প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/৩৬৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


6° ।। [ কবিরাজ শ্ৰীআশুত্তোষ ভিষাগাচাৰ্য্য কাব্যতীর্থ, কবিরত্ন, শাস্ত্রী লিখিত। ] পেঁপে আমরা পাকা খাই, কঁচাও খাই ;-সেই কঁাচা পেঁপে আবার ঝালে খাই, ঝোলে খাই, অম্বলে আরও ভাল খাই । এমন সুন্দর জিনিষ কোথা হইতে আসিল ? প্ৰাচীন চিকিৎসাশাস্ত্ৰ আলোচনা করিলে তাহাতে পেঁপের কোনও উল্লেখ দেখিতে পাওয়া যায় না ; তবে চরক, সুশ্রুত প্ৰভৃতি প্ৰাচীন সংহিতা গ্রন্থে এমন কতকগুলি ফলের নাম উল্লিখিত আছে, যাহা বৰ্ত্তমানে আমাদের সকলেরই অপরিচিত, তাহদের মধ্যে কোনওটি পেপে কি না, তাহা বলা দুষ্কর। ‘দ্রব্যগুণ” নামক কোনও একখানা আধুনিক অনাৰ্য-সংগ্ৰহ গ্রন্থে পোপেকে - “পরীশফল” নামে অভিহিত দেখিতে পাওয়া যায় এবং উহার গুণবৰ্ণনাস্থলেও “পরীশং শীতলং রুচ্যং দীপনং পাচনং সরম। মধুৱং রক্তপিত্তয়ং বিশেষাদর্শসে হিতম। পারীশক্ষিীরযোগেন প্লীহাগুল্মশ্চ নশ্যতি ৷” এইরূপ দেখিতে পাওয়া যায়, কিন্তু ইহাকে প্রামাণ্যরূপে গ্ৰহণ করিতে পারা যায় না ; যেহেতু উক্ত গ্ৰন্থকার মহামতি ভাবমিশ্ৰ-প্ৰণীত ভাবপ্ৰকাশকে অনুসরণ করিয়াই এই সংগ্ৰহগ্ৰন্থ প্ৰকাশ করিয়াছেন। এমন কি, ইহা ভাবপ্ৰকাশের দ্রব্যগুণ অধ্যায়ের অবিকল পুনরাবৃত্তি বলিলেও অত্যুক্তি হয় না। সেই ভাবপ্রকাশে এই দ্রব্যগুণবৃত পারীশফলের কোনও উল্লেখ দেখিতে পাওয়া যায় না । সুতরাং সহজেই বোধ হয় বুঝিতে পারা যায় যে, এটি গ্ৰন্থকারের স্বকপোলকল্পিত নাম এবং স্বরচিত অনুষ্ট পছন্দে গুণবর্ণনা । তবে ইহাও স্বীকাৰ্য্য যে, উক্ত শ্লোকে বৰ্ণিত গুণাগুলি অপার্থক নহে, এই সমস্ত গুণই পেপেতে বিদ্যমান। বাস্তবিকই যদি প্ৰাচীন সংহিতায় পোপের কোনও নাম ও গুণবর্ণনা না থাকে, তাহা হইলে উক্ত সংগ্ৰহ গ্ৰন্থকার এই নূতন নামকরণ ও ব্যবহারক্ষেত্রপরিজ্ঞাত গুণ সংস্কৃত ভাষায় বর্ণনা করার জন্য অবশ্যই ধন্যবাদাহঁ । পাশ্চাত্য পণ্ডিতগণ বলেন,-প্ৰশান্ত মহাসাগরের দ্বীপপুঞ্জস্থিত পাপুয়া বা নিউগিনি নামক স্থান হইতে ইহা এ দেশে আনীত হয়। উক্ত পাপুয়া নামক স্থানাজাত বলিয়াই ইহার रेस्ब्रांबौ नांभ Papaw @द९ ५शे नांभशे °ब्रिšिऊ श्ब्रा এ দেশে পোপে নামধারণ করিয়াছে। । পুর্বেই উক্ত হইয়াছে যে, প্ৰাচীন সংহিতা গ্রন্থে এমন অনেক ফলের নাম আছে, যাহা কালবশে বর্তমানে আমাদের সম্পূৰ্ণ অপরিচিত হইয়া দাড়াইয়াছে। যদি প্রকৃতই পেঁপে তাহাদের অন্তভুক্ত না হয়, অথবা পূর্বে আমাদের দেশে ছিল না-এরূপ প্ৰমাণ স্থির হয়, তাহা হইলে পাশ্চাত্য ി পোপেগাছ । পণ্ডিতগণের এই মত এবং নামকরণের কারণ যথার্থ বলিয়া স্বীকার করিতেই হইবে । যাহা হউক, যখন ইহা বৰ্ত্তমানে আমাদের দেশে প্রচুর পরিমাণে উৎপন্ন হয় এবং ইহার উপকারিতাও যথেষ্ট দেখিতে পাওয়া যায়, তখন ইহার গুণও আমাদের একমাত্র ढाका इ७ा छेष्ऊि । পাশ্চাত্য চিকিৎসকগণ বলেন,-পোপের ক্ষীর (আটা)ই vegetaf Ryggty SRits Papain (vegetable LLLlLS DDDS S KEi DLDSDD BB BD DDBDB শরীরস্থ Protin ( মাংসনিৰ্ম্মাপক পদার্থ) পরিপাক হইয়া Peptonea ofițNS II i festis Sifat is তাজনিত বমনে ২ হইতে ১০ গ্ৰেণ মাত্রায় প্রযোজ্য।