প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/১৮৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রথম খণ্ড-তৃতীয় সংখ্যা । ] db - llum aba ܝܚܝܥܣܦܒܫ হইবে ; কোন কোন ফসল বেলে-জমীতেই ভাল হয় । বেলে-জামীতে ভাল কারকিৎ করা যায়। বালুকাবহুল মৃত্তিকায় উদ্ভিদের খাদ্য প্রচুর পরিমাণে থাকে না। সত্য, কিন্তু অন্য দিকে উহার উপকারিতা সামান্য নহে । ঐ রূপ বেলে-মাটিতে “আগুতি ফসল” উৎপাদন করা সহজ এবং উচ্চ অঙ্গের কৃষি অবলম্বন করা সুবিধাজনক, কারণ বালুকাবহুল মৃত্তিকায় শস্যাদি সহজে শিকড় প্রবিষ্ট করিয়া দিতে পারে। ঐ মাটি নরম। আগুতি ফসল উৎপন্ন করিতে হইলে সৰ্ব্বপ্রথমে কৃত্রিম উপায়ে ঐ মাটির উৎপাদিকাশক্তি বুদ্ধি করিয়া লইতে হয়। সুতরাং বালুকাবহুল মৃত্তিকায় huHLLLDB DD DD BDBBD SBDL DBDBBDS LLL DBB পচনী। যে প্রকার উদ্ভিদের পচানী মাটিতে মিশাইয়া দেওয়া হয়, তাহার উপর জমীর উৎপাদিকাশক্তি অনেক পরিমাণে নির্ভর করে । বেহারের কোন কোন অঞ্চলে কৃষকরা বাগান হইতে পাতা প্রভৃতি সংগ্ৰহ করিয়া উহা মাটির মধ্যে পচাইবার জন্য পুতিয়া রাখে। উহা মাটির মধ্যে পচিয়া গেলে তবে তাহা তুলিয়া জমীতে দেওয়া হয়। প্ৰায় বিশ পচিশ বৎসর পূৰ্ব্বে গোবরডাঙ্গা, কোটচাঁদপুর, বাদুড়িয়া প্ৰভৃতি অঞ্চলে কৃষকরা জমীতে “ঢাল” মিশাইয়া দিত। পূৰ্ব্বে ঐ সকল অঞ্চলে চিনির কারখানা ছিল । চিনি প্ৰস্তুত করিবার সময় যে ঝুড়িতে বা নাদায় গুড় রাখিয়া তাহা হইতে মাতা ঝরাণ হইত। ঐ মাত ভাল করিয়া ঝরাইবার জন্য ঝুড়ীর ও নাদার উপর “পাটা শেওলা’ দেওয়া হইত। ঐ পাটা শেওলা বুড়ী ও নাদার উপর শুকাইয়া গোলাকার ঢালের মত হইত বলিয়া উহাকে লোকে “ঢাল’ বলিত। ঐ ঢাল মাটির সহিত মিশ্ৰিত হইলে জমীর উৎপাদিকাশক্তি বৃদ্ধি পাইত। উহা জমীতে দিলে humus দেওয়ায় কাজ হইত। সুতরাং এ দেশের কৃষকরা যে জমীতে সার দিতে জানে না, তাহা নহে। পূর্ব বঙ্গে যে সকল স্থান ডুবিয়া যায়, সে সকল স্থানের জমীতে উৎপন্ন ঘাস ও অন্যান্য আগাছ জলে পচিয়া জমীর মাটির সহিত কতক মিশিয়া যায়, কতক জলে ধুইয়া যায়। মাটির সহিত যাহা মিশে, তাহা জমীর উর্বরতা বৃদ্ধি করে। ইহা ভিন্ন ঐ সকল জমীতে পলি পড়িয়াও জমীর উৎপাদিকাশক্তি বাড়ায়। যাহা হউক, বেলে-জমীতে এই প্ৰকার উদ্ভিদের পচানী সার দিলে ভাল হয়। জমীদারদিগের কৃষকদিগকে এই সকল বিষয় শিক্ষা দেওয়া উচিত। আর এক উপায়ে বেলে-জমীতে উদ্ভিদসার, humus মিশান হইয়া থাকে। ইংরেজীভাষায় উহাকে Green Manure বা সবুজ সার বলা হয়। বালুকাবহুল জমীতে শ্বেতসর্ষপ, সোরগেজা, শুমাঘিাস প্ৰভৃতি বপন করা হয়। দুই তিন মাস ঐ গাছ বৰ্দ্ধিত হইলে তখন উহা জমীর সহিত BBDB BD DD DBD SSBD BD BD DB DBDBDB সামান্য গৰ্ত্ত করিয়া তাহাতে উহা চাপা দিয়া রাখে। আবার কেই জমীতে লাঙ্গল দিয়া মাটির সহিত মিশাইয়া ফেলে। oe কৃষি । S94 প্রথমোক্ত উপায়টিই ভাল ; কারণ, তাহা হইলে উহার সারাংশ বৃষ্টির জলে ধুইয়া যাইতে পারে না। যে সকল ८छ्ब्र शक्न निमब्र छांघ्रि श ( शथ-ख्ञफूरुब्र, भद्र, कव्गকাসিন্দা প্ৰভৃতি), তাহা বেলে-জমীতে উৎপন্ন করিয়া DBDD DBBDBDS BBB DD DBBD DBDD SBBDD উচিত। উহাতে দুইপ্ৰকার সুফল ফলে। প্রথমতঃ উহাতে মৃত্তিকার সহিত উদ্ভিদের আবশ্যক অনেক জিনিষ মিশে ; দ্বিতীয়তঃ উহাতে ভূমিতে নাইট্রোজেন মিশ্রিত হয়। ঐ জাতীয় উদ্ভিদের বায়ুমণ্ডল হইতে নাইট্রোজেন গ্ৰহণ করিবার বিশেষ শক্তি আছে। ঐ জাতীয় গাছ যদি জমীর মার্টির সহিত মিশাইয়া দেওয়া হয়, তাহা হইলে জমীতে নাইট্রোজেনের ভাগ বিশেষ বৃদ্ধি পায়। কালকাসিন্দা প্ৰভৃতি কতকগুলি আগাছাকে আমরা যত অকৰ্ম্মণ্য মনে করি, উহা বাস্তবিক তত বেদরকারী আগাছা নহে। কিন্তু এই সিন্ধীজাতীয় উদ্ভিদ লাগাইতে এবং আবশ্যকমত বৰ্দ্ধিত করিতে বিলম্ব ঘটে, সেই জন্য কৃষকরা সর্ষপের গাছ লাগাইয়া তাহার চারা এক ফুট বড় হইলেই জমীর মাটির সহিত উহা ভাঙ্গিয়া দেয়। আমাদের দেশের জমীদারদিগের ও কৃষকদিগের দৃষ্টি এই দিকে একটু আকৃষ্ট করা। কৰ্ত্তব্য। তাহা श्एल डांशब्रा अधिकडब लांडवान् श्एद, आशा कब्र शांग्र। ইহা ভিন্ন গোময় ও গোশালার আবর্জন সাররূপে ব্যবহার করিলে বিশেষ সুফলের আশা করা যায় । আমাদের দেশের অনেক সারা কৃষকদিগের অজ্ঞতা ও ঔদাসীন্যনিবন্ধন নষ্ট হইয়া যায়। ইহা বড়ই দুঃখের বিষয়। বিলাতের রয়েল এগ্রিক্যালচারাল সোসাইটীও ওবার্ণ এবং বেডফোর্ডশায়ারের বালুকাবহুল ভূমিতে পরীক্ষা করিয়া দেখিয়াছেন যে, শ্বেতসর্ষপ সোরগোজাজাতীয় উদ্ভিদক্ষেত্রে উৎপাদন করিয়া তাহা মাটির সহিত মিশাইয়া দিলে ফসল ভাল হয় । তাহার কারণ, ঐ সকল উদ্ভিদ জমীতে পচিলে বালুকাবহুল জমীতে জলীয় ভাগ অধিক থাকে। ফসলের পক্ষে ভূমিতে রস থাকা আবশ্যক, নাইট্রোজেন থাকাও আবশ্যক। তবে স্থানবিশেষে ও ক্ষেত্রবিশেষে রসের প্ৰয়োজনীয়তা অধিক বোধ হয়। আবার ফসলবিশেষেও সারের তারতম্য করা আবশ্যক। সে সকল কথার আলোচনা °द्ध कब्र शांझेद । আমাদের এই দরিদ্র দেশে কেবলমাত্র সারের জন্যই জমীতে শুষ্ঠামাঘাস, সোরগোজা, শ্বেতসর্ষপ প্ৰভৃতির চাষ করিয়া উহাতে গো-মেষ-মহিষাদি চরিতে দিলে সুবিধা হয় । পশুচারণে যদিও সবুজ সারের কিছু হানি হয় সত্য, কিন্তু পশুদিগের মলমূত্ৰাদি সেই ক্ষতি অংশতঃ পূর্ণ করিয়া দেয়। কৃষির ন্যায় পশুপালনও নিতান্ত আবশ্যক। পশুর উপরের KDDBB DDB BBBDLD BDB BB DBDD SBD DDD মধ্যে থাকে, তাহাও জমীর উৎপাদিকাশক্তি অনেক BBDDDB Bi DB SS DBBD DD YBDDD DDBD