পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৬২ অচলায়তন মহাপঞ্চক । কী করবে আচার্যকে, বলেই ফেলে। । , বিশ্বম্ভর । তাই তো ভাবছি কী করা যায়। র্তা কে না হয়— আপনি বলে দিন না কী করতে হবে। মহাপঞ্চক । আমি বলছি তাকে সংযত করে রাখতে হবে । সঞ্জীব । কেমন করে । মহাপঞ্চক । কেমন করে আবার কী ? মত্ত হস্তীকে যেমন করে সংযত করতে হয় তেমনি করে । জয়োত্তম । আমাদের আচার্যদেবকে কি তাহলে— মহাপঞ্চক। ই, তাকে বন্ধ করে রাখতে হবে । চুপ করে রইলে যে ! পারবে না ? তৃণাঞ্জন । কেন পারব না। আপনি যদি আদেশ করেন তাহলেই— জয়োত্তম । কিন্তু শাস্ত্রে কি এর— মহাপঞ্চক । শাস্ত্রে বিধি আছে । তৃণাঞ্জন । তবে আর ভাবন কী । উপাধ্যায়। মহাপঞ্চক, তোমার কিছুই বাধে না, আমার কিন্তু ভয় হচ্ছে । আচার্যের প্রবেশ আচার্য । বৎস, এতদিন তোমরা আমাকে আচার্য বলে মেনেছ আজ তোমাদের সামনে আমার বিচারের দিন এসেছে। আমি স্বীকার করছি অপরাধের অস্ত নেই, অন্ত নেই, তার প্রায়শ্চিত্ত আমাকেই করতে হবে । তৃণাঞ্জন । তবে আর দেরি করেন কেন । এদিকে যে আমাদের সর্বনাশ হয় ।