পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন ( ዓ পঞ্চক। বেশ, চলে। ( একটু থামিয়া দ্বিধা করিয়া ) কিন্তু ভাই ওই বন পর্যন্তই যাব ভোজন পর্যন্ত নয় । দ্বিতীয় শোণপাংশু। সে কি হয়। সকলে মিলে ভোজন না করলে আনন্দ কিসের । পঞ্চক। না রে, তোদের সঙ্গে ওই জায়গাটাতে আনন্দ চলবে না। দ্বিতীয় শোণপাংশু। কেন চলবে না। চালালেই চলবে । পঞ্চক । চালালেই চলে এমন কোনো জিনিস আমাদের ত্রিসীমানায় আসতে পারে না তা জানিস । মারলে চলে না, ঠেললে চলে না, দশটা হাতি জুড়ে দিলে চলে না, আর তুই বলিস কিনা চালালেই চলবে। তৃতীয় শোণপাংশু। আচ্ছা ভাই, কাজ কী। তুমি বনেই চলে, আমাদের সঙ্গে থেতে বসতে হবে না। পঞ্চক। খুব হবে রে খুব হবে । আজ থেতে বসবই, খাবই,— আজ সকলের সঙ্গে বসেই খাব—আনন্দে আজ ক্রিয়াকল্পতরুর ডালে ডালে আগুন লাগিয়ে দেব—পুডিযে সব ছাই করে ফেলব। দাদাঠাকুর, তুমি ওদের সঙ্গে খাবে না? দাদাঠাকুর । আমি বোজই খাই । পঞ্চক। তবে তুমি আমাকে খেতে বলছ না কেন । দাদাঠাকুর । আমি কাউকে বলিনে ভাই, নিজে বসে যাই। পঞ্চক । না দাদা, আমার সঙ্গে অমন করলে চলবে না। আমাকে তুমি হুকুম করে তাহলে আমি বেঁচে যাই। আমি নিজের সঙ্গে কেবলই তর্ক করে মরতে পারিনে । দাদাঠাকুর। অত সহজে তোমাকে বেঁচে যেতে দেব না পঞ্চক। যেদিনু তোমার আপনার মধ্যে হুকুম উঠবে সেইদিন আঁমি হুকুম করব ।