পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন २({ আচার্য ও উপাচার্যের প্রবেশ আচার্য । এতকাল পরে আমাদের গুরু আসছেন । উপাচার্য। তিনি প্রসন্ন হয়েছেন । আচার্য । প্রসন্ন হয়েছেন ? তা হবে । হয়তো প্রসন্নই হয়েছেন । কিন্তু কেমন করে জানব । উপাচার্য । নইলে তিনি আসবেন কেন । আচার্য । এক-এক সময়ে মনে ভয় হয় যে, হয়তো অপরাধের মাত্র পূর্ণ হয়েছে বলেই তিনি আসছেন । উপাচার্য। না, আচার্যদেব, এমন কথা বলবেন না। আমরা কঠোর নিয়ম সমস্তই নিঃশেষে পালন করেছি—কোনো ক্রটি ঘটেনি। আচার্য । কঠোর নিয়ম ? হুঁ, সমস্তই পালিত হয়েছে। উপাচার্য । বজশুদ্ধিব্রত আমাদের আয়তনে এইবার নিয়ে ঠিক সাতাত্তর বার পূর্ণ হয়েছে। আর কোনো আয়তনে এ কি সম্ভবপর হয়। আচার্য । না আর কোথাও হতে পারে না । উপাচার্য। কিন্তু তবু আপনার মনে এমন দ্বিধা হচ্ছে কেন। আচার্য। দ্বিধা ? তা দ্বিধা হচ্ছে সে-কথা স্বীকার করি। ( কিছুক্ষণ নীরব থাকিয় ) দেখো স্থতসোম, অনেক দিন থেকে মনের মধ্যে বেদন জেগে উঠছে, কাউকে বলতে পারছিনে। আমি এই আয়তনের আচার্য ; আমার মনকে যখন কোনো সংশয় বিদ্ধ করতে থাকে তখন একলা চুপ করে বহন করতে হয়। এতদিন তাই বহন করে এসেছি। কিন্তু যেদিন পত্র পেয়েছি গুরু আসছেন সেই দিন থেকে মনকে আর যেন চুপ করিয়ে রাখতে পারছিনে। সে কেবলই আমাদের প্রতিদিনের সকল কাজেই বলে বলে উঠছে—বৃথা, বৃথা, সমস্তই বৃথা ।