প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/৩০৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অনাথবন্ধু-বিজ্ঞাপন ; আশ্বিন, ১৩২৩ ৷৷ আমাশয়, বাতব্যাধি ও লক্ষ্মারোগের বিশেষজ্ঞ ( Specialist ) ও লব্ধপ্রতিষ্ঠ চিকিৎসক । কবিরাজ শ্ৰীক্ষিতীশচন্দ্ৰ দাসগুপ্ত কবিভূষণ মহাশয় আয়ুৰ্বেদীয় ও স্বকৃত পরীক্ষিত ঔষধ প্রয়োগ করিয়া নিম্নলিখিত রোগকয়টির ও চিকিৎসা করিতেছেন :- জুর, প্লীহী, যকৃৎ, অগ্নপিন্ড, শূল, অজীৰ্ণ ( IDysperpsia) ) 2ाश्यीं, মেহ, বহুমূত্র ও সূতিক প্রদরাদি স্ত্রীরোগ। জ্বরাশনি রস। বাঙ্গালার পল্লীবাস জরিপীড়নে এক প্রকার শূন্য হইয়া পড়িতেছে ; আর কিছুকাল এ ভাবে জরের প্রকোপ দেশময় ব্যাপ্ত থাকিলে, বাঙ্গালা দেশ একেবারেই জনশূন্য হইয়া পড়িবে। প্ৰতিদিন জররোগে কত পুরুষ, স্ত্রী, বালকবালিকা যে অকালে কালগ্ৰাসে পতিত হইতেছে, তাহার সংখ্যা করা যায় না। অকালমৃত্যুর তাত হইতে দেশের জনগণকে রক্ষা করিবার জন্যই জম্বরাশনি রস সাধারণে প্রচার করিতেছি । অপরাশনি রস আবিস্কারের পর চাইতে সহস্ৰ সহস্ৰ জীবনকে অকালমৃত্যুর করালক বল চাইতে রক্ষা করিয়াছে। পরাশনি রস প্রয়োগে নব জার, পুরা ৩নি জার, ম্যালেরিয়া জাির, পালা জার, জীৰ্ণ জ্বর, কুইনাইনে আটকান জার, ঘাসঘসে জর, কম্প জ্বর, প্লীহা মরুৎ সংযুক্ত জর আতাল্পকালমধ্যে নিবারণ করিতেছে। হাত পা ঠাণ্ড তইয়া, শাত করিয়া, কম্প দিয়া, চক্ষ স্বালা করিয়া জর আসিতেছে, এমন অবস্থায় জরার্শনি রস বা বঙ্গার করিলে আর জল্পর আসিতে পারে না । চিকিৎসাংকের বিন সাহায্যে যে কেত জ্বরাশনি বাস প্রয়োগে জারের পকোপ হইতে নিস্তার পাঠাতে পরিবেন। মূল্য প্রতি কোটা ১২ এক টাকা মাত্ৰ । अशूडायक । আমাশয় ও রক্তামাশয় অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক পীড়া । এই রোগারন্থে অরুচি, অক্ষুধা, বার বার মলত্যাগ, পেটে ণোদনা হইতে ক্ৰমে কোথাপাড়া, পকাশয়ে ক্ষতি, রক্তস্ৰাব, ষ্ঠাত পা জালা, জ্বর, রক্তাল্পতা, শোগ প্রভৃতি নিদারুণ কষ্টদায়ক প্ৰাণনাশক লক্ষণ প্ৰকাশিত হয়। আমাদের এই দুষ্টফল ‘অমৃতাষ্টক’ অল্পদিনে উল্লিখিত দুরারোগ্য উপসর্গ সমূহ দর করিয়া রোগীকে নিরাময় করে। মূল্য প্রতি কোঁটা ১৪ বটী ১২ এক টাকা । হিঙ্গুচতুঃসম । আজকাল অজীর্ণরোগে ( Dysperpsia, ) দেশ ছাইয়া ফেলিয়াছে। বুক বা গলা জালা, টক উদগার (র্চোয়াঢেকুর), পেটিফাপা, হঠাৎ দমকা দাস্ত, অরুচি, বদহজম প্রভৃতি উপসর্গ নিবারণ করিতে হিঙ্গুচতুঃসমের শক্তি অতুলনীয়। আকণ্ঠ ভোজন করিয়া একটি ঠিঙ্গুচতুঃসম সেবন করিলে এক ঘণ্টা পরেই আবার ক্ষুধা হইবে । মলা প্ৰতি কৌটা। ৭ বাটী |o, 5T5 5F1 | অনন্তাদি রসায়ন । অপরিপক্ক বুদ্ধি মানবগণ অল্পবয়সে কুসংসর্গে পড়িয়া যে সকল রোগে আক্রান্ত হয়, তন্মধ্যে উপদংশ বা গাম্মী অতি ভাষণ কষ্টদায়ক ও লজ্জাজনক বাধি। এই রোগ একবার শরীরে প্রবেশ করিলে অল্পকালমধ্যে রক্ত দূষিত করিয়া শরীরকে নানা রোগের আকার করিয়া মনকে অভিভূত করিয়া ফেলে । কেহ কোচ আবার গোপনে এই দারুণ রোগ। তহঁতে মুক্তিলাভের আশায় পারদাদিঘটিত ঔষধ সেবন করিয়া জীবনকে আরও বিষময় করিয়া তুলে। এই রোগের সূচনামাত্রেই দমন না করিলে, ক্ৰমে দুরারোগ্য বাতির দ্রু ও কৃষ্টাদিতে পরিণত হয় । সুতরাং শরীরে গল্পী ও পারদবিকারের বিন্দুমাত্ৰ সূত্ৰপাত জানিতে পারিলেই অনন্তাদি রসায়ন সেবন করা কীৰ্ত্তবা ; আমাদের বহুপরীক্ষিত অনন্তাদি রসায়ন গম্মী, পারদবিকৃত ও রক্তপরিষ্কারের একমা, অমৃতোপম মঙ্গৌষধ। ইতা সেবনে যখন তড়িৎগতিতে নূতন রক্তবিন্দু সঞ্চয় করিয়া দূষিত রক্ত পরিস্কার করিবে ও শরীরে নবাবলের সঞ্চার করিয়া, এই সকল ঘুণিত জিদান্য রোগ তইতে নিরাময় করিবে, তপন মনে হইবে, ভগবানের দয়ায় এমন মহৌষধ অনন্তাদি রসায়ন আবিস্তুত হইয়াছে। তায় । এত দিন কেন বাজারের নানা ঔষধ সেবন করিয়া সময় নষ্ট করিলাম ? মূলা প্ৰতি শিশি ১৷০ দেড় টাকা । আয়ুৰ্বেদীয় সর্বপ্রকার তৈল, দ্রুত, আসব, অরিন্ট, বটিকা ও জারিত ঔষধ কাৰ্য্যাধ্যক্ষ, পুরাতন স্নাত ও গুড় প্রভৃতি সর্বদা বিক্রয়ার্থ প্রস্তুত থাকে। শ্ৰীসতীশচন্দ্ৰ দাসগুপ্ত। হরিশ্চন্দ্ৰ ঔষধালয়—৩২নং গ্রে ষ্ট্রীট, কলিকাতা।