পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২ । আলাউদ্দীন ইচ্ছা করলে, অতি অল্পায়াসেই r করায়ত্ত করতে পারে। আমি কূটনীতির কথাও । বলতে চাই না, ধৰ্ম্মনীতির কথাও বলতে চাই না। যে কোন নীতি-প্ৰয়োগে ভারতের মৰ্য্যাদা । রক্ষার জন্য যে মনুষ্যত্বের প্রয়োজন, ভারতে এখন সে মনুষ্যত্বের সম্পূর্ণ অভাব। ভীম । আর ভারত ভারতই যে বলি, সে ভারত কোথা ? ভারত এখন, সিন্ধু, গুজরাট, অযোধ্যা, পাঞ্জাব, বাঙ্গল, বিহার ইত্যাদি কতকগুলো ক্ষত-বিক্ষত দেহ, অথচ অভিমানে স্বস্বপ্রধান, সেই পূৰ্ব্ব যুগের বিশাল একতাময় প্ৰকাণ্ড অট্টালিকার ভগ্ন স্তম্ভের সমষ্টি । ভারত নাম সেই আৰ্য-ঋষি-পূজিতা মাতৃমূৰ্ত্তির শতগ্রন্থিযুক্ত ছিন্ন বাসের আবরণ। বুঝতে পারছি না। রাণী ! মুষ্টিমেয় জাগরিত পাঠানের ক্ষীণ আদেশ, নিত্রিত বিশ কোটীর সুদৃঢ় সবল পৰ্ব্বতবক্ষ বিদারণক্ষম হস্তপদ সঞ্চালিত করেছে। লক্ষ্মণ । এর কি প্ৰতিকারের উপায় নেই ? --সকলের প্রাণে আবার সে জাতীয়ভাব উদ্দীপনের চেষ্টা করলে কি কাৰ্য্য হয় না ? ভীম। তুমি যখন জন্মগ্রহণ করিনি, তখন করেছি; তুমি যখন শিশু, তখন করেছি। তোমার হাতে রাজ্যভার দিয়েও আমি নিশ্চিন্ত থাকিনি। আমি প্রাণপণে ভারতে একতা সম্পাদনের চেষ্টা । করেছি। কিন্তু যে চেষ্টা করে, অন্যে মনে করে । সে যেন মাতৃপিতৃ-দায়গ্ৰস্ত। তার ওপর সবারই | কর্তৃবাভিমান। কেউ কাউকে কৰ্ত্ত স্বীকার করতে চায় না । এ হয়েছে কি জানি রাণা ! অন্যান্য দেশে বিধাতা দু'এক জন লোককে । ষোল আনা বুদ্ধি দিয়ে পাঠান, অবশিষ্ট্রের ভেতরে { সকলেই প্ৰায় দু'দশ আনার অংশী। কাজেই সমগ্ৰ দেশবাসীর ভেতর একজন কি দু’জন নেতা হয়, অবশিষ্ট সকলে তার অনুসরণ করে। । আর এ পোড়া ভারতের ভাগ্যে এত ষোল। আনার বুদ্ধি একত্র হয়েছে যে, সমধর্মী তড়িতের পরস্পর বিরোধী শক্তির ন্যাস এর কেউ কারও DBDBBB BBDD DBB KB D SSDDD DDS পিতৃপুরুষের প্রতিষ্ঠিত প্ৰাণ নিয়ে, মহাত্মা বাপ্পা রাওয়ের তেজস্বিতার স্বত্বাধিকারী, তোমার হৃদয় যদি দেশের দুঃখে এতই বিগলিত, তাহ’লে এস দু’জনে নিভৃতে বসে কিয়ৎক্ষণের জন্য একটা ভবিষ্যৎ কৰ্ত্তব্য স্থির করি। ঠাকুর । আপনার মাতৃঅৰ্চনার জন্য একাগ্রচিন্তার ব্যাঘাত করলুম। -ক্ষমা করুন । [ ভীমসিংহ ও লক্ষ্মণসিংহের 2R 1 চতুর্থ দৃশ্য। [ উদ্যান } গোৱ । গোৱা। মেবারের লোকগুলোর একটা | মজা দেখি, এরা বেশ ঘূৰ্ত্তি করতে জানে। | দু’টাে মিষ্টি কথা কও, তাতেও ঘূৰ্ত্তি, দু’টাে কড়া সুখের সময়েও বাড়ীতে চুপটী কথা কও, তাতেও ক্ষুৰ্ত্তি । স্মৃৰ্ত্তি, দুঃখের সময়ও ক্ষুৰ্ত্তি। করে বসে থাকা, কারও যেন কোষ্ঠিতে লেখেনি । -বাড়ীতে রইলা ত ‘এ স্বামী-এ রামা"- খচমচ খচমচ চব্বিশ ঘণ্টাই গান জুড়ে দিয়েছে। আর যুদ্ধক্ষেত্রে গেল ত, ‘হর হর শঙ্কর’-দামামা, ডুগডুগি, ভেরী, তুরী যেন । বেটার চিত্রগুপ্তের বাপের শ্ৰাদ্ধ খেতে চলেছে, কি যমরাজের পিসের বিয়ের বরযাত্রী হয়েছে। এরা বেশ আছে। আমি কিন্তু বেশ থাকতে श्रांछेि न। cवथ १किवांत्र qऊ cछेि कईि, মনে মনে এত ফুৰ্ত্তি জমিয়ে তুলছি, কিন্তু কিছু।" তেই বাগে আনতে পারছি না। একটী হাই /