পাতা:অচলায়তন - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৯৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অচলায়তন X თ ა সুভদ্র । আমি যে পাপ করেছি তার তো প্রায়শ্চিত্ত শেষ হল না। দাদাঠাকুর। তার আর কিছু বাকি নেই। সুভদ্র । বাকি নেই ? দাদাঠাকুর। না। আমি সমস্ত চুরমার করে ধুলোয় লুটিয়ে দিয়েছি। স্বভদ্র। একজটা দেবী— দাদাঠাকুর। একজটা দেবী ! উত্তরের দিকের দেয়ালট ভাঙবামাত্রই একজটা দেবীর সঙ্গে আমাদের এমনি মিল হয়ে গেল যে, সে আর কোনোদিন জটা জুলিয়ে কাউকে ভয দেখাবে না। এখন তাকে দেখলে মনে হবে সে আকাশের আলো—তার সমস্ত জট আষাঢ়ের নবীন মেঘের মধ্যে জড়িয়ে গিয়েছে। সুভদ্র । এখন আমি কী করব ? পঞ্চক। এখন তুমি আছ ভাই আর আমি আছি। দুজনে মিলে কেবলই উত্তর দক্ষিণ পুব পশ্চিমের সমস্ত দরজাজানলাগুলো খুলে খুলে বেডাব । উপাচার্য । ( প্রবেশ করিয়া ) তৃণ পাওয়া গেল না—কোথাও তৃণ পাওয়৷ গেল না । আচার্য। স্থতসোম, তুমি বুঝি তৃণ খুজেই বেড়াচ্ছিলে ? উপাচার্য । হা, ইন্দ্রতৃণ, সে তে কোথাও পাওয়া গেল না। হামু হয়। এখন আমি করি কী । এমন জাযগাতেও মানুষ বাস করে ! আচার্য। থাক তোমার তৃণ | এদিকে একবার চেয়ে দেখো । উপাচার্য । এ কী । এ যে আমাদের গুরু । এখানে ! এই দর্ভকদের পাড়ায় ! এখন উপায় কী । ওঁকে কোথায়—