প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/২৫৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Aby-R بصمسسیسحصحصہسسحے মহারাজ বাহাদুর ৩৬ হাজার টাকা দান করিয়া যাহার ইংরেজ যাহাদুরের পক্ষভুক্ত হইয়া যুদ্ধ করিতেছেন, তঁহাদের সহিত কাৰ্য্যতঃ আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করিয়াছেন। ইহা ভিন্ন এই রাজভক্ত নরপাল রণক্ষেত্রে যুদ্ধে নিযুক্ত ভারতীয় সৈন্যদিগের জন্য ১ হাজার ১ শত ১১ মণ চাউল দিয়াছেন। স্বয়ং মহারাণী সাহেবাও সেণ্ট জন য়্যাম্বুলেন্স ফণ্ডে তিন হাজার টাকা দান করিয়াছেন। শোণিপুরের মহারাজ এবং যুবরাজ সাহেব প্ৰিন্স অব ওয়েলস ফণ্ডে নয় হাজার টাকা দিয়াছেন । এই রাজ্যের প্রজাবৰ্গও যুদ্ধের জন্য অনেক টাকা চাদ তুলিয়া দিয়াছে। “ভক্তিসহকারে এই প্ৰকার অর্থদানদ্বারা রাজভক্তির সমর্থন শোণিপুর-রাজংশের কৌলিক ব্যাপার।"--এই কথা লিখিয়াই সরকার মহারাজকে ধন্যবাদ করিয়াছিলেন । মহাবাজ বাহাদুর যুদ্ধ উপলক্ষে কয়েকটি মেসিন-কামান ক্রিয় করিবার জন্য টাকা দিয়াছিলেন, সেই জন্য ভারত সরকার তঁহাকে কৃতজ্ঞতাব সহিত ধন্যবাদ প্ৰদান করিয়াছিলেন । মেসোপেটেমিয়ার জন্য ঝাড়ুদার সংগ্ৰহ করিয়া তিনি বৃটিশ সরকাবের বিশেষ সহায়তা করিয়াছিলেন। মেসোপেটেমিয়ায় বৃটিশবাহিনীর জন্য তিনি তঁাহার রাজ্যে নায়েক ও পাইক সংগ্ৰহ করিতেছেন। মহারাজ ধৰ্ম্মনিধি বাহাদুর স্বয়ং তাহার রাজ্যের সিপাহীদিগেয় সহিত যুদ্ধক্ষেত্রে যাইতে চাহিয়াছিলেন, সেই Is li.site is ea a maagadha edhpahahhahahah

  • s-

Y . W g [ প্ৰথম বর্ষ, আশ্বিন, ১৩২৩ ৷৷ জন্য বৃটিশ গবমেণ্ট ণ্ঠাহাকে ঐকান্তিক ধন্যবাদ প্ৰদান করিয়াছিলেন । মহারাজ বাহাদুবের বার জন অশ্বারোহী সৈন্য, দেড় হাজার পাইক বা পদাতিক সৈন্য, আঠার জন গাড়তিয়ার অধীনে আছে। ইহার সেকেলে বন্দুক ও কামানে সুসজ্জিত । ইহা ভিন্ন নয় জন কৰ্ম্মচারীর অধীনে নয় শত কনেষ্টবল ও আট শত চৌকীদার আছে। ইহারা সকলেই উক্ত রাজ্যের পুলিস সুপারিন্টেণ্ডেণ্টের অধীন। মহারাজ বাহাদুরের দুই পুত্র। যুবরাজ সাহেব শ্ৰীসোমভূষণ সিংহ দেব এবং পোতে।তলাল সাহেব শ্ৰীসুধাংশুশেখর সিংহ দেব। মহাবাজ বাহাদুর ইহাদিগকে সুশিক্ষিত করিবার জন্য বিশেষ চেষ্টা ও যত্ন করিয়াছেন। ইহারা BB DBDBD DBBDBDSDBDD DBBDBDD DBK K S যুবরাজ সাহেব কলিকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যাট্রিকুলেশন পরীক্ষায় উত্তীৰ্ণ হইয়া রাজ্যের বিভিন্ন বিভাগে কাৰ্য্যশিক্ষা করিতেছেন, ইহা ভিন্ন পিতার ও তঁহার সেক্রেটারী শ্ৰীযুত অমরেন্দ্ৰনাথ সরকার ও প্ৰাইভেট সেক্রেটারী শ্ৰীযুত প্ৰকাশচন্দ্র মুখোপাধ্যায় এম. এ. বি. এল. মহোদয়ের নিকট সাহিত্য ও আইন অধ্যয়ন করিতেছেন। ছোট কুমারসাহেব আগামীবারে মাট্রিকুলেশন পরীক্ষা দিবার জন্য প্ৰস্তুত হইতেছেন । হেমন্ত । [ শ্ৰীহেমেন্দ্ৰ প্ৰসাদ ঘোষ, বি. এ. লিখিত । ] শরতের অবসান, শীত আসে আসেপবনপরশে মৃদুহিমাভাস ভাসে ; প্ৰভাতের দূৰ্ব্বাদলে শিশিরে মুকুতা বলে ; বায়ুভরে শুভ্ৰ অত্র ভাসে না আকাশে ; পূর্ণ বায়ু শেফালীর-কমলের বাসে। এখনো উত্তর হ’তে আসেনি পবন ; রুদ্ধগীত বিহগের গীত সমাপন ; হরিৎ ধান্তের শিরে স্বর্ণকান্তি ফুটে ধীরে ; শালিগন্ধে মুগ্ধ আলি করে গুঞ্জরণ ; নীলাম্বরে তপ্ত-স্বৰ্ণ সুৰ্য্যের কিরণ । শুকাইছে। সরসীর সলিল-সম্ভার ; নদীকূলে ফোনসম বালুকা-বিস্তার ; শুভ্ৰ বেলাবালু’পরে বক বিচরণ করে ; মর্যালের শ্বেত অঙ্গে শুভ্ৰাতা-সঞ্চার ; নিশায় তারকার্দীপ্তি হরে অন্ধকার । এখনো খুলেনি শীত উত্তর-তোরণ ; উষা মুখে নাহি টানে কুহেলি-গুণ্ঠন ; সৌরভ-শোণিমা মাখি গোলাপ খুলেনি আখি ; তরুপত্রে থাকি? থাকি” শঙ্কা-শিহরণআসে। শীত স্নান করি। রবির কিরণ ।