পাতা:অধিকার-তত্ত্ব.pdf/৩১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


之° অধিকার-তত্ত্ব । 教 এক অামারদের সকলের আত্মাতেই ব্ৰহ্মজ্ঞানের ঐ অমূল্য মুল-অধিকার দিয়াছেন । ঐ অধিকারই মানবের উপাসন প্রবৃত্তির জন্মদাতা । উহা থাকাতেই মানব পাপ হইতে ধৰ্ম্মকে পৃথক করিয়া লইতেছেন, উহ্য থাকাতেই নানা দিগে নানাপ্রকার উপাসক-সম্প্রদায় সৃষ্ট হইয়াছে, উহারই জন্য পূর্বকালে ইন্দ্রাদি দেবগণের উদ্দেশে যজ্ঞবন্দনা হইত, উহারই উত্তেজনায় ভারতে মিসরে, রোমে, গ্রীসে, সহস্ৰ সহস্র প্রতিমার পূজা হইয়াছে, উহারই কারণে কৃষ্ণ, রামচন্দ্র, বুদ্ধ, খৃষ্ট, মহহ্মদ, প্রভৃতি ব্যক্তিগণ সম্প্রদায় বিশেষে বিবিধ পূজা ও আদর লাভ করিতেছেন, এবং উহারই প্রভাবে মহা মহা ব্রহ্মজ্ঞানীসকল জগতে কালে কালে আবিভূতি হইয়া আসিতেছেন । ব্রহ্মজ্ঞানের ঐ অমূল্য মূল-অধিকার হইতে কি জ্ঞানী, কি অজ্ঞানী, কি স্বদেশী কি বিদেশী কেহই বঞ্চিত নহেন । চণ্ডীমণ্ডপ, মন্দির, মসজিদ, গ্রিজ, ব্রাহ্মসমাজ প্রভৃতি কীৰ্ত্তি সকল তা হারই পরিচয় দিতেছে । যদি উহ না থাকিত, তবে মানব পশুর অপেক্ষাও অধম অবস্থায় পড়িয়া থাকিত । দ্বিতীয় অধ্যায় । سیستمهدی سمساس অধিকারী-নিরূপণ । ১ । যদিও ব্রহ্মজ্ঞানের মূল-অধিকার সকল মানবের আত্মাতেই সৰ্ব্বকাল বিদ্যমান রহিয়াছে, কিন্তু অবস্থা,