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে কর্ণপাত না করিলে, তোমাদের সম্মুখে সদাপ্রভু যে জাতিগণকে বিনষ্ট করিতেছেন, তাহাদেরই দ্যায় তোমরা বিনষ্ট হইবে । ইস্রায়েলীয়দের পুনঃ পুনঃ বচসা ও অবাধ্যতার বিবরণ । > . . ইস্রায়েল, শুন, তুমি আপন হইতে মহান ও বলবান জাতিগণকে, গগনস্পশী প্রাচীরে বেষ্টিত বৃহৎ নগর সকলকে, অধিকারচু্যত করিতে অদ্য যদ্দন ২ পার হইয়। যাইতেছ ; সেই জাতি বৃহৎ ও দীর্ঘকায়, তাহার। অনাকীয়দের সন্তান ; তুমি তাহাদিগকে জান, আর তাহীদের বিষয়ে তু ম ত এ কথা শুনিয়াছ যে, ৩ অনাক সন্তানদের সম্মুখে কে দাড়াইতে পারে ? কিন্তু অদ্য তুমি ইহা জ্ঞাত হও যে, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আপনি গ্রাসকারী অগ্নিস্বরূপে তোমার অগ্ৰে অগ্ৰে যাইতেছেন ; তিনি তাহাদিগকে সংহার করিবেন, তাহাদিগকে তোমার সম্মুখে নত করিবেন ; তাহাতে সদাপ্রভু তোমাকে যেমন বলিয়াছেন, তেমনি তুমি তাহাদিগকে অধিকারচু্যত ও ত্বরায় বিনষ্ট করিবে । ৪ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যখন তোমার সন্মুখ হইতে তাহাদিগকে তাড়াইয়া দিবেন, তখন মনে মনে এমন ভাবিও না যে, আমার ধাৰ্ম্মিকতা প্রযুক্ত সদাপ্রভু আমাকে এই দেশ আধিকার করাইতে আনিয়াছেন । বাস্তবিক সেই জাতিদের দুষ্টত প্রযুক্তই সদাপ্রভু তাহt৫ দিগকে তোমার সম্মুখে অধিকারচু্যত করিবেন। তোমার ধাৰ্ম্মিকত কিম্বা হৃদয়ের সরলতা প্রযুক্ত তুমি যে তাহীদের দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, তাহ নয় : কিন্তু সেই জাতিদের দুষ্টত প্রযুক্ত, এবং তোমার পিতৃপুরুষ তীব্রাহাম, ইসহাক ও যাকোবের কাছে দিব্য দ্বারা প্রতিশ্রুত আপনার বাক্য সফল করিবার অভিপ্রায়ে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সম্মুখে তাহী৬ দিগকে অধিকারচু্যত করিবেন। অতএব জানিও যে, 157 ○ @ シ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যে তোমার ধাৰ্ম্মিকতার জন্ত অধিকারাথে তোমাকে এই উত্তম দেশ দিবেন, তাহ। নয় ; কেননা তুমি শক্তগ্রীব জাতি। ৭ তুমি প্রান্তরের মধ্যে আপন ঈশ্বর গদাপ্রভুকে যেরূপ । অসন্তুষ্ট করিয়াছিল, তাহী স্মরণে রাপিও, ভুলিয়। যাইও ন : মিসর দেশ হইতে বাহির হইয়া আসিবার দিন অবধি এই স্থানে আগমন পৰ্য্যন্ত তোমরা সদাপ্রভুর ৮ বিরুদ্ধাচারী হইয় অসিতেছ। তোমরা হোরেবেও সদপ্রভুকে অসন্তুষ্ট করিয়াছিলে, এবং সদাপ্রভু বুদ্ধ হইয় তোমাদিগকে বিনাশ করিতে উদ্যত হইয়াছিলেন । ৯ যখন আমি সেই দুই প্রস্তরফলক, অর্থাৎ তোমাদের সহিত সদাপ্রভুর কৃত নিয়মের দুই প্রস্তরফলক, গ্ৰহ৭ার্থে পৰ্ব্বতে উঠিয়াছিলাম, তখন চল্লিশ দিবীরত্র পৰ্ব্বতে অবস্থিতি করিয়াছিলাম, অন্ন ভক্ষণ কি জল ১• পান করি নাই। আর সদাপ্রভু আমাকে ঈশ্বরের অঙ্গুলি দ্বারা লিখিত সেই দুই প্রস্তরফলক দিয়াছিলেন ; পৰ্ব্বতে সমাজের দিবসে অগ্নির মধ্য হইতে সদাপ্রভু তোমাদিগকে যাহা যাহা বলিয়াছিলেন, সেই সমস্ত ১১ বাক্য ঐ দুই প্রস্তরে লিখিত ছিল । সেই চল্লিশ দিবরাত্রর শেষে সদাপ্রভু ঐ দুইখন প্রস্তরফলক অর্থাৎ ১২ নিয়মের প্রস্তরফলক আমাকে দিলেন । আর সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, উঠ, এ স্থান হইতে শীঘ্ৰ নামিয়। যাও ; কেননা তোমার যে প্রজাদিগকে তুমি মিসর হইতে বা হর করিয়া তানিয়াছ, তাহারা ভ্ৰষ্ট হইয়াছে : আমার আজ্ঞাপিত পথ হইতে শীঘ্রই বিপথগামী হইয়ছে, আপনাদের জন্ত ছাচে ঢাল এক প্রতিম নিৰ্ম্মাণ ১৩ করিয়tছ। সদাপ্রভু আমাকে আরও কহিলন, আমি এই লোকদিগকে দেখিয়াছি, আর দেখ, ইহর। ১৪ শক্তগ্রীব জাতি ; তুমি আমার নিকট হইতে সর, আমি ইহাদিগকে বিনষ্ট করিয়া আকাশমণ্ডলের নীচে হইতে ইহাদের নাম লোপ করি ; আর আমি তোমাকে ইহা ১৫ দের অপেক্ষ বলবন ও বৃহৎ জাতি করিব । তখন আমি ফিরিয়া পৰ্ব্বত হইতে নামিয়া আসিলাম, পৰ্ব্বত অগ্নিতে জলিতেছিল। তখন আমার দুই হস্তে নিয়মের ১৬ দুইখন প্রস্তরফলক ছিল। পরে আমি দৃষ্টিপাত করিলাম, আর দেগ, তোমরা আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর বিরুদ্ধে পাপ করিয়াছিলে, তাপনাদের জন্ত ছাচে ঢাল। এক গাবৎস নিৰ্ম্মাণ করিয়াছিলে; সদাপ্রভুর আজ্ঞাপিত ১৭ পথ হইতে শীঘ্রই বিপথগামী হইয়ছিলে । তাহতে আমি সেই দুইখান প্রস্তরফলক ধরিয়া আপনার দুই হস্ত হইতে ফেলিয়া তোমাদের সাক্ষাতে ভাঙ্গিলাম । ১৮ আর তোমরা সদা প্রভুর দৃষ্টিতে যাহা মন্দ, তাহা করিয়৷ যে পাপ করিয়াছিল, তাহর অসন্তোষজনক তোমাদের সেই সমস্ত পাপের জন্ত আমি পূর্বকার দ্যয় চল্লিশ দিবীরত্র সদlপ্রভুর সম্মুখে উবুড় হইয়৷ রহি১৯ লীম, অন্ন ভক্ষণ কি জল পান করি নাই । কেনন। সদাপ্রভু তোমাদিগকে বিনষ্ট করিতে কেপবিষ্ট হওয়াতে আমি তাহার ক্রোধে ও প্রচণ্ডতায় ভীত হইয়া দ্বিতীয় বিবরণ। [ ఎ ; * — о ; е і ছিলাম ; কিন্তু সেই বারেও সদাপ্রভু আমার নিবেদন ২• শুনিলেন। তার সদাপ্রভু হারোণকে বিনষ্ট করশার্থে তাহার উপরে অতিশয় ক্রুদ্ধ হইয়াছিলেন, কিন্তু আমি ২১ সেই সময়ে হারোণের জন্তও প্রাথনা করিলাম। আর তোমাদের পপি, সেই যে গোবৎস তোমরা নিৰ্ম্মাণ করিয়াছিলে, তাহ লইয়া অগ্নিত পোড়াইয়া দিলাম, ও যে পৰ্য্যন্ত তাহ ধূলিবৎ স্বক্ষ ন হইল, তাবৎ পিনিয়া উত্তমরূপে চূর্ণ করিলাম ; পরে পকত হইতে প্রবাহিত জলস্রোতে তাহার ধূলি নিক্ষেপ করিলাম। ২২ আর তোমরা তবিয়েরাতে, মৎসাতে ও কিব্রোৎ২৩ হত্তবাতে সদাপ্রভুকে অসন্তুষ্ট করিলে। তাহার পর সদাপ্রভু যে সময়ে কাদেশ-বর্ণেয় হইতে তোমাদিগকে প্রেরণ করিয়া কহিলেন, তোমরা উঠিয়া যাও, তামি তোমাদিগকে যে দেশ দিয়াছি, তাহ অধিকার কর : তৎকালে তোমরা আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞার বিরুদ্ধাচারী হইলে, তাহীতে বিশ্বাস করিলে না, ও ২৪ তাহার রবে কর্ণপাত করিলে না। তোমাদের সহিত আমার পরিচয়-দিন অবধি তোমরা সদাপ্রভুর বিরুদ্ধাচারী হইয়া আসিতেছ। যাহা হউক, আমি উবুড় হইয়া রহিলাম ; ঐ চল্লিশ দিবীরত্র আমি সদাপ্রভুর সম্মুখে উবুড় হইয়া রহিলাম : কেননা সদাপ্রভু তোমাদিগকে বিনষ্ট করিবার কথ ২৬ বলিয়াছিলেন। আর আমি সদাপ্রভুর কাছে এই প্রার্থনা করিলাম, হে প্ৰভু সদাগ্রভু, তুমি আপনার অধিকারস্বরূপ যে প্রজালোকদিগকে আপন মহত্ত্বে মুক্ত করিয়াছ ও বলবান হস্ত দ্বার মিসর হইতে বাহির করিয়া অনিয়াছ, তাই দিগকে বিনষ্ট করিও না । তোমার দাসগণকে, আব্রাহাম, ইসহাক ও যাকোবকে স্মরণ কর ; এই লোকদের কঠিন্তের, দুষ্টতার ও পাপের ২৮ প্রতি দৃষ্টিপাত করিও না ; পাছে তুমি আমাদিগকে যে দেশ হইতে বাহির করিয়া আনিয়াছ, সেই দেশীয় লোকের এই কথা বলে, সদাপ্রভু উহাদিগকে যে দেশ দিতে প্রতিজ্ঞা করিয়াছিলেন, সে দেশে লইয়া যাইতে পারেন নাই, এবং তাহাদিগকে ঘৃণা করিয়াছেন বলিয়াই তিনি প্রান্তরে বধ করিবার নিমিত্তে তাহা২৯ দিগকে বাহির করিয়া অনিয়ছেন । ইহারাই ত তোমার প্রজা ও তোমার অধিকার ; ইহাদিগকে তুমি আপন মহাশক্তি ও বিস্তারিত বহু দ্বারা বাহির করিয়া ভানিয়াছ । So সেই সময়ে সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, তুৰি প্রথমর মত দুইখান প্রস্তরফলক তক্ষণ করিয়া আমার নিকটে পৰ্ব্বতে উঠিয়া তাইস, এবং কাঠের এক ২ সিন্দুক নিৰ্ম্মাণ কর। তোম। কর্তৃক ভগ্ন প্রথম দুই প্রস্তরফলকে যে যে বাক্য ছিল, তাহ আমি এই দুই প্রস্তরফলকে লিখিব, পরে তুমি তাহ সেই সিন্দুক ৩ রাখিবে। তাঁহাতে আমি শিটাম কাঠের এক সিন্দুক নিৰ্ম্মাণ করিলাম, এবং প্রথমের দ্যায় দুইখন প্রস্তরফলক তক্ষণ করিয়া সেই দুইখান প্রস্তরফলক হস্ত ミQ R 업 | "S * o ; 8 – S > ; So I } ৪ লইয়া পৰ্ব্বতে উঠিলাম। আর সদাপ্রভু সমাজের দিবসে পৰ্ব্বতে অগ্নির মধ্য হইতে যে দশ আজ্ঞ তোমাদিগকে বলিয়াছিলেন, তাহ প্রথম লিগনানুসারে ঐ দুইথান ও প্রস্তর-ফলকে লিখিয়া আমাকে দিলেন । পরে তামি মুখ ফিরাইয় পৰ্ব্বত হইতে নামিয়া আমার প্রতি সদা প্রভুর দত্ত আজ্ঞানুসারে সেই দুই প্রস্তর ফলক আমার নিৰ্ম্মিত সেই সিন্দুকে রাখিলাম, তদবধি তাহ সেই স্থানে রহিয়াছে। ও (ইস্রায়েল-সন্তানগণ বেরোৎ-বেনেয়াকন হইতে মোষেরোতে যাত্রা করিলে হারোণ সে স্থানে মরিলেন, এবং সেই স্থানে তাহার কবর হইল ; এবং তাহার পুত্ৰ ৭ ইলিয়াসর তাহার পরিবর্তে যাজক হইলেন। সে স্থান হইতে তাহারা গুধগোদায় যাত্রা করিল, এবং গুধগোদ হইতে যট্‌বাথায় প্রস্থান করিল ; এই স্থান ৮ জলস্রোতের দেশ। সেই সময়ে সদাপ্রভুর নিয়ম-সিন্দুক বহন করিতে, সদাপ্রভুর পরিচর্য্য করিবার জন্ত তাহার সাক্ষাতে দাড়াইতে এবং তাহার নামে আশীবাদ করিতে সদা প্ৰভু লেবির বংশকে পৃথক্ করিলেন, ৯ অদ্যপি সেইরূপ চলিয়া আসিতেছে । এই জন্ত আপন ভ্রাতৃগণের মধ্যে লেবীয়দের কোন অংশ কিম্ব৷ অধিকার হয় নাই ; তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তাহাদিগকে যাহা বলিয়াছেন, তদনুসারে সদাপ্রভুই তাহদের অধিকার । ) তার তামি প্রথম বারের ছায় চল্লিশ দিবারাত্র পৰ্ব্বতে থাকিলাম ; এবং সেই বারেও সদাপ্রভু আমার নি-বদন শুনিলেন ; সদাপ্রভু তোমাকে বিনষ্ট করিতে ১১ চাহিলেন না। পরে সদাপ্রভু আমাকে কহিলেন, উঠ, তুমি যাত্রার নিমিত্তে লোকদের অগ্রগামী হও, আমি তাহাদিগকে যে দেশ দিতে তাহীদের পিতৃপুরুষদের কাছে দিব্য করিয়াছি, তাহার। সেই দেশে প্রবেশ করিয়া তাহ অধিকার করুক । আজ্ঞাবহ হইবার উপদেশ । এখন হে ইস্রায়ল, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার কাছে কি চাহেন ? কেবল এই, যেন তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় কর, তাহার সকল পথে চল ও তাহাকে প্রেম কর, এবং তোমার সমস্ত হৃদয় ও তোমার সমস্ত প্রাণের সহিত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর সেবা কর, ১৩ অদ্য আমি তোমার মঙ্গলার্থে সদাপ্রভুর যে যে আজ্ঞ ও বিধি তোমাকে দিতেছি, সেই সকল যেন পালন ১৪ কর। দেখ, স্বৰ্গ ও স্বর্গের স্বর্গ এবং পৃথিবী ও তন্মধ্যস্থ ১৫ যাবতীয় বস্তু তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর । কেবল তোমার পিতৃপুরুষদিগকে প্রেম করতে সদাপ্রভুর সন্তোষ ছিল, আর তিনি তাহদের পরে তাহাদের বংশকে অথাৎ আদ্যকার মত সৰ্ব্বজাতির মধ্যে তোমাদিগকে ১৬ মনোনীত করিলেন। তাতএব তোমরা আপন তাপন হৃদয়র ত্বগগ্র ছেদন কর, এবং আর শক্তগ্রীব হইও না। ১৭ কেননা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুই ঈশ্বরগণের ঈশ্বর ও 3 а ○ミ দ্বিতীয় বিবরণ । > さ> প্রভুদের প্রভু, তিনিই মহান, বীৰ্য্যবান ও ভয়ঙ্কর ঈশ্বর ; তিনি কাহারও মুখাপেক্ষ করেন না, ও উৎ১৮ কোচ গ্রহণ করেন না। তিনি পিতৃহীনের ও বিধবার বিচার নিম্পন্ন করেন, এবং বিদেশীকে প্রেম করিয়া ১৯ অন্ন বস্ত্র দেন । অতএব তোমরা বিদেশীকে প্রেম করিও, কেননা মিসর দেশে তোমরাও বিদেশী ছিলে । ২• তুমি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় করিবে, তাহারই সেবা কারবে, তাহাতেই আসক্ত থাকিবে, ও তাহারই ২১ নামে দিব্য করবে। তিনি তোমার প্রশংসা-ভূমি, তিনি তোমার ঈশ্বর : তুমি স্বচক্ষে যাহা যাহা দেখিয়াছ, সেই মহৎ ও ভয়ঙ্কর কৰ্ম্ম সকল তিনিই তোমার ২২ জন্ত করিয়াছেন। তোমার পিতৃপুরুষের কেবল সত্তর প্রাণী মিসরে নমিয়া গিয়াছিল, কিন্তু এখন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে আকাশের তারার মত বহুসংখ্যক করিয়াছেন । SS _: তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম করিবে, এবং তাহার রক্ষণীয়, তাহার বিধি, তাহার শাসন ও তাহার আজ্ঞা সকল নিত্য নিত্য পালন ২ করিবে। আর অদ্য জ্ঞাত হও, যেহেতুক তোমাদের বালকগণকে বলিতেছি না ; তাহার তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর কৃত শাস্তি জানে নাই ও দেখে নাই ; তাহার মহত্ত্ব, তাহার বলবান হস্ত ও বিস্তারিত বাহু, ৩ এবং তাহার চিহ্ন সকল ও মিসরের মধ্যে মিসর-রাজ ফরেীণের প্রতি ও তাহার সমস্ত দেশের প্রতি তিনি ৪ যাহা যাহা করিলেন, তাহার সেই সকল কাব্য ; এবং মিশ্ৰীয় সৈন্তের, অশ্বের ও রথের প্রতি তিনি যাহা করিলেন, তাহার। যখন তোমাদের পশ্চাৎ ধাবিত হইল, তিনি যেরূপে স্তফসাগরের জল তাহদের উপরে বহাইলেন, এবং সদাপ্রভু তাহাদিগকে বিনষ্ট করিলেন, ৫ অদ্য তাহারা নাই ; এবং এ স্থানে তোমাদের আগমন পৰ্য্যন্ত তোমাদের প্রতি তিনি প্রান্তরে যাহ। যাহা করি৬ য়াছেন ; আর তিনি রূবেণের পুত্র ইলীয়াবের সন্তান দাখন ও অীরামের প্রতি যাহা যাহা করিয়াছেন, ফলতঃ পৃথিবী যেরূপে আপন মুখ বিস্তার করিয়া সমস্ত ইস্রায়েলের মধ্যে তাহাদিগকে, তাহদের পরিজনগণকে, তাহদের তাম্বু ও তাহদের অধিকৃত সমস্ত সম্পত্তি গ্রাস করিল, এ সকল তাহার দেখে নাই ; ৭ কিন্তু সদাপ্রভুর কুত সমস্ত মহৎ কৰ্ম্ম তোমরা স্বচক্ষে ৮ দেখিয়াছ । অতএব অদ্য আমি তোমাদিগকে যে সকল আজ্ঞা দিতেছি, সেই সমস্ত আজ্ঞ পালন করিও, যেন তোমরা বলবান হও, এবং যে দেশ অধিকার করিবার জন্ত পার হইয়। যাইতেছ, সেই দেশে প্রবেশ ৯ করিয়া তাই তাধিকার কর ; আর যেন সদাপ্রভু তোমাদের পিতৃপুরুষদিগক ও উহাদের বংশকে যে দেশ দিতে দিব্য করিয়াছিলেন, সেই দুগ্ধমধুপ্রবাহী দেশে ১০ তোমাদের দীর্ঘকাল অবস্থিতি হয়। কারণ তোমরা যে মিসর দেশ হইতে বাহির হইয়া আসিয়াছ, সেই দেশে তুমি বীজ বুনিয়া শাকের উদ্যানের স্থায় পদ দ্বারা জল 159 “S S o সেচন করিতে ; কিন্তু তুমি যে দেশ অধিকার করিতে ১১ যাইতেছ, তাহ! তদ্রুপ নয়। তোমরা যে দেশ অধিকার করিতে পার হইয়। যাইতেছ, সে পৰ্ব্বত ও উপত্যক-বিশিষ্ট দেশ, এবং আকাশের বৃষ্টির জল পান ১২ করে ; সেই দেশের প্রতি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর মনোযোগ আছে : বৎসরের আরম্ভ অবধি বৎসরের শেষ পর্য্যন্ত তাহার প্রতি নিরন্তর তোমার ঈশ্বর সদtপ্রভুর দৃষ্টি থাকে। আর আমি আদ্য তোমাদিগকে যে সকল আজ্ঞ। দিতেছি, তোমরা যদি যত্নপূর্বক তাহ শুনিয়া তোমাদের সমস্ত হৃদয় ও সমস্ত প্রাণের সহিত তোমাদের ঈশ্বর ১৪ সদাপ্রভুকে প্রেম ও তাহার সেবা কর, তবে আমি যথাসময়ে অর্থাৎ প্রথম ও শেষ বর্ষায় তোমাদের দেশে বৃষ্টি দান করিব, তাহাতে তুমি আপন শস্য, দ্রাক্ষা১৫ রস ও তৈল সংগ্ৰহ করিতে পারিবে। আর আমি তোমার পশুগণের জন্ত তোমার ক্ষেত্রে তৃণ দিব, এবং ১৬ তুমি ভক্ষণ করিয়৷ তৃপ্ত হইবে। আপনাদের বিষয়ে সাবধান, পাছে তোমাদের হৃদয় ভ্রান্ত হয়, এবং তোমরা পথ ছাড়িষা অন্ত দেবগণের সেবা কর ও তাঁহাদের ১৭ কাছে প্ৰণিপাত কর : করিলে তোমাদের প্রতি সদাপ্রভুর ক্রোধ প্রজ্বলিত হইবে, ও তিনি আকাশ রোধ করবেন, তাহাতে বৃষ্টি হইবে না, ও ভূমি নিজ ফল প্রদান করিবে না, এবং সদাপ্রভু তোমাদিগকে যে দেশ দিতেছেন, সেই উত্তম দেশ হইতে তোমরা ত্বরায় উচ্ছিন্ন হইবে । অতএব তোমরা আমার এই সকল বাক্য আপন আপন হৃদয়ে ও প্রাণে রাখিও, এবং চিহ্নরূপে আপন আপন হস্তে বাধিয়। রাখিও, এবং সে সকল ভূষণ১৯ রূপে তোমাদের দুই চক্ষুর মধ্যে থাকিবে। আর তোমরা গৃহে উপবেশন ও পথে গমন কালে এবং শয়ন ও গাত্রোথনি কালে ঐ সকল কথার প্রসঙ্গ করিয়া ২৩ আপন আপন সন্তানদিগকে শিক্ষা দিও। আর তুমি আপন গৃহ-দ্বারের পার্শ্বকাষ্ঠে ও আপন দ্বারে তাহ ২১ লিখিয়া রাখিও। তাহাতে সদাপ্রভু তোমাদের পিতৃপুরুষদিগকে যে ভূমি দিতে দিব্য করিয়াছেন, সেই ভূমি-ত তোমাদের আয়ুঃ ও তোমাদের সন্তানদের আয়ুঃ ভূমণ্ডলের উপরে আকাশমণ্ডলের আয়ুর ন্যায় বৃদ্ধি পাইবে । এই যে সমস্ত আজ্ঞা আমি তোমাদিগকে দিতেছি, তোমরা যদি যত্বপূৰ্ব্বক তাহ পালন করিয়া তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম কর, তাহার সমস্ত পথে চল, ২৩ ও তাঁহাতে আসক্ত থাক ; তবে সদাপ্রভু তোমাদের সম্মুখ হইতে এই সমস্ত জাতিকে অধিকারচু্যত করি বেন ; এবং তোমরা আপনাদের হইতে বৃহৎ ও বল২৪ বান জাতিদের উত্তরাধিকারী হইবে । তোমাদের পী যে যে স্থানে পড়িবে, সেই সেই স্থান তোমাদের হইবে; প্রান্তর ও লিবানোন অবধি, নদী অর্থাৎ ফরৎ নদী অবধি পশ্চিম সমুদ্র পর্য্যন্ত তোমাদের সীমা হইবে । రి Σ σ' చె দ্বিতীয় বিবরণ । [ s > ; SS – S & ; a ২৫ তোমাদের সম্মুখে কেহই দাড়াইতে পারিবে না; তোমরা যে দেশে পাদবিক্ষেপ করবে, সেই দেশের সব্বত্র তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আপন বাক্যানুসারে তোমাদের হইতে লোকদের ভয় ও ত্রাস উপস্থিত কfরবেন । ২৬ দেখ, আদ্য আমি তোমাদের সম্মুখ আশীৰ্ব্বাদ ও ২৭ অভিশাপ রাখিলাম । অদ্য আমি তোমাদিগকে যে সকল আজ্ঞা জানাইলাম, তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর সেই সকল আজ্ঞাতে যদি কৰ্ণপাত কর, তবে আশী২৮ র্বাদ পাইবে। আর যদি তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর আজ্ঞাতে কর্ণপাত না কর, এবং আমি অদ্য তোমাদিগকে যে পথের বিষয়ে আজ্ঞা করিলাম, যদি সেই পথ ছাড়িয়া তোমাদের অজ্ঞাত তান্ত দেবগণের পশ্চাৎ গমন কর, তবে অভিশাপগ্ৰস্ত হইবে । আর তুমি যে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, সেই দেশে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যখন তোমাকে প্রবেশ করাইবেন, তখন তুমি গরিষ্টীম পৰ্ব্বতে ঐ আশীৰ্ব্বাদ, এবং এবল পৰ্ব্বতে ঐ অভিশাপ স্থাপন ৩০ করিবে । সেই দুই পৰ্ব্বত যদ্দনের ওপারে, সূৰ্য্যাস্তপথের ওদিকে, অরবি তলভূমিনিবাসী কনানীয়দের দেশে, গিলুগলের সম্মুখে, মোরির এলোন বনের নিকটে ৩১ কি নয় ? কেননা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদিগকে যে দেশ দিতেছেন, সে দেশ অধিকার করণার্থে তোমরা তথায় প্রবেশ করিবার জন্ত যদিন পার হইয়া যাইবে, দেশ অধিকার করিবে, ও তথায় বাস ৩২ কfরবে। আর আমি অদ্য তোমাদের সন্মুখ যে সকল বিধি ও শাসন রাখিলাম সে সকল যত্বপূর্বক পালন করিবে । ঈশ্বরীয় ব্যবস্থার পুনরুক্তি । ঈশ্বরের বিশেষ আরাধনাস্থান নিরূপণ। S૨ তোমার পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ অধিকারার্থে দিয়াছেন, সেই দেশে এই সকল বিধি ও শাসন, যত দিন পৃথিবীতে জীবিত ২ থাকিবে, যত্নপূর্বক পালন করিতে হইবে । তোমরা যে যে জাতিকে অধিকারচুতি করিবে, তাহারা উচ্চ পৰ্ব্বতের উপরে, পাহাড়ের উপরে ও হরিৎপর্ণ প্রত্যেক বৃক্ষের তলে যে যে স্থানে আপন আপন দেবতাদের সেবা করিয়াছে, সেই সকল স্থান তোমরা একেবারে ৩ বিনষ্ট করিবে । তোমরা তাহীদের যজ্ঞবেদি সকল উৎপাটন করিবে, তাহাদের স্তম্ভ সকল ভগ্ন করিবে, তাহাদের আশের মূৰ্ত্তি সকল অগ্নিতে পোড়াইয়া দিবে, তাহীদের ক্ষোদিত দেবপ্রতিমা সকল ছেদন করিবে, এবং সেই স্থান হইতে তাহীদের নাম লোপ করিবে । ৪ তামরা আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর প্রতি তদ্রুপ করিবে ৫ না। কিন্তু তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু আপন নাম স্থাপনার্থে তোমাদের সমস্ত বংশের মধ্যে যে স্থান মনোনীত করবেন, তাহার সেই নিবাসস্থান তোমরা অন্বেষণ २३> 160 ১ ২ = ৬-৩২ ৷ ] ৬ করিবে, ও সেই স্থানে উপস্থিত হইবে। আর আপন আপন হোম, বলি, দশমাংশ, হস্তের উত্তোলনীয় উপহার, মানতের দ্রব্য, স্ব-ইচ্ছায় দত্ত নৈবেদ্য ও গোমেষাদি পালের প্রথমজাতদিগকে সেই স্থানে আনয়ন করিবে ; ৭ আর সেই স্থানে তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুপ ভোজন করিবে ; এবং তোমাদের ঈশ্বর সদ্যপ্ৰভু হইতে প্রাপ্ত আশীৰ্ব্বাদানুসারে যে কিছুতে হস্তাপণ ৮ কfরবে, তাহাতেই সপরিবারে আনন্দ করিবে । এই স্থানে আমরা এখন প্রত্যেকে আপন আপন দৃষ্টিত স্বাহ৷ স্তাষ্য. তাহা করিতেছি, তোমরা তদ্রুপ করিবে ৯ না ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে বিশ্রামস্থান ও অধিকার দিতেছেন, তথায় তোমরা এখনও ১• উপস্থিত হও নাই । কিন্তু যখন তোমরা যদন পার হইয়া আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর দত্ত অধিকার দেশে বাস করিবে, এবং চারিদিকের সমস্ত শক্র হইতে তিনি বিশ্রাম দিলে যখন তোমরা নিভয়ে বাস করবে: ১১ তৎকালে তোমাদের ঈম্বর সদা প্ৰভু আপন নামের বাসার্থে যে স্থান মনোনীত করবেন, সেই স্থান তোমরা আমার আদিষ্ট সমস্ত দ্রব্য, আপন আপন হোম, বলি, দশমাংশ, হস্তের উত্তোলনীয় উপহার ও সদাপ্রভুর উদ্দেশে প্রতিশ্রুত মানতের উৎকৃষ্ট দ্রব্য ১২ সকল আনিবে । আর তোমরা, তোমাদের পুত্রকন্তাগণ ও তোমাদের দাসদাসীগণ, তার তোমাদের নগরদ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী লেবীয়, যাহার অংশ ও অধিকার তোমাদের মধ্যে নাই, তোমরা সকলে আপনাদের ঈশ্বর ১৩ সদাপ্রভুর সম্মুখে আনন্দ করিবে। সাবধান, যে কোন স্থান দেখ, সেই স্থানেই তোমার হোমবলি উৎসর্গ করিও ১৪ না ; কিন্তু তোমার কোন এক বংশের মধ্যে যে স্থান সদাপ্রভু মনোনীত করে বন, সেই স্থানেই তোমার হোমবলি উৎসর্গ করিবে ও সেই স্থানে আমার আদিষ্ট ১৫ সকল কৰ্ম্ম করিবে । তথাপি যপন তোমার প্রাণের অভিলাষ হইবে, তখন তুমি আপন ঈশ্বর সদপ্রভুর দত্ত আশীৰ্ব্ববাদানুসারে আপনার সমস্ত নগর দ্বারের ভিতরে পশু বধ করিয়া মাংস ভোজন করিতে পরিবে: অশুচি কি শুচি লোক সকলেই কুঞ্চসারের ও হরিণের ১৬ মাংসের মত তাহ ভোজন করিতে পারবে । কেবল তোমরা রক্ত ভোজন করিবে না; তুমি তাহা জলের স্তায় ভূমিতে ঢালিয়া ফেলিবে । তোমার শস্যের, দ্রাক্ষরসের ও তৈলের দশমাংশ, গোমেষাদির প্রথমজাত, এবং যাহা মানত করবে, সেই মানত-দ্রব্য, স্ব-ইচ্ছায় দত্ত নৈবেদ্য ও হস্তের উত্তোলনীয় উপহার, এই সকল তুমি আপন নগর দ্বারের ১৮ মধ্যে ভোজন করিতে পরিবে না। কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যে স্থান মনোনীত করিবেন, সেই স্থানে তোমার ঈশ্বর সদপ্রভুর সম্মুখে তুম, তোমার পুত্রকস্তা, তোমার দাসদাসী ও তোমার নগর-দ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী লেবীয়, সকলে তাহ ভোজন করবে, এবং তুমি যে কিছুতে হস্তাপণ করবে, তোমার ঈশ্বর সদা о. т. 11) ጏዋ দ্বিতীয় বিবরণ। > b 。 ১৯ প্রভুর সম্মুখে তাহাতেই আনন্দ করবে। সাবধান, তোমার দেশ যত কাল জীবিত থাক, লেধীয়কে ত্যাগ কfরও না । তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যেমন তাঙ্গীকার করিয়াছেন, তদনুসারে যখন তোমার সীমা বিস্তার করিবেন, এবং মাংস ভক্ষণ তে মার প্রাণের অভিলাষ হইল তুমি বলিবে, মাংস ভক্ষণ করব, তখন তুম প্রণের অভি২১ লাধানুসারে মাংস ভক্ষণ করবে। আর তামার ঈশ্বর সদা প্রভু আপন নাম স্থাপনাথ যে স্থান মনোনীত করবেন, তাহ। যদি তোম। ইহতে বহু দূর হয়, তবে আমি যেমন বলিয়াছি, তদনুসারে তুমি সদ প্রভুর দত্ত গোমধাদি পাল হইতে পশু লই । বধ করবে, ও আপন প্রাণর অভিলাষানুসারে নগর-দ্বারের ভিতর ২২ ভোজন করিতে পারবে । যেমন কুঞ্চসার ও হরিণ ভক্ষণ করা যায়, তেমনি তাহ। ভক্ষণ করবে , আশুচি ২৩ কি শুচি লোক, সকলেঙ্গ তাই ভক্ষণ ক রবে । কেবল রক্তভোজন হইতে অতি সাবধান থাকিও, কেননা রক্তই প্রাণ; তুমি মাংসের সহিত প্রাণ ভোজন করিবে ২৪ ন । তুমি তাই ভোজন করিবে না, জলের স্যায় ২৫ ভূমিতে ঢালিয়া ফেলবে । তুমি তাই ভোজন করিবে ন। . যেন সদাপ্রভুর দৃষ্টিতে যাই। ন্যায, তাই করলে তোমার মঙ্গল ও তোমার ভাবী সন্তানদের মঙ্গল হয় । ২৬ কেবল তোমার যত পবিত্র বস্তু থাকে, এবং তোমার যত মানতের বস্তু থাকে, সেই সকল লইয়। সদাপ্রভুর ২৭ মনোনীত স্থানে যাইবে ; আর তোমার ঈশ্বর সদtপ্রভুর যজ্ঞবেদির উপরে তোমার হেমবল, মাংস ও রক্ত উৎসর্গ করবে, আর তোমার বলিসমূহের রক্ত তে २० রক্ত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর যজ্ঞ-বদির উপরে ঢাল। যাইবে, পরে তাহার মাংস ভোজন করিতে পারিবে । সাবধান হইয়। আমার আদিষ্ট এই সমস্ত বাক্য মাস্ত করেও, যেন তোমার ঈশ্বর সদা ভুর গোচরে যাই। উত্তম ও হায্য, তাহ করলে তোমার ও যুগানুক্রমে তোমার ভাবী সন্তানদের মঙ্গল হয় । তুমি যে জাতিগণকে অধিকারচু্যত করিতে যাইতেছ, তাহাদিগকে যখন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সম্মুখ হইতে উচ্ছিন্ন করবেন, ও তুমি তাহাদিগকে অ ধকারচুতে কারয় তাহাদর দেশে বাস করবে ; তপন সাবধান থাকিও, পাছে তোমার সম্মুখ হইতে তাহাদের বিনাশ হইলে পর তুমি তাহাদর অনুগামী হইয়া ফাদ পড় ; এবং পাছে তাহদের দেবগণের অন্বেষণ করিয়া বল, এই জাতিগণ আপন আপন দেবগণের সেব। কিরূপে করে ? আমিও সেইরূপ করিব । তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর প্রতি তদ্রুপ করবে না ; কেননা তাহারা আপন আপন দেবগণের উদ্দেশ সদাপ্রভুর ঘুণিত যাবতীয় কুক্ৰিয়া করিয়া আসিয়াছে ; এমন কি, তাহার। সেই দেবগণের উদে-শ আপন আপন পুত্রকন্তগণকেও অগ্নিঃত পোড়ায় । আমি যে কোন বিষয় তোমাদিগকে আজ্ঞা করি, २br R సె OS vరి:R 161 ○ や 、 তোমরা তাঁহাই যত্বপূর্বক পালন করিবে ; তুমি তাহাতে আর কিছু যোগ করবে না, এবং তাহ হইতে কিছু হ্রাস করিবে না। দেবপূজা এবং অখাদ্যভোজন নিষেধ। S তোমার মধ্যে কোন ভাববাদী কিম্বা স্বপ্নদর্শক উঠয়। যদি তোমার জন্ত কোন চিহ্ন কিম্ব অদ্ভুত ২ লক্ষণ নিরূপণ করে ; এবং সেই চিহ্ন কিম্ব অদ্ভুত লক্ষণ সফল হয়, যাহার সম্বন্ধে সে তোমার অজ্ঞাত অন্ত দেবতাদের বিষয়ে তোমাদিগকে বলিয়াছিল, আইস, আমরা তাহদের অনুগামী হুই, ও তাহীদের সেবা ৩ করি, তবে তুমি সেই ভাববাদীর কিম্বা সেই স্বপ্নদর্শকের বাক্যে কর্ণপাত করিও না ; কেননা তোমরা তোমাদের সমস্ত হৃদয়ের ও তোমাদের সমস্ত প্রাণের সহিত আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম কর কি না, তাহ জানিবার জন্য তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাদের ৪ পরীক্ষা করেন । তোমরা আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুরই অনুগামী হও, তাহাকেই ভয় কর, তাহারই আজ্ঞা পালন কর, তাহারই রবে অবধান কর, তাহীরই সেবা ৫ কর, ও তাহতেই আসক্ত থাক। আর সেই ভাববাদীর কিম্ব সেই স্বপ্নদর্শকের প্রাণদণ্ড করিতে হইবে : কেননা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু, যিনি মিসর দেশ হইতে তোমাদিগকে বাহির করিয়া আনিয়াছেন, দাস-গৃহ হইতে তোমাকে মুক্ত করিয়াছেন, তাহার বিরুদ্ধে সে বিপথগমনের কথা কহিয়াছে ; এবং তোমার ঈশ্বর সদা প্ৰভু যে পথে গমন করিতে তোমাকে আজ্ঞ করিয়াছেন, তাহ হইতে তোমাকে ভ্ৰষ্ট করা তাহার অভিপ্রায়। অতএব তুমি আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করিবে । ৬ তোমার ভ্রাত, তোমার সহোদর কিম্ব তোমার পুত্র কি কন্যা কিম্বা তোমার বক্ষের ভার্ষ্য কিম্বা তোমার প্রাণত্যুল্য মিত্র যদি গোপনে তোমাকে প্রবৃত্তি দিয়া বলে, আইস, আমরা গিয়া অন্ত দেবতাদের সেবা করি, তোমার অজ্ঞাত ও তোমার পিতৃপুরুষদের অজ্ঞাত কোন দেবতা, তোমার চতুর্দিকুস্থিত নিকটবৰ্ত্ত কিম্বা তোম৷ হইতে দূরবত্তা, পৃথিবীর এক প্রান্ত হইতে অপর প্রান্ত পর্য্যন্ত যে কোন জাতির যে কোন দেবতা হউক, তাহার বিষয়ে যদি এই কথা বলে, ৮ তবে তুমি সেই ব্যক্তির প্রস্তাবে সম্মত হইও না, তাহার কথায় কাণ দিও না ; তোমার চক্ষু তাহার প্রতি দয়। করিবে না, তাহাকে কৃপা করিবে না,তাহাকে লুকাইয়া ৯ রাখিবে না। কিন্তু অবশ্য তুমি তাহীকে বধ করিবে ; তাহাকে বধ করিবার জন্য প্রথমে তুমিই তাহার উপরে হস্তীৰ্পণ করিবে, পরে সমস্ত লোক হস্তপণ করিবে । ১. তুমি তাহীকে প্রস্তরাঘাত করিবে, যেন সে মরিয়া যায় ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু, যিনি মিসর দেশ হইতে, দাস-গৃহ হইতে, তোমাকে বাহির করিয়৷ আনিয়াছেন, তাহার অনুগমন হইতে সে তোমাকে দ্বিতীয় বিবরণ। [ లి ; పి — $ 8 ; c) | ১১ দ্রষ্ট করিতে চেষ্টা করিয়াছে। তাঁহাতে সমস্ত ইস্রায়েল তাহা শুনিবে, ভয় পাইবে, এবং তোমার মধ্যে তাদৃশ দুষ্কৰ্ম্ম আর করিবে না। ১২ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে যে নিবাসনগর দিবেন, তাহার কোন নগর সম্বন্ধে যদি শুনিতে ১৩ পাও যে, কতকগুলি পাষণ্ড তোমার মধ্য হইতে নিৰ্গত হইয়৷ এই কথা বলিয়। আপন নগরনিবাসীদিগকে ভ্রষ্ট করিয়াছে, আইস, আমরা গিয়া অন্ত দেবতাদের ১৪ সেবা করি, যাহাদিগকে তোমরা জান না, তবে তুমি জিজ্ঞাসা করিবে, অনুসন্ধান করিবে, ও যত্নপূর্বক প্রশ্ন করিবে ; আর দেখ, তোমার মধ্যে ঈদৃশ ঘূণার্হ দুষ্কৰ্ম্ম ১৫ হইয়াছে, ইহা যদি সত্য ও নিশ্চিত হয়, তবে তুমি খড়গধারে সেই নগরের নিবাসীদিগকে আঘাত করিবে, এবং নগর ও তাহার মধ্যস্থিত পশু শুদ্ধ সকলই খড়গ১৬ ধারে নিঃশেষে বিনষ্ট করিবে ; আর তাহার লুটিত দ্রব্য সকল তাহরে চকের মধ্যে সংগ্ৰহ করিয়া সেই নগর ও সেই সকল দ্রব্য সকবতোভাবে আপন ঈশ্বর সদপ্রভুর উদেশে অগ্নিতে পোড়াইয়া দিবে ; তাহাতে সেই নগর চিরকালীন ঢিবি হুইয়া থাকিবে, তাহ। ১৭ পুনর্কবার নিৰ্ম্মিত হইবে না। আর সেই বজ্জিত দ্রব্যের কিছুই তোমার হস্তে লগ্ন না থাকুক ; যেন সদাপ্রভু আপন প্রচণ্ড ক্রোধ হইতে ফিরেন, এবং তিনি তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে যে শপথ করিয়াছেন, তদনুসারে তোমার প্রতি কৃপা ও করুণা করেন, ও তোমার বৃদ্ধি ১৮ করেন ; যখন তুমি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে কর্ণপাত করিয়া, আমি অদ্য তোমাকে যে যে অজ্ঞা দিতেছি, তাহার সেই সমস্ত আজ্ঞা পালন করিবে, ও তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর দৃষ্টিতে যথার্থ আচরণ করিবে । S8 তোমরা আপনাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর সন্তান ; - - তোমরা মৃত লোকদের জন্য আপন আপন শরীর কটকুট করিবে না, এবং ভ্রমধ্যস্থল ক্ষৌরি করিবে না । ২ কেননা তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর পবিত্র প্রজা; ভূমওলস্থ সমস্ত জাতির মধ্য হইতে সদাপ্রভু আপনার নিজস্ব প্রজা করণার্থে তোমাকেই মনোনীত করিয়াছেন । ৩,৪ তুমি কোন ঘুণাই দ্রব্য ভোজন করিবে না। এই সকল পশু ভোজন করিতে পার ; গোরু, মেষ এবং ৫ ছাগল, হরিণ, কৃষ্ণসার এবং বনগোরু, বনছাগল, বাত৬ প্রমী, পৃষত এবং সম্বর। আর পশুগণের মধ্যে যত পশু সম্পূর্ণ দ্বিখণ্ড খুরবিশিষ্ট ও জাওর কাটে, সেই ৭ সকল তোমরা ভোজন করিতে পার। কিন্তু যাহার জাওর কাটে, কিম্ব দ্বিখণ্ড খুরবিশিষ্ট, তাহদের মধ্যে এইগুলি ভোজন করিবে না ; উ2, শশক ও শাফন ; কেননা তাহার। জাওর কাটে বটে, কিন্তু দ্বিখণ্ড খুর৮ বিশিষ্ট নয়, তাহারা তোমাদের পক্ষে অশুচি ; আর শুকর দ্বিখণ্ড খুরবিশিষ্ট বটে, কিন্তু জাওর কাটে না, সে তোমাদের পক্ষে অশুচি ; তোমরা তাহদের মাংস ভোজন করিবে না, তাহদের শব স্পর্শও করিবে না। 162 * 8 ; S – S & 3 SS I ৯ জলচর সকলের মধ্যে এই সকল তোমাদের খাদ্য ; যাহাদের ডেন ও আইস আছে, তাহাদিগকে ভোজন ১০ করিতে পার। কিন্তু যাহাঁদের ডেনা ও আইস নাই, তাহাদিগকে ভোজন করিবে না, তাহারা তোমাদের পক্ষে অশুচি । ১১ তোমরা সকল প্রকার শুচি পক্ষী ভোজন করিতে ১২ পার। কিন্তু এইগুলি ভোজন করিবে না ; ঈগল, ১৩ হাড়গিলা ও কুরল, গৃধ, চিল ও আপন আপন জাতি ১৪ অনুসারে শঙ্করাচল, আর আপন আপন জাতি অনু১৫ সারে সকল প্রকার কাক, আর উষ্ট্রপক্ষী, রাত্রিশ্যেন, ১৬ গাংচিল ও আপন আপন জাতি অনুসারে শ্যেন, এবং ১৭ পেচক, মহাপেচক ও দীর্ঘগল হংস ; ক্ষুদ্র পানিভেল, ১৮ শকুনী ও মাছরাঙ্গা, এবং সারস ও আপন আপন জাতি ১৯ অনুসারে বক,টিটিভ ও বাদুড়। আর পক্ষবিশিষ্ট যাবতীয় পোকাও তোমাদের পক্ষে অশুচি ; এ সকল অখাদ্য। ২০ তোমরা সমস্ত শুচি পক্ষী ভোজন করিতে পার । ২১ তোমরা স্বয়ংমৃত কোন প্রাণীর মাংস ভোজন করিবে না ; তোমার নগর-দ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী কোন বিদেশীকে ভোজনার্থে তাহ দিতে পার, কিম্বা বিজাতীয় লোকের কাছে বিক্রয় করিতে পার ; কেননা তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর পবিত্র প্রজা । তুমি ছাগবৎসকে তাহার মাতার দুগ্ধে পাক করিবে না। দশমাংশ, অগ্রিমাংশ ও মোচনবৎসরের নিয়ম। তুমি তোমার বীজ হইতে উৎপন্ন যাবতীয় শস্তের, বৎসর বৎসর যাহা ক্ষেত্রে উৎপন্ন হয়, তাহার দশমাংশ ২৩ পৃথক্ করিবে। আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আপন নামের বাসার্থে যে স্থান মনোনীত করবেন, সে স্থানে তুমি আপন শস্তের, দ্রাক্ষরসের, ও তৈলের দশমাংশ, এবং গোমেষাদি পালের প্রথমজাতদিগকে তাহার সম্মুখে ভোজন করিবে ; এইরূপে আপন ঈশ্বর সদা২৪ প্রভুকে সর্বদা ভয় করিতে শিক্ষা করিবে। সেই যাত্র যদি তোমার পক্ষে বড় দীর্ঘ হয়, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আপন নাম স্থাপনার্থে যে স্থান মনোনীত করিবেন, তাহার দূরত্ব প্রযুক্ত যদি তুমি আপন ঈশ্বর সদপ্রভুর আশীৰ্ব্বাদে প্রাপ্ত দ্রব্য তথায় লইয়া যাইতে না ২৫ পার, তবে সেই দ্রব্যে টাকা করিয়া সেই টকা বাধিয়া হস্তে লইয়া আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর মনোনীত স্থানে ২৬ যাইবে । পরে সেই টক। দিয়া তোমার প্রাণের অভিলষিত গোরু কি মেষ কি দ্রাক্ষায়স কি মদ্য, বা যে কোন দ্রব্যে তোমার প্রাণের বাঞ্ছা হয়, তাহী ক্রয় করিয়া সেই স্থানে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুখে ২৭ ভোজন করিয়া সপরিবারে আনন্দ করিবে। আর তোমার নগর দ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী লেবায়কে ত্যাগ করবে না, কেননা তোমার সহিত তাহার কোন অংশ কি অধিকার নাই । ২৮ তৃতীয় বৎসরের শেষে তুমি সেই বৎসরে উৎপন্ন བ་མ་ གཤྲཱི་ দ্বিতীয় বিবরণ । > や ○ আপন শস্ত্যাদির যাবতীয় দশমাংশ বাহির করিয়া আনিয়া আপন নগর দ্বারের ভিতরে সঞ্চয় করিয়৷ ২৯ রাখিবে , তাহাতে তোমার সহিত যাহার কোন অংশ কি অধিকার নাই, সেই লেৰীয় এবং বিদেশী, পিতৃহীন ও বিধবা, তোমার নগর-দ্বারের মধ্যবৰ্ত্ত এই সকল লোক আসিয়া ভোজন করিয়া তৃপ্ত হইবে : এইরূপে যেন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার হস্তকৃত সমস্ত কৰ্ম্মে তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করেন। S(。 তুমি সাত বৎসরের শেষে ঋণ ক্ষমা করিবে । সেই ঋণক্ষমার এই ব্যবস্থা ; যে কোন মহাজন আপন প্রতিবাসীকে ঋণ দিয়াছে, সে আপনার দত্ত সেই ঋণ ক্ষমা করিবে, আপন প্রতিবাসী কিম্বা ভ্রাতার নিকট হইতে ঋণ আদায় করিবে না, কেননা সদ৩ প্রভুর [ আদেশে ] ঋণক্ষমার ঘোষণা হইয়াছে তুমি বিজাতীয়ের কাছে আদায় করিতে পার ; কিন্তু তোমার ভ্রাতার নিকটে তোমার যাহা আছে, তাহা তোমার ৪ হস্ত ক্ষমা করিবে । বাস্তবিক তোমার মধ্যে কাহারও দরিদ্র হওয়া অনুপযুক্ত ; কারণ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার অধিকারার্থে যে দেশ দিতেছেন, সেই দেশে সদাপ্রভু তোমাকে নিশ্চয়ই আশীৰ্ব্বাদ করবেন : ৫ কেবল তামি আদ্য তোমাকে এই যে সমস্ত অজ্ঞ। দিতেছি, ইহা যত্নপূর্বক পালনার্থে তোমার ঈশ্বর সদ৬ প্রভুর রবে কর্ণপাত করিতে হইবে। কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যেমন তোমার কাছে অঙ্গীকার করিয়াছেন, তেমনি তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করিবেন ; আর তুমি অনেক জাতিকে ঋণ দিবে, কিন্তু আপনি ঋণ লইবে না ; এবং অনেক জাতির উপরে কর্তৃত্ব করিবে, কিন্তু তাহারা তোমার উপরে কর্তৃত্ব করিবে না। ৭ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, তথাকার কোন নগর-দ্বারের ভিতরে যদি তোমার নিকটস্থ কোন ভ্রাত দরিদ্র হয়, তবে তুমি আপন হৃদয় কঠিন করিও না, বা দরিদ্র ভ্রাতার প্রতি আপন ৮ হস্ত রুদ্ধ করিও না ; কিন্তু তাহার প্রতি মুক্তহস্ত হইয়া তাহার অভাবজন্ত প্রয়োজনানুসারে তাহাকে ৯ অবশ্য ঋণ দিও। সাবধান, সপ্তম বৎসর অর্থাৎ ক্ষমার বৎসর নিকটবৰ্ত্তী, ইহা বলিয়া তোমার হৃদয়ে যেন অধম চিন্তার উদয় না হয় ; তুমি যদি আপন দরিদ্র ভ্রাতার প্রতি অশুভ দৃষ্টি করিয়া তাহাকে কিছু না দেও, তবে সে তোমার বিরুদ্ধে সদাপ্রভুর কাছে প্রাথন ১০ করিলে তোমার পাপ হইবে। তুমি তাহাকে অবশ্য দিবে, দিবার সময়ে হৃদয়ে দুঃখিত হইবে না ; কেনন। এই কাৰ্য্য প্রযুক্ত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সমস্ত কৰ্ম্মে, এবং তুমি যাহাতে যাহাতে হস্তক্ষেপ করিবে, ১১ সেই সকলেতে তোমাকে আশীকবাদ করিবেন। কেননা তোমার দেশমধ্যে দরিদ্রের অভাব হইবে না ; অতএব আমি তোমাকে এই আজ্ঞা দিতেছি, তুমি আপন দেশে তোমার ভ্রাতার প্রতি, তোমার দুঃখী ও দীনহীনের প্রতি, তোমার হাত অবশ্য খুলিয়া রাখিবে। 163 > や 8 ১২ তোমার ভ্রাতা অর্থাৎ কোন ইব্রীয় পুরুষ কিম্বা ইত্ৰীয় স্ত্রীলোক যদি তোমার নিকট বিক্রীত হয়, এবং ছয় বৎসর পর্য্যন্ত তোমার দাস্যকৰ্ম্ম করে ; তবে সপ্তম বৎসরে তুমি তাহাকে মুক্ত করিয়া আপনার ১৩ নিকট হইতে বিদায় দিবে। আর মুক্ত করিয়া তোমার নিকট হইতে বিদায় দিবার সময় তুমি তাহাকে রক্ত১৪ হস্তে বিদায় করিবে না ; তুমি আপন পাল, শস্য ও দ্রাক্ষারস হইতে তাহাক প্রচুর পুরস্কার দিবে ; তোমার ঈশ্বর সদা ভু তোমাকে যেমন আশীবাদ করিয়াছেন, ২৫ তদনুসারে তাহাকে দিবে। আর স্মরণে রাখবে, তুমি মিসর দেশে দাস ছিল, এবং তোমার ঈশ্বর সদ।প্ৰভু তোমাকে মুক্ত করিয়াছেন : এই জষ্ঠ আমি অদ্য ১৬ তোমাকে এই অজ্ঞা দিতেছি । পরন্তু তোমার নিকটে স্বখে থাকাতে সে তোমাকে ও তোমার পরিজনগণকে ভাল বাসে বলিয়৷ যদি বলে, আ ম তোমাকে ছাড়িয়া ১৭ যাইব না ; তবে তুমি এক গুজি লইয়া কপাটের সহিত তাহার কর্ণ বিধিয়া দিবে, তাহাতে সে নিত্য তোমার দাস থাকিবে ; আর দাসীর প্রতিও তদ্রুপ ১৮ করিবে । ছয় বৎসর পয্যন্ত সে তোমার কাছে বেতনজীবীর বেতন অপেক্ষ। দ্বিগুণ দাস্যকৰ্ম্ম করিয়াছে, এই কারণ তাহাক মুক্ত করিয়া বিদায় দেওয়া কাঠন মনে করিবে না ; তাহাতে তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু তোমার সকল কার্য্যে তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করিবেন । তুমি আপন গোমেষাদি পশুপাল হইতে উৎপন্ন সমস্ত প্রথমজাত পুংপশুকে আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদশে পবিত্র করবে ; তুমি গোরুর প্রথমজাত দ্বারা কোন কৰ্ম্ম করিবে না, এবং তোমার প্রথমজাত মেষের ২• লোম ছেদন করিবে না । সদাপ্রভু যে স্থান মনোনীত করবেন, সেই স্থানে তোমার ঈশ্বর সদাও ভুর সম্মুখে তুমি সপরিবারে প্রতি বৎসর তাহ ভোজন করবে । ২১ যদি তাহতে কোন দোষ থাকে, অথাৎ সে যদি খঞ্জ কিম্ব অন্ধ হয়, কোন ও কারে দোষযুক্ত হয়, তবে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে তাহ বলিদান করিবে ২২ না। আপন নগর-দ্বারের ভিতরে তাহ ভোজন করিও : অশুচি কি শুচি, উভয় লোকই কৃষ্ণসারের কিম্বা হরি ২৩ শের স্যায় তাহ ভোজন করিতে পারে। তুমি কেবল তাহার রক্ত ভোজন করবে না, তাহা জলের দ্যায় ভূমিতে ঢালিয়া ফেলিবে । বার্ষিক প্রধান তিনটী পর্বের নিয়ম। S\, তুমি আবীব মাস পালন করিবে, তোমার - - ঈশ্বর সদাও ভুর উদ্দেশে নিস্তারপব পালন করবে: কেনন। আবাব মাসে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে রাত্রিকালে মিসর হইতে বাহির কfরয়। অlনয়া ছcেন। ২ আর সদা ভু আপন নামের বাসাথে যে স্থান মনোনীত করবেন, সেই স্থানে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে মেষ।fদ পাল ও গোপাল হঠতে পশু ল য়। ও নিস্তারপর্কের বলিদান করবে। তুমি তাহার সইত > R দ্বিতীয় বিবরণ । [ ১ ৫ ; ১২ – ১ ৬ ; ১৬ } তাড়ীযুক্ত রুট খাইবে না ; কেননা তুমি ত্বরান্বিত হইয়াই মিসার দেশ হইতে বহির হইয়।fচলে ; এই জষ্ঠ সাত দিবস সেই বলির সহিত তাড়াশুষ্ঠ রট, দুঃথাবস্থার রুটী, ভোজন করিবে ; যেন মিসর দেশ হইতে তোমার নির্গমনের দিন যাবজ্জীবন তোমার ৪ স্মরণে থাকে । সাত দিন তোমার সীমার মধ্যে তাড়ী দৃষ্ট না হউক : এবং প্রথম দিবসের সন্ধ্যাকালে তুমি যে বলিদান কর, তাহার মাংস কিছুই প্রাতঃকাল ৫ পর্য্যন্ত সমস্ত রাত্রি অবশিষ্ট না থাকুক। তোমার ঈশ্বর সদা ভু তোমাকে যে সকল নগর দিবেন,তাহার কোন নগরের দ্বারের ভিতরে নিস্তারপকেবর বলিদান করিতে ৬ পরিবে না ; কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদাও ভু আপন নামের বাসার্থে যে স্থান মনোনীত করবেন, সেই স্থানে মিসর দেশ হইতে তোমার বাহির হইয়া আসিবার ঋতুত, সন্ধ্যাকালে, স্বৰাস্ত সময়ে নিস্তারপবের ৭ বলিদান করিবে । আর তোমার ঈশ্বর সদাও ভুর মনোনীত স্থানে তাহ পাক কারয়। ভোজন করবে ; পরে ৮ প্রাতঃকালে আপন তাম্বতে ফিরিয়া যাইবে । তুমি ছয় দিন তাড় শূন্ত রটা খাইবে, এবং সপ্তম দিবসে তোমার ঈশ্বর সদপ্রভুর উদ্দেশে পকসভা হইবে ; তুমি কোন ৷ ক{য্য করবে না । ৯ তুমি সাত সপ্তাহ গণনা করিবে ; ক্ষেত্রস্থ শস্তে প্রথম কাস্তা দেওয়া অবধি সাত সপ্তাহ গণনা করিতে ১০ আরস্ত করবে। পরে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর আশীববাদ,নুযায়ী সঙ্গতি হইতে স্ব-ইচ্ছায় দত্ত উপহার দ্বারা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদেশে সাত সপ্তাহর উৎসর ১১ পালন করবে। আর তোমার ঈশ্বর সদপ্রভু আপন নামের বাসাথে ষে স্থান মনানীত করবেন, সেই স্থানে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মথে তুমি, তোমার পুত্রকন্ত, তোমার দাসদাসী, তোমার নগর-দ্বারের মধ্যবত্তী লেবীয় ও তোমার মধ্যনিবাসী বিদেশী, পিতৃ১২ হীন ও বিধবা সকলে আনন্দ করিবে। আর তুম স্মরণে রাখিবে যে, তুমি মিসর দেশে দাস ছিলে, এবং এই সকল বিধি যত্নপুকক পালন করিবে । তোমার খামার ও দ্রাক্ষাকুণ্ড হইতে যাহা সংগ্ৰহ করিবার, তাহ সংগ্রহ করলে পর তুমি সাত দিন ১৪ কুটা-রর উৎসব পালন কfরবে। আর সেই উৎসবে তুম, তোমার পুলকন্যা, তোমার দাসদাসী ও তোমার নগর-দ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী লেবীয় ও বিদেশী এবং পিতৃহীন ১৫ ও বিধব। সকলে আনন্দ করবে। সদাপ্রভুর মনোনীত স্থানে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদেশ সাত দিন উৎসব পালন করিবে ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাও ভু তোমার সমস্ত উৎপন্ন দ্রব্যে ও হস্তকুত সমস্ত কৰ্ম্মে তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করবেন, আর তুম সম্পূর্ণ আনন্দত হইবে । তোমার প্রত্যেক পুরুষ বৎসরের মধ্যে তিন বার তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মখে তাহার মনোনীত স্থানে দেখা দিবে ; তাড়াশুষ্ঠ রটার উৎসবে, সাত সপ্তাহের రి J 164 ১ ৬ ; ১৭ – ১৭ ; ২০ । ] উৎসবে ও কুটীরের উৎসবে ; আর তাহারা সদাপ্রভুর ১৭ সম্মুখে রিক্তহস্তে দেখা দিবে না : প্রত্যেক জন তোমার ঈশ্বর সদা ভুর দত্ত আশীৰ্ব্বাদানুসারে আপন আগন সঙ্গতি অনুযায়ী উপহার দিবে। বিচারক ও রাজগণের কর্তব্য । তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সকল বংশানুসারে তোমাকে ষে সমস্ত নগর দিবেন, সেই সকল নগরের দ্বারদেশে তুমি আপনার জন্ত বিচারকত্ত্বগণকে ও শাসন কর্তৃগণকে নিযুক্ত করিবে ; আর তাহার। হায্য বিচারে ১৯ লোকদের বিচার করবে। তুমি অন্তায় বিচার করিবে না, কাহারও মুখাপেক্ষা করিবে না, ও উৎকোচ লহৰে না ; কেনন। উৎকোচ জ্ঞানীদের চক্ষু অন্ধ করে ও ২০ ধাৰ্ম্মিকদের বাক্য বিপরীত করে । সকবতোভাবে যাহ। ন্তায্য, তাহারই অনুগামী হইবে, তাহাতে তুমি জীবিত থাকিরা আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর দত্ত দেশ অধিকার করিবে । তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে ষে যজ্ঞবেদ নিৰ্ম্মাণ করিলে, তাহার কাছে কোন প্রকার কাঠের ২২ অশের মূৰ্ত্তি স্থাপন করিবে না। কোন স্তম্ভও উত্থা পন করবে না, কেননা তাহ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর ঘূণাস্পদ । 9ግ তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে দোষযুক্ত, কোন প্রকার কলঙ্কযুক্ত গোরু কিম্ব মেষ বলি দান করিব না ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু তাই ঘুণ করেন । ২ তোমার মধ্যে, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে সকল নগর দিবেন, তাহার কোন নগরের দ্বারের ভিতরে যদি এমন কোন পুরুষ কিম্ব। স্ত্রীলোক পাওয়া যায়, যে তোমার ঈশ্বর সদ প্রচুর নিয়ম লঙ্ঘন দ্বারা তাহার ৩ দৃষ্টিত যাহা মন্দ, তাহাই করিয়াছে; গিয়া অন্ত দেবতা দের সেবা করিয়াছে, ও আমার অজ্ঞার বিরুদ্ধে তাহtদের কাছে অথবা সূর্য্যের বা চন্দ্রের কিম্ব আকাশও বাহিনীর কাহারও কাছে প্ৰণিপাত করিয়াছে ; আর তোমাকে তাহ বলা হইয়াছে, ও তুমি শুনিয়াছ, তবে যত্বপূর্বক অনুসন্ধান করিবে, আর দেখ, যদি ইহা সতা ও নিশ্চিত হয় যে, ইস্রায়েলের মধ্যে এইরূপ ঘৃণাই কাৰ্য্য ৫ হইয়াছে, তবে তুমি সেই দুষ্কৰ্ম্মকারী পুরুষ কিম্বা স্ত্রীলোককে বাহির করিয়া আপন নগর-দ্বারের সমীপে আনিবে ; পুরুষ হউক বা স্ত্রীলোক হউক, তুমি প্রস্তরা ৬ ঘাত দ্বার। তাহার প্রাণদণ্ড করবে। প্রাণদণ্ডের যোগ্য ব্যক্তির প্রাণদণ্ড দুই সাক্ষীর কিম্বা তিন সাক্ষীর প্রমাণে হইবে : একমাত্র সাক্ষীর প্রমাণে তাহার প্রাণ ৭ দণ্ড হইবে না। তাহাকে বধ করিতে প্রথমে সাক্ষীরা, পশ্চাৎ সমস্ত প্রজালোক তাহার উপরে হাত উঠাইবে । এইরূপে তুমি আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করলে ৷ -৮ রক্তপাতের কিম্ব বিরোধের কিথ আঘাতের বিষয়ে br

  • >

দ্বিতীয় বিবরণ। > b@。 দুই জনের বিবাদ তোমার কোন নগর-দ্বারে উপস্থিত হইলে য।দ তাহার বিচার তমর পক্ষে অতি কঠিন হয়, তবে তুমি উঠিয় তাপন ঈশ্বর সদা ভুর মনোনীত ৯ স্থানে যাইবে ; আর লেবীয় যাজকদের ও তৎকালিক বিচারকর্তার নিকটে গিয়া জিজ্ঞস করবে, তাহাতে ১০ তাহার তোমাকে বিচারাজা জ্ঞাত করবে। পরে সদাও ভুর মনোনীত সেই স্থানে তাহারা যে বিচারাজ্ঞী তোমাক জ্ঞাত করিবে, তুমি সেই আজ্ঞার মৰ্ম্মানুসারে কৰ্ম্ম করিবে ; তাহার তোমাকে যাহ। শিক্ষা দিবে, ১১ সমস্তই যত্নপূর্বক করিবে । তাহার তোমাকে ষে ব্যবস্থা শিক্ষ। দিবে, তাহার মৰ্ম্মানুসারে ও তোমাকে যে বিচার বলিবে, তদনুসারে তুমি করিবে ; তাহীদের :২ আদিষ্ট বাক্যের দক্ষিণে কি বামে ফিরিবে না ; কিন্তু যে ব্যক্তি দুঃসাহসপূৰ্ব্বক আচরণ করে, তোমার ঈশ্বর সদা ভুর পরিচয্যাথে সেই স্থানে দণ্ডায়মান যাজকের কিম্ব বিচারকর্তার কথায় কর্ণপাত না করে, সেই মনুষ্য হত হইবে ; ফলে তুমি ইস্রায়েলের মধ্য হইতে ১৩ &ষ্টচার লোপ করিবে । তাহাতে সমস্ত প্রজালোক তাহা শুনিয়া ভয় পাইবে, এবং দুঃসাহসের কার্য্য আর করিবে না । তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, তুমি যখন তথায় গিয়া দেশ অধিকারপূর্বক সেখানে বাস করিবে ? আর বলিবে, আমার চারিদিকের সকল জাতির স্থায় আমিও আপনার উপরে এক জন রাজা ১৫ নিযুক্ত করিব, তখন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যাহাকে মনোনীত করবেন, তাহাকেই আপনার উপরে রাজা নিযুক্ত করিবে ; তোমার ভ্রাতৃগণের মধ্য হইতে আপনার উপরে রাজা নিযুক্ত করবে ; যে তোমার ভ্রাতা নয়, এমন বিজাতীয় ব্যক্তিকে আপনার উপরে রাজা ১৬ করিত পরিবে না । আর সেই রাজ। আপনার জন্ত অনেক অশ্ব রাখিবে না, এবং অনেক অশ্বের চেষ্টায় প্রজালোকদিগকে পুনকবার মিসর দেশে গমন করাইবে না ; কেননা সদাপ্রভু তোমাদিগকে বলিয়াছেন, ইহার পরে তোমরা সেই পথে আর ফিরিয়া ১৭ যাইবে না। আর সে অনেক স্ত্রী গ্রহণ করবে না, পাছে তাহার হৃদয় বিপথগামী হয় ; এবং সে আপনার জন্ত রৌপ্য কিম্বা স্বর্ণ অতিশয় বৃদ্ধি করিবে ১৮ না । আর স্বীয় রাজ্যের সিংহাসনে উপবেশন কালে সে আপনার নিমিত্তে একখান পুস্তকে লেবীয় যাজক১৯ দের সম্মুপস্থিত এই ব্যবস্থার অনুলিপি লিখিবে । তাহা তাহার নিকটে থাকিবে, এবং সে যাবজ্জীবন তাহা পাঠ করবে ; যেন সে আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুক ভয় করিতে ও এই ব্যবস্থার সমস্ত বাক্য ও এই সকল ২০ বিধি পালন করিতে শিখে ; যেন আপন ভ্রাতাদের উপরে তাহার চিত্ত উদ্ধত না হয়, এবং সে আজ্ঞার দক্ষিণে কি বামে ন ফিরে ; এ রূপে যেন ইস্রায়েলের মধ্যে তাহার ও তাহার সস্তানদের রাজত্ব দীঘকালস্থায়ী হয় ।

  • 8

165 > 。 নানাবিধ আদেশ । \જ লেীয় যাজকগণ, লেবির সমস্ত বংশ, ইস্ত্রীয়েলের সহিত কোন অংশ কি অধিকার পাইবে না, তাহারা সদাপ্রভুর অগ্নিকৃত উপহার ও তাহার ২ অধিকৃত বস্তু ভোগ করবে। তাহারা আপন ভ্রাতাদের মধ্যে কোন অধিকার পাইবে না; সদাপ্রভুই তাহাদের অধিকার, যেমন তিনি তাহাদিগকে বলিয়াছেন। ৩ আর প্রজালোকদের হইতে যাজকগণের প্রাপ্য বিষয়ের এই বিধি ; যাহার গোরু কিম্বা মেষ বলিদান করে, তাহার। বলির স্কন্ধ, দুই গাল ও পাকস্থলী ৪ যাজককে দিবে। তুমি আপন শস্তের, দ্রাক্ষরসের ও তৈলের অগ্রিমাংশ, এবং মেষলোমের অগ্রিমাংশ ৫ তাহাকে দিবে। কেননা সদাপ্রভুর নামে পরিচর্য্য৷ করিতে নিত্য দণ্ডায়মান হইবার জন্য তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সকল বংশের মধ্য হইতে তাহাকে ও তাহার সন্তানগণকে মনোনীত করিয়াছেন । ৬ আর সমস্ত ইস্রায়েলের মধ্যে তোমার কোন নগর দ্বারে যে লেবীয় প্রবাস করে, সে যদি আপন প্রাণের সম্পূর্ণ বাসনায় তথা হইতে সদাপ্রভুর মনোনীত স্থানে ৭ আইসে, তবে সে সদাপ্রভুর সম্মুখে দণ্ডায়মান আপন লেবীয় ভ্রাতাদের ন্তায় আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর নামে ৮ পরিচর্য্যা করিবে। তাহার ভোজনার্থে সমান অংশ পাইবে ; তাহ ছাড়া সে আপন পৈতৃক অধিকার বিক্রয়ের মূল্যও ভোগ করবে। ৯ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, সেই দেশে উপস্থিত হইলে তুমি তথাকার জাতি গণের ঘৃণাই ক্রিয়ার স্তায় ক্রিয়া করিতে শিখিও না। ১০ তোমার মধ্যে যেন এমন কোন লোক পাওয়া না যায়, যে পুত্র বা কন্যাকে অগ্নির মধ্য দিয়া গমন করায়, ১১ ষে মন্ত্র ব্যবহার করে, বা গণক, বা মোহক, বী মায়াবী, বা ঐন্দ্রজালিক, বা ভূতড়িয়া, বা গুণী বা ২২ প্রেতসাধক। কেননা সদাপ্রভু এই সকল ক্রিয়াকারীকে ঘৃণা করেন ; আর সেই ঘৃণাৰ্হ ক্রিয় প্রযুক্ত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার সম্মুখ হইতে তাহাদিগকে অধি১৩ কারচু্যত করিবেন। তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর ১৪ উদেশে সিদ্ধ হও । কেননা তুমি যে জাতিগণকে অধিকারচু্যত করিবে, তাহার। গণক ও মন্ত্রব্যবহারীদের কথায় কর্ণপাত করে, কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকেই তাহা করিতে দেন নাই। তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার মধ্য হইতে, তোমার ভ্রাতৃগণের মধ্য হইতে, তোমার জন্ত আমার সদৃশ এক ভাববাদী উৎপন্ন করবেন, তাহারই কথায় তোমরা ১৪ কৰ্ণপাত কfরবে। কেননা হোরেবে সমাজের দিবসে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর কাছে এই প্রার্থনাই ত করিয়ছিল, যথা, আমি যেন আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর রব পুনর্নবার শুনিতে ও এই মহাগ্নি আর দেখিতে ন৷ ১৭ পাই, পাছে আমি মারা পড়ি। তখন সদাপ্রভু আমাকে > g. দ্বিতীয় বিবরণ । 1 P ; ) - : ఎ ? నా ! ১৮ কছিলেন, উহার ভালই বলিয়ছে। আমি উহাদের জল্প উহাদের ভ্রাতৃগণের মধ্য হইতে তোমার সদৃশ এক ভাববাদী উৎপন্ন করিব, ও তাহার মুখে আমার বাক্য দিব ; আর আমি তাহাকে যাহা যাহ আজ্ঞা করিব, তাহ ১৯ তিনি উহাদিগকে বলিবেন । আর আমার নামে তিনি আমার যে সকল বাক্য বলিবেন, তাহাতে যে কেহ কর্ণপাত না করিবে, তাহার কাছে আমি পরিশোধ ২০ লইব । কিন্তু আমি যে বাক্য বলিতে আজ্ঞা করি নাই, আমার নামে যে কোন ভাববাদী দুঃসাহসপূর্বক তাহ বলে, কিম্বা অন্ত দেবতাদের নামে যে কেহ কথা বলে, ২১ সেই ভাববাদীকে মরিতে হইবে। আর তুমি যদি মনে মনে বল, সদাপ্রভু যে বাক্য বলেন নাই, তাহা আমর ২২ কি প্রকারে জানিব ? [ তবে শুন,] কোন ভাববাদী সদাপ্রভুর নামে কথা কহিলে যদি সেই বাক্য পরে সিদ্ধ না হয়, ও তাহার ফল উপস্থিত না হয়, তবে সেই বাক্য সদাপ্রভু বলেন নাই ; ঐ ভাববাদী দুঃসাহসপূর্বক তাহ বলিয়াছে, তুমি তাহ হইতে উদ্বিগ্ন হইও না । ২১ _তোমার ঈশ্বর সদগ্ৰস্তু ল জাতিগুৰুি দেশ তোমাকে দিতেছেন, তাহাদিগকে তিনি উচ্ছিন্ন করিলে পর যখন তুমি তাহাদিগকে অধিকারচুতি ২ করিয়া তাহীদের নগরে ও গৃহে বাস করিবে, তৎকালে, যে দেশ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু অধিকারার্থে তোমাকে দিতেছেন, তোমার সেই দেশের মধ্যে তুমি আপনার ৩ জন্ত তিনটী নগর পৃথক্ করিবে। তুমি আপনার জন্ত পথ প্রস্তুত করবে, এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু যে দেশের অধিকার তোমাকে দেন, তোমার সেই দেশের ভূমি তিন ভাগ করবে ; তাহাতে প্রত্যেক নরহন্ত৷ ৪ সেই নগরে পলাইয়া যাইতে পরিবে । যে নরহন্ত। সেই স্থানে পলাইয়া বাচিতে পারে, তাহার বিবরণ এই ; কেহ যদি পূৰ্ব্বে প্রতিবাসীকে দ্বেষ না করিয়া ৫ অজ্ঞানতঃ তাহাকে বধ করে ; যথা, কেহ আপন প্রতিবাসীর সহিত কাষ্ঠ কাটিতে বনে গিয়া গাছ কাটিবার জন্ত বুড়ালি তুলিলে যদি ফলক বাট হইতে খসিয়া প্রতিবাসীর গায় এমন লাগে যে, তাহাঁতেই সে মারা পড়ে, তবে সে ঐ তিনটার মধ্যে কোন এক ৬ নগরে পলাইয়া বাচিতে পারিবে ; পাছে রক্তের প্রতিশোধদাতা অন্তরে উষ্ণ হওয়াতে নরহন্তার পশ্চাৎ ধাবমান হইয়। পথের দূরত্ব প্রযুক্ত তাহাকে ধরিয়া সাংঘাতিক আঘাত করে। সে লোক ত প্রাণদণ্ডের যোগ্য নয়, ৭ কারণ সে পুত্বে উহাকে দ্বেষ করে নাই। এই হেতু আমি তোমাকে আজ্ঞা করিতেছি, তুমি তোমার জন্ত ৮ তিনটী নগর পৃথক্ করবে। আর আমি অদ্য তোমাকে যে সকল আজ্ঞা দিতেছি, তুমি তাহ পালন করিয়া আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম করিল ও যাবজ্জীবন ৯ তাহার পথে চলিলে যদি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে কৃত আপন দিব্যানুসারে তোমার সীমা বৃদ্ধি করেন, ও তোমার পিতৃপুরুষদের কাছে 166 ১ ৯ ; ১০ – ২০ ; ১৮ । ] প্রতিজ্ঞাত সমস্ত দেশ তোমাকে দেন ; তবে তুমি সেই তিন নগর ভিন্ন আরও তিনটী নগর নিরূপণ করিবে ; ১• যেন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আধিকারার্থে তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, তোমার সেই দেশের মধ্যে নির্দোষের রক্তপাত না হয়, আর তোমার উপরে রক্তপাতের অপরাধ না বৰ্ত্তে । কিন্তু যদি কেহ আপন প্রতিবাসীকে দ্বেষ করিয়া তাহার জন্ত ঘাটি বসায় ও তাহার প্রতিকুলে উঠয়। তাহাকে সাংঘাতিক আঘাত করে, আর সে মরিয়া যায়, পরে ঐ ব্যক্তি যদি ঐ সকল নগরের মধ্যে কোন ১২ একটা নগরে পলায়ন করে ; তবে তাহীর নিবাসনগরের প্রাচীনবর্গ লোক পঠাইয়৷ তথা হইতে তাহাকে অনাইবে, ও তাঁহাকে বধ করিবার জন্ত রক্তের প্রতি১৩ শোধদাতার হস্তে সমর্পণ করিবে । তোমার চক্ষু তাহার প্রতি দয়া না করুক, কিন্তু তুমি ইস্রায়েলের মধ্য হইতে নিরপরাধের রক্তপাতের দোষ দূর করিবে ; তাহাতে তোমার মঙ্গল হইবে । তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু অধিকারার্থে যে দেশ তোমাকে দিতেছেন, সেই দেশে তোমার প্রাপ্য ভূমিতে পূৰ্ব্বকালের লোকেরা যে সীমার চিহ্ন নিরূপণ করিয়াছে, তোমার প্রতিবাসীর সেই চিহ্ন স্থানান্তর করিবে না। কেহ কোন প্রকার অপরাধ কি পাপ, যে কোন পাপ করিলে, তাহার বিরুদ্ধে একমাত্র সাক্ষী উঠিবে নী ; দুই কিম্বা তিন সাক্ষীর প্রমাণ দ্বারা বিচার নিম্পন্ন হইবে। ১৬ কোন অদ্যায়ী সাক্ষী যদি কাহারও বিরুদ্ধে উঠিয়৷ ১৭ তাহার বিষয়ে অন্তায় কার্য্যের সাক্ষ্য দেয়, তবে সেই বাদী প্রতিবাদী উভয়ে সদাপ্রভুর সম্মুখে, তাৎকালিক ১৮ যাজকদের ও বিচারকত্তাদের সম্মুখে, দাড়াইবে । পরে বিচারকর্তার সযত্নে অনুসন্ধান করিবে, আর দেখ, সে সাক্ষী যদি মিথ্যাসাক্ষী হয়, ও তাহীর ভ্রাতার ১৯ বিরুদ্ধে মিথ্যাসাক্ষ্য দিয়া থাকে ; তবে সে তাহার ভ্রাতার প্রতি যেরূপ করিতে কল্পনা করিয়াছিল, তাহার প্রতি তোমরা তদ্রুপ করিবে ; এইরূপে তুমি ২০ আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করিবে । তাহ শুনিয়া অবশিষ্ট লোকের ভয় পাইয়া তোমার মধ্যে ২১ সেরূপ দুষ্কৰ্ম্ম আর করিবে না । তোমার চক্ষু দয়া নী করুক ; প্রাণের পরিশোধ প্রাণ, চক্ষুর পরিশোধ চক্ষু, দন্তের পরিশোধ দন্ত, হস্তের পরিশোধ হস্ত, পদের পরিশোধ পদ । যুদ্ধ বিষয়ক ব্যবস্থা। ૨૦ তুমি তোমার শক্ৰদের প্রতিকূলে যুদ্ধ করিতে গিয়া যদি আপনার অপেক্ষ অধিক অশ্ব, রথ ও লোক দেখ, তবে সেই সকল হইতে ভীত হইও না, কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু, যিনি মিসর দেশ হইতে তোমাকে উঠাইয়৷ আনিয়াছেন, তিনিই তোমার ২ সহবত্তী। আর তোমরা যুদ্ধাথে নিকটবত্তী হইলে যাজক

  • >

X 3 j (? দ্বিতীয় বিবরণ। ) や ● ৩ আসিয়া লোকদের কাছে কথা কহিবে, তাহাদিগকে বলিবে, হে ইস্রায়েল, শুন, তোমরা অদ্য তোমাদের শক্রগণের সহিত যুদ্ধ করিতে নিকটে যাইতেছ ; তোমাদের হৃদয় দুৰ্ব্বল না হউক ; ভয় করিও না, কম্পমান হইও না, বা উহাদের হইতে ত্ৰাসযুক্ত হইও না। ৪ কেননা তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুই তোমাদের নিস্তারার্থে তোমাদের পক্ষে তোমাদের শক্রগণের সহিত যুদ্ধ ৫ করিতে তোমাদের সঙ্গে সঙ্গে যাইতেছেন। পরে অধ্যক্ষগণ লোকদিগকে এই কথা কহিবে, তোমাদের মধ্যে কে নূতন গৃহ নিৰ্ম্মাণ করিয়া তাহার প্রতিষ্ঠা করে নাই ? সে যুদ্ধে মরিলে পাছে অন্ত লোক তাহার প্রতিষ্ঠা করে, এই জন্ত সে আপন গৃহে ফিরিয়া ৬ যাউক । আর কে দ্রাক্ষাক্ষেত্র প্রস্তুত করিয়া তাহার প্রথম ফল ভোগ করে নাই ? সে যুদ্ধে মরিলে পাছে অন্ত লোক তাহার প্রথম ফল ভোগ করে, এই জন্ত ৭ সে আপন গৃহে ফিরিয়া যাউক। আর বাগ্‌দান হইলেও কে বিবাহ করে নাই ? সে যুদ্ধে মরিলে পাছে অন্ত লোক সেই কন্যাকে গ্রহণ করে, এই জন্ত সে আপন ৮ গৃহে ফিরিয়া যাউক । অধ্যক্ষগণ লোকদের কাছে আরও কথা কহিবে, তাহার। বলিবে, ভীত ও দুৰ্ব্বলহৃদয় লোক কে আছে ? সে আপন গৃহে ফিরিয়া যাউক, পাছে তাহার হৃদয়ের স্থায় তাহার ভ্রাতাদের ৯ হৃদয় গলিয়া যায়। পরে অধ্যক্ষগণ লোকদের কাছে কথা সাঙ্গ করিলে পর তাহার লোকদের উপরে সেনাপতিদিগকে নিযুক্ত করিবে । ১০ যখন তুমি কোন নগরের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করিতে তাহার নিকটে উপস্থিত হইবে, তখন তাহার কাছে সন্ধির ১১ কথা ঘোষণা করিবে । তাহাতে যদি সে সন্ধি করিতে সন্মত হইয়া তোমার জন্ত দ্বার খুলিয়া দেয়, তবে সেই নগরে যে সমস্ত লোক পাওয়া যায়, তাহার তোমাকে ১২ কর দিবে, ও তোমার দাস হইবে। কিন্তু যদি সে সন্ধি না করিয়া তোমার সহিত যুদ্ধ করে, তবে তুমি সেই ১৩ নগর অবরোধ করিবে । পরে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তাহা তোমার হস্তগত করিলে তুমি তাহার সমস্ত পুরুষ১৪ কে খড়গধারে আঘাত করিবে, কিন্তু স্ত্রীলোক, বালকবালিকা ও পশুগণ প্রভৃতি নগরের সর্বস্ব, সমস্ত লুটদ্রব্য আপনার জন্ত লুটম্বরূপে গ্রহণ করিবে, আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর দত্ত শক্ৰদের লুট ভোগ : ৫ করিবে। এই নিকটবৰ্ত্তী জাতিদের নগর ব্যতিরেকে যে সকল নগর তোমা হইতে অতি দূরে আছে, তাহt১৬ দেরই প্রতি এইরূপ করবে। কিন্তু এই জাতিদের যে সকল নগর তোমার ঈশ্বর সদ্যপ্রভু আধিকারার্থে তোমাকে দিবেন, সেই সকলের মধ্যে শ্বাসবিশিষ্ট কাহা১৭ কেও জীবিত রাখিবে না ; তুমি আপন ঈশ্বর সদপ্রভুর আজ্ঞানুসারে তাহাদিগকে—হিৰ্ত্তীয়, ইমোরীয়, কননীয়,পরিষীয়,হিববীয় ও যিৰূষীয়দিগকে—নিঃশেষে ১৮ বিনষ্ট করিবে ; পাছে তাহারা আপন আপন দেবতাদের উদ্দেশে যে সকল ঘৃণাই কৰ্ম্ম করে, তদ্রুপ করিতে 167 > や シ তোমাদিগকেও শিখায়, আর পাছে তোমরা তোমাদের ঈশ্বর সদাগ্রভুর বিরুদ্ধে পাপ কর। ১৯ যখন তুম কোন নগর হস্তগত করণার্থে যুদ্ধ করিয়া বহুকাল পৰ্য্যন্ত তাহ অবরোধ কর, তখন কুড়ালি দিয়া তথাকার বৃক্ষ ছেদন করিবে না ; তুমি তাহার ফল থাইতে পার, কিন্তু তাই কাটিবে না ; কেননা ক্ষেত্রের বৃক্ষ কি মানুষ যে, তাহাও তোমার অবরোধের যোগ্য ২• হইবে ? কিন্তু এই এই বৃক্ষ হইতে খাদ্য জন্মে না, ইহা যে সকল বৃক্ষের বিষয়ে জ্ঞাত আছ, সে সকল তুমি নষ্ট করিত ও কাটিতে পরিবে ; এবং তোমার সহিত যুদ্ধকারী নগর যাবৎ পতিত না হয়, তাবৎ সেই নগরের বিরুদ্ধে জঙ্গাল বধিতে পরিবে । নানা বিষয়ে আদেশ । ミS তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু অধিকারার্থে যে দেশ তোমাকে দিতেছেন, তাহার মধ্যে যদি ক্ষেত্রে পতিত কোন হত লোকক পাওয়া যায়, এবং তাহাকে ২ কে বধ করিল, তাহ! জান না যায় ; তবে তোমার প্রাচীনবর্গ ও বিচারকর্তৃগণ বাহিরে গিয়া সেই শবের চারিদিকে কোন নগর কত দূর, তাহ মাfপৰে । ৩ তাহীতে যে নগর ঐ হত লোকের নিকটস্থ হইবে, তথাকার প্রাচীনবর্গ পাল হইতে এমন একটী গোবৎসা লইবে, যাহা দ্বার। কেন কার্য হয় নাই, যে s যেয়ালি বহন করে নাই । পরে সেই নগরের প্রাচীনবগ সেই গোবৎসকে এমন কোন একটা উপত্যকায় তlনবে, যেখানে জলস্রোত নিত্য বহে, এবং চাস বা বীজ বপন হয় না, ও সেই উপত্যকায় তাহার গ্রীব। ৫ ভঙ্গিয় ফেলিবে । পরে লেবির সন্তান যাজকের নিকটে আসিবে, কেননা তাহাদিগকেই তোমার ঈশ্বর সদা প্ৰভু আপনার পরিচর্য্যাথ ও সদাপ্রভুর নামে আশীৰ্ব্বাদ করণাথে ম নানীত করিয়াছেন ; এবং তাহাদের বাক্যানুসারে প্রত্যেক বিবাদের ও আঘাতের ৬ বিচার হইবে । পরে শবের নিকটস্থ ঐ নগরের সমস্ত প্রাচীন উপত্যকাতে ভগ্নগ্ৰীবা গোবৎসার উপরে ৭ আপন আপন হস্ত ধুইয়া দিবে। আর তাহার উত্তর করিয়া বলিবে, আমাদের হস্ত এই রক্তপাত করে নাই, ৮ আমাদের চক্ষু ইহা দেখে নাই ; হে সদাপ্রভু, তুমি আপনার প্রজ। যে ইস্রায়েলকে মুক্ত করিয়াছ, তাহাকে ক্ষমা কর । আপনার প্রজ। ইস্রা-য়লর মধ্যে নিরপরাধের রক্তপাতজন্ত দোষ থাকিতে দিও না । তাহাতে তাহাঁদের পক্ষে সেই রক্তপাতের দোষ ক্ষম হইবে । ৯ এইরূপে তুমি আপনার মধ্য হইতে নিরপরাধের রক্ত পাতের দোষ দূর করবে ; কেননা সদাপ্রভুর সাক্ষাতে যাহা যথাৰ্থ, তাহাঁই তুমি করিবে । ১• তুমি আপন শক্রগণের বিরুদ্ধে যুদ্ধযাত্রা করিলে যদি তোমার ঈশ্বর সদা ভু তাহাদিগকে তোমার ইস্তে সমর্পণ করেন, ও তুমি তাহ দগ-ক বন্দ করল। লইয়া যাও ; ১১ এবং সেই বন্দিদের মধ্যে কোন স্বনারী স্ত্রী দেখিয়া দ্বিতীয় বিবরণ । | 8. o ; >> - ९ ९ : २ ।। প্রেমাসক্ত হইয়। যদি তুমি তাহাকে বিবাহ করিতে ১২ চাও ; তবে তাহাকে আপন গৃহমধ্যে আনিবে, এবং ১৩ সে আপন মস্তক মুণ্ডন করিবে, ও নখ কাটিবে ; আর আপনার বন্দিত্ব-দশার বস্ত্র ত্যাগ করিবে ; পরে তোমার গৃহে থাকিয় আপন পিতামাতার জন্ত সম্পূর্ণ এক মাস বিলাপ করিবে ; তাহার পরে তুমি তাহার কাছে গমন করিতে পরিবে, তুমি তাহার স্বামী হইবে ও সে ১৪ তোমার স্ত্রী হইবে । আর যদি তাহাতে তোমার প্রীতি না হয়, তবে যে স্থানে তাহার ইচ্ছ, সেই স্থানে তাহাকে যাইতে দিবে ; কিন্তু কোন প্রকারে টাকা লইয়। তাহাক বিক্রয় করিবে না : তাহার প্রতি দাসবৎ ব্যবহার করিবে না, কেননা তুমি তাহাকে মানভ্রষ্টা করিয়াছ । ১৫ যদি কোন পুরুষের প্রিয় অপ্রিয় দুই স্ত্রী থাকে, এবং প্রিয়া ও অf রী উভয়ে তাহার জন্ত পুত্র প্রসব ১৬ করে, আর জ্যেষ্ঠ পুত্র অপ্রিয়ার সন্তান হয় ; তবে আপন পুত্রদিগকে সর্ববস্বের তাধিকার দিবার সময়ে অঙি য়াজাত জ্যেষ্ঠ পুত্ৰ থাকিতে সে ড্ৰি য়াজাত পুত্রকে ১৭ জ্যেষ্ঠাধিকার দিতে পরিবে না । কিন্তু সে অপ্রিয়ার পুত্রকে জ্যেষ্ঠরূপে স্বীকার করিয়া আপন সর্ববশ্বের দুই অংশ তাহাuক দিবে ; কারণ সে তাহার শক্তির প্রথম ফল, জোঙাধিকার তাহারই । যদি কাহারও পুত্র অবাধ্য ও বিরোধী হয়, পিতামতার কথা না শুনে, এবং শাসন করিলেও তাহা১৯ দিগকে অমান্ত করে ; তবে তাহার পিতামাত। তাঁহাকে ধরিয়া নগরের ও চীনবর্গের নিকটে ও তাঁহার নিবাস২• স্থানের নগর-দ্বারে লইয়া যাইবে ; আর তাহারা নগরের প্রাচীনবগcক বলিবে, আমাদের এই পুত্র অবাধ ও বিরোধী, আমাদের কথা মানে না, সে অপব্যয়ী ও ২১ মদ্যপায়ী । তাহাতে সেই নগরের সমস্ত পুরুষ তাহাকে প্রস্তরাঘাতে বধ করিবে ; এইরূপে তুমি আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করিবে, আর সমস্ত ইস্রায়েল শুনিয়। ভয় পাইবে । যদি কোন মনুষ্য প্রাণদণ্ডের যোগ্য পাপ করে, আর তাহার প্রাণদণ্ড হয়, এবং তুমি তাহাকে গাছে ২৩ টাঙ্গাইয়৷ দেও, তবে তাহার শব রাত্রিতে গাছের উপরে থাকিতে দিবে না, কিন্তু নিশ্চয় সেই দিনই তাহাকে কবর দিবে ; কেননা যে ব্যক্তিকে টাঙ্গান ঘায়, সে ঈশ্বরের শাপগ্ৰস্ত ; তোমার ঈশ্বর সদ প্ৰভু অধিকারাথে যে ভুমি তোমাক দিতেছেন, তুমি তোমার সেই ভূমি অশুচি করিবে না। མ་མ་། তোমার কেন ভ্রাতার বলদ কিম্বা মেষকে পথহারা হইতে দেখিলে তুমি তাহদের হইতে গা ঢাকা দিও না ; অবশ্য আপন ভ্রাতার নিকট ২ তাহাদিগকে ফিরাইয়া আনিবে। যদি তোমার সেই ভ্ৰাত তোমার নিকটস্থ কিম্বা পরিচিত না হয়, তবে তুমি সেই পশুক আপন বাটতে আনিয়া যাবৎ সেই ভ্রাতা তাহার অন্বেষণ না করে, তাবৎ আপনার নিকটে 3 * ミネ 168 ** ; oー*○ ; 8 I ] ও রাখিবে, পরে তাহ ফিরাইয়া দিবে। তুমি তাহার গর্দভের সম্বন্ধেও তদ্রুপ করবে, এবং তাহার বস্ত্রের সম্বন্ধেও তঞপ করিবে ; তোমার ভ্রাতার হারাণ যে কোন দ্রব্য তুমি পাও, সেই সকলের বিষয়ে তদ্রুপ করিবে ; তোমার গা ঢাকা দেওয়া অকৰ্ত্তব্য । ৪ তোমার ভ্রাতার গদভ কিথা বলদকে পথে পতিত দেখিলে তাহদের হইতে গা ঢাকা দিও না ; অবগু তুমি তাহাদিগকে তুলিতে তাহার সাহায্য করবে। ৪ খ্রীলোক পুরুষের পরিধেয়, কিম্ব। পুরুষ স্ত্রীলোকের বস্ত্র পরিধান করবে না ; কেননা যে কেহ তাহ। করে, সে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর ঘৃণার পাত্র । ৬ পথের পাশ্বস্থ কোন বৃক্ষ কিম্ব ভূমির উপরে তোমার সম্মুখ যদি কোন পক্ষীর বাসাতে শাবক কিম্ব। ডিম্ব থাকে, এবং সেই শাবকের কিম্ব ডিম্বের উপরে পক্ষিণ বসিয়া থাকে, তবে তুমি শাবকগণের ৭ সহিত পক্ষিণাকে ধরিও না । তুমি আপনার জন্ত শাবকগুলিকে লইতে পার, কিন্তু নিশ্চয় পক্ষিণাকে ছাড়য়া দিবে ; যেন তোমার মঙ্গল ও দীর্ঘ পরমায়ু হয়। ৮ নুতন গৃহ প্রস্তুত করিলে তাহার ছাদে আলসিয়া নিৰ্ম্মাণ করবে, পাছে তাহার উপর হইতে কোন মনুষ্য পড়িলে তুমি আপন গৃহে রক্তপাতের অপরাধ বৰ্ত্তাও । ৯ তোমার দ্রাক্ষাক্ষেত্রে মিশ্রিত বীজ বপন করিবে ন ; পাছে সমস্ত ফল—তোমার উপ্ত বীজে ও দ্রাক্ষাক্ষেত্রের ফল—তুমি স্বত্বহীন হও । ১০ বলদ ও গর্দভে একত্র যুড়িয়া চাস করিবে না । ১১ লোম ও মসীনা-মিশ্রিত স্বত্র। নৰ্ম্মিত বস্ত্র পরিধান করিও না । আপনার আবরণার্থক গাত্রীয় বস্ত্রের চারি কোণে থোপ দিও । - ১৩ কোন পুরুষ যদি বিবাহ করিয়া স্ত্রীর কাছে গমন ১৪ করে, পরে তাহাকে ঘুণ। করে, এবং তাহার নামে অপবাদ দেয়, ও তাহার দুনাম করিয়া বলে, আমি এই স্ত্রীকে বিবাহ করিয়াছি বটে, কিন্তু সঙ্গ কালে ১s ইহার কোম। র্য্যর চিহ্ন পাইলাম না ; তবে সেই কন্তর পিতামাতা তাহার কে মায্যের চিহ্ন লইয়। নগরের প্রাচীনবর্গের নিকটে নগর-দ্বারে উপস্থিত ১৬ করিবে। আর কস্তার পিত। প্রাচীনবর্গকে বলিবে, আমি এই ব্যক্তির সহিত অপন কস্তার বিবাহ দিয়া১৭ ছিলাম, কিন্তু এ তাহাকে ঘৃণা করে ; আর দেখ, এ অপবাদ দিয়া বলে, আম তোমার কন্যার কোমর্য্যের চিহ্ন পাই নাই ; কিন্তু আমার কস্তার কোমায্যের চিহ্ন এই দেখুন। আর তাহার। নগ.রর প্রাচীনবৰ্গের ১৮ সাক্ষাতে সেই বস্ত্র বিস্তার করবে। পরে নগরের ১৯ প্রাচীনবগ সেই পুরুষকে ধরিয়া শাস্তি দিবে। আর তাহার এক শত । শেকল ] রৌপ্য দণ্ড করিয়। কস্তার পিতাকে দিবে, কেনন। সেই ব্যক্ত ইস্রায়েলায় এক কুমারীর উপরে ছুনাম আনিয়াছে ; আর সে তাহার Y R দ্বিতীয় বিবরণ।

  • SS

স্ত্রী হইবে, ঐ পুরুষ যাবজ্জীবন তাঁহাকে ত্যাগ করিতে ২০ পরিবে না। কিন্তু সেই কথা যদি সত্য হয়, কঙ্কার ২১ কেমার্য্যের চিহ্ন যদি না পাওয়া যায় ; তবে তাহারা সেই কন্যাকে বাহির করিয় তাহার পিতৃগৃহের দ্বারসমীপে আনিবে, এবং সেই কন্যার নগরের পুরুষের প্রস্তরাঘাতে তাহাকে বধ করিবে ; কেননা পিতৃগৃহে ব্যভিচার করাতে সে ইস্রায়েলের মধ্যে মুঢ়তার কৰ্ম্ম করিয়াছে ; এইরূপ তুমি আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করবে । কোন পুরুষ যদি পরস্ত্রীর সহিত শয়ন কালে ধরা পড়ে, তবে পরস্ত্রীর সহিত শয়নকারী সেই পুরুষ ও সেই স্ত্রী উভয়ে হত হুইবে ; এইরূপ তুমি ইস্রায়েলের মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করিবে । ২৩ যদি কেই পুরুষের প্রতি বাগদত্ত কোন কুমারীকে ২৪ নগরমধ্যে পাইয়। তাহার সহিত শয়ন করে ; তবে তোমরা সেই দুই জনকে বাহির করিয়৷ নগর-দ্বারের নিকটে আনেয়। প্রস্তরাঘাতে বধ করিবে ; সেই কস্তাকে বধ কারবে, কেননা নগরের মধ্যে থাকিলেও সে চীৎকার করে নাই, এবং সেই পুরুষকে বধ করিবে, কেনন। সে তাপন প্রতিবাসীর স্ত্রীকে মানভ্রষ্ট। কারয়াছ ; এইরূপে তুমি আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লেপ কারবে । কিন্তু যদি কোন পুরুষ বাগদত্ত কস্তাকে মাঠে পাইয়া বলপূর্বক তাহার সাহত শয়ন করে, তবে তাহার ২৬ সহিত শয়নকারী সেই পুরুষমাত্র হত হইবে ; কিন্তু কন্যার প্রতি তুমি কিছুই করিবে না ; সে কন্যাতে প্রাণদণ্ডের যোগ্য পাপ নাই ; ফলতঃ যেমন কোন মনুষ্য আপন প্রতিবাসীর বিরুদ্ধ উঠয় তাহাকে প্রাণে বধ ২৭ করে, ইহাও তঞপ । কেনন। সেই পুরুষ মাঠে তাহাকে পাইয়াছিল ; ঐ বাগদত্ত। কস্ত। চীৎকার করলেও তাহার নিস্তারকর্ত। কেহ ছিল না । যদি কেহ অবাগদত্ত কুমারী কন্যাকে পাইয় তাহাকে ধরিয়া তাহার সহিত শয়ন করে, ও তাহার। ধরা পড়ে, ২৯ তবে তাইরি সহিত শয়নকারী সেই পুরুষ কস্তার পিতাকে পঞ্চাশ [ শকল ] রৌপ্য দিবে, এবং তাহাকে মানভ্রষ্টা করিয়াছে বলিয়। সে তাহার স্ত্রী হইবে ; সেই পুরুষ তাহাকে যাবজ্জীবন ত্যাগ করতে পরিবে না। কোন পুরুষ আপন পিতৃভ র্যাকে গ্রহণ করবে না, ও আপন পিতার আবরণীয় অনাবৃত করবে না। མ་ 9 টুর্ণাও কৰা ছিন্নালঙ্গ ব্যক্তি সদাপ্রভুর সমাজে প্রবেশ করবে না । ২ জারজ ব্যক্তি সদাপ্রভুর সমাজে প্রবেশ করিবে না : তাহার দশম পুরুষ পৰ্য, গুও সদাপ্রভুর সমাজে প্রবেশ করিতে পাইবে না। ৩ অম্মোনীয় fকথ। মোয়াবীয় কেহ সদাপ্রভুর সমাজে প্রবেশ করিতে পাইবে না ; দশম পুরুষ পয্যন্ত তাহtদের কেহ সদাপ্রভুর সমাজে কখনও প্রবেশ করতে ৪ পাইবে না। কেননা মিসর হইতে তোমাদের আসিবার ২২ ミ● ২৮ Voe 169 У Q o সময়ে তাহার পথে অন্ন জল লইয়া তোমাদের সহিত সাক্ষাৎ করে নাই ; আবার তোমাকে শাপ দিবার জন্ত তোমার বিরুদ্ধে আরম-নহরয়িমস্থ পথেরিনিবাসী ও বিয়োরের পুত্র বিলিয়মকে উৎকোচ দিয়াছিল। তথাপি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু বিলিয়মের কথায় কর্ণপাত করিতে সন্মত হন নাই ; বরং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার পক্ষে সেই অভিশাপ আশীৰ্ব্বাদে পরিণত করিলেন ; কারণ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে প্রেম ৬ করেন । তুমি যাবজ্জীবন কখনও তাহদের শান্তি কি মঙ্গল অন্বেষণ করিবে না । তুমি ইদোমীয়কে ঘৃণা করিবে না, কেননা সে তোমার ভ্রাত ; মিশ্রীয়কে ঘৃণা করিবে না, কেনন। ৮ তুমি তাহার দেশে প্রবাসী ছিলে। তাহদের হইতে যে সন্তানগণ উৎপন্ন হইবে, তাহার তৃতীয় পুরুষে সদাপ্রভুর সমাজে প্রবেশ করিতে পাইবে। ৯ তোমার শক্রগণের বিরুদ্ধে শিবিরে যাত্রীকালে যাব১০ তীয় মন্দ বিষয়ে সাবধান থাকিবে । তোমার মধ্যে যদি কোন ব্যক্তি রাত্রিঘটিত কোন অশুচিতায় অশুচি হয়, তবে সে শিবির হইতে বাহিরে যাইবে, শিবিরের মধ্যে ১১ প্রবেশ করিবে না । পরে বেলা অবসান হইলে সে জলে স্নান করিবে, ও সূর্য্যের অস্তগমন সময়ে শিবিরের ১২ মধ্যে প্রবেশ করবে। তুমি শিবিরের বাহিরে এক স্থান নিরূপণ করিয়া বহির্দেশ বলিয়৷ সেই স্থানে ও যাইবে ; আর তোমার অস্ত্রশস্ত্র মধ্যে একখানি খুন্তি থাকিবে ; বহির্দেশে গমন সময়ে তুমি তদ্বারা গৰ্ত্ত করিয়া ফিরিয়া আপনার নির্গত মল ঢাকিয় ফেলিবে । ১৪ কেননা তোমাকে রক্ষা করিতে ও তোমার শক্রগণকে তোমার সম্মুখে সমৰ্পণ করিতে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার শিবিরের মধ্যে গমনাগমন করেন ; অতএব তোমার শিবির পবিত্র হউক ; পাছে তোমাতে কোন অশুচি বিষয় দেখিয় তিনি তোমা হইতে বিমুখ হন। যে দাস আপন স্বামীর নিকট হইতে পলাইয় তোমার নিকটে আইসে, তুমি তাহাকে সেই স্বামীর ১৬ হস্তে সমর্পণ করিবে না। সে তোমার কোন এক নগরদ্বারের ভিতরে, যেখানে তাহার ভাল লাগে, সেই মনোনীত স্থানে তোমার সঙ্গে তোমার মধ্যে বাস করিবে ; তুমি তাহার উপরে দৌরাত্ম্য করবে না। ইস্রায়েল-বংশীয় কোন কন্যা যেন বেশ্য না হয়, আর ইস্রায়েল-বংশীয় কোন পুরুষ যেন পুংগামী ন৷ ১৮ হয়। কোন মানতের জন্য বেশ্যার বেতন কিম্ব। কুকুরের মূল্য তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর গৃহে আনিবে না, কেননা সে উভয়ই তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর কাছে ঘৃণাৰ্ছ । o Y & 일 দ্বিতীয় বিবরণ । ১৯ তুমি স্বদের জন্য, রৌপ্যের স্বদ, খাদ্য সামগ্রীর মুদ, কোন দ্রব্যের সুদ পাইবার জন্ত, আপন ভ্রাতাকে ঋণ । ২• দিবে না। স্বদের জন্ত বিদেশীকে ঋণ দিতে পার, কিন্তু স্বদের জন্য আপন ভ্রাতাকে ঋণ দিবে না ; যেন তুমি যে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, সে দেশে । [ R○ ; cー*、8; セl তোমার হস্তকৃত সমস্ত কৰ্ম্মে তোমার ঈশ্বর সদা ভু তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করেন । তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে কিছু মানত করিলে তাহ দিতে বিলম্ব করিও না ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু অবশ্য তাহা তোমা হইতে আদায় করি২২ বেন : না দিলে তোমার পাপ হইবে । কিন্তু যদি মনত ২৩ না কর, তবে তাহাতে তোমার পাপ হইবে না। তোমার ওষ্ঠনিগত বাক্য সযত্বে পালন করিবে ; তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে তোমার মুখ হইতে যেমন স্ব-ইচ্ছায় দত্ত মানতের কথা নির্গত হয়, তদনুসারে করিবে । প্রতিবাসীর দ্রাক্ষাক্ষেত্রে গেলে তুমি আপন ইচ্ছানুসারে তৃপ্তি পর্য্যন্ত দ্রীক্ষাফল ভোজন করিতে পারবে, কিন্তু পাত্রে করিয়৷ কিছু লইবে না। প্রতিবাসীর শস্তক্ষেত্রে গেলে তুমি আপন হস্তে শীষ ছিড়িতে পারিবে, কিন্তু আপন প্রতিবাসীর শস্তক্ষেত্রে কাস্ত্যা দিবে না। ૨8 কোন পুরুষ কোন স্ত্রীকে গ্রহণ করিয়া বিবাহ করিবার পর যদি তাঁহাতে কোন প্রকার অনুপযুক্ত ব্যবহার দেখিতে পায়, আর সেই জষ্ঠ সে স্ত্রী তাহার দৃষ্টিতে প্রীতিপাত্র না হয়, তবে সেই পুরুষ তাহার জন্ত এক ত্যাগপত্র লিখিয় তাহার হস্তে দিয়া আপল বাট হইতে তাহাকে বিদায় করিতে পরিবে। আর সে স্ত্রী তাহার বাট হইতে বাহির হইবার পর গিয় অন্ত পুরুষের ভাৰ্য্য হইতে পারে। আর ঐ পশ্চাতের স্বামীও যদি তাহকে ঘৃণা করে, এবং তাহার জন্ত ত্যাগপত্র লিখিয়া তাহার হস্তে দিয়া আপন বাটী হইতে তাহাকে বিদায় করে, কিম্বা বিবাহকারী ঐ পশ্চাতের স্বামী যদি মরিয়া যায় ; তবে যে প্রথম স্বামী তাহাকে বিদায় করিয়াছিল, সে তাহার অশুচি হইবার পরে তাহাকে পুনকবার বিবাহ করিতে পরিবে নী ; কেননা তাহ সদাপ্রভুর সাক্ষাতে ঘৃণাই কৰ্ম্ম : তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু অধিকারার্থে যে দেশ তোমাকে দিতেছেন, তুমি তাহ পাপলিপ্ত করিবে না। কোন ব্যক্তি নুতন বিবাহ করিলে সৈন্যদলে গমন করিবে না, এবং তাহাকে কোন কৰ্ম্মের ভার দেওয়া যাইবে না ; সে এক বৎসর পর্য্যন্ত আপন গৃহে নিষ্কৰ্ম্ম থাকিয়, যে স্ত্রীকে সে গ্রহণ করিয়াছে, তাহার চিত্তরঞ্জন করিবে । কেহ কাহারও যাতা কিম্বা তাহার উপরের পাট বন্ধক রাখিবে না; তাহা করিলে প্রাণ বন্ধক রাখা হয়। ৭ কোন মনুষ্য যদি আপন ভ্রাতৃগণের— ইস্রায়েলসন্তানদের—মধ্যে কোন প্রাণীকে চুরি করে, এবং তাহার প্রতি দাসবৎ ব্যবহার করে, বা বিক্রয় করে, এবং ধরা পড়ে, তবে সেই চোর হত হইবে ; এইরূপে তুমি আপনার মধ্য হইতে দুষ্টাচার লোপ করিবে। ৮ তুমি কুণ্ঠরোগের ঘায়ের বিষয়ে সাবধান হইয়া, লেবীয় যাজ-করা যে সকল উপদেশ দিবে, অতিশয় যত্বপূর্বক তদনুসারে কৰ্ম্ম করিও ; আমি তাহাদিগকে

  • >

ミ8 ૨ ? 8 g Vo 17() * 8 ; ३० - २ G : २२ । ] যে যে অজ্ঞা দিয়াছি, তাহ পালন করিতে যত্ন করিবে । ৯ মিসর হইতে তোমাদের বাহির হইয়া আসিবার সময়ে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু পথে মরিয়মের প্রতি যাহা করিয়াছিলেন, তাহ স্মরণে রাখিবে। ১০ তোমার প্রতিবাসীকে কোন প্রকার কিছু ঋণ দিলে তুমি বন্ধকী দ্রব্য লইবার জন্ত তাহার গৃহে প্রবেশ ১১ করিবে না। তুমি বাহিরে দাড়াইয়া থাকিবে, এবং ঋণী ব্যক্তি বন্ধকী দ্রব্য বাহির করিয়া তোমার নিকটে ১২ আনিবে। আর সে যদি দরিদ্র হয়, তবে তুমি তাহার ১৩ বন্ধকী দ্রব্য রাখিয়া নিদ্র। যাইবে না। সূৰ্য্যাস্তকালে তাহার বন্ধকী দ্রব্য তাহাকে অবখ্য ফিরাইয়া দিবে ; তাহাতে সে আপন বস্ত্রে শয়ন করিয়া তোমাকে আশীবাদ করিবে ; আর তাহ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর সাক্ষাতে তোমার ধাৰ্ম্মিকতার কার্ষ্য হইবে । ১৪ তোমার ভ্রাতা হউক, কিম্ব তোমার দেশের নগরদ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী বিদেশী হউক, দীন দুঃখী বেতনজীবীর ১৫ প্রতি উপদ্রব করিবে না । কার্য্যের দিবসে তাহার বেতন তাহাকে দিবে ; সুৰ্য্যের অস্তগমন পৰ্য্যন্ত তাহ রাখিবে না ; কেননা সে দরিদ্র, এবং সেই বেতনের উপরে তাহার মন পড়িয়া থাকে ; পাছে সে তোমার বিরুদ্ধে সদাপ্রভুকে ডাকে, আর এই বিষয়ে তোমার পাপ হয় । সন্তানের জন্ত পিতার, কিম্বা পিতার জন্ত সন্তানের প্রাণদণ্ড করা যাইবে না ; প্রতিজন আপন আপন পাপপ্রযুক্তই প্রাণদণ্ড ভোগ করিবে । ১৭ বিদেশীর কিম্ব। পিতৃহীনের বিচারে অন্যায় করিবে ১৮ না, এবং বিধবার বস্ত্র বন্ধক লইবে না। স্মরণে রাখিবে, তুমি মিসর দেশে দাস ছিলে, কিন্তু তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তথা হইতে তোমাকে মুক্ত করিয়াছেন, এই জন্য আমি তোমাকে এই কৰ্ম্ম করিবার আজ্ঞা দিতেছি । ১৯ তুমি ক্ষেত্রে আপন শস্ত ছেদন কালে যদি এক আটি ক্ষেত্রে ফেলিয়। রাখিয়া অtসিয়া থাক, তবে তাহ লইয়া আসিতে ফিরিয়া যাইও না ; তাহ বিদেশীর, পিতৃহীনের ও বিধবার জন্ত থাকিবে ; যেন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার হস্তকৃত সমস্ত কৰ্ম্মে তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করেন । যখন তোমার জিতবৃক্ষের ফল গাড়, তখন শাখাতে আবার অবশিষ্টের অন্বেষণ করিবে না ; তাহ বিদে২১ শীর, পিতৃহীনের ও বিধবার জন্ত থাকিবে। যখন তোমার দ্রীক্ষাক্ষেত্রের দ্রাক্ষফল চয়ন কর, তখন চয়নের পরে আবার কুড়াইও না ; তাহ বিদেশীর, ২২ পিতৃহীনের ও বিধবার জন্ত থাকিবে । স্মরণে রাখিবে, তুমি মিসর দেশে দাস ছিলে, এই জন্য আমি তোমাকে এই কৰ্ম্ম করিবার আজ্ঞা দিতেছি । રડિ মনুষ্যদের মধ্যে বিবাদ উপস্থিত হইলে উহার যদি বিচারকত্তাদের নিকটে যায়, আর তাহার। বিচার করে, তবে নির্দোষকে নির্দোষ ও দোষীকে ২ দোষী করিবে। আর যদি দুষ্টলোক প্রহারের যোগ্য > 。 ২ • দ্বিতীয় বিবরণ। S 9 o' হয়, তবে বিচারকওঁ। তাঁহাকে শয়ন করাইয় তাহার অপরাধানুসারে আঘাতের সংখ্যা নিশ্চয় করিয়া আপ৩ নার সাক্ষাতে তাহাকে প্রহার করাইবে । সে চল্লিশ আঘাত করিতে পারে, তাহার অধিক নয় : পাছে সে অধিক আঘাত দ্বারা ভারী প্রহার করাইলে তোমার ভ্রাতা তোমার সাক্ষাতে তুচ্ছনীয় হয়। ৪ শস্যমৰ্দ্দন কালে বলদের মুখে জাতি বান্ধিবে না। ৫ যদি ভ্রাতৃগণ একত্র হইয়া বাস করে, এবং তাহীদের মধ্যে এক জন অপুত্ৰক হইয়। মরে, তবে সেই মৃত ব্যক্তির স্ত্রী বাহিরের অন্ত গোষ্ঠীভুক্ত পুরুষকে বিবাহ করিবে না ; তাহার দেবর তাহার কাছে যাইবে, তাহাকে বিবাহ করিবে, এবং তাহার প্রতি দেবরের ৬ কৰ্ত্তব্য সাধন করিবে। পরে সেই স্ত্রী যে প্রথম পুত্র প্রসব করিবে, সে ঐ মৃত ভ্রাতার নামে উত্তরাধিকারী হইবে ; তাহাতে ইস্রায়েল হইতে তাহার নাম লুপ্ত ৭ হইবে না । আর সেই পুরুষ যদি আপন ভ্রাতৃপত্নীকে গ্রহণ করিতে সম্মত না হয়, তবে সেই ভ্রাতৃপত্নী নগরদ্বারে প্রাচীনবর্গের কাছে গিয়া বলিবে, আমার দেবর ইস্রায়েলের মধ্যে আপন ভ্রাতার নাম রক্ষা করিতে অসন্মত, সে আমার প্রতি দেবরের কৰ্ত্তব্য সাধন করিতে ৮ চাহে না । তখন তাহার নগরের প্রাচীনবর্গ তাঁহাকে ডাকিয় তাহার সঙ্গে কথা বলিবে ; যদি সে দাড়াইয় ৯ বলে, উহাকে গ্রহণ করিতে আমার ইচ্ছা নাই ; তবে তাহার ভ্রাতৃপত্নী প্রাচীনবর্গের সাক্ষাতে তাহার নিকটে আসিয় তাহার পদ হইতে পাদুকা খুলিবে, এবং তাহার মুখে থুথু দিবে, আর উত্তরস্বরূপে এই কথা কহিবে, যে কেহ আপন ভ্রাতার কুল রক্ষী না করে, ১০ তাহার প্রতি এইরূপ করা যাইবে । আর ইস্রায়েলের মধ্যে তাহার নাম হইবে, মুক্তপাদুকের কুল’ । ১১ পুরুষের পরস্পর বিরোধ করিলে তাহদের এক জনের স্ত্রী যদি প্রহারকের হস্ত হইতে আপন স্বামীকে মুক্ত করিতে আসিয়া হস্ত বিস্তারপূর্বক প্রহারকের ১২ পুরুষাঙ্গ ধরে, তবে তুমি তাহার হস্ত কাটিয়া ফেলিবে, চক্ষুলজ্জা করিবে না। ১৩ তোমার থলিয়াতে ছোট বড় দুই প্রকার বাটখারা ১৪ না থাকুক। তোমার গৃহে ছোট বড় দুই প্রকার পরি১৫ মার্ণপাত্র না থাকুক। তুমি যথার্থ ও স্থায্য বাটখারা রাখিবে, যথার্থ ও স্থায্য পরিমাণপাত্র রাখিবে ; যেন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, ১৬ সেই দেশে তোমার দীর্ঘ পরমায়ু হয়। কারণ যে কেহ ঐ প্রকার কার্য্য করে, যে কেহ অন্তায় করে, সে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর ঘৃণিত। ১৭ শ্মরণে রাখিও, মিসর হইতে তোমরা যখন বাহির হইয়া আসিয়াছিলে, তখন পথে তোমার প্রতি তামা১৮ লেক কি করিল ; তোমার শ্রান্তি ও ক্লান্তির সময়ে সে কি প্রকারে তোমার সহিত পথে মিলিয়া তোমার পশ্চাদ্বত্তী দুৰ্ব্বল লোক সকলকে আক্রমণ করিল ; ১৯ আর সে ঈশ্বরকে ভয় করিল না । অতএব তোমার 171 * १ ९ ঈশ্বর সদাপ্রভু যে দেশ স্বত্বাধিকারের জন্য তোমাকে দিতেছেন, সেই দেশে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু চারিদিকের সকল শত্রু হইতে তোমাকে বিশ্রাম দিলে পর তুমি আকাশমণ্ডলের নীচে হইতে অমালকের স্মৃতি লোপ করিবে ; ইহা ভুলিয়া যাইও না । অগ্রিমাংশ ও দশমাংশ বিষয়ক নিয়ম। ২৬ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু অধিকারার্থে যে দেশ তোমাকে দিতেছেন, তুমি যখন সেই দেশে প্রবিষ্ট হইয় তাহ অধিকার করবে, ও তথায় বাস করিবে . ২ তৎকালে তুমি ভূমির যাবতীয় ফলের, তোমার ঈশ্বর সদা প্ৰভু যে দেশ তোমাকে দিতেছেন, সেই দেশে উৎপন্ন ফলের অগ্রিমাংশ হইতে কিছু কিছু লইয়। চুপড়িতে করিয়া, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আপন নামের বাসার্থে যে স্থান মনোনীত করবেন, সেই স্থানে গমন ৩ করিব । আর তাৎকালিক যাজকের কাছে গিয়া তাহাকে বলিবে, সদাপ্রভু আমাদিগকে যে দেশ দিতে আমাদের পিতৃপুরুষদের কাছে দিব্য করিয়াছিলেন, সেই দেশ আমি আসিয়াছি ; ইহা অদ্য তোমার ঈশ্বর ৪ সদাপ্রভুর নিকটে নিবেদন করিতেছি। আর যাজক তোমার হস্ত হইতে সেই চুপড়ি লইয়া তোমার ঈশ্বর ও সদাপ্রভুর যজ্ঞবেদির সম্মুখে রাখবে। আর তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর সন্মুখ এই কথা কহিবে, এক জন নষ্টকল্প আরামীয় আমার পিতৃপুরুষ ছিলেন ; তিনি অল্প সংখ্যায় মিসরে নামিয়া গিয়া প্রবাস করিলেন : এবং সে স্থানে মহৎ, পরাক্রান্ত ও বহু প্রজ জাতি হইয়। ৬ উঠলেন । পরে মিশ্ৰীয়েরা আমাদের প্রতি দৌরাত্মা করল, আমাদিগকে দুঃখ দিল ও কঠিন দাসত্ব করা৭ ইল ; তাহাতে আমরা আপন পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর কাছে ক্ৰন্দন করিলাম ; আর সদাপ্রভু আমাদের রব শুনিয়া আমাদের কষ্ট, শ্রম ও উপদ্রবের ৮ প্রতি দৃষ্টি করিলেন। সদাপ্রভু বলবান হস্ত, বিস্তারিত বাহু ও মহাভয়ঙ্করত এবং নানা চিহ্ন ও অদ্ভুত লক্ষণ দ্বারা মিসর হইতে আমাদিগকে বাহির করিয়া আনি৯ লেন । আর তিনি আমাদিগকে এই স্থানে আনিয়াছেন, ১• এবং এই দেশ, দুগ্ধমধুপ্রবাহী দেশ দিয়াছেন। এখন, হে সদাপ্রভু, দেখ, তুমি আমাকে যে ভূমি দিয়াছ, তাহার ফলর অগ্রিমাংশ আমি আনিয়াছি । এই বলিয়া তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুথে তাহ রাখিয়৷ ১১ আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুখে প্ৰণিপাত করবে। আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্ৰভু তোমাকে ও তোমার পরিবারকে যে যে মঙ্গল দান করিয়াছেন, সেই সকলেতে তুমি ও লেবীয় ও তোমার মধ্যবৰ্ত্তী বিদেশী, তোমরা সকলে আনন্দ করিবে । ১২ তৃতীয় বৎসরে, অর্থাৎ দশমাংশের বৎসরে, তোমার উৎপন্ন দ্রব্যের সমস্ত দশমাংশ পৃথক্করণ সমাপ্ত করিলে পর তুমি লেবায়কে, বিদেশীকে, পিতৃহীনকে ও বিধ বাকে তাহ দিবে, তাহাতে তাহার তোমার নগর-দ্বার দ্বিতীয় বিবরণ। [ ২ ৬ ঃ ১ – ২৭ ; ৩ । ১৩ মধ্যে ভোজন করিয়া তৃপ্ত হইবে। পরে তুমি আপন ঈশ্বর সদা প্রভুর সন্মুখে এই কথা কহিবে, তোমার আজ্ঞাপিত সমস্ত বাক্যানুসারে আমি আপন গৃহ হইতে পবিত্র বস্তু বাহির করিয়া লেবায়কে, বিদেশীকে, পিতৃহীনকে ও বিধবাকে দিয়াছি ; তোমার কোন ১৪ আজ্ঞা লঙ্ঘন করি নাই ও ভুলিয়া যাই নাই ; আমার শোকের সময় আমি তাহার কিছুই ভোজন করি নাই, অশুচি অবস্থায় তাহার কিছুই বাহির করি নাই, এবং মৃত লোকের উদ্দেশে তাহার কিছুই দিই নাই, আমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে কর্ণপাত করিয়াছি; ১৫ তোমার আজ্ঞানুসারেই সমস্ত কৰ্ম্ম করিয়াছি। তুমি আপন পবিত্র নিবাস হইতে, স্বৰ্গ হইতে, দৃষ্টিপাত কর, তোমার প্রজ ইস্রায়েলকে আশীৰ্ববাদ কর, এবং আমাদের পিতৃপুরুষদের কাছে কুত তোমার দিবানুসারে যে ভূমি আমাদিগকে দিয়াছ, সেই দুগ্ধমধুপ্রবাহী দেশকেও আশীৰ্ব্বাদ কর । এই সকল বিধি ও শাসন পালন করিতে অদ্য তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে অজ্ঞা করিতেছেন তুমি যত্নপূর্বক তোমার সমস্ত হৃদয় ও তোমার সমস্ত ১৭ প্রাণের সহিত এ সমস্ত রক্ষা ও পালন করিবে । আদ্য ভুম এই অঙ্গীকার করিয়াছ যে, সদাপ্রভুই তোমার ঈশ্বর হইবেন, এবং তুমি তাহার পথে চলবে, তাহার বিধি, তাহার আজ্ঞ ও তাহার শাসন সকল পালন ১৮ করিবে, এবং তাহার রবে কর্ণপাত করিবে । আর অদ্য সদাপ্রভুও এই অঙ্গীকার করিয়াছেন যে, তাহার প্রতিজ্ঞানুসারে তুমি তাহার নিজস্ব প্ৰজা হইবে ও ১৯ তাহার সমস্ত আজ্ঞ। পালন করিবে ; আর তিনি আপনার রচিত সমস্ত জাতি অপেক্ষ। তোমাকে শ্রেষ্ঠ করিয়া প্রশংসা, কীৰ্ত্তি ও ময্যাদাস্বরূপ করিবেন, এবং তিনি যেমন বলিয়াছন, তদনুসারে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে পবিত্র প্রজ৷ হইবে। মোশির তৃতীয় বক্তৃত । কনান দেশে ব্যবস্থা ঘোষণা করিবার আদেশ । ९१ পরে মোশি ও ইস্রায়েলের প্রাচীনবর্গ লোকদিগকে এই আজ্ঞা করিলেন, বলিলন, আদ্য আমি তোমাদিগকে যে সকল আজ্ঞা দিই, তোমরা ২ সে সমস্ত পালন করিও। আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, তুমি যখন যদিন পর হইয়। সেই দেশে উপস্থিত হইবে, তখন আপনার জন্ত কতকগুলিন বৃহৎ প্রস্তর স্থাপন করিবে ও তাহা চুণ ৩ দিয়া লেপন করিবে। আর পার হইলে পর তুমি সেই প্রস্তরগুলির উপরে এই ব্যবস্থার সমস্ত কথা লিখিবে ; যেন তোমার পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার কাছে যে অঙ্গীকার করিয়াছেন, তদনুসারে যে দেশ, যে দুগ্ধমধুপ্রবাহী দেশ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে > 。 172 ཅི། ། ཤཱི ༔ 8 -───- ཅི། b་ལ g > > l ] ৪ দিতেছেন, তথায় প্রবেশ করিতে পার। আর আমি অদ্য যে প্রস্তরগুলির বিষয়ে তোমাদিগকে আদেশ করিলাম, তোমর। যদিন পার হইলে পর এবল পৰ্ব্বতে সেই সকল প্রস্তর স্থাপন করবে, ও তাহ চুণ দিয়৷ ং লেপন করিবে। আর সে স্থানে তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর উদ্দেশে এক যজ্ঞ বদি, প্রস্তরের এক বেদি ৬ গীখিবে, তাহার উপরে লে হাস্ত্ৰ তুলিবে না। তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর সেই বেদি অতক্ষিত প্রস্তর দিয়া গাথিবে ; এবং তাহার উপরে তোমার ঈশ্বর সদা৭ প্রভুর উদ্দেশে হোমবলি উৎসর্গ করবে; এবং মঙ্গলাখক বলি দান করিবে, আর সেই স্থানে ভোজন করবে ; এবং তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুখে আনন্দ করবে । ৮ আর সেই প্রস্তরের উপরে এই ব্যবস্থার সমস্ত বাক্য অতি স্পষ্টরূপে লিখিবে । ৯ আর মোশি ও লেবীয় যাজকগণ সমস্ত ইস্রায়েলকে কহিলেন, হে ইস্রায়েল, নীরব হও, শ্রবণ কর, অদ্য ১• তুমি তোমার ঈশ্বর সদপ্রভুর প্রজা হইলে । অতএব তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে অবধান করবে, এবং অদ্য তোমাদিগকে তাহার যে সকল আজ্ঞ ও বিধি আদেশ করিলাম, সে সকল পালন করিবে । ১১ সেই দিবসে মোশি লোকদিগকে এই আজ্ঞা করি১২ লেন, বলিলেন, তোমরা যদ্দন পার হইলে পর শিমিরোন, লেবি, যিহুদী, ইষাথর, যোষেফ ও বিদ্যামান, ইহার লোকদিগকে আশীৰ্ব্ববাদ করিবার জন্ত গরিষীম ১৩ পর্বতে দাড়াইবে । আর রূবেণ, গাদ, আশের, সবুলুন, দান ও নস্তালি, ইহার শাপ দিবার জন্ত এবল পববতে ১৪ দাড়াইবে । পরে লেবীয়গণ কথ। আরম্ভ করিয়৷ ইস্রা য়েলের সমস্ত লোককে উচ্চৈঃস্বরে বলিবে, ষে ব্যক্তি কোন ক্ষোদিত কিম্ব ছাচে ঢালা প্রতিমা, সদাপ্রভুর ঘৃণিত বস্তু, শিল্পকরের হস্তনিৰ্ম্মিত বস্তু নিৰ্ম্মাণ করিয়া গোপনে স্থাপন করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক উত্তর করিয়া বলিবে, আমন । যে কেহ আপন পিতাকে কি মতাকে অবজ্ঞা করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । যে কেহ আপন প্রতিবাসীর ভূমিচিহ্ন স্থানান্তর করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । ষে কেহ অন্ধকে পথভ্রষ্ট করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । যে কেহ বিদেশীর, পিতৃহীনের, কি বিধবার বিচারে অস্কার করে, সে শাপগ্ৰস্ত। তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । যে কেহ পিতৃভীৰ্য্যর সহিত শয়ন করে, আপন পিতার আবরণীয় অনাবৃত করাতে সে শাপগ্ৰস্ত । তথন সমস্ত লোক বলবে, আcমন । যে কেহ কোন পশুর সহিত শয়ন করে, সে শাপগ্রস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিলে, আগমন । ২২ যে কেহ আপন ভগনীর সহিত, অথাৎ পিতৃকস্তার Y Q yū ১৭ y bo SS

  • R o

ミ 3 দ্বিতীয় বিবরণ । a J কিম্বা মাতৃকস্তার সহিত শয়ন করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । যে কেহ আপন শাশুড়ীর সহিত শয়ন করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন। যে কেহ আপন প্রতিবাসীকে গোপনে বধ করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । যে কেহ নিরপরাধের প্রাণ হত্য। করিবার জন্তু উৎকাচ গ্রহণ করে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন । যে কেহ এই ব্যবস্থার কথা সকল পালন করিবার জন্ত সেই সকল অটল না রাখে, সে শাপগ্ৰস্ত । তখন সমস্ত লোক বলিবে, আমেন। SS 있8 Re さも ঈশ্বরীয় আশীৰ্ব্বাদ ও অভিশাপ । २b~ আমি তোমাকে আদ্য যে সকল অজ্ঞা আদেশ করিতেছি, যত্বপূববক সেই সকল পালন করেবার জন্ত যদি তুমি আপন ঈশ্বর সদ প্রভুর রবে মনোযোগ সহকারে কর্ণপাত কর, তবে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু পৃথিবীস্থ সমস্ত জাতির উপরে তোমাকে উন্নত ২ করবেন : আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে কর্ণপাত করিলে এই সকল আশীৰ্ব্বাদ তোমার উপরে ৩ বৰ্ত্তিবে ও তোমাকে আশ্রয় করিব । তুমি নগরে আশীৰ্ব্ববাদযুক্ত হইবে ও ক্ষেত্রে আশীব্বাদযুক্ত হইবে। ৪ তোমার শরীরের ফল, তোমার ভুমির ফল, তোমার পশুর ফল, তোমার গেরু :দর বৎস ও তোমার মধী৪ দের শাবক আশীব্বাদযুক্ত হইবে । তোমার চুপড়ি ও ৬ তোমার ময়দার কাঠয়া আশীব্বাদযুক্ত হইবে । ভিতরে আসিবার সময়ে তুম তাশীব্বাদযুক্ত হইবে, এবং বাহিরে ৭ যাইবার সময়ে তুমি আশীব্বাদযুক্ত হইবে । তোমার ষে শক্ৰগণ তোমার বিরুদ্ধে উঠে, তাহাদিগকে সদাপ্রভু তোমার সম্মুখে আঘাত করাইবেন : তাহার এক পথ দিয়া তোমার বিরুদ্ধ আসিবে, কিন্তু সাত পথ দিয়া ৮ তোমার সম্মুখ হইতে পলায়ন করবে। সদাপ্রভু আজ্ঞা করিয়া তোমার গোলাঘর সম্বন্ধ ও তুমি যে কোন কধ্যে হস্ত ক্ষপ কর, তৎসম্বন্ধ আশীৰ্ব্বাদকে তোমার সহচর করবেন; এবং তোমার ঈশ্বর সদা প্ৰভু তোমাকে যে দেশ দিতেছেন, তথায় তোমাকে আশীৰ্ব্ব দি করি৯ বেন। সদাপ্রভু আপন দিব্যানুসারে তোমাকে তাপন পবিত্র প্রজ। বলিয়। স্থাপন করিবেন , কেবলমাত্র তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর অজ্ঞ। পালন ও তাহার ১ • পথে গমন করিতে হইবে । আর পুথিবী স্থ সমস্ত জাতি দেখতে পাইবে যে, তোমার উপরে সদাও ভুর নাম কত্তিত হইয়াছে, এবং তাহার তোম। হটতে ভীত ১১ হইবে। আর সদও ভু তোমা-ক যে দেশ দিতে তোমার পিতৃপুরুষদের কাছ দিবা করিয়াছেন, সেই দেশে তিনি মঙ্গলাথেই তোমার শরীরের ফলে, তোমার পশুর ফলে ও তোমার ভুমির ফলে তোমাকে এখধ্যশালী 173 `్ళ 9 3 ১২ করিবেন। যথাকলে তোমার ভূমির জন্ত বৃষ্টি দিতে ও তোমার হস্তের সমস্ত কৰ্ম্মে আশীৰ্ব্ববাদ করিতে সদাপ্রভু আপনার আকাশরুপ মঙ্গল-ভণ্ডার খুলিয়া দিবেন ; এবং তুমি অনেক জাতিকে ঋণ দিবে, কিন্তু ১৩ আপনি ঋণ লইবে না। আর সদাপ্রভু তোমাকে মস্তকস্বরূপ করিবেন, পুচ্ছস্বরূপ করিবেন না ; তুমি অবনত না হইয়া কেবল উন্নত হইবে ; কেবলমাত্র তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর এই যে সকল আজ্ঞ যত্নপূৰ্ব্বক পালন করিতে আমি তোমাকে অদ্য আদেশ করিতেছি, এই সকলেতে কর্ণপাত করিতে হুইবে , ২৪ আর অদ্য আমি তোমাদিগকে যে সকল কথা অজ্ঞ। করিতেছি, অন্ত দেবগণের সেবা করণার্থে তাহীদের অনুগামী হইবার জন্ত তোমাকে সেই সকল কথার দক্ষিণে কি বামে ফিরিতে হইবে না। কিন্তু যদি তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে কর্ণপাত না কর, আমি অদ্য তোমাকে তাহার যে সমস্ত আজ্ঞ ও বিধি আদেশ করিতেছি, যত্বপূর্বক সেই সকল পালন না কর, তবে এই সমস্ত অভিশাপ তোমার প্রতি বৰ্ত্তিবে ও তোমাকে আশ্রয় করিবে । ১৬ তুমি নগরে শাপগ্ৰস্ত হইবে ও ক্ষেত্রে শাপগ্ৰস্ত হইবে। ১৭ তোমার চুপড়ি ও তোমার ময়দার কাঠুয়া শাপগ্ৰস্ত ১৮ হইবে। তোমার শরীরের ফল, তোমার ভূমির ফল এবং তোমার গোরুর বৎস ও তোমার মেষদের শাবক ১৯ শাপগ্ৰস্ত হইবে । ভিতরে আসিবার সময়ে তুমি শাপগ্রস্ত হইবে, ও বাহিরে বাইবার সময়ে তুমি শাপগ্ৰস্ত ২০ হইবে । যে পৰ্য্যন্ত তোমার সংহার ও হঠাৎ বিনাশ না হয়, তাবৎ যে কোন কধ্যে তুমি হস্তক্ষেপ কর, সেই কাধ্যে সদাপ্ৰভু তোমার উপরে অভিশাপ, উদ্বেগ ও ভর্ৎসন প্রেরণ করবেন ; ইহার কারণ তোমার দুষ্ট কাৰ্য্য সকল, যদ্বায় তুমি আমাকে পরিত্যাগ করি২১ মাছ। তুমি যে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, সেই দেশ হইতে যাবৎ উচ্ছিন্ন না হও, তাবৎ সদাপ্ৰভু ২২ তোমাকে মহামারীর আশ্রয় করিবেন । সদাপ্রভু ক্ষয়রোগ, জ্বর, জ্বালা, প্রচণ্ড উত্তাপ ও খড়গ এবং শস্তের শোষ ও স্লানি দ্বারা তোমাকে আঘাত করিবেন ; তোমার বিনাশ না হওয়৷ পয্যন্ত সে সকল তোমার ২৩ অনুধাবন করবে। আর তোমার মস্তকের উপরিস্থিত আকাশ পিত্তল, ও নিম্নস্থিত ভূমি লৌহস্বরূপ ২৪ হইবে। সদাপ্রভু তোমার দেশে জলের পরিবর্তে ধূলি ও বালি বর্ষণ করিবেন : যে পৰ্যন্ত তোমার বিনাশ না হয়, তাবৎ তাহ আকাশ হইতে নামিয়া তোমার ২৫ উপরে পড়িবে। সদাপ্রভু তোমার শক্ৰদের সম্মুখে তোমাকে আঘাত করাইবেন ; তুমি এক পথ দিয়৷ তাহাদের বিরুদ্ধে যাইবে, কিন্তু সাত পথ দিয়া তাহাদের সন্মুখ হইতে পলায়ন করিবে ; এবং পৃথিবীর ২৬ সমস্ত রাজ্যের মধ্যে ভাসিয়া বেড়াইবে । আর তোমার শব থেচর পক্ষিসমূহের ও ভূচর পশুগণের ভক্ষ্য ২৭ হইবে ; কেহ তাহাদিগকে খেদাইয়া দিবে না। সদt 1) & 174: দ্বিতীয় বিবরণ। | Rゲ; S3 – 88 প্রভু তোমাকে মিশ্রীয় স্ফোটক, এবং মহামারীর স্ফোটক, পাম ও খুজলি, এই সকল রোগ দ্বারা এমন আঘাত করিবেন যে, তুমি আরোগ্য পাইতে পরিবে ২৮ না। সদাপ্রভু উন্মাদ, অন্ধত ও চিত্তের স্তব্ধতা দ্বার। ২৯ তোমাকে আঘাত করিবেন । অন্ধ যেমন অন্ধকারে ইতিড়িয়া বেড়ায়, তদ্রুপ তুমি মধ্যাহ্নকালে হাতড়িয় বেড়াইবে, ও আপন পথে কৃতকাৰ্য্য হইবে না, এবং সববদ কেবল উপদ্রুত ও লুষ্ঠিত হইবে, কেহ ৩০ তোমাকে নিস্তার করিবে না । তোমার প্রতি কস্তার বাগ্‌দান হইবে, কিন্তু অন্ত পুরুষ তাঁহাতে উপগত হইবে ; তুমি গৃহ নিৰ্ম্মাণ করিবে, কিন্তু তাহতে বাস করিতে পাইবে না; দ্রাক্ষাক্ষেত্র প্রস্তুত করবে, ৩১ কিন্তু তাহার ফল ভোগ করবে না। তোমার গোরু তোমার সম্মুখে হত হইবে, আর তুমি তাহার মাংস ভোজন করিতে পাইবে না ; তোমার গর্দভ তোমার সাক্ষাতে সবলে অপহৃত হইবে, তাহ তোমাকে ফিরাইয়া দেওয়া যাইবে না ; তোমার মেষপাল তোমার শক্রগণকে দত্ত হইবে, তোমার পক্ষে নিস্তারকর্তী কেহ ৩২ থাকিবে না । তোমার পুত্ৰকস্তাগণ অন্ত এক জাতিকে দত্ত হইবে, ও সমস্ত দিন তাহদের অপেক্ষায় চাহিতে চাহিতে তোমার চক্ষু ক্ষীণ হইবে, এবং তোমার হস্তের ৩৩ কোন শক্তি থাকিবে না। তোমার অজ্ঞাত এক জাতি তোমার ভূমির ফল ও তোমার শ্রমের সমস্ত ফল ভোগ করিবে ; এবং তুমি সৰ্ব্বদা কেবল উপদ্রুত ও চূর্ণ ৩৪ হইবে ; আর তোমার চক্ষু বাহা দেখিবে, তৎপ্রযুক্ত ৩৫ তুমি উন্মত্ত হইবে। সদাপ্ৰভু তোমার জানু, জংঘা ও পায়ের তলা হইতে মাথার তালু পৰ্যন্ত অপ্রতীকাৰ্য্য ৩৬ দুষ্ট স্ফোটক দ্বারা আঘাত করবেন। সদাপ্রভু তোমাকে এবং যে রাজাকে তুমি আপনার উপরে নিযুক্ত করবে, তাহাকে তোমার অজ্ঞাত এবং তোমার পিতৃপুরুষদের অজ্ঞাত এক জাতির কাছে লইয়া যাইবেন ; সেই স্থানে তুমি অন্ত দেবগণের, কাঠ ও প্রস্তরের, দেবী ৩৭ করিবে । আর সদাপ্রভু তোমাকে যে সকল জাতির মধ্যে লইয়। যাইবেন, তাহদের কাছে তুমি বিস্মরের, ৩৮ প্রবাদের ও উপহাসের আস্পদ হইবে । তুমি বহু বীজ বহিয়া ক্ষেত্রে লইয়। যাইবে, কিন্তু অল্প সংগ্ৰহ ৩৯ করিবে ; কেননা পঙ্গপাল তাই বিনষ্ট করবে। তুমি দ্রাক্ষাক্ষেত্র প্রস্তুত করিয়া তাহার পাইট করবে, কিন্তু দ্রীক্ষারস পান করিতে কি দ্রাক্ষফল চয়ন করিতে পাইবে না ; কেনন কীটে তাহ খাইয়। ফেলিবে । ৪০ তোমার সকল অঞ্চলে জিতবৃক্ষ হইবে, কিন্তু তুমি তৈল মর্দন করিতে পাইবে না ; কেননা তোমার ৪১ জিতবৃক্ষের ফল ঝরিয়া পড়িবে। তুমি পুত্রকন্তাগণের জন্ম দিবে, কিন্তু তাহারা তোমার হইবে না : ৪২ কেননা তাহারা বন্দি হহয়! যাইবে । পঙ্গপাল তোমার ৪৩ সমস্ত বৃক্ষ ও ভূমির ফল অধিকার করবে। তোমার মধ্যবত্তী বিদেশী তোম৷ হইতে উত্তর উত্তর উন্নত ৪৪ হইবে, ও তুমি উত্তর উত্তর অবনত হুইবে । সে *レ; 8cーネ> ; > 1」 তোমাকে ঋণ দিবে, কিন্তু তুমি তাহীকে ঋণ দিবে না; সে মস্তকস্বরূপ হুইবে, ও তুমি পুচ্ছম্বরূপ হইবে। এই সমস্ত অভিশাপ তোমার উপরে আসিবে, তোমার অনুধাবন করিয়৷ তোমার বিনাশ পৰ্য্যন্ত তোমাকে আশ্রয় করিবে ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে যে সকল আজ্ঞা ও বিধি দিয়াছেন, তুমি সে সকল পালনার্থে তাহার রবে কর্ণপাত করিলে না। ৪৬ এ সমস্ত তোমার ও যুগে যুগে তোমার বংশের উপরে ৪৭ চিহ্ন ও অদ্ভুত লক্ষণস্বরূপ থাকিবে। যেহেতুক সৰ্ব্বপ্রকার সম্পত্তির বাহুল্যপ্রযুক্ত তুমি আনন্দপূর্বক প্রফুল্লচিত্তে আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর দাসত্ব করিতে না ; ৪৮ এই জন্ত সদাপ্রভু তোমার বিরুদ্ধে যে শক্রগণকে পাঠাইবেন, তুমি ক্ষুধায়, তৃষ্ণায়, উলঙ্গতায়, ও সকল বিষয়ের অভাব ভোগ করিতে করিতে তাহদের দাসত্ব করিবে ; এবং যে পৰ্য্যন্ত তিনি তোমার বিনাশ না করেন, সে পৰ্য্যন্ত তোমার গ্রীবাতে লৌহের যোয়ালি ৪৯ দিয়া রাখবেন। সদাপ্রভু তোমার বিরুদ্ধে অতি দূর হইতে, পৃথিবীর প্রান্ত হইতে এক জাতিকে আনিবেন ; যেমন ঈগল পক্ষী উড়িয়া আইসে, [সে সেইরূপ আসিবো ; সেই জাতির ভাষা তুমি বুঝিতে পরিবে ৫০ না। সেই জাতি ভয়ঙ্কর বদন, সে বৃদ্ধের মুখাপেক্ষা ৫১ করিবে না, ও বালকের প্রতি কৃপা করিবে না। আর যে পৰ্য্যন্ত তোমার বিনাশ না হইবে, তাবৎ সে তোমার পশুর ফল ও তোমার ভূমির ফল ভোজন করিবে ; যাবৎ সে তোমার বিনাশ সাধন না করিবে, তাবৎ তোমার জন্ত শস্ত,ভ্ৰীক্ষারস কিম্বাতৈল,তোমার গোরুর বৎস কিম্ব তোমার মেধীর শাবক অবশিষ্ট রাখিবে না। ৫২ অীর তোমার সমস্ত দেশে যে সকল উচ্চ ও সুরক্ষিত প্রাচীরে তুমি বিশ্বাস করিতে, সে সকল যাবৎ ভূমিসাৎ ন হইবে, তাবৎ সে তোমার সমস্ত নগর-দ্বারে তোমাকে অবরোধ করিবে ; তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর দত্ত তোমার সমস্ত দেশে সমস্ত নগর-দ্বারে সে তোমাকে ৫৩ অবরোধ করিবে। আর যখন তোমার শক্রগণ কর্তৃক তুমি অবরুদ্ধ ও ক্লিষ্ট হইবে, তখন তুমি আপন শরীরের ফল, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর দত্ত নিজ পুত্র ৫৪ কস্তাদিগের মাংস, ভোজন করিবে । যখন সমস্ত নগরদ্বারে শক্রগণকর্তৃক তুমি অবরুদ্ধ ও ক্লিষ্ট হইবে, তখন তোমার মধ্যে যে পুরুষ কোমল ও অতিশয় সুখভোগী, আপন ভ্রাতার, বক্ষঃস্থিত ভাৰ্য্যার ও অবশিষ্ট সন্তানদের প্রতি তাহার এমন চক্ষু টাটাইবে যে, ৫৫ সে তাহীদের কাহাকেও আপনি সন্তানদের মাংসের কিছুই দিবে না ; তাহার কিছুমাত্র অবশিষ্ট না থাক ৫৬ প্রযুক্ত সে তাহাদিগকে খাইবে । যখন সমস্ত নগরদ্বারে শক্ৰগণকর্তৃক তুমি অবরুদ্ধ ও ক্লিষ্ট হইবে, তখন যে স্ত্রী কোমলতা ও সুখভোগ প্রযুক্ত আপন পদতল ভূমিতে রাখিতে সাহস করিত না, তোমার মধ্যবৰ্ত্তিন এমন কোমলাঙ্গী ও সুখভোগিনী মহিলার চক্ষু আপন বক্ষঃস্থিত স্বামীর, আপন পুত্রের ও কন্তর @@ দ্বিতীয় বিবরণ।

  • & Go:

৫৭ উপরে, এমন কি, আপনার দুই পায়ের মধ্য হইতে নির্গত গৰ্ত্তপুষ্পের ও আপনার প্রসবিত শিশুদের উপরে টাটাইবে ; কারণ সমস্তের অভাব প্রযুক্ত সে ইহাদিগকে গোপনে খাইবে । তুমি যদি এই পুস্তকে লিখিত ব্যবস্থার সমস্ত কথা যত্বপূর্বক পালন না কর ; এইরূপে যদি “ তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু ” এই গৌরবান্বিত ও ভয়াবহ নামকে ৫৯ ভয় না কর ; তবে সদাপ্রভু তোমাকে ও তোমার বংশকে আশ্চৰ্য্য আঘাত করবেন ; ফলতঃ বহুকালস্থায়ী মহাযাত ও বহুকালস্থায়ী ব্যথাজনক রোগ দ্বারা ৬• আঘাত করিবেন । তার তুমি যাহা হইতে উদ্বিগ্ন হইতে, সেই মিশ্রীয় সমস্ত ব্যাধি আবার তোমার উপরে আনিবেন ; সে সকল তোমার সঙ্গের সার্থী ৬১ হইবে। আরও যাহা এই ব্যবস্থাপুস্তকে লিখিত নাই, এমন প্রত্যেক রোগ ও আঘাত সদাপ্রভু তোমার বিনাশ না হওয়া পৰ্য্যন্ত তোমার উপরে তানিবেন । ৬২ তাহাতে আকাশের তারার দ্যায় বহুসংখ্যক ছিলে যে তোমরা, তোমরা অল্পসংখ্যক অবশিষ্ট থাকিবে : কেননা তুমি আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে কর্ণপাত ৬৩ করিতে না । আর তোমাদের মঙ্গল ও বৃদ্ধি করিতে যেমন সদাপ্রভু তোমাদের সম্বন্ধে আনন্দ করিতেন, সেইরূপ তোমাদের বিনাশ ও লোপ করিতে সদাপ্রভু তোমাদের সম্বন্ধে আনন্দ করিবেন ; এবং তুমি যে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, তথা হইতে তোমরা উন্মুলিত ৬৪ হইবে। আর সদাপ্রভু তোমাকে পৃথিবীর এক প্রান্ত হইতে অপর প্রান্ত পৰ্য্যন্ত সমস্ত জাতির মধ্যে ছিন্নভিন্ন করিবেন ; সেই স্থানে তুমি আপনার ও আপন পিতৃপুরুষদের অজ্ঞাত অন্ত দেবগণের, কাষ্ঠ ও প্রস্তরের, ৬৫ সেবা করিবে। আর তুমি সেই জাতিগণের মধ্যে কিছু মুখ পাইবে না, ও তোমার পদতলের জন্ত বিশ্রামস্থান থাকিবে না, কিন্তু সদাপ্রভু সেই স্থানে তোমাকে হৃৎ৬৬ কম্প, চক্ষুর ক্ষীণত ও প্রাণের শুষ্কতা দিবেন। তার তোমার জীবন তোমার দৃষ্টিতে সংশয়ে দোলায়মান হইবে, এবং তুমি দিবারাত্র শঙ্কা করিবে, ও আপন ৬৭ জীবনের বিষরে তোমার বিশ্বাস থাকিবে না। তুমি হৃদয়ে যে শঙ্কা করিবে ও চক্ষুতে যে ভয়ঙ্কর দৃষ্ঠা দেখিবে, তৎপ্রযুক্ত প্রাতঃকালে বলিবে, হায় হয়, কখন সন্ধ্য হইবে ? এবং সন্ধ্যাকালে বলিলে, হায় হায়, কখন ৬৮ প্রাতঃকাল হইবে ? আর যে পথের বিষয়ে আমি তোমাকে বলিয়াছি, তুমি তাহ আর দেখিবে না, সদাপ্রভু সেই মিসর দেশের পথে জাহাজে করিয়া তোমাকে পুনৰ্ব্বার লইয়। যাইবেন ; এবং সেই স্থানে তোমরা দাসদাসীরূপে আপন শক্রদের কাছে বিক্রীত হইতে চাহিবে ; কিন্তু কেহ তোমাদিগকে ক্রয় করিবে না। ९> সদাপ্ৰভু হোরেবে ইস্রায়েলসন্তানুগণের সহিত যে নিয়ম স্থির করিয়াছিলেন, তদ্ভিন্ন মোয়াব দেশে তাহীদের সহিত যে নিয়ম স্থির করিতে মেশিকে আজ্ঞ করিলেন, এই সকল সেই নিয়মের বাক্য। @b" 173 ○ ● ● মোশির চতুর্থ বক্তৃত । ইস্রায়েলীয়দের ঈশ্বরীয় নিয়ম গ্রহণ। ২ মোশি সমস্ত ইস্রায়েলকে ডাকিলেন, এবং তাঁহাদিগকে কহিলন, সদাপ্রভু মিসর দেশে ফারণের, উাহার সমস্ত দাসের ও সমস্ত দেশের প্রতি যে সকল কৰ্ম্ম তোমাদের দৃষ্টিগোচরে করিয়াছিলেন, তাহ তোমরা ৩ দেখিয়াছ : পরীক্ষসিদ্ধ সেই সকল মহৎ ও মণি, সেই সকল চিহ্ন ও সেই সকল মহৎ অদ্ভুত লক্ষণ তোমরা ৪ স্বচক্ষে দেখিয়াছ ; তথাচ সদাপ্রভু অদ্যপি তোমাদিগকে জানিবার হৃদয়, দেখিবার চক্ষু ও শুনিবার কর্ণ ৫ দেন নাই । আমি চল্লিশ বৎসর প্রান্তরে তোমাদিগকে গমন করাইয়াছি ; তোমাদের গাত্রে তোমাদের বস্ত্র জীর্ণ হয় নাই, ও তোমার পায়ে তোমার জুতা পুরাতন ৬ হয় নাই ; তোমরা রুট ভোজন কর নাই, এবং দ্রাক্ষারস কি মুরা পান কর নাই ; যেন তোমর জানিতে পার যে, আমিই তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু। ৭ আর তোমরা যখন এই স্থানে উপস্থিত হইলে, তখন হিষ্ণুবোনের রাজ সহোন ও বাশনের রাজ ওগ আমাদের সহিত যুদ্ধ করিতে বাহির হইলে আমরা তাহী৮ দিগকে আঘাত করিলাম ; আর তাহীদের দেশ লইয়। অধিকারাথে রূবেণীয় ও গাদীয়দিগকে এবং মনঃশীয়৯ দের অৰ্দ্ধ বংশকে দিলাম। অতএব তোমরা যাহ। যাহা করিবে, সমস্ত বিষয়ে যেন বুদ্ধিপুকক চলিতে পার, এই নিমিত্ত এই নিয়মের কথা সকল পালন করিও, এবং তদনুসারে কৰ্ম্ম করিও । তোমরা সকলে অদ্য তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর সম্মুখে দাড়াইয়া আছ —তোমাদের অধ্যক্ষগণ, তোমাদের বংশ সকল, তোমাদের প্রাচীনগণ, তোমাদের ১১ শাসকগণ, এমন কি, ইস্রায়েলের সমস্ত পুরুষ, তোমাদের বালক বালিকার, তোমাদের স্ত্রীরা, এবং তোমার শিবিরের মধ্যবত্তী তোমার কাguচছদক অবধি জল১২ বাহক পৰ্য্যন্ত বিদেশী, সকলেই আছ ; যেন তুমি তোমার ঈশ্বর সদাও ভুর সেই নিয়মে ও সেই দিব্যে আবদ্ধ হও. যাই তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু অদ্য তোমার ১৩ সহিত করিতেছেন : এই জন্ত করিতেছেন, যেন তিনি আদ্য তোমাকে আপন ও জারূপে স্থাপন করেন, ও তোমার ঈশ্বর হন, যেমন তিনি তোমাকে বলিয়াছেন, আর যেমন তিনি তোমার পিতৃপুরুষ অব্রাহাম, ইস১৪ হাক ও যাকে বের কাছে দিব্য করিয়াছেন । আর আমি এই নিয়ম ও এই দিব্য কেবল তোমাদেরই ১৫ সহিত করিতেছি, তাহ নয় ; বরং আমাদের সঙ্গে অদ্য এই স্থানে আমাদের ঈশ্বর সদপ্রভুর সম্মুখে যে কেহ দাড়াচয় আছে, ও আমাদের সঙ্গে অদ্য যে নাই, ১৬ সেই সকলের সহিত করিতেছে —(কেননা আমরা মিসর দেশে যেরূপে বাস করিয়াছি, এবং জাতিগণের মধ্য দিয়া বেরূপে আসিয়াছি, তাহা তোমরা জ্ঞাত Y e দ্বিতীয় বিবরণ। [ ९ २ ; २ - २२ : ১৭ আছ ; এবং তাঁহীদের ঘৃণাৰ্ছ বস্তু সকল, তাহাঁদের মধ্যবৰ্ত্তী কাgময়, পাষাণময়, রৌপ্যময় ও স্বর্ণময় ১৮ পুত্তলি সকল দেখিয়াছ । )—এই জাতিদের দেবগণের সেবা করিতে যাইবার জন্য অদ্য আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভু হইতে যাহার হৃদয় পরায়ুখ হয়, এমন কোন পুরুষ কিম্বা স্ত্রী কিম্বা গোষ্ঠী কিম্বা বংশ তোমাদের মধ্যে যেন না থাকে, বিষবৃক্ষের কি নাগদানার মূল ১৯ তোমাদের মধ্যে যেন না থাকে ; এবং এই শাপের কথ। শ্রবণকালে কেহ যেন মনে মনে আপনার ধন্তবাদ করতঃ না বলে, আমি সিক্তের সহিত শুষ্কের ধ্বংস করিবার জন্ত আপন হৃদয়ের কঠিন্তে চলিলেও আমার ২• শান্তি হইবে । সদাপ্রভু তাহাকে ক্ষমা করিতে সন্মত হইবেন না, কিন্তু সেই মনুষ্যের উপরে তখন সদাপ্রভুর ক্রোধ ও তাহার অন্তর্জাল প্রধূ মত হইবে, এবং এই পুস্তকে লিখিত সমস্ত শাপ তাহার উপরে গুইয়। থাকিবে, এবং সদাপ্রভু আকাশমণ্ডলের নীচে হইতে ২১ তাহার নাম লোপ করবেন। আর এই ব্যবস্থাপুস্তকে লিখিত নিয়মের সমস্ত শাপানুসারে সদা ভু তাহাকে ইস্রায়েলের সমস্ত বংশ হইতে অমঙ্গলের জন্ত পৃথক ২২ করবেন। আর সদা ভু সেই দেশের উপরে যে সকল আঘাত ও রোগ আনিবেন, তাহ যখন ভাবী বংশ, তোমাদের পরে উৎপন্ন তোমাদের সন্তানগণ, এবং ২৩ দূরদেশ হইতে আগত বিদেশী দেখিবে ; ফলতঃ সদাপ্রভু আপন ক্রোধে ও রেযে যে সদোম, ঘমোরা, অদূম ও সবোয়িম নগর উৎসন্ন করিয়াছিলেন, তাহার মত এই দেশের সমস্ত ভূমি গন্ধক, লবণ ও দহনে পরিপূর্ণ হইয়াছে, তাহাত কিছুই বুনা যায় না, ও তাহ। ফল উৎপন্ন করে না, ও তাহাতে কোন তৃণ হয় না, এ সকল যখন দেখিবে ; তখন তাহারা বলিবে, ২৪ এমন কি, সকল জাতি বলবে, সদাও ভু এ দেশের প্রতি কেন এমন করিলেন ? এরূপ মহাক্রোধ প্রজ্বলিত ২৫ হইবার কারণ কি ? তখন লোকে বলিবে, কারণ এই, তাহাদের পিতৃপুরুষদের ঈশ্বর সদাপ্রভু মিসর দেশ হইতে সেই পিতৃপুরুষদগকে বাহির করিয়া আনিবার সময়ে তাহাuদর স হত যে নিয়ম স্থির করেন, সেই ২৬ নিয়ম তাহারা ত্যাগ করিয়াছিল ; আর গিয়া অন্ত দেবগণের সেবা করিয়াছিল, যে দেবগণকে তাহার। জানিত না, যাহাদিগকে তিনি তাহীদের জন্ত নিরূপণ করেন নাই, সেই দেবগণের কাছে প্ৰণিপাত করিয়া২৭ ছিল ; তাই এই পুস্তকে লিখিত সমস্ত শাপ দেশের উপর আনিতে এই দেশের বিরুদ্ধে সদাপ্রভুর ক্রোধ ২৮ প্রজ্বলিত হইল, এবং সদাপ্রভু ক্রোধে, রোধে ও মহাকোপে তাহাদিগকে তাহাদের দেশ হইতে উৎপাটনপুপক অন্ত দেশে নিক্ষেপ করিয়াছেন, যেমন অদ্য দেখা ২৯ যাইতেছে। নিগুঢ় বিষয় সকল আমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর অধিকার ; কিন্তু প্রকাশিত বিষয় সকল আমাদের ও যুগে যুগে আমাদের সন্তানদের অধিকার, ষেন এই ব্যবস্থার সমস্ত কথা আমরা পালন করিতে পারি। 176 లి o ; ) - లి ) ; ( | ) ৩০ আমি তোমার সম্মুখে এই যে আশীৰ্ব্বাদ ও অভিশাপ স্থাপন করিলাম, ইহার সমস্ত কথ৷ যখন তোমাতে ফলবে, তখন তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু যে সকল জাতির মধ্যে তোমাকে দূর করি বন, ২ সেখানে যদি তুমি মনে চেতন পাও, এবং তুমি ও তোমার সন্তানগণ যদি সমস্ত হৃদয়ের ও সমস্ত প্রাণের সহিত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর নিকটে ফিরিয়া আইস, এবং অদ্য আমি তোমাকে যে সকল অজ্ঞ দিতেছি, ৩ তদনুসারে যদি তাহার রবে অবধান কর ; তবে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার বন্দিত্ব ফিরাইবেন,* তোমার প্রতি করুণ। করিবেন, ও যে সকল জাতির মধ্যে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে ছিন্নভিন্ন করিয়াছিলেন, তথা হইতে আবার তোমাকে সংগ্ৰহ ৪ করিবেন। যদ্যপি তোমরা কেহ দূরীকৃত হইয়। আকাশমণ্ডলের প্রান্তে থাক, তথাপি তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তথা হইতে তোমাকে সংগ্রহ করবেন, ও ৫ তথা হইতে লইয়। আসিবেন। আর তোমার পিতৃপুরুষের যে দেশ অধিকার করিয়াছিল, তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু সেই দেশে তোমাকে আনিবেন, ও তুমি তাহা অধিকার করিবে, এবং তিনি তোমার মঙ্গল করিবেন, ও তোমার পিতৃপুরুষদের অপেক্ষাও তোমার ৬ বৃদ্ধি করিবেন। আর তুমি যেন সমস্ত হৃদয় ও সমস্ত প্রাণের সহিত আপন ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম করিয়া জীবন লাভ কর, এই জন্ত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার হৃদয় ও তোমার বংশের হৃদয় ছিন্নত্বক করি৭ বেন। আর তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমার শক্রগণের উপরে, ও যাহার তোমাকে দ্বেষপূর্বক তাড়ন করি য়াছে, তাহদের উপরে এই সমস্ত শাপ বৰ্ত্তাইবেন। আর তুমি ফিরিয়৷ সদাপ্রভুর রবে অবধান করিবে, এবং আমি অদ্য তোমাকে তাহার যে সমস্ত তাজ্ঞ। ৯ জানাইতেছি, তাহ পালন করিবে । তার তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু মঙ্গলার্থেই তোমার হস্তকৃত সকল কৰ্ম্মে, তোমার শরীরের ফলে, তোমার পশুর ফলে ও তোমার ভূমির ফলে তোমাকে ঐশ্বৰ্য্যশালী করবেন ; যেহেতুক সদা প্ৰভু তোমার পিতৃপুরুষদিগেতে যেমন আনন্দ করিতেন, মঙ্গলার্থে আবার তোমাতে তদ্রুপ আননা করিবেন ; কেবল যদি তুমি এই ব্যবস্থাপুস্তক লিখিত তাহার আজ্ঞ সকল ও তাহীর বিধি সকল পালনার্থে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর রবে অবধান কর, যদি সমস্ত হৃদয় ও সমস্ত প্রাণের সহিত তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুর প্রতি ফির । কারণ আমি অদ্য তোমাকে এই যে আজ্ঞা দিতেছি, তাহ। তোমার বোধের অগম্য নয়, এবং দূরবত্তও নয়। তাহ৷ স্বর্গে নয় যে, তুমি বলিবে, আমরা যেন তাহ পালন করি, এই জন্ত কে আমাদের নিমিত্তে স্বৰ্গt. রোহণ করিয়া তাহ আনিয়া আমাদিগকে শুনাইবে ?

  • ) o

> y

  • ( বা ) তোমার দুর্দশ পরিবর্তন করিবেন।

o, T. 12 দ্বিতীয় বিবরণ। 2 * * ১৩ আর তাহ সমুদ্রপরেও নয় যে, তুমি বলিবে, আমরা যেন তাহ পালন করি, এই জন্ত কে আমাদের নিমিত্ত সমুদ্র পার হইয়া তাই আনিয়া আমাদিগকে শুনা১৪ ইবে ? কিন্তু সেই বাক্য তোমার অতি নিকটবৰ্ত্তী, তাই তোমার মুখে ও তোমার হৃদয়ে, যেন তুমি তাহ। পালন করিতে পার। ১৫ দেখ, আমি অদ্য তোমার সম্মুখে জীবন ও মঙ্গল ১৬ এবং মৃত্যু ও অমঙ্গল রাখিলাম ; ফলতঃ আমি অদ্য তোমাকে এই তাজ্ঞা দিতেছি যে, তোমার ঈশ্বর সদtপ্রভুকে প্রেম করিতে, তাহার পথে চলিতে এবং তাহার আজ্ঞা, তাহার বিধি ও তাহার শাসন পালন করিতে হইবে ; তাহা করিলে তুমি বঁচিবে ও বৃদ্ধি পাইবে ; এবং যে দেশ অধিকার করিতে যাইতেছ, সেই দেশে তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু তোমাকে আশীৰ্ব্বাদ করিবেন। ১৭ কিন্তু যদি তোমার হৃদয় পরায়ুখ হয়, ও তুমি কথা ন৷ শুনিয়া ভ্ৰষ্ট হইয়। অন্ত দেবগণের কাছে প্ৰণিপাত ১৮ কর ও তাহীদের সেবা কর ; তবে অদ্য আমি তোমাদিগকে জ্ঞাত করিতেছি, তোমরা একেবারে বিনষ্ট হইবে, তোমরা অধিকারার্থে যে দেশে প্রবেশ করিতে যর্দন পার হইয়। যাইতেছ, সেই দেশে তোমাদের ১৯ জীবনকাল দীর্ঘ হইবে না । আমি অদ্য তোমাদের বিরুদ্ধে আকাশমণ্ডল ও পৃথিবীকে সাক্ষী করিয়া বলিতেছি যে, আমি তোমার সম্মুখে জীবন ও মৃত্যু, আশীৰ্ব্বাদ ও শাপ রাখিলাম। অতএব জীবন মনো২০ নীত কর, যেন তুমি সবংশে বাচিতে পার ; তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভুকে প্রেম কর, তাহার রবে অবধান কর, ও তাহাতে আসক্ত হও ; কেনন। তিনিই তোমার জীবন ও তোমার দীর্ঘ পরমায়ুস্বরূপ : তাহা হইলে সদাপ্রভু তোমার পিতৃপুরুষদিগকে, অব্রাহাম, ইসহাক ও যাকেবিকে, যে দেশ দিতে দিব্য করিয়াছিলেন, সেই দেশে তুমি বাস করিতে পাইবে। যিহোশূয়ের প্রতি ঈশ্বরীয় আশ্বাস-বাক্য। ○る পরে মোশি গিয়া সুমন্ত ইস্রায়েলকে এই সকল কথা কহিলেন। আর তিনি তাহাদিগকে বলিলেন, অদ্য আমার বয়স এক শত বিংশতি বৎসর, আমি আর বাহিরে যাইতে ও ভিতরে আদিতে পারি না : এবং সদাপ্রভু আমাকে বলিয়াছেন, তুমি এই যদিন ৩ পার হইবে না। তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আপনি তোমার অগ্রগামী হইয়। পার হইয়া যাইবেন ; তিনিই তোমার সম্মুখ হইতে সেই জাতিগণকে বিনষ্ট করিবেন, তাহাতে তুমি তাহাদিগকে অধিকারচুতি করিবে: সদাপ্রভু যেমন বলিয়াছেন, তেমনি যি হাশূয়ই তোমার ৪ অগ্রগামী হইয় পার হইবে। আর সদা ভু ইমেরীয়দের সহোন ও ওগ নামক দুই রাজকে বিনাশ করিয়া তাহদের প্রতি ও তাহীদের দেশের প্রতি যেমন করিয়াছেন উহাদের প্রতিও তদ্রুপ করবেন। ও সদাপ্রভু তাহাদিগকে তোমাদের সম্মুখে সমৰ্পণ করি 177 می به و বেন, তখন তোমরা আমার আদিষ্ট সমস্ত আজ্ঞানুসারে ৬ তাহাদের প্রতি ব্যবহার করিবে । তোমরা বলবান হও ও সাহস কর, ভয় করিও না, তাহদের হইতে ত্ৰাসযুক্ত হইও না ; কেননা তোমার ঈশ্বর সদাপ্রভু আপনি তোমার সহিত যাইতেছেন, তিনি তোমাকে ছাড়িবেন না, তোমাক ত্যাগ করবেন না। আর মোশি যিহেশুয়াক ডাকিয়া সমস্ত ইস্রায়েলের সাক্ষাতে কহিলেন, তুমি বলবান হও, ও সাহস কর, কেননা সদাপ্রভু ইহাদিগকে যে দেশ দিতে ইহাদের পিতৃপুরুষদের কাছে দিব্য করিয়াছেন, সেই দেশে এই লোকদের সহিত তুমি প্রবেশ করবে, এবং তুমি ৮ ইহাদিগকে সেই দেশ অধিকার করাইবে । আর সদা প্রভু আপনি তোমার অগ্ৰে অগ্ৰে যাইতেছেন ; তিনিই তোমার সহবৰ্ত্তী থাকবেন ; তিনি তোমাকে ছাড়িবেন না, তোমাকে ত্যাগ করবেন না ; ভয় করিও না, নিরাশ হইও না । ৯ পরে মোশি এই ব্যবস্থা লিখিলেন, এবং লেবি-বংশজীত যাজকগণ, যাহার। সদাপ্রভুর নিয়ম-সিন্দুক বহন করিত, তাহাদিগকে ও ইস্রায়েলের সমস্ত প্রাচীন১• বর্গকে সমর্পণ করিলেন। আর মোশি তাহাদিগকে এই আজ্ঞ করিলেন, সাত সাত বৎসরের পরে, মোচন ১১ বৎসরের কালে, কুটীরোৎসব পর্বে, যখন সমস্ত ইস্রায়েল তোমার ঈশ্বর সদা প্রভুর মনোনীত স্থানে তাহার সম্মুখে উপস্থিত হইবে, তৎকালে তুমি সমস্ত ইস্রায়েলের সাক্ষাতে তাহীদের কর্ণগোচরে এই ব্যবস্থ৷ ১২ পাঠ করিবে। তুমি লোকদিগকে, পুরুষ, স্ত্রী, বালক বালিকা ও তোমার নগর-দ্বারের মধ্যবৰ্ত্তী বিদেশী সকলকে একত্র করিবে, যেন তাহারা শুনিয়া শিক্ষা পায়, ও তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় করে, এবং এই ব্যবস্থার সমস্ত কথা যত্বপূর্বক পালন করে ; ১৩ আর তাহদের যে সন্তানগণ এই সকল জানে না, তাহারা যেন শুনে, এবং যে দেশ অধিকার করিতে তোমরা যদিন পার হইয়া যাইতেছ, সেই দেশে যত কাল প্রাণধারণ করে, তাহারী তত কাল যেন তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুকে ভয় করিতে শিখে। পরে সদাপ্রভু মোশিকে কহিলেন, দেখ, তোমার মৃত্যুদিন আসন্ন, তুমি যিহোশুয়কে ডাক, এবং তোমর উভয়ে সমাগম-তামুতে উপস্থিত হও, আমি তাহাকে আজ্ঞা দিব। তাহাতে মোশি ও যিহেশুয় গিয়া সমা১৫ গম-তাম্বুতে উপস্থিত হইলেন। আর সদাপ্রভু সেই তাম্বুতে মেঘস্তন্তে দর্শন দিলেন ; সেই মেঘস্তম্ভ তাম্বু১৬ দ্বারের উপরে স্থির থাকিল। তখন সদাপ্রভু মোশিকে কহিলেন, দেখ, তুমি আপন পিতৃপুরুষদের সহিত শয়ন করিবে, আর এই লোকের উঠবে, এবং যে দেশে প্রবেশ করিতে যাইতেছে, সেই দেশের বিজাতীয় দেবগণের অনুগমনে ব্যভিচার করিবে, এবং আমাকে ত্যাগ করিবে, ও তাঁহাদের সহিত কৃত আমার নিয়ম ১৭ ভঙ্গ করিবে। সেই সময়ে তাহীদের বিরুদ্ধে আমার 38 দ্বিতীয় বিবরণ । [○○ ; يج جة صد من ক্রোধ প্রজ্বলিত হইবে, তামি তাহাদিগকে ত্যাগ করিব ও তাহদের হইতে আপন মুখ আচ্ছাদন করিব : আর তাহারা কবলিত হইবে, এবং তাহদের উপরে বহুবিধ অমঙ্গল ও সঙ্কট ঘটিবে ; সেই সময়ে তাহার বলিবে, আমাদের উপর এই সমস্ত অমঙ্গল ঘটিয়াছে, ইহার কারণ কি ইহাই নয়, যে আমাদের ঈশ্বর আমা১৮ দের মধ্যবৰ্ত্তী নহেন ? বাস্তবিক তাহার। অন্ত দেবগণের কাছে ফিরিয়া যে সকল অপকৰ্ম্ম করিবে, তন্নিমিত্ত সেই সময়ে আমি অবস্ত তাহদের হইতে আপন মুখ ১৯ অচ্ছাদন করিব। এখন তোমরা আপনাদের জন্য এই গীত লিপিবদ্ধ কর, এবং তুমি ইস্রায়েল-সন্তানগণকে ইহা শিক্ষা দেও, ও তাহাদিগকে মুখস্থ করাও ; যেন এই গীত ইস্রায়েল-সন্তানগণের বিরুদ্ধে আমার সাক্ষী ২• হয়। কেনন। আমি যে দেশ দিতে তাহদের পিতৃপুরুষদের কাছে দিব্য করিয়াছি, সেই দুগ্ধমধুপ্রবাহী দেশে তাহাদিগকে লইয়। গেলে পর যখন তাহারা ভোজন করিয়া তৃপ্ত ও হৃষ্টপুষ্ট হইবে, তখন অদ্য দেবগণের কাছে ফিরিবে, এবং তাঁহাদের সেবা করিবে, আমাকে অবজ্ঞা করিবে, ও আমার নিয়ম ভঙ্গ করিবে । ২১ আর যখন তাহীদের উপরে বহুবিধ অমঙ্গল ও সঙ্কট ঘটিবে, তৎকালে এই গীত সাক্ষিস্বরূপে তাহীদের সম্মুখে সাক্ষ্য দিবে ; কেননা তাহদের বংশ মুখের এই গান বিস্মৃত হইবে না ; বাস্তবিক আমি যে দেশের বিষয়ে দিব্য করিয়াছি, সেই দেশে তাহাদিগকে আনিবার পূৰ্ব্বেও এক্ষণে তাহার যে মনস্কল্পনা করিতেছে, ২২ তাহ আমি জানি । পরে মোশি সেই দিবসে ঐ গীত লিপিবদ্ধ করিয়া ইস্রায়েল-সন্তানগণকে শিক্ষা ২৩ দিলেন। আর তিনি নুনের পুত্ৰ যিহোশূয়কে আজ্ঞা দিয়া কহিলেন, তুমি বলবান হও ও সাহস কর : কেনন। আমি ইস্রায়েল-সন্তানগণকে যে দেশ দিতে দিব্য করিয়াছি, সেই দেশে তুমি তাহাদিগকে লইয়া যাইবে, এবং আমি তোমার সহবত্তী হইব। ২৪ আর মোশি সমাপ্তি পৰ্য্যন্ত এই ব্যবস্থার কথা সকল ২৫ পুস্তকে লিখিবার পর সদাপ্রভুর নিয়ম সিন্দুকবাহী ২৬ লেবীয়দিগকে এই আজ্ঞা করিলেন, তোমরা এই ব্যবস্থাপুস্তক লইয়া তোমাদের ঈশ্বর সদাপ্রভুর নিয়মসিন্দুকের পার্থে রাখ ; ইহা তোমাদের বিরুদ্ধে সাক্ষীর ২৭ জন্য সেই স্থানে থাকিবে । কেননা তোমার বিরুদ্ধাচারিতা ও তোমার শক্ত গ্ৰীবতা আমি জানি দেখ, তোমাদের সহিত আমি জীবিত থাকিতেই অদ্য তোমরা সদাপ্রভুর বিরুদ্ধাচারী হইলে, তবে আমার মরণের ২৮ পরে কি না করিবে ? তোমরা আপন আপন বংশের সমস্ত প্রাচীনবগকে ও কৰ্ম্মচারীকে আমার নিকটে একত্র কর ; আমি তাহীদের কর্ণগোচরে এই সকল কথা বলি, এবং তাঁহাদের বিরুদ্ধে আকাশমণ্ডল ও ২৯ পৃথিবীকে সাক্ষী করি। কেননা আমি জানি, আমার মরণের পরে তোমরা একেবারে ভষ্ট হইয় পড়িবে, এবং আমার আদিষ্ট পথ হইতে বিপথগামী হইবে, 178 9 ; రిe – రి & ; & ! ) আর উত্তরকালে তোমাদের অমঙ্গল ঘটিবে, কারণ সদাপ্রভুর দৃষ্টিতে যাহা মন্দ, তাহা করিয়া তোমরা আপনাদের হস্তকৃত কাৰ্য্য দ্বার। তাঁহাকে অসন্তুষ্ট করিবে । পরে মোশি সমাপ্তি পৰ্য্যন্ত ইস্রায়েলের সমস্ত সমাজের কর্ণগোচরে এই গীতের কথাগুলি বলিতে লাগিলেন। মোশির গীত । 3)૨ আকাশমণ্ডল । কৰ্ণ দেও, আমি বলি : পৃথিবীও আমার মুখের কথা শুনুক । ২ আমার উপদেশ বৃষ্টির দ্যায় বৰ্ষিবে, আমার কথা শিশিরের হ্যায় ক্ষরিবে, তুণের উপরে পতিত বিন্দু বিন্দু বৃষ্টির হ্যায়, শাকের উপরে পতিত জলধারার দ্যায় । ৩ কেননা আমি সদাপ্রভুর নাম প্রচার করিব : তোমরা আমাদের ঈশ্বরের মহিম। কীৰ্ত্তন কর । ৪ তিনি শৈল, তাহার কৰ্ম্ম সিদ্ধ, কেনন। তাহার সমস্ত পথ দ্যায্য : তিনি বিশ্বাস্ত ঈশ্বর, তাহাতে অন্তীয় নাই ; তিনিই ধৰ্ম্মময় ও সরল । ৫ ইহার। তাহীর সম্বন্ধে ভ্ৰষ্টাচারী, তাহীর সন্তান নয়, এই ইহাদের কলঙ্ক : ইহার বিপথগামী ও কুটিল বংশ। ও তোমরা কি সদাপ্রভুকে এই প্রতিশোধ দিতেছ ? হে মূঢ় ও অজ্ঞান জাতি । - তিনি কি তোমার পিতা নহেন, যিনি তোমাকে লাভ করিলেন ? তিনিই তোমার নিৰ্ম্মাতা ও স্থিতিকর্ড। ৭ পুরাকালের দিন সকল স্মরণ কর, বহুপুরুষের বৎসর সকল আলোচনা কর ; তোমার পিতাকে জিজ্ঞাস কর, সে জানাইবে : তোমার প্রাচীনদিগকে জিজ্ঞস কর, তাহার বলিবে । ৮ পরাৎপর যখন জাতিগণকে অধিকার প্রদান করিলেন, যখন মনুষ্য-সন্তানগণকে পৃথক্ করিলেন, তখন ইস্রায়েল-সন্তানগণের সংখ্যানুসারেই সেই লোকবৃন্দের সীমা নিরূপণ করিলেন। ৯ কেননা সদাপ্রভুর প্রজাই তাহীর দায়াংশ ; • যাকেবিই তাহার রিক্থ অধিকার । ১• তিনি তাহাকে পাইলেন প্রান্তর-দেশে, পশুগজ্জনময় ঘোর মরুভূমিতে ; তিনি তাহাকে বেষ্টন করিলেন, তাহার তত্ত্ব লইলেন, নয়ন-তারার ছায় তাহাকে রক্ষা করিলেন । ১১ ঈগল যেমন আপন বাস জাগাইয়া তুলে, আপন শাবকগণের উপরে পাখী দোলায়, পক্ষ বিস্তার করিয় তাহাদিগকে তুলে, পালথের উপরে তাহাদিগকে বহন করে : ১২ ত দ্রুপ সদাপ্রভু একাকী তাহকে লইয়া গেলেন ; তাহার সহিত কোন বিজাতীয় দেবত ছিল না । 3. கு দ্বিতীয় বিবরণ । 2 * > ১৩ তিনি পুথিবীর উচ্চস্থলী সকলের উপর দিয়া তাঁহাকে আরোহণ করাঈলেন, সে ক্ষেত্রের শস্য ভোজন করিল : তিনি তাহাকে পাষাণ হইতে মধু পান করাইলেন, চক্ৰমকি প্রস্তরময় শৈল হইতে তৈল [দিলেন] : ১৪ তিন গোরুর নবনীত, মেষীর দুগ্ধ, মেষশাবকের মেদ সহ, বাশন দেশজাত মেষ, ও ছাগ, এবং উত্তম গেমের সার তাহকে দিলেন : তুমি দ্রাক্ষর রক্ত দ্রীক্ষারস পান করিলে। ১৫ কিন্তু যিশুরূণ হৃষ্টপুষ্ট হইয় পদাঘাত করিল। তুমি হৃষ্টপুষ্ট, স্থল ও তৃপ্ত হইলে ; অমনি সে আপন নিৰ্ম্মত ঈশ্বরকে ছাড়িল, আপন পরিত্রাণের শৈলকে লঘু জ্ঞান করিল। ১৬ তাহার বিজাতীয় দেবগণ দ্বারা তাহার অন্তর্জাল জন্মাইল, ঘৃণাৰ্ছ বস্তু দ্বীর। তাহাকে অসন্তুষ্ট করিল। ১৭ তাহার বলিদান করিল ভূতগণের উদ্দেশে, যাহার। ঈশ্বর নয়, দেবগণের উদেশে, যাহাদিগকে তাহারা জানিত না, নূতন, নবজাত দেবগণের উদ্দেশে, যাহাদিগকে তোমাদের পিতৃগণ ভয় করিত না। ১৮ তুমি আপন জন্মদাতা শৈলের প্রতি উদাসীন, আপন জনক ঈশ্বরকে বিস্মৃত হইলে । ১৯ সদাপ্রভু দেখিলেন, ঘৃণা করিলেন, নিজ পুত্ৰকস্তাদের কৃত অসন্তোষজনক কাৰ্য্য প্রযুক্ত । ২• তিনি কহিলেন, আমি উহাদের হইতে আপন মুখ আচ্ছাদন করিব : উহাদের শেষদশী কি হইবে, দেখিব : কেননা উহার বিপরীতাচারী বংশ, উহারা বিশ্বাসঘাতক সন্তান । ২১ উহার অনীশ্বর দ্বারা আমার অন্তর্জালী জন্মইল, স্ব স্ব অসার বস্তু দ্বারা আমাকে অসন্তুষ্ট করিল : আমিও নজাতি দ্বারা উহাদের অন্তর্জালী জন্মাইব, মূঢ় জাতি দ্বারা উহাদিগকে অসন্তুষ্ট করিব। ২২ কেননা আমার ক্রোধে অগ্নি প্রজ্বলিত হইল, তাহ অধঃস্থ পাতাল পর্য্যন্ত দগ্ধ করে, পৃথিবী ও তণ্ডুৎপন্ন বস্তু গ্রাস করে, পৰ্ব্বত সকলের মূলে আগুন লাগায় । ২৩ আমি তাহদের উপরে অমঙ্গল রাশি করিব, তাহীদের প্রতি আমার বাণ সকল ছুড়িব । ২৪ তাহার ক্ষুধাতে ক্ষীণ হইবে, জ্বলন্ত অঙ্গারে ও উগ্ৰ সংহারে কবলিত হইবে : আমি তাহীদের কাছে জন্তুদের দন্ত পাঠাইব, ধূলিস্থ উরোগামীদের বিষ সহকারে । ২৫ বাহিরে খড়গ, গৃহমধ্যে ত্রাস বিনাশ করিবে ; যুবক ও কুমারীকে, দুগ্ধপোষ্য শিশু ও শুক্লকেশ বৃদ্ধকে মারিবে । 179 >> o ২৬ আমি বলিলাম, তাহাদিগকে উড়াইয়ী দিব, মনুষ্যদের মধ্য হইতে তাহদের স্মৃতি লোপ করিব । ২৭ কিন্তু ভয় করি, পাছে শত্র বিরক্ত করে, পাছে তাহদের বিপক্ষগণ বিপরীত বিচার করে, পাছে তাহারা বলে, আমাদেরই হস্ত উন্নত, এ সকল কাৰ্য্য সদা ভু করেন নাই । ২৮ কেননা উহার যুক্তিবিহীন জাতি, উহাদের মধ্যে বিবেচনা নাই। ২৯ আহ, কেন তাহারা জ্ঞানবান হইয়৷ এই কথা বুঝে না? কেন আপনাদের শেষদশী বিবেচনা করে না ? ৩০ এক জন কিরূপে সহস্ৰ লোককে তাড়াইয় দেয়, দুই জন দশ সহস্ৰকে পলাতক করে ? ন, তাহদের শৈল তাহাদিগকে বিক্রয় করিলেন, সদাপ্রভু তাহাদিগকে সমর্পণ করিলেন। ৩১ কেনন। উহাদের শৈল আমাদের শৈলের তুল্য নয়, আমাদের শত্রুরাও এইরূপ বিচার করে । ৩২ কারণ তাহদের দ্রীক্ষালত সদোমের দ্রাক্ষালত হইতে উৎপন্ন ; ঘমোরার ক্ষেত্রস্থ দ্রীক্ষালত হইতে উৎপন্ন ; তাহাদের দ্রাক্ষফল বিষময়, তাহাদের গুচছ তিক্ত : ৩৩ তাহদের দ্রীক্ষারস নাগদিগের গরল, তাহা কালসৰ্পের উৎকট হলাহল । ৩৪ ইহা কি আমার কাছে সঞ্চিত নহে ? আমার ধনাগারে মুদ্রাঙ্ক দ্বারা রক্ষিত নহে ? ৩৫ প্রতিশোধ ও প্রতিফলদান আমারই কৰ্ম্ম, যে সময়ে তাহদের পা পিছলিয়া ফাইবে : কেননা তাহদের বিপদের দিন নিকটবৰ্ত্তা, তাহীদের জন্য যাহ। যহ নিরূপিত, শীঘ্রই আদিবে। ৩৬ কারণ সদাপ্রভু আপন প্রজাদের বিচার করবেন, আপন দাসদের উপরে সদয় হইবেন : যেহেতু তিনি দেখবেন, তাহদের শক্তি গিয়াছে, বদ্ধ কি মুক্ত কেহই নাই । ৩৭ তিনি বলিবেন, কোথায় তাহদের দেবগণ, কোথায় সেই শৈল, যাহার শরণ লইয়াছিল, ৩৮ ঘাহা তাহদের বলির মেদ ভোজন করিত, তাহীদের পেয় নৈবেদ্যের দ্রীক্ষারস পান করিত ? তাহারাই উঠিয়া তোমাদের সাহায্য করুক, তাহারাই তোমাদের আশ্রয় হউক । ৩৯ এখন দেখ, আমি, আমিই তিনি : আমি ব্যতীত কোন ঈশ্বর নাই ; আমি বধ করি, আমিই সজীব করি : আমি আঘাত করিয়াছি, আমিই সুস্থ করি : আমার হস্ত হইতে উদ্ধারকারী কেহই নাই । ৪• কেনন। আমি আকাশের দিকে হস্ত উঠাই, অীর বলি, আমি অনন্তজীবী, ৪১ অামি যদি আপন খড়গবজে শাণ দিই, যদি বিচারসাধনে হস্তক্ষেপ করি, দ্বিতীয় বিবরণ। [ © २ ; २७– ©© ; २ ? তবে আমার বিপক্ষগণের প্রতিশোধ লইব, আমার বিদ্বেষী দিগকে প্রতিফল দিব । ৪২ অামি নিজ বাণ সকল মত্ত করিব রক্তপানে, হত ও বন্দি লোকদের রক্তপানে ; আমার খড়গ মাংস ভক্ষণ করবে, শত্ৰু-সেনানিগণের মস্তক { খাইবে ] । ৪৩ জাতিগণ, তাহার প্রজাদের সহিত হর্বনাদ কর : কেনন। তিনি আপন দাসদের রক্তের প্রতিফল দিবেন, আপন বিপক্ষগণের প্রতিশোধ লইবেন, আপন দেশের জন্ত, আপন প্ৰজাগণের জন্ত প্রায়শ্চিত্ত করিবেন। আর মোশি ও নুনের পুত্ৰ হোশয় আসিয়া লোকদের কর্ণগোচরে এই গীতের সমস্ত কথা কহিলেন । ৪৫ মোশি সমস্ত ইস্রায়েলের কাছে এই সকল কথা সমাপ্ত ৪৬ করিলেন ; আর তাহাদিগকে কহিলেন, আমি অদ্য তোমাদের কাছে সাক্ষ্যরূপে যাহাঁ যাহা কহিলাম, তোমরা সেই সমস্ত কথায় মনোযোগ কর, আর তোমাদের সন্তানগণ যেন এই ব্যবস্থার সকল কথা পালন করিতে যত্নবান হয়, এই জন্ত তাহাদিগকে ৪৭ তাহ আদেশ করিতে হইবে । বস্তুতঃ ইহা তোমাদের পক্ষে নিরর্থক বাক্য নহে, কেননা ইহা তোমাদের জীবন, এবং তোমরা যে দেশ অধিকার করিতে যৰ্দন পার হইয়া যাইতেছ, সেই দেশে এই বাক্য দ্বারা দীর্ঘায়ু হইবে। ৪৮ সেই দিবসে সদাপ্রভু মেশিকে কহিলেন, তুমি এই ৪৯ অবরিাম পৰ্ব্বতে, অথাৎ ধিরহের সম্মুখে অবস্থিত মোয়াব দেশস্থ নবো পৰ্ব্বতে উঠ, এবং তামি অধিকারার্থে ইস্রায়েল সন্তানগণক যে দেশ দিতেছি, সেই ৫০ কনান দেশ দশন কর । আর তোমার ভ্রাত হীরোণ যেমন হোর পবর্বতে মরিয়া আপন লোকদের নিকট সংগৃহীত হইল, তদ্রুপ তুমি যে পৰ্ব্বতে উঠবে, তোমাকে তথায় মরিয়া আপন লোকদের নিকটে সংগৃহীত হইতে ৫১ হইবে ; কেননা সিন প্রান্তরে কাদেশস্থ মরীব। জলের নিকটে তোমরা ইস্রায়েল-সন্তানগণের মধ্যে আমার বিরুদ্ধে সত্যলজঘন করিয়াছিলে, ফলতঃ ইস্রায়েলসন্তানগণের মধ্যে আমাকে পবিত্র বলিয়া মান্ত কর ৫২ নই। তুমি আপনার সম্মুখে দেশ দেখিবে, কিন্তু আমি ইস্রায়েল-সন্তানগণকে যে দেশ দিতেছি, তথায় প্রবেশ করিতে পাইবে না । 88 ইস্রায়েলের প্রতি মোশির আশীৰ্ব্বাদ । උළු ’’ ঈশ্বরের লোক মোশি মৃত্যুর পূৰ্ব্বে ইত্ৰীয়েল-সন্তানগণকে যে আশীৰ্ব্ববাদে আশীৰ্ব্ববাদ করে২ লেন, তাহী এই। তিনি কহিলেন, সদপ্রভু সীনয় হইতে আসিলেন, সেয়ীর হইতে তাহদের প্রতি উদিত হইলেন : পারণ পৰ্ব্বত হইতে আপন তেজ প্রকাশ করিলেন, 180 ७० ; ०-२७ । ] অযুত অযুত পবিত্রের নিকট হইতে আসিলেন : তাহদের জন্ত তাহার দক্ষিণ হস্তে অগ্নিময় ব্যবস্থা ছিল। ও নিশ্চয় তিনি গোষ্ঠীদিগকে প্রেম করেন, তাহার পবিত্ৰগণ সকলে তোমার হস্তগত : তাহারা তোমার চরণতলে বসিল, প্রত্যেকে তোমার বাক্য গ্রহণ করিল। ৪ মোশি আমাদিগকে ব্যবস্থা আদেশ করিলেন, তাহা যাকোরের সমাজের অধিকার । যখন জনাধ্যক্ষের সমাগত হইল, ইস্রায়েলের সমস্ত বংশ একত্র হইল, তখন যি শুরূণে এক রাজা ছিলেন । ও রূবেণ বাচিয়া থাকুক, তাহার মৃত্যু না হউক, তথাপি তাহার লোক অল্পসংখ্যক হউক । ৭ আর যিহুদার বিষয়ে তিনি কহিলেন, হে সদাপ্রভু, যিহদার রব শুন, তাহার লোকদের নিকটে তাহাকে আন ; সে স্বহস্তে আপনার পক্ষে যুদ্ধ করিল, তুমি শক্ৰদের বিরুদ্ধে তাহার সাহায্যকারী হইবে। ৮ আর লেবির বিষয়ে তিনি কহিলেন, তোমার সেই সাধুর* সহিত তোমার তুৰ্ম্মীম ও উরীম রহিয়াছে : যাহার পরীক্ষা তুমি মঃসাতে করিলে, যাহার সহিত মরীবার জল সমীপে বিবাদ করিলে । ৯ সে আপন পিতার ও আপন মাতার বিষয়ে বলিল, আমি তাহাকে দেখি নাই ; সে আপন ভ্রাতাদিগকে স্বীকার করিল না, আপন সন্তানগণকেও চিনিল না ; কেননা তাহার তোমার বাক্য রক্ষা করিয়াছে, এবং তোমার নিয়ম পালন করে। ২• তাহারা যাকেবিকে তোমার শাসন, ইস্রায়েলকে তোমার ব্যবস্থা শিক্ষা দিবে : তাহার তোমার সম্মুখে ধূপ রাখিবে, তোমার বেদির উপরে পূর্ণাহুতি রাখিবে। ১১ সদাপ্রভো, তাহার সম্পত্তিতে আশীৰ্ব্ববাদ কর, তাহার হস্তের কৰ্ম্ম গ্রাহ কর : *** আঘাত কর, যাহারা তাহার বিরুদ্ধে ಔದ, যাহারা তাহাকে দ্বেষ করে, যেন তাহার। আর উঠিতে না পারে । ১২ বিদ্যমীনের বিষয়ে তিনি কহিলেন, সদাপ্রভুর প্রিয় জন তাহার নিকটে নির্ভয়ে বাস কারবে ; তিনি সমস্ত দিন তাহাকে আচ্ছাদন করেন, সে তাহার বগলে বাস করে । ১৩ আর যেযেফের বিষয়ে তিনি কহিলেন, তাহার দেশ সদাপ্রভুর আশীৰ্ব্বাদযুক্ত হউক,

  • (ব।) প্রিয় পাত্রের ।

দ্বিতীয় বিবরণ। > シ。 আকাশের উত্তম উত্তম দ্রব্য ও শিশির দ্বার, তাধে বিস্তীর্ণ জলধি দ্বার, ১৪ সূর্য্যপক্ক ফলের উত্তম উত্তম দ্রব্য দ্বারা, চান্দ্রমাসের পালায় পক্ক উত্তম উত্তম দ্রব্য দ্বারা, ১৫ পুরাতন পৰ্ব্বতগণের প্রধান প্রধান দ্রব্য দ্বার, চিরন্তন গিরিমালার উত্তম উত্তম দ্রব্য দ্বার, ১৬ পৃথিবীর উত্তম উত্তম দ্রব্য ও তৎপূর্ণতা দ্বারা : আর যি ন ঝোপবাসী, তাহার সন্তোষ হউক : সেই আশীৰ্ব্বাদ বৰ্ত্তক যেযেফের মস্তকে : ভাতৃগণ হইতে পৃথককৃতের মস্তকের তালুতে । ১৭ তাহার প্রথমজাত বৃষভ শোভাযুক্ত, তাহার শৃঙ্গযুগল গবয়ের শৃঙ্গ ; তদ্বারা সে পৃথিবীর প্রান্ত পৰ্য্যন্ত সমস্ত জাতিকে গুতাইবে : সেই শৃঙ্গ যুগল ইক্ৰয়িমের অযুত অযুত লোক, মনঃশির সহস্ৰ সহস্ৰ লোক । ১৮ আর সবুলনের বিষয়ে তিনি কহিলেন, সবুলুন ! তুমি আপন যাত্রাতে আনন্দ কর, ইষাগর । তুমি আপন তাম্বুতে আনন্দ কর । ১৯ ইহার গোষ্ঠদিগকে পৰ্ব্বতে আহবান করিবে: সে স্থানে ধাৰ্ম্মিকতার বলি উৎসর্গ করিবে, কেননা ইহার সমুদ্রের বহুল দ্রব্য, এবং বালুকার গুপ্ত ধন সকল শোষণ করিবে । ২০ আর গাদের বিষয়ে তিনি কহিলেন, ধন্ত তিনি, যিনি গাদকে বিস্তার করেন ; সে সিংহীর দ্যায় বসতি করে, সে বাহু এবং মস্তকের তালুও বিদীর্ণ করে। ২১ সে আপনার জন্য অগ্রিমাংশ নিরীক্ষণ করিল : কারণ তথায় অধিপতির অধিকার রক্ষিত হইল : আর সে লোকদের অধ্যক্ষগণের সঙ্গে আসিল : সদাপ্রভুর ধাৰ্ম্মিকতা সিদ্ধ করিল, ইস্রায়েল সম্বন্ধে তাহার শাসন সিদ্ধ করিল। আর দানের বিষয়ে তিনি কহিলেন, দান সিংহশাবক, যে বাশন হইতে লম্ফ দেয় । আর নগুলির বিষয়ে তিনি কহিলেন, নপ্তালি ! তুমি অনুগ্রহে তৃপ্ত, আর সদাপ্রভুর আশীৰ্ব্বাদে পরিপূর্ণ ; তুমি সমুদ্র ও দক্ষিণ অধিকার কর । ২৪ আর আশেরের বিষয়ে তিনি কহিলেন, পুত্ৰগণে আশের আশীৰ্ব্বাদযুক্ত হউক, সে আপন ভ্রাতাদের কাছে অনুগৃহীত হউক, সে অাপন চরণ তৈলে মগ্ন করুক । ২৫ তোমার অর্গল লৌহ ও পিত্তলময় হইবে, তোমার যেমন দিন, তেমনি শক্তি হইবে । হে যিশুরূণ, ঈশ্বরের তুল্য কেহ নাই ; তিনি তোমার সাহায্যার্থে আকাশরথে, নিজ গৌরবে গগনরথে যাতায়াত করেন । ২২ ミ○ ミや 181 ○ レアペ ২৭ অনাদি ঈশ্বর তোমার বাসস্থান, নিম্নে অনন্তস্থায়ী বাহুযুগল ; তিনি তোমার সম্মুখ হইতে শক্রকে দূর করিলেন, আর বলিলেন, বিনাশ কর । ২৮ তাই ইস্রায়েল নিৰ্ভয়ে বাস করে, যাকোবের উৎস একাকী থাকে, শস্তের ও দ্রাক্ষরসের দেশে বাস করে : আর তাহার আকাশ হইতেও শিশির ক্ষরে । ২৯ হে ইস্রায়েল । ধন্ত তুমি, তোমার তুল্য কে ? তুমি সদাপ্রভু কর্তৃক নিস্তারপ্রাপ্ত জাতি, তিনি তোমার সাহায্যের ঢাল, তোমার ঔৎকর্ষের খড়গ। তোমার শক্রগণ তোমার কর্তৃত্ব স্বীকার করিবে, আর তুমিই তাহদের উচ্চস্থলী সকল দলন করিবে । মোশির মৃত্যু। wo)3 পরে মোশি মোয়াবের তলভূমি হইতে নবে৷ পৰ্ব্বতে, বিরাহের সম্মুখস্থিত পিসগ-শৃঙ্গে, উঠিলেন। আর সদাপ্রভু তাঁহাকে সমস্ত দেশ, দান পৰ্য্যন্ত ২ গিলিয়দ, এবং সমস্ত নপ্তালি, আর ইক্রয়িম ও মনঃশির দেশ, এবং পশ্চিম সমুদ্র পয্যন্ত যিহুদার সমস্ত ৩ দেশ, এবং দক্ষিণ দেশ, ও সোয়র পর্য্যন্ত খর্জরপুর ৪ যিরাহের তলভূমির অঞ্চল দেখাইলেন । আর সদাপ্রভু তাহাকে কহিলেন, আমি যে দেশের বিষয়ে শপথ করিয়া অব্রাহীমকে, ইসহাককে ও ঘাকোবকে বলিয়াছিলাম, আমি তোমার বংশকে সেই দেশ দিব, এ সেই দ্বিতীর বিবরণ – যিহোশূয়ের পুস্তক। [ ©© ; २१ - * ; ४ ॥ দেশ ; আমি উহা তোমাকে চক্ষুষ দেখাইলাম, কিন্তু ও তুমি পার হইয়। ঐ স্থানে যাইবে না। তখন সদাপ্রভুর দাস মোশি সদাপ্রভুর বাক্যানুসারে সেই স্থানে মোয়াব ৬ দেশে মরিলেন । আর তিনি মোয়াব দেশে বৈৎপিয়োরের সম্মুখস্থ উপত্যকাতে র্তাহাকে কবর দিলেন: কিন্তু তাহার কবরস্থান অদ্যপি কেহ জানে না । ৭ মরণকালে মোশির বয়স এক শত বিংশতি বৎসর হইয়াছিল ; তাহার চক্ষু ক্ষীণ হয় নাই, ও তাহার ৮ তেজের হ্রাস হয় নাই। পরে ইস্রায়েল-সন্তানগণ মোশির নিমিত্ত মোয়াবের তলভূমিতে ত্রিশ দিন রোদন করিল : এই রূপে মোশির শোকে তাহদের রোদনের দিন সম্পূর্ণ হইল। আর নুনের পুত্ৰ যিহোশূয় বিজ্ঞতাঁর আত্মায় পরিপূর্ণ ছিলেন, কারণ মোশি তাহার উপরে হস্তার্পণ করিয়াছিলেন ; আর ইস্রায়েল-সন্তানগণ তাহার কথায় মনোযোগ করিয়া মোশির প্রতি সদাপ্রভুর আজ্ঞানুসারে কৰ্ম্ম করিতে লাগিল । মোশির তুল্য কোন ভাববাদী ইস্রায়েলের মধ্যে আর উৎপন্ন হয় নাই ; সদাপ্রভু তাহার সঙ্গে সম্মুখা১১ সন্মুখি হইয়া আলাপ করতেন ; বস্তুতঃ সদাপ্রভু তাহাকে পাঠাইলে তিনি মিসর দেশে, ফরেণের, তাহার সমস্ত দাসের ও তাহার সমস্ত দেশের প্রতি সৰ্ব্বপ্রকার চিহ্ন ও অদ্ভুত লক্ষণ প্রদর্শন করিলেন, ১২ এবং সমস্ত ইস্রায়েলের দৃষ্টিতে মোশি পরাক্রান্ত হস্তের ও ভয়ঙ্করতার কত না কৰ্ম্ম করিয়াছিলেন । ఏ S O যিহোশূয়ের পুস্তক। যিহোশূয়ের নিয়োগ । ২ _সদাপ্রভুর দাস লুপির মৃত্যু হইলে পর সদ্যু প্রভু নুনের পুত্ৰ যিহোশূয় নামে মোশির পরি২ চারককে কহিলেন, আমার দাস মোশির মৃত্যু হইয়াছে ; এখন উঠ, তুমি এই সমস্ত লোক লহয়৷ এই যর্দন পার হও, এবং তাহাদিগকে অর্থাৎ ইস্রায়েলসন্তানগণকে আমি যে দেশ দিতেছি, সেই দেশ যাত্রা ৩ কর। যে সকল স্থানে তোমরা পদার্পণ করবে, আমি মোশিক যেমন বলিয়াছিলাম, তদনুসারে সেই সকল ৪ স্থান তোমাদিগকে দিয়াছি । প্রান্তর ও এই লিবানোন হইতে মহানদী, ফরাৎ নদী পৰ্য্যন্ত হিৰ্ত্তীয়দের সমস্ত দেশ, এবং সুয্যের অগুগমনের দিকে মহাসমুদ্র পর্য্যস্ত ও তোমাদের সীম৷ হইবে । তোমার সমস্ত জীবনকালে কেহ তোমার সম্মুখে দাড়াইতে পরিবে না ; আমি যেমন 18 মোশির সহবৰ্ত্ত ছিলাম,তদ্রুপ তোমার সহবৰ্ত্ত থাকিব; আমি তোমাকে ছাড়িব না, তোমাকে ত্যাগ করিব ৬ ন । বলবান হও ও সাহস কর ; কেননা যে দেশ দিতে ইহাদের পিতৃপুরুষদের কাছে আমি দিব্য করিয়াছি, তাহা তুমি এই লোকদিগকে আধকার করাইবে । ৭ তুমি কেবল বলবান হও ও অতিশয় সাহস কর ; আমার দাস মোশি তোমাকে যে ব্যবস্থা আদেশ করিয়াছে, তুমি সেই সমস্ত ব্যবস্থা যত্বপূর্বক পালন কর । তাহ। হইতে দক্ষিণে কি বাম ফিরিও না ; যেন তুমি ষে কোন স্থানে যাও, সেই স্থানে বুদ্ধিপূর্বক চলিতে ৮ পার। তোমার মুখ হইতে এই ব্যবস্থাপুণ্ডক বিচলিত না হউক ; তন্মধ্যে যাহা যাহা লিখিত আছে, যত্নপূৰ্ব্বক সেই সকলের অনুযায়ী কৰ্ম্ম করণার্থে তুমি দিবীরত্র তাহ ধ্যান কর ; কেনন তাহা করিলে তোমার শুভ গতি হইবে ও তুমি বুদ্ধিপূর্বক চলিবে। 2