পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/৬৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান ৪৯। জানা আবশ্যক। এখন কোন জিনিষ লুকাইবার আবশ্যক নাই ; কারণ, সকলেই চলিয়া গিয়াছেন এবং আমারও যাইবার সময় হইয়াছে। দুঃখ, কষ্ট ও ভালবাসার মধ্য দিয়া যে আমরা চলিয়াছিলাম কেবলমাত্র সেই অবস্থাটা দেখাইবার জন্য এই সকল ঘটনার উল্লেখ করিতেছি। পুরানাে জামা-~পবিত্র 1 | বরানগর মঠে কাহারও গায়ে কিছু বস্ত্র ছিল না। বলরাম বাবু রাখালকে নিতান্ত নিরাশ্রয় দেখিয়া সর্বদাই নিজের কাছে রাখিতেন। তাহার ব্যবহৃত পুরানাে একটা বনাতের জামা ( চীনা কোট) রাখালকে দিয়াছিলেন। রাখাল সেই জামাটী বলরাম বাবুর দেওয়া বলিয়া অনেক সময় গায়ে দিত। যে বাড়ীর বিষয়-আশয় সব ত্যাগ করিয়া আসিয়াছে, সে অপরের ব্যবহৃত পুরানাে জামা পবিত্র বলিয়া গায়ে দিতে লাগিল ! কি ত্যাগ ও বৈরাগ্য ! ভক্ত দাস রঘুনাথের সহিত রাখালের এই সময়কার অবস্থার তুলনা করা যাইতে পারে— “আমি প্রেমের ভিখারী, কে প্রেম বিলায় এ নদীয়ায়। আমি দেশে দেশে, বেড়াই ভেসে, ঠেকে গেছি প্রেমের দায়।”

গিরিশচ