প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/২৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


qqዛ ቀs–5ቛሻ ሻሮግri | ] auas adhaladhaa ZA ص da ܒܝܒܫ ܘܚܫܒܝܢܫ ---ر বাড়ী ত্যাগ করা ভাল অথবা তাহার ছাদ খুলিয়া ফেলা YTS BDBD DDD DDD BBBBS DDB DBBD DDBBBYSS বোম্বাইসহরে এই ব্যবস্থা অবলম্বন করিয়া হাতে হাতে সুফল পাওয়া গিয়াছিল। (২) বাড়ীতে ইন্দুর থাকিতে না পারে, তাহার ব্যবস্থা করা আবশ্যক। এই জন্য ইন্দুর মারা প্ৰয়োজন এবং খাদ্যদ্রব্য এমনভাবে রক্ষা করিতে হয়, যেন ইন্দুর তাহার সন্ধান না পায়। (৩) বিনা পাদুকায় গৃহের মধ্যে চলাফেরা করা নিরাপদ নহে। যদি পাদুকা। ব্যবহার করা অসম্ভব হয়, তবে পায়ে ক্ষত বা ফাটাগুলিকে রীতিমত চিকিৎসা দ্বারা আরাম করা উচিত । (৪) যে বাটীতে প্লেগ হইয়াছে, সে বাটীতে বাস করিতে নাই। তবে বাটীর সম্পূর্ণ সংস্কার হইয়া গেলে তথায় থাকা নিরাপদ। যে দেশে-যে পল্লীতে প্লেগ হইতেছে, তথায় বাস করাও বিপজ্জনক । (৫) প্লেগ-নিবারণে এক প্রকারের টীকা বাহির হইয়াছে। উহা বেশ ফলপ্ৰদ। প্লেগসন্ধুল দেশে যাইতে হইলে বা প্লেগরোগীর • চিকিৎসা করিতে হইলে ঐ টীকা লওয়া সমীচীন। ৬) বাড়ীতে যদি ইন্দুর মরে, তবে কখনও তাহাকে হাতে করিয়া রাস্তায় ফেলিও না। ইন্দুরটি যেখানে পড়িয়া আছে, সেখানে তাহার গায়ে যথেষ্ট কেরোসিন ঢালিয়া আগুন জ্বালাইয়া দিবে। তাহা হইলে ঐ মৃত ইন্দুরগাত্রসংলগ্ন মক্ষিকাগুলি ধ্বংস হইবে। ইন্দুর ভস্মীভূত হইয়া গেলে বা অন্ততঃ অৰ্দ্ধদগ্ধ হইলে, তখন একটা চিমটার সাহায্যে তাহার শবট রাস্তায় ফেলিয়া দিবে। ঐ প্লেগের সময়ে বাড়ীতে বিড়াল পোষা মন্দ ব্যবস্থা নহে । চিকিৎসা । St Turnatius R(າ ສຸTຊາ +f4ta ) ະທູ affই তাকার অনেক কথা শোনা যায় । সেই সকল দিদিনার রচা কথার উপরে নির্ভর করিয়া কখনও নিশ্চিন্ত থাকিতে নাই । প্লেগ হইয়াছে সন্দেহ হইলেই রীতিমত চিকিৎসা করাইবে। চিকিৎসা যেমনই হউক, দুইটি কথা খুব যত্ন করিয়া মনে রাখা আবশ্যক। রোগীকে একেবারে শয্যাশায়ী রাখিবো। কোনও অজুহাতে উঠাইয়া বসাইবে না এবং রোগীকে ভয় পাইতে দিবে না। প্লেগের সময়ে সামান্য কুঁচকী হইয়াছে সন্দেহ করিবামাত্র রোগীকে শয্যাশায়ী করাইতে দ্বিধা করিও না । রোগীকে বাড়ীর এমন যায়গায় রাখিবে, যেখানে অপরের সঙ্গে তঁাহার সংস্পৰ্শ না ঘটে। রোগী সারিয়া গেলে বা তঁহার দেহান্ত ঘটিলে, তাহার ব্যবহৃত জিনিষপত্ৰ পোড়াইয়া দেওয়াই ভাল ; যদি পোড়ান অসঙ্গত বিবেচনা Kif str rts, voce, Equifex Disinfector RC qatfià qtetসিক্ত করান প্রয়োজন এবং তৈজসপত্র বিষাক্ত লোসনদ্বারা ii DuiKBDLKB DBD DBDBKDDS S DDD স্বাস্তায় ফেলিয়া দিলে মেথরেরা অগ্নি নিভাইয়া সেগুলি 1 Sba s/YassNusapan al aba ܢܝܩܝܢܝܣܝ ܫܩܣ■ लश्ा श्रलांब्रन कब्र खश्वर नौजछे 6नछे बिछानाब्र डूल अवांब दाङाgख्न दिऔङ छद्म । বিসূচিকা, কলেরা, ওলাউঠা। এই রোগ ভারতবর্ষে-বিশেষতঃ বাঙ্গালাদেশে বহু শত বর্ষ ধরিয়া বাস করিতেছে। পুষ্করিণী ও তীর্থস্থানের বাহুল্যই কলেরার চিরস্থিতির হেতু। বহুকাল পূর্বে কলিকাতাতেও পুষ্করিণীর সংখ্যা অল্প ছিল না এবং কলেরাও কম হইত না । বৰ্ত্তমান সময়ে ৷ কলিকাতায় পুষ্করিণীহ্রাসের সঙ্গে সঙ্গেই কলেরাও কমিয়াছে। পূর্বে গ্রামের জলকষ্ট নিবারণের জন্য দীঘিকা খনন করা একটা পুণ্যকৰ্ম্ম ছিল এবং তখন জলকে লোকে নারায়ণ জ্ঞান করিত। DBBD DBBBBDSuDuD DuDuuS SYuDS DDDLDLDB BB BY গ্রামে ভদ্রলোকের বাস এক প্রকার উঠিয়াই গিয়াছে। তাহার ফলে স্বল্পবেতন চাকুরিয়াগণ সহরে পিঞ্জরাবদ্ধ থাকিতেছেন এবং অবস্থাপন্ন ব্যক্তিরা গ্রামে একখানি করিয়া বাটী নিৰ্ম্মাণ করাইয়া তাহার সম্মুখে ও পশ্চাতে দুদিকে পুষ্করিণী খনন করাইতেছেন । এই প্রথার প্রভাবে গ্রামে পন্বলের সংখ্যা বেশী হইতেছে ও দীর্ঘিকার সংখ্যার হ্রাস হইতেছে। পুরাতন যে দু’ একটি দীর্ঘিকা আছে, তাহাও মজিয়া যাইতেছে। বহুকাল পূর্বে হিন্দু পল্লীবাসী যখন জলের বিশুদ্ধতার মর্যাদা বুঝিত, তখন গ্রামে একটি বড় দীর্ঘিকা সুধু পানীয় জলেরই জন্য স্বতন্ত্র করিয়া রাখিত এবং ডোবা জমীতে বস্ত্ৰাদি ধৌত করিত। এখন হাতের নিকটে পুকুর হওয়ায় লোকে একটি পুষ্করিণীতে শৌচাদি ত্যাগও করে, আর পানীয় জলও সংগ্ৰহ করে। এই বিসদৃশ ব্যাপারের ফল- বিসূচিকার প্রাদুর্ভাব । বড় আশ্চৰ্য্য ও পরিতাপের বিষয় এই যে, ধৰ্ম্মপ্ৰাণ-বিশুদ্ধাচার অভিমানিনী-দেশাচারমুগ্ধা হিন্দু রমণী একই স্থানে দণ্ডায়মানা হইয়া মত্ৰত্যাগের সঙ্গে সঙ্গে পুষ্করিণীতে চাউল ধৌত BDBBDB DDBDBS DDB DB S BB DBYBD SDD DDD0K ব্যাপারের মূল । কলেরার কারণ । “কমা’ এই ছেদ-চিঙ্গের ( , ) মত আকারবিশিষ্ট একটি অতীব সূক্ষ্ম জীবাণুই কলেরার কারণ। গাদ্য বা পানীয় দ্রবোর সহিত ঐ জীবাণু দেহে প্ৰবেশ করে । শূন্যোদরে উহারা মানুষকে যত সহজে পযুদস্ত করিতে পারে, পূর্ণোদরে তাহা তত শীঘ্ৰ পারে না। পেটের কোনও ব্যারাম পূৰ্ব্ব চাইতে থাকিলে বা বৰ্তমান সময়ে উদরাময়ের সূচনা হইলে ঐ জীবাণু সঙ্গজেই পাড়িয়া ফেলে। এই জন্য আম কঁঠালের সময়েই এই রোগের বেশী প্ৰাদুৰ্ভাব দেখা যায়।