পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/১৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


y . . . . ফুল-শয্যা । । A. কমলা । বাবার এক কথা ! আমি আবার | জনহীন দেশে,-দেখ’-রবি নাহি যেতে | কি বলবো ? ? | অস্তাচলে আবার ফিরিও লোকালয়। ] (গুরু ও কমলার প্রস্থান ) { কাৰ্য্য যেই করিবে সাধন,-যেই দণ্ডে । অজয় । স্বাৰ্থত্যাগ ক্ষত্ৰিয়ের কাজ। পতিপ্রাণী | পাইবে সন্ধান, সাথে এন” দুইজনে,- “ কমলা যখন আজি হৃদয়ের ধনে ! অবিলম্বে গুরুকরে। ক’র সমর্পণ ।- " মৃণাল-বন্ধন হ’তে দিয়াছে খুলিয়া, মায়ের চরণ ধৌত জলে,-সিক্ত করি। কি আশঙ্কা ছেড়ে যেতে কমলে আমার ? 1 মায়ের চরণে দত্ত জবাবিলুদলে । কি যাতনা তার আদর্শন ? । অক্ষয় কবচ এই গঠেছি তোমার। ( কমলার পুনঃ প্ৰবেশ ) কর সখে । বাহুতে ধারণ। কমল । *ई ग७ - ( दांछएड फूल दकन ) গুরুদেব দিয়াছেন। পথের সম্বল । fs অজয় । পৰ্য্যটন করি নানা স্থান, পৃথীরাজে w 1 2 "1 ५'५ মায়ের চরণে লাও আশীৰ্বাদ । । কৃদ্ধি সন্ধান। সঙ্গরাজে যেথা পাব ।

অজয় । भी !-भ

ফ্লেখিানে ধরিব গিয়া তারে । চিতোরের R - বিশ্বমাতা ! ঈশ্বরি! শঙ্কার! এই ভিক্ষা । সনে ; ভাই বােব অন্বেষণে, কোথা তাছে ; তোর রাঙা মাগো ! মুম্বকীয় রেখ’ কুমার যুগল । জাঠবংশে জনমিয়া- ৷ কমলায় } মহামতি পিতৃগণ যায়, দয়া, ধৰ্ম্ম, ! কমলা। স্বার্থপর ! একি ভালবাসা ? পর উপকার, সুদ্ধমাত্র করেছিল । ( প্ৰণাম করণ। ) জীবনের ব্ৰত, সেই পুণ্য বংশে আমি নাথ ! এমিনতি দুটী পায়, দণ্ড তরে লভেছি জনম । কুললক্ষ্মী সে বংশের { মনে যেন ক’র না। আমায় । দেখ” যেন তুমি প্ৰাণেশ্বরি । মাত্ৰ আহাঁর বিহারে- প্রবাসেও কাৰ্য্যবিত্ন না করে কমলা । সাগর প্রমাণ এ জীবন-সে জীবন | প্ৰাণেশ্বর ! হে বীরকুন্ত্রর। নানা শক্ৰ । সুদ্ধ কি দম্পতী-সুখে যাবে মিলাইয়া ? } আছে চারিধাৱে ;-মহারাক্ত উপকারে ক লা। সাজায়ে রেখেছি তুরঙ্গমে “দেখ” যেন ! যে ছুটিবে আত্মসমর্পণে, সে দেবতা । বিপদসঙ্কুল পথে क' क्रा मन्म । ! সংস্থার কারণে, চতুর্দিকে আছে কত করিও না নিশ-পৰ্য্যটন। শ্ৰান্ত যেই | | দৈত্য অগণন ; তাই সকাতরে দাসী । হবে পরিশ্রমে, ভাল গৃহস্থের ঘরে,- | সাবধান করিল তোমায়। স্বাস্থ্য মোর ! অভ্যস্ত যে সমাদরে, যাইয়া সেথায় ! বৃথা আকিঞ্চন । প্ৰভো! হৃদয় দেবতা ! ! লভিও বিশ্রাম সুখ। লোকালয়ে ক’র । যে দিবলে পেয়েছি তোমায়, মহেশ্বৰী । ও প্রর্য্যটন । নির নাই যে যে স্থানে,-দেখ’- সেদিন হইতে স্বাস্থ্য দেছেন আমায় । । অদৃষ্ট বন্ধন প্রিয়ে ! সমগ্ৰ ভারত তবে যদি প্রয়োজন বশে, যেতে হয় নাথ ! এ’ত নয় ক্ষত্ৰিয়ের কাজ ?