পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/৭৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান ৫৭ সূত্রে যশােধরার যেরূপ মনঃকষ্টের বর্ণনা আছে, ‘বি’র সেইরূপ হইয়াছিল, অনেক বিষয়ে উহার সহিত সৌসাদৃশ্য দেখিতে পাওয়া যায়। গ্রন্থে যশােধরার বিষয় অনেক বর্ণনা আছে, সেইজন্য সাধারণ লােকে তাহা জানিতে পারে। দুঃখিনী, নিরাশ্রয়, বিশ্বেশ্বরীর কথা বিশেষ জানিবার কোন উপায় নাই; কিন্তু বেদনা উভয়ের একই ছিল। আমি তখন এত বুঝিতে পারি নাই, কেবলমাত্র চক্ষে দেখিয়াছিলাম। এখন তাহার গুরুত্ব বুঝিতে পারিতেছি, পূর্বকথা স্মরণ করিয়া আমার মন অত্যন্ত আলােড়িত হইতেছে। যাহারা চিন্তাশীল তাহারা এ বিষয়ে ঠিক বুঝিতে পারিবেন। সত্যচরণ ‘বি’ যখন দেহত্যাগ করে, তখন তাহার সন্তান সত্যচরণের বয়স আড়াই কি তিন বৎসর হইবে। সত্য কখনও মনােমােহনদাদার বাড়ীতে থাকিত, কখনও বা পিতামহের বাড়ীতে থাকিত। এইরূপে সে মানুষ হইতে লাগিল। ছেলেটী অনেকভাবে তাহার পিতামহ হারাণচন্দ্র ঘােষ মহাশয়ের ন্যায় হইয়াছিল। ছেলেটী খুব ছটফটে, চনমনে-দুর্ধর্ষ ছিল। ছেলেটী বড় হইলে মনােমােহনদাদার বাড়ীতে পড়াশুনা করিত। আহিরীটোলার নিবারণচন্দ্র দত্ত মহাশয়—রাখাল যাঁহাকে আদর করিয়া বারুণ। ঠাকুর’ বলিত, ছেলেটীকে পড়াইত।