পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/১৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান ১২৯ অনেক কিছু জানিবার আছে। ধ্যানীরা বলিয়া থাকেন – ইহাও পরিসমাপ্তি নয়, ইহাকেও বিলুপ্ত করিতে হইবে। এই অবস্থার উদ্ধে অব্যক্ত – “নাহি আর কালের গমন ; নাহি হিল্লোল কল্লোল, স্থির - স্থির সমুদয় ; নাহি - নাহি, ফুরাইল বাক্ ;বর্তমান বিরাজিত।” গিরিশ্চন্দ্র। উপনিষদ্ বলিয়াছেন, “ন তত্র সূৰ্য্যো ভাতি ন চন্দ্রতারক নেমা বিদ্যুতে ভান্তি কুতেইয়মগ্নিঃ” – সেখানে সূর্য কিরণ দেয় না, চন্দ্র, তারকা, কিরণ দেয় না, বিদ্যুৎসমূহও প্রকাশ পায় না, অগ্নি কোথায় ? “অবামনসােগােচর” - বাক্য ও মনের অতীত – স্বামিজী বলিয়াছিল। অস্ম’, ‘যুগ্ম – আমি, তুমি বা আমরা, তােমরা - এ সকলই, এ অবস্থায় এক হইয়া যায়। সমস্ত স্নায়ুর — স্কুল, সূক্ষ্ম, এমন কি কারণ-স্নায়ুর পর্যন্ত, প্রক্রিয়া বন্ধ হইয়া যায়; কেবলমাত্র অতি সূক্ষ্ম বা মহাকারণ-স্নায়ুর প্রক্রিয়া বিদ্যমান থাকে। ইহাকেই ‘নির্বিকল্প সমাধি বলে। ইহার নিম্নস্তরের সকল অংশকেই সবিকল্প সমাধি বলে। আমি শ্রীশ্রীরামকৃষ্ণের এই অবস্থাটা বহুবার দেখিয়াছি, স্বামিজীরও এই অবস্থাটী অনেকবার দেখিয়াছি এবং ব্রহ্মানন্দেরও কয়েকবার দেখিয়াছি।