পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/১৫৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান ১৪১ শ্রেণীতে যাইলে নিজ দেহ যেমন এক কেন্দ্র বলিয়া অনুভূত হয়, সৰ্ব্বদেহও সেইরূপ বিভিন্ন কেন্দ্র বলিয়া প্রত্যক্ষ হয় ; কারণ, সকল দেহই কারণ-স্নায়ু হইতে উৎপন্ন এবং ‘অণু, ‘দ্বাণুক, ‘সরেণু’ ও ‘পরমাণু সর্বত্রই বিদ্যমান। তখন ‘নিজ কেন্দ্র’ ও ‘অপর কেন্দ্র এইরূপ কোন শব্দই থাকে না। সর্বকেন্দ্রই মূল কেন্দ্র - Every point is the centre, nowhere is the centre. ইহা হইল সূক্ষ্ম-শরীরের কথা, স্কুল-শরীরের কথা নয়। এইজন্য, উচ্চমার্গের চিন্তা করিতে হইলে, এই কথা বিশেষভাবে অনুধাবন করা আবশ্যক। বৈজ্ঞানিক মত হইল - মস্তিষ্ক দিয়া চিন্তা করিও না, স্নায়ু দিয়া চিন্তা করিও - Think not through the brain, but through the nerves, অথবা, তােমার ভাবসমূহকে স্নায়ুপুঞ্জে আনয়ন কর - Bring down the ideas to your nerves - যাহাকে চলিত কথায় বলে - ভাবতে পরিপূর্ণ হইয়া যাও। মস্তিষ্ক দিয়া চিন্তা করিলে, তাহাতে শরীর ও অন্যান্য অঙ্গাদি নিস্তেজ হইয়া পড়ে এবং দ্বিধা, সন্দেহ ইত্যাদি অনেকপ্রকার ভাব বা প্রতিবন্ধ আসিয়া থাকে ; কারণ, স্কুল-স্নায়ু দিয়া যে শক্তি সঞ্চারিত হয়, অধিকাংশ সময় বিপরীত দিকে তাহার গতি হইয়া থাকে, একস্রোতমুখী বা কেন্দ্রাভিমুখী গতি তাহার হয় না। এই বিষয়টা সাধকের বা দার্শনিকের বিশেষ করিয়া জানা আবশ্যক।