পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/১৬৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৫৪ অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান বলে পরিমার্জিত ভদ্রলােক’ (Polished gentleman)সে সেইরূপ ছিল। পূৰ্ব্ব সম্পর্কের বয়ােজ্যষ্ঠরা আসিলে পূর্বের ন্যায় অতি সম্মান দেখাইয়া কথাবার্তা কহিত এবং যাহার সহিত যেরূপ সম্বন্ধ ঠিক সেই ভাবটী বজায় রাখিত। সন্ন্যাসী হইলেও সে যে ঘরােয়ানা ঘরের ছেলে, এই ভাবটা তাহার প্রত্যেক আচার-ব্যবহারে দেখিতে পাওয়া যাইত। শুটকো সন্ন্যাসী বা কাটখােট্টা সন্ন্যাসীকে সে পছন্দ করিত না, এমন কি তাহাদের বিদ্রুপ করিত। একটা প্রাচীন বংশের ছেলে সন্ন্যাসী হইয়াছে এবং প্রাচীন আচার-ব্যবহার ও দরবারী-ভাব যে তাহার ভিতর আছে, তাহা পরিলক্ষিত হইত। সে সকলের সঙ্গে মিষ্ট ও ভদ্র ব্যবহার করিত। এইজন্য ব্ৰহ্মান এত লােকপ্রিয় হইয়াছিল। কেহই তাহার বিরুদ্ধে কোন কথা বলিত না ; ব্ৰহ্মানন্দ অজাতশত্রু ছিল। সাধারণ যুবক ও মহাপুরুষ যুবকের মনােবৃত্তি শৈশব হইতেই মহাপুরুষদিগের জীবনে নানাপ্রকার অস্বাভাবিকতা পরিলক্ষিত হয়। জীবনের প্রথমভাগে, প্রত্যেক মহাপুরুষেরই ভিতর, কিছু না কিছু অসামঞ্জস্য ভাব ও অসাধারণ আচরণ দেখিতে পাওয়া যায়। অতি শৈশবকাল হইতেই স্বভাবজাত তীক্ষ্ণ অনুভব-শক্তি থাকায়, পারিপার্শ্বিক জগতের দুঃখ-কষ্ট ও অসম্পূর্ণতা তাহার চক্ষের সম্মুখে ফুটিয়া উঠে। যদিও এইরূপ মনােভাব লইয়া। তিনি তাঁহার সমবয়স্ক বন্ধু