পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\3) ο অচলায়তন আচার্য । আদেশ করব—তোমাকে ? সে আর আমার দ্বারা হয়ে উঠবে না । # পঞ্চক। কেন আদেশ করবেন না প্রভু। আচার্য । কেন । বলব বংস ? তোমাকে যখন দেখি আমি মুক্তিকে যেন চোখে দেখতে পাই। এত চাপেও যখন দেখলুম তোমার মধ্যে প্রাণ কিছুতেই মরতে চায় না তখনই আমি প্রথম বুঝতে পারলুম মানুষের মন মন্ত্রের চেয়ে সত্য, হাজার বছরের অতিপ্রাচীন আচারের চেয়ে সত্য । যাও বংস, তোমার পথে তুমি যাও । আমাকে কোনো কথা জিজ্ঞাসা ক’রো না । পঞ্চক । আচার্যদেব, আপনি জানেন ন৷ কিন্তু আপনিই আমাকে নিয়মের চাকার নিচে থেকে টেনে নিয়েছেন । আচার্য । কেমন করে বংস । পঞ্চক। তা জানিনে, কিন্তু আপনি আমাকে এমন একটা-কিছু দিয়েছেন যা আচারের চেয়ে নিয়মের চেয়ে অনেক বেশি। আচার্য। তুমি কী কর না কর আমি কোনোদিন জিজ্ঞাসা করিনে, কিন্তু আজ একটি কথা জিজ্ঞাসা করব । তুমি অচলায়তনের বাইরে গিয়ে শোণপাংশু জাতির সঙ্গে মেশ । পঞ্চক । আপনি কি এর উত্তর শুনতে চান । আচার্য। না না, থাক, ব’লে না। কিন্তু শোণপাংশুরা যে অত্যন্ত ম্লেচ্ছ। তাদের সহবাস কি— পঞ্চক । তাদের সম্বন্ধে আপনার কি কোনো বিশেষ আদেশ আছে । আচার্য । না না, আদেশ আমার কিছুই নেই। যদি ভুল করতে হয় তবে ভুল করে গে—তুমি ভুল করে গে—আমাদের কথা শুনো না। আমাদের গুরু আসছেন পঞ্চক—তার কাছে তোমার মতো বালক হয়ে