পাতা:অজাতশত্রু শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মহারাজের অনুধ্যান - মহেন্দ্রনাথ দত্ত.pdf/৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


॥ অধিনায়ক। শ্রীমৎ স্বামী বিবেকানন্দ তাঁহারই উপর বিশেষ করিয়া শ্রীরামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সংগঠন ও পরিচালনার ভার অর্পণ করিয়াছিলেন। শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ কিরূপ আদর্শ সঘনেতারূপে এই সংগঠন ও পরিচালন কাৰ্য্য সম্পন্ন করিয়াছিলেন, তাহা শ্রীরামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের প্রসারণ দেখিয়া অনুমান করা যাইতে পারে। শ্রীমৎ স্বামী ব্ৰহ্মানন্দ একাধারে -যােগী ও কর্মী। যােগী হইলেও তিনি লােকচক্ষুর অন্তরালে থাকিয়া জগতের সর্ববিধ কল্যাণের জন্য আত্মনিয়ােগ করিয়াছিলেন। শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দের মত আদর্শ পুরুষগণের কর্ম ও তপস্যা প্রসূত সঞ্চিত-শক্তিবলে বলীয়ান্ বলিয়াই, শ্রীরামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন আজ জগতে একটী বিশেষ শক্তি-বিকীরক-কেন্দ্র বলিয়া পরিগণিত। মহাযুগচক্র প্রবর্তনে শ্রীরামকৃষ্ণ-বিবেকানন্দের অন্যতম বিশিষ্ট অগ্রগামী সহায়, আলােক-বর্তিকাবাহী শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ মানবজাতির গৌরব। এইরূপ মহাপুরুষের মনােবৃত্তি আলােচনায় যে, সকলে বিশেষ উপকৃত হইবেন সে বিষয়ে সন্দেহ নাই। শ্রদ্ধেয় গ্রন্থকার কর্তৃক অনুধ্যান পূৰ্ব্বক অঙ্কিত এই মহাপুরুষের গভীর ভাবব্যঞ্জক ‘রেখা চিত্র জীবন্ত মূর্তি পরিগ্রহ করিয়া সত্যানুসন্ধিৎসু ব্যক্তিদিগকে সাধন-পথে চলিবার অনন্ত প্রেরণা দিবে, ইহাই আমাদের বিশ্বাস। শ্রদ্ধেয় গ্রন্থকার প্রসঙ্গক্রমে, জপ কি, ধ্যান কি, দেহ কি, সৃষ্টি কি - ইত্যাদি বিষয় সমূহ, ‘প্রকম্পনবাদ’ দ্বারা বুঝাইবার প্রয়াস পাইয়াছেন। আমরা এ বিষয়ে দার্শনিক ও বৈজ্ঞানিকগণের দৃষ্টি বিশেষ করিয়া আকর্ষণ করিতেছি। শ্রদ্ধেয় গ্রন্থকার শ্রীমৎ স্বামী ব্রহ্মানন্দ প্রমুখ মহাপুরুষগণের সহিত যে ভাবে কথাবার্তা কহিতেন একং তাহাদিগকে যে ভাবে সম্বােধন করিতেন, সেই সরল ভাবটা গ্রন্থে বজায় রাখিবার চেষ্টা করা হইয়াছে। সুধী পাঠক-পাঠিকাগণ ও ভক্তগণ ইহাকে ক্ৰটী বলিয়া গ্রহণ না করেন, - 1