পাতা:অধিকার-তত্ত্ব.pdf/৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অধিকার-তত্ত্ব । *" তাহাই হইবেক । খৃষ্টানদিগের দুরবস্থায় দুঃখ হয় । র্তাহারদের মধ্যে কেহ কেহ এখন চারিদিগে অন্ধকার দেখিয়া খৃষ্টনামের সঙ্গে সঙ্গে কৃষ্ণনাম প্রচার করিবার প্রস্তাব করিতেছেন । মনে করিতেছেন যে তাহা হইলে সুপরিচিত কৃষ্ণনামের সঙ্গে সঙ্গে আমরা বিদেশীয় খৃষ্টনাম গ্রহণ করিব ; কিন্তু তাহাও পরিহাসের স্থল হইয়া উঠিবেক । ১• যাহাই হউক, ভারতের আধ্যাত্মিক ধাতুতে বৈদেশিক ধৰ্ম্মমত কখন সহ্য হইবেক না । খৃষ্ট ও মহম্মদকে যতই নবীন বেশে উপস্থিত কর, কিছুতেই আমরা উাহারদের নাম, দৃষ্টান্ত, বা দেবত্ব গ্রহণ করিব না। কিন্তু যদিও বিদেশের ধৰ্ম্মমত গ্রহণ না করি, তথাপি আত্মার ধৰ্ম্ম স্বজাতীয় উন্নত ব্ৰহ্মজ্ঞান, এবং শিষ্টাচার পরিপালিত রীতি নীতিকে অনাহত রাখিয়া যত দূর সম্ভবে অামারদের বিদেশীয় বিজ্ঞান, শিপ, বাণিজ্য, প্রভৃতি গ্রহণ ও উপভোগ করিবার অধিকার অাছে । ১১ । ইউরোপীয় বিজ্ঞানই ইউরোপকে জগতের মধ্যে উন্নত স্থান দিয়াছে, কিন্তু খৃষ্টীয়ধৰ্ম্ম नग्नङ् । हेखेँরোপীয় মুদ্রণযন্ত্র দ্বারা এই সসাগর-ধরণী যে কি পৰ্য্যন্তু উপকার লাভ করিয়াছে তাহা এক মুখে ব্যক্ত করা যায় না । ইউরোপীয় শব্দবিজ্ঞান, যাহা ভারতীয় বেদকে অবলম্বন করিয়া উঠিতেছে, তাহার সিদ্ধান্ত সকল মনোহর | ইউরো- . পীয় ভূতত্ত্ব-বিদ্যা, যাহার প্রভাবে বাইবেলের লিখিত জগতের আধুনিকত্ব অপ্রমাণিত হইয়া হিন্দুশাস্ত্রোর্ক্স জগতের প্রাচীনত্বের সম্ভবপরতা স্থিরতর হইতেছে, তাহার অব্যর্থ