পাতা:অধিকার-তত্ত্ব.pdf/১০২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অধিকার-তত্ত্ব । ᎼᎼ পার্থিব ঐক্য,” পরমার্থক ঐক্য, নহে। তাদৃশ ঐক্য, বালু ভূমির উপরিস্থ অট্টালিকার ন্যায় অচিরে ধরাশায়ী হয় । কুসুমে পম যৌবনের ও সম্পত্তির সরস-কমলের পরিমলপান জন্য প্রথমে র্যাহারা তোমার বন্ধু হইবেন, তুমি যৌবন ও সম্পত্তিহীন হইলে তঁiহার তোমাকে সুদ্ধ পরিত্য{গ করিবেন এমত নহে, কিন্তু তোমার জীবন পর্ঘ্য স্তু বিনাশ করিবেন । নলিনী সপদে থাকিলে দিবাকর তাহাকে প্রস্ফুটিত করে, কিন্তু স্থানচ্যুত হইলে শুষ্ক করিয়া থাকে । ৫ । অতএব তা দ্য কল্য বহিরে যত পরস্পর ঐক্য দেখা যাইতেছে, তাহ পরমার্থিক নহে । . যাহারদের মধ্যে নৃত্যগীত-রঙ্গ-রস-পান ভোজন একত্রে উপভোগ হইতেছে, কুশল জিজ্ঞাসা, অনুরোধ, উপরোধ, আদান-প্রদান প্রফুল্ল ভাবে চলিতেছে, সেখানে পার্থিব-প্রেমই বিরাজমান-পরমর্থিক নহে । অতএব এ প্রকার প্রেমকে “ভ্রাতৃভাব” বলা যাইতে পারে না । ঐ রূপ প্রেমের বর্ণধ অণর বালুর বাধ সমান । ৬। অধ্যাত্মিক উন্নতির সমর্ত হইলেই প্রীতি ভ্রাতৃভাব নাম ধারণ করে । র্যাহার। আধ্যাত্মিক উন্নতির সমদেশে থাকেন না, মূল আধ্যাত্মিক ভাবের সাধারণ ঐক্যবশতঃ র্তাহারদেরও মধ্যে প্রীতির অসদ্ভাব নাই । তথা তাহ। দয়া আর স্নেহ নামে নিম্নগামী হয়, ভক্তি, শ্রদ্ধা উপাধিতে উদ্ধে উখিত হইয় থাকে—এমন কি নৱলোকের সীমা উত্তীর্ণ হইয়। তাছা স্বৰ্গনাথের চরণ বন্দন করে । -