পাতা:অধিকার-তত্ত্ব.pdf/১১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অধিকার-তত্ত্ব । * * > . অধিকারকে সৰ্ব্বতোভাবে পোষণ করিতে হইবেক । খৃষ্টানদিগের ন্যায় রাজপথে ও হউগোলের মধ্যে উপদেশ দিলে এদেশীয় ইতরলোকের তাহ অগ্রাহ্য করিবেক । সাদা সিধা সভা করিয়া তাহাদিগের সম্মুখে কেবল বক্ততা করিলেও কোন কাজ হইবেক না । অতএব হিন্দুভাবে, তাহারদের মনের মতন করিয়া উপদেশ দিতে পরিলে অবশ্যই ফল হইতে পরিবেক । ৭ । ই তরলোকদিগের মধ্যে ধৰ্ম্মেণপদেশ বিস্তার করিবার নিমিত্তে আপাততঃ নিম্নস্থ প্রণালী অবলম্বন করাই বিহিত বোধ হইতেছে । ৮ । ব্রহ্মবাদিব্যক্তি লোকের অতিয়ার মঙ্গল ও ব্রহ্মপ্রীতি কামনায় গ্রামে গ্রামে ও ইতরলোকদিগের বাটী বাটী যাইবেন । তাহারদিগের সাংসারিক দুঃখ যাহাতে দূর হয় তাহার যত্ন করবেন ও ভদ্বিষয়ে সদুপদেশ দিবেন। নিষ্ঠুর জমাদার ও পুলিসের লোকের দুঃখী লোকদিগের প্রতি সৰ্ব্বদাই অত্যাচার করে । অতএব দেশের শুভানুধ্যায়ী ব্রহ্মজ্ঞানী সাধ্যমত মীমাংস দ্বারা তাঙ্গ নিবারণ করাইবেন । প্রজার প্রায়ই ইচ্ছাপূর্বক জমাদারের কর দিতে চাহে না । যখন যে টাকা পায় আপনারা খাইয় ফেলে, অথবা জমীদারের আমলাদিগকে উৎকোচ দিতে তাহারদের সর্বস্ব যায় । ব্রহ্মজ্ঞানী ধীর ভাবে এসকল অন্যায় ব্যবহার নিবারণ করবেন । তাহাকে সৰ্ব্বতে ভাবে উহারদিগের ধৰ্ম্মোপদেশক ও উপকারক হইতে হইবেক । কিন্তু যদি ধৰ্ম্মোপদেশ ত্যাগ করিয়া কেরল ঐ রূপ উপকার