পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন ২৯ দমন করা গেল না। ওই বালককে আমার ভয় হয়। ওই আমাদের দুল ক্ষণ। এই আয়তনের মধ্যে ও কেবল তোমাকেই মানে । তুমি ওকে একটু ভংস না করে দিয়ে। * আচার্য। আচ্ছা তুমি যাও । আমি ওর সঙ্গে একটু নিভৃতে কথা কয়ে দেখি । উপাচার্যের প্রস্থান পঞ্চকের প্রবেশ আচার্য । ( পঞ্চকের গায়ে হাত দিয়া ) বৎস, পঞ্চক । পঞ্চক। করলেন কী। অামাকে ছুলেন ? আচার্য । কেন, বাধা কী আছে । পঞ্চক । আমি যে অণচণর রক্ষা করতে পারিনি । আচার্য । কেন পারনি বৎস । পঞ্চক। প্রভূ, কেন, তা আমি বলতে পারিনে। আমার পারবার উপায নেই । আচার্য। সৌম্য, তুমি তো জান, এখানকার যে নিয়ম সেই নিয়মকে আশ্রয় করে হাজার বছর হাজার হাজার লোক নিশ্চিন্ত আছে। আমরা যে খুশি তাকে কি ভাঙতে পারি। পঞ্চক । আচার্যদেব, যে-নিয়ম সত্য তাকে ভাঙতে না দিলে তার যে পরীক্ষা হয় না। আচার্য । নিয়মের জন্য ভয় নয়, কিন্তু যে-লোক ভাঙতে যাবে তারই বা দুৰ্গতি ঘটতে দেব কেন । পঞ্চক। আমি কোনো তর্ক করব না। আপনি নিজমুখে যদি আদেশ করেন যে, আমাকে সমস্ত নিয়ম পালন করতেই হবে তাহলে পালন করব। আমি আচার-অনুষ্ঠান কিছুই জানিনে, আমি আপনাকেই জানি ।