পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\') দর্ভকপল্লী গান পঞ্চক । আমি যে সব নিতে চাই, সব নিতে ধাই রে ; আমি আপনাকে ভাই মেলব যে বাইরে । পালে আমার লাগল হাওয়া, হবে আমার সাগর যাওয়া, ঘাটে তরী নই বাধা নাই রে । স্বথে দুখে বুকের মাঝে পথের বঁাশি কেবল বাজে, সকল কাজে শুনি যে তাই রে । পাগলামি আজ লাগল পাথণয পাখি কি অগর থাকবে শাখায় ? দিকে দিকে সাড়া যে পাই বে। আচার্যের প্রবেশ পঞ্চক। দূরে থেকে নানাপ্রকার শব্দ শুনতে পাচ্ছি আচার্যদেব । অচলায়তনে বোধ হয় খুব সমারোহ চলছে । আচার্য । সময় তো হয়েছে। কালক্ট তো তার আসবার কথা ছিল । আমার মনটা ব্যাকুল হয়ে উঠেছে । একবার সুতসোমকে ওখানে পাঠিয়ে দিই। পঞ্চক । তিনি আজ একাদশীর তপণ করবেন বলে কোথায় ইন্দ্রতৃণ পাওয়া যায় সেই খোজে বেরিয়েছেন ।