পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৭৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন 이C) আচার্যের প্রবেশ আচার্য। সার্থক হল আমার নির্বাসন । প্রথম দৰ্ভক। বাবাঠাকুর আমাদের সমস্ত পাড়া আজ ত্রাণ পেয়ে গেল। এতদিন তোমার চরণখুলে তো এখানে পড়েনি। আচার্য । সে আমার অভাগ্য, সে অামারই অভাগ্য । দ্বিতীয় দৰ্ভক। বাবা, তোমার স্বানের জল কাকে দিয়ে তোলাব ? এখানে তো— আচার্য । বাবা, তোরাই তুলে আনবি । প্রথম দৰ্ভক । আমরা তুলে আনব—সে কি হয় ! আচার্য । ই বাবা, তোদের তোলা জলে আজ আমার অভিষেক হবে । দ্বিতীয় দৰ্ভক। ওরে চল তবে ভাই চল । আমাদের পাটলা নদী থেকে জল আনি গে । প্রস্থান আচার্য। দেখো পঞ্চক, কাল এখানে এসে আমার ভারি গ্লানি বোধ হচ্ছিল । পঞ্চক। আমি তো কাল রাত্রে ঘরের বাইরে শুয়েই কাটিয়ে দিয়েছি । আচার্য । যখন এইরকম অত্যন্ত কুষ্ঠিত হয়ে আপনাকে আদ্যোপাস্ত পাপলিপ্ত মনে করে বসে আছি এমন সময় ওরা সন্ধ্যাবেলায় ওদের কাজ থেকে ফিরে এসে সকলে মিলে গান ধরলে— পারের কাণ্ডারী গো, এবার ঘাট কি দেখা যায় ? নামবে কি সব বোঝা এবার ঘুচবে কি সব দায় ? শুনতে শুনতে মনে হল আমার যেন একটা পাথরের দেহ গলে গেল ।