প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অনাথবন্ধু.pdf/৫০৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\O(?e, মোহাম্পদগণও অশুচি থাকিলে সে তাহদের সঙ্গ ত্যাগ করে ; কাযে কাষেই ক্রমশঃ তাহার মায়া-মোহাদিও কমিয়া যায় । বিধিপূর্বক অহিংসা আচরিত হইলেও ক্রমে সৰ্ব্বজীবে দয়া উপস্থিত হইয়া ক্ষমাগুণের বৃদ্ধি হয় । মিত মৈথুনম্বারাও ক্রমশঃ ব্ৰহ্মচৰ্য্য ব্ৰতানুষ্ঠানে সিদ্ধিKD DBBDBD DBD S DBDDBD DBBD KBDBB DBBD DDBDD দিকে ধাবিত হয়। কৃপাময় জগদগুরু এই জন্যই সর্বাগ্ৰে পশ্বাচার আচরণ করিবার বিধি দিয়াছেন । জীবদেহে সত্ত্ব, রজঃ ও তমঃ, এই তিন গুণ বিদ্যমান আছে । এই গুণত্ৰয়বিরহিত কোন প্ৰাণী কদাচ দৃষ্টিগোচর DD BDS SDDB BDDDDB DBDS gK BBB BDDS BBOS DgKS বৈষম্য হইতেই এই বিশ্বসৃষ্টি । যাহার প্রকৃতিতে তমোগুণ অধিক আছে, তাহাকে তামস, যাহার রজোগুণ অধিক আছে, তাহাকে রাজস এবং যাহার সত্ত্বগুণ অধিক আছে, তাহাকে সাত্ত্বিকালোক বলে । যাহাদের শরীরে তমোগুণ অত্যধিক, রজোগুণ তদপেক্ষা কম এবং সত্ত্বগুণ নাই বলিলেই হয়, তাহারা অসমাহিত, বিবেকাশূন্য, অনম, পরাবমাননাকারী, অনুদ্যমশীল, শোকাৰ্ত্ত ও দীর্ঘসূত্রী হইয়া গাকে । যাহাদের শরীরে রজোগুণের একান্ত আধিক্য আছে, তাহারা পুত্ৰকলাত্ৰাদিতে আসক্ত, হিংস্র, পরবিত্তাভিলাষী, বিহিত শৌচবিবর্জিত এবং লাভালাভে হর্ষশোকান্বিত হয়। যে সকল পূত আত্মা ব্যক্তির রজস্তমঃ উভয়বিধ গুণ ক্ষুন্ন হইয়া সত্ত্বগুণ উন্মেষিত হইয়াছে, তাহারা আসক্তিত্যাগী, গর্বোক্তিরহিত, ধৈৰ্য্য ও উদ্যমসমন্বিত এবং কৃতকাৰ্য্যের সিদ্ধি বা অসিদ্ধিতে হর্ষবিষাদশূন্য। র্তাহারা আত্মাভিমান বিসর্জনপূর্বক সকল কৰ্ম্মকেই সেই ভগবানের কৰ্ম্ম বলিয়া ধারণা করেন । আমি নিমিত্ত মাত্ৰ । “ত্বয়া হৃষীকেশ হৃদিস্থিতেন, যথা নিযুক্তোহস্মি তথা করোমি।” মনে এই ধারণা তঁহারা সুদৃঢ় রাখিতে পারেন। তখন किंखळांक्षला ग्रूद्ध श्;-8डूशथिब्रऊ, ब्रिश्शूब*ऊ, शांर्थপরতা এবং ঐশ্বৰ্যোর জন্য ব্যাকুলত-এ সকল কিছুই তাহাদের মনকে আর ক্লিষ্ট করিতে পারে না । পশ্বাচারে যে রজঃ ও তমো গুণের বৃদ্ধিকারক বস্তুসকল পরিহার এবং সত্ত্বগুণবৃদ্ধিকারক বস্তুসকল গ্ৰহণ করিবার বিধি আছে, গুরুপদেশানুসারে সেইগুলি প্ৰতিপালিত श्रेष्ण, cनशे स्रभूशा श्न-गरु७१ व्गांख् कब्रा गांक्षद्दक ब्र পক্ষে সহজসাধ্য হইয়া পড়ে । কোন কোন তন্ত্রে পশ্বাচিারকে চারিটি স্বতন্ত্র ভাগে বিভক্ত করা হইয়াছে এবং উহাদের প্রত্যেক ভাগকে এক BD DBDBLDS DDL DBDBDD DBDS SDBDS EES বেদাচার, বৈষ্ণবাচার, শৈবাচার এবং দক্ষিণাচার, ইহাদের প্রত্যেকটির লক্ষণও কিছু কিছু বলা যাইতেছে। t ah ~~ af s অনাথবন্ধু। [ NR r, cov, YON বেদাচার-“বেদাচার প্রবক্ষ্যামি শৃণু সৰ্ব্বাঙ্গসুন্দরি। ব্রাহ্মে মুহুর্তে উৎখায় গুরুং নত্ব স্বনামভিঃ ॥ আনন্দনাথশব্দান্তে পূজয়েদথসাধকঃ। সহস্ৰাম্বুজে ধ্যাত্বা উপচারৈস্তু পঞ্চাভিঃ।। প্ৰজপ্য বাগভবং বীজং চিন্তয়েৎ পরমাং ফলাং ৷” ‘अर्थ बहका भश्नांनि देवश्वा5ांब्रभूडम९ । যন্ত ৰিজ্ঞানমাত্রেণ কালস্তাদ্বিহিতাঞ্জলিঃ ॥ বৈষ্ণবাচার-“বেদাচার ক্ৰমেনৈৰ সদা নিয়মতৎপরঃ। মৈথুনং তৎ কথালাপং কদাচিন্নৈব কারয়েৎ ॥ হিংসাং নিন্দাঞ্চ কৌটিল্যং বৰ্জয়েন্মাংসভোজনং। রাত্রেী মালাঞ্চ যন্ত্রঞ্চ স্পশেল্পৈৰ কদাচন ॥ ২ বিষ্ণেী সমৰ্চয়ে দেবি বিষ্ণেী কৰ্ম্ম নিবেদয়েৎ । ভাবয়েৎ সৰ্ব্বদা দেবি সৰ্ব্বং বিষ্ণুময়ং জগৎ ৷” শৈবাচার—“শৃণু চাৰ্বাঙ্গি সুভাগে শৈবাচারিং সুদুর্লভং। বেদাচার ক্ৰমে নৈব শৈবে শাক্তে ব্যবস্থিতং ॥ তদ্বিশেষং মহাদেবি কেবলং পশুঘাতনাং ।” দক্ষিণাচার—“ইদানীং শৃণু বাক্ষ্যামি দক্ষিণাচারমন্দ্রিr দক্ষিণামূৰ্ত্তি মুনিনা। আশ্ৰিতোহসৌ যতঃ পুরা ॥ " অতএব মহেশানি দক্ষিণাচার উচ্যতে । প্ৰবৰ্ত্তকোয়মাচারঃ প্ৰথমে দিব্য বীরয়োঃ ॥ বেদাচার ক্ৰমেনৈব পূজয়েৎ পরমেশ্বরীং । স্বীকৃত্য বিজয়াং রাত্রেী জাপান্মন্ত্র মনন্যধীঃ u” (निङाङ? । ) মোট কথা, উপরিলিখিত এই আচার চতুষ্টয়ের মধ্যে কিছু কিছু পৃথকৃভাব থাকিলেও উহারা সাধারণতঃ পশ্বাbicब्रब्रशे अस्युड । (২) বীরাচার । তন্ত্রে মদ্য, মাংস, মৎস্য, মুদ্রা ও মৈথুন, এই পাঁচটিকে KEYDD D KYSBBDD DLBK S S s KBSBKBD DDBDD উপাসনার নামই বীরাচার বা কুলাচার। এই আচারী সাধকগণই “কুলীন” পদাদাচ্য, হঁহারাই প্ৰকৃত দীক্ষাস্বামী । পশ্বাচারে আমি জীব, দেবতার পূজা করিতেছিদেবতার ভোগ দিতেছি।-দেবতার প্রসাদভোজনে BDLDD DK DBBBDBDuD DDBDB DDDDBD BBB श्। थांक । দেহস্থ কুণ্ডলিনীশক্তিই জীব-চৈতন্যের মূল কারণ ; ख्वांभांद्र कछु उभभांख । स्त्रांवि श्थांशे ना-यांशे नlBBB D DuDBB DBDDDBBDD DDDBLBD DB পঞ্চতত্ত্ব। ঐ শিক্ষার বলবান সহায় । যেমন ঘট ভগ্ন হইলে ঘটস্থ আকাশ মহাকাশে মিশিয়া যায়, সেইরূপ অহঙ্কার লুপ্ত হইলে জীবরূপী ক্ষুদ্র আত্মা ব্ৰহ্মরূপ পরমাত্মায় লীন । श्न थांकन ।