প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Ş და, LL LLLLLS SAe SLLLLL LSLSLS LLLLLLLLS ML TA SeL S LA iSAAA LA LA S LeeeL Lqe eLeL L TLLT LML LLLL SLLLS LLLLLLMLSLLLLLL tyra.Ja,Mr.Rivavrra. দেওয়াকে Claying বলিত । কিন্তু আজকাল তাহারা ঐরূপ করাকে পণ্ডশ্ৰম মনে করে । এখন তাহারা “বোলেডাঙ্গা’য় আর কাদা ছড়ায় না ; এখন তাহারা ঐ রূপ জমীতে পচা উদ্ভিদ, খামারের ওঁচলা, পাতার সার, সবুজ। সার (Green Manure) (2gfs for otto biotoorêÎ করিয়া লয়। শক্ত আটালে মাটিতে চাষ করিতে হইলে শীতের পূর্বে জমীতে ভাল করিয়া চাষ দিতে হয়। শীতের নীহারে ও তুষারে এবং গ্রীষ্মের প্রখর রৌদ্রে মাটিগুলির আটা অনেক কমিয়া যায়। এই ভাবে জমীর কারকিৎ করিতে হইলে বিশেষ অভিজ্ঞতা থাকা আবশ্যক ; তবে এই মাটির সহিত শুষ্ক ও পচা পাতা প্ৰভৃতি মিশাইয়া দিলে মাটির আটা অনেক পরিমাণে কমিয়া যায়। উদ্ভিদ ও জাস্তব পদার্থ সূৰ্য্যকিরণে পরিপাক করিয়া তাহা হইতে এক প্ৰকার ঈষৎ কৃষ্ণবর্ণ গুড়া প্ৰস্তুত করা হয় ; তাহাকে Humus বলে। ঐ জিনিষটা অতান্ত বেলেমাটির সহিত মিশাইলে ঐ DBD BDB BBDS KBDBDB DDDD DDB DB সহিত মিশাইলে মাটির আটা অনেক কমিয়া যায়। भाष्टिङ किडू आङे. शांक ८बभन स्थांबथोक, ठेशऊ আবশ্যকপরিমাণ রস থাকাও সেইরূপ দরকার। যে জমীর মাটি শীঘ্ৰ শুকাইয়া যায়, সে মাটিতে চাষ ভাল হয় না । অত্যন্ত শুকনা খটখট মাটিতে যেমন ফসল ভাল হয় না, সেইরূপ অত্যন্ত হাড়হড়ে কাদায়ও সকল ফসল ভাল হয় না । যে মাটিতে হাত দিলে উহা ভিজা বোধ হয়,-সেই মাটিতে বীজ বপন করিলে সহজে ও সুন্দরভাবে অস্কুরিত হইয়া থাকে। এই কথাটি মনে রাখিতে হইবে যে, মৃত্তিকার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রেণুগুলির ভিতর যে রস অর্থাৎ জল থাকে, উদ্ভিদরা তাহাই আহার করিয়া জীবনধারণ করিয়া থাকে। উদ্ভিদের দেহ পুষ্টির জন্য নানাবিধ ধাতব পদার্থের প্রয়োজন হয়। ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শিকড় দ্বারা মাটির রস শোষণকালে উদ্ভিদরা সেই মাটি হইতে ধাতব পদার্থ আপনাদের দেহমধ্যে প্রবিষ্ট করায় । বালীতে উদ্ভিদের সার মিশাইয়া দিলে ঐ বালীর জলধারণের ক্ষমতা জন্মে। সুতরাং ঐ রূপ বেলেऊीहङ कनक्ष छै९°द्ध छ्ध्र । মাটির আর একটা বিশেষ গুণ আছে। মাটি জল DD DBBDB BBS DBB BDBDBD D DD DBDB একটা প্রবাহ বহিয়া যায়। কৃপ, পুষ্করিণী প্ৰভৃতি খনন করিলে যে জল পাওয়া গিয়া থাকে, তাহা মাটির ভিতর দিয়া চোয়াইয়া আইসে। নিয়ের মাটি ঐ জলে ভিজা থাকে, উপরের মাটিও ঐ জল উপরের দিকে টানিয়া লয়। মাটি যদি ঐভাবে জল টানিয়া লইতে না পারিত, তাহা হইলে মতান্ত প্রখর গ্রীষ্মকালে মাটির উপরিস্থিত লতা গুল্ম প্ৰভৃতি সূৰ্য্যের প্রখরতাপে মাটি যখন किकूडछे फ्रिड ना । একেবারে শুকাইয়া যায়, তখন তৃণ লতা গুল্ম গুলি খাদ্যা ভাবেই মারিয়া যাইত। কিন্তু তৃণাদি সহজে মরে না।-- অনাথবন্ধু। [ প্ৰথম বর্ষ, আষাঢ়, ১৩২৩ ৷৷ AA AMLLLSeLALMLLLLLL LLLLLLLLM LLL LSLSLLLL AALMLALALSMALASLALAqL AALA LAL AAA AA AAA AALLAAAA AAALAALLAAAAALLAqqLqAMLSML MSMLeMSLLLL LLAMLALA AAA AAAA SMLSeLMAMLS esse তাহার কারণ, মাটি তাহার নিম্নস্থিত জল উপরে তুলে,- উদ্ভিদ শিকড়দ্বারা সেই জল পান করিয়া বাচিয়া থাকে। खभौद्ध भाथ शनि 'श्री थाएक अर्थ९ ऊांशद्ध डिडल शनेि ছিদ্র না থাকে, তাহা হইলে জমির নিম্নস্থিত রস অত্যন্ত উদ্ধ পৰ্য্যন্ত উঠিয়া থাকে। যখন জমীতে বীজ বপন করা হয়, তখন অনেক দেশের চাষীরা, বীজ মাটির ভিতর পুতিয়া. উপরের বুরামাটি কোদালীর উণ্টা পিঠ দিয়া চাপড়াইয়া দেয়। তাহার কারণ, যেখানে বীজ আছে, সেইখানে রসের প্রয়োজন। মাটির মাথাটা কতকটা অ্যাটা থাকিলে জমীর নিচের রস বা জলীয় অংশ উপরে উঠিয়া আইসে। DBBBDDS BBBD DBBD DDDBBBB DBDBD DDSS S BDD অঙ্কুরিত হইবার পক্ষে জলের যেমন প্রয়োজন, উত্তাপেরও সেইরূপ প্ৰয়োজন। জমীর রস আকর্ষণ করিলে বীজের ভিতর এমন একটু পরিবর্তন হয়, যাহার ফলে ঐ বীজ হইতে অন্ধুর উদগত হইয়া থাকে। ফলে, সকল বীজের পক্ষে একরূপ পাইটের প্রয়োজন হয় না । ফসলভেদে ভিন্ন প্রকারের পাইট করিতে হয়। বিভিন্ন ফসলের কথায় আমরা সে সব কথা বলিব । BD DD BiBDBDD DDD BB uBBD BD BD লয়। ঐ জলের সহিত পটাস, ফসফেটুস, নাইট্রেটস ভূতি উদ্ভিদের আহাৰ্য্য বা দেহ পুষ্টিকর পদার্থ উদ্ভিদের শরীর মধ্যে প্ৰবিষ্ট হয়। মাটির রসের মধ্যে ঐ সকল পদার্থ অতি অল্প পরিমাণে থাকে সত্য,-কিন্তু উক্ত না হইলে ও লতা গুল্ম বৃক্ষাদির প্রাণ বঁাচে না। ঐ সকল ধাতব পদার্থ ও নাইট্রেটুসগুলি উদ্ভিদের দেহমধ্যে প্রবেশ করিয়া উহার কোষগুলি পুষ্ট করে এবং পাতাগুলির কাজেরও সহায়তা করে। পাতাগুলির কাজ কি ? পাতার ভিতর অত্যন্ত সুন্ম সুন্ম ছিদ্র আছে ; পাতা সেই ছিদ্রগুলি দিয়া বাতাসের কার্বনিক য়্যাসিড গ্যাস শুষিয়া লয়। ছোট ছোট ফড়ি কি ডালগুলির ভিতরও অনেক ছিদ্রথাকে। তাহার ভিতর দিয়াও বৃক্ষাদি বাতাস হইতে কাৰ্ব্বনিক য়্যাসিড গ্যাস শুষিয়া লইয়া থাকে। বৃক্ষানির পত্রের বাতাস হইতে কার্বনিক য়্যাসিড গ্যাস বিশ্লিষ্ট করিয়া লাইবার যে শক্তি আছে, বৃক্ষের পক্ষে তাঙ্গা অত্যন্ত প্ৰয়োজনীয় । এই কার্বনিক য়্যাসিড গ্যাস হইতে উদ্ভিদ তাহার দেহস্থিত কার্বন গঠিত করিয়া লয়। • শুদ্ধ শস্যেরা অৰ্দ্ধেক প্ৰায় কার্বন থাকে। উহা শস্যাদি বৃদ্ধির পক্ষে অত্যন্ত আবশ্যক দ্রব্য । সেইজন্য সাধারণতঃ শস্যাদি ব পল্লবাদি, বিশেষ দরকারী । শুদ্ধ শস্যের মধ্যে শতকরা BtDuK DD BBDB KBBBSDDBDS BDS DBDD 9झांत 26अक्षम निडांस्ठ अक्ष मgछ । উদ্ভিদের পক্ষে জলের যেমন প্রয়োজন, রৌদ্রেরও তেমনই প্রয়োজন। রৌদ্রের উত্তাপে পাতা প্রভৃতি চাইতে উদ্ভিদের দেহস্থিত রস বাষ্প হইয়া উড়িয়া যাইতে পাকে ।