পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/৪১৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অগ্রসর ! ভেবেছিলুম তোমার চরণে সেলাম দিয়ে আমার কাৰ্য্যের অবসান করব। কিন্তু দেখছি, তুমি তনয়াবৎসল । তুমি আমায় এক যেতে দেবে না। মা !! আর কাৰ্য্যভার আমায় দিও না, তনয়া অশক্ত। তোমার মরিয়মকে তোমার নিকট নিয়ে এসেছি। আমার কাৰ্য্য অবসান। : 5 ! co-ca-aceţi f ( दांशाहूद्रक व्गाशेश भक्षऔद्र ठ्याप्द्लं ) মল্লাজী । মা, মা, রাজকুমারকে আমার করে অৰ্পণ করে, নেহাঙ খাঁ বীর শয্যায় শায়িত । চাদ । বাবা ! সিংহাসনে স্থাপিত কর । দাড়া যশোদা, দাড়া-দেখা-দেখণ্ড-সিংহাসন | শূন্য নয়। যশোদা। না-মা-না এ পবিত্ৰ সিংহাসন কখনই শূন্য থাকবে না । তাহলে আমি ঈশ্বরে বিশ্বাসহর হব । এত বীর-শোণিতপাত, আবাল বৃদ্ধ বনিতার উদ্যম-এই উজ্জল অমেদনগরের মহিমা যদি সমস্ত বিফল হয়, তাহলে সংসার দৈত্যের সৃষ্টি-ঈশ্বরের নয়। জয় রাজ্যেশ্বরের জুয়ািল । বাহা । “রাণী ! সুলতানা ! চাদ । রাণী- নয়, সুলতান নয়, তোমার প্রজ, তোমার জন্য প্ৰাণ দিয়েছে। আক্ষেপ কর না, অনেক রাজকাৰ্য্য তোমার মস্তকে । যশোদা। সরদার। আমার কাৰ্য্য অবসান হয়েছে। তোমার নূতন কাৰ্য্য, রাজ সিংহাসনে বালক বাহাদুর-তুমি দেখ, আমায় রাজরাণী মরিয়মকে দেখতে বলেছিলে, আমি তার সঙ্গে যাই। : 片一 ) SG মল্লাজী । কৰ্ত্তব্যনিষ্ঠ রমণী-তোমার জন্য আমি খেদ করব না, তোমার কাৰ্য্যে ঈশ্বর। তৃপ্ত। মা ! এখন বুঝেছি কেন তুমি ধরাশায়িনী। ঐ যে মিয়ানমঞ্জু লুক্কায়িত। [প্ৰস্থান । ( खांनििन ७ घ्रुवां।cल ॐप्रवेशं ) । | अनि । বিজয়িনী মা ! কোথায় আপনি ? বাদশা আকবরের পুত্র আপনাকে সম্বৰ্দ্ধনা করতে এসেছেন, দেখা দিন । बांश । श्णऊांन, ७शे cशून-éझे cष আপনার মা । আদিল। এ্যা একি ? কে এ নিষ্ঠুর কাজ করলে ? . . . মুরাদ। তাইত, একি নিদারুণ দৃশ্য দেখাতে আনলেন সুলতান ? আদিল । কি করলে মা ! বিজয়ের । অমৃতময় অবসানে, কে এ গরল ঢেলে দিলে ? মা, যদি এখনও মুখে বাক্য থাকে, শীত্ৰ বল, কোন পিশাচ এ কাৰ্য্য করেছে। চাদ। আমার বন্ধু। ( মিয়ানমঞ্জুকে লইয়া মল্লাৰ্জীর প্রবেশ ) মল্ল জী। এই নরাধম। : আদিল। মাতৃঘাতী শয়তান। : চাদ । কিছু বল না-অনুরোধ রাখবিধবার আর জীবনে প্রয়োজন কি সুলতান? কাৰ্য্য শেষ, আত্মহত্যা করতে পারিনি। বড় বিষাদ, পিতৃকুল প্ৰায় নিৰ্ম্মল, মিত্র এসেছে, মৃত্যুতে শান্তি দিয়েছে, ছেড়ে দাও-অনুরোধ, CSS at9 মুম্বাদ। আপনারা ছাড়লে আমি ছাড়ব । কেন ? পিজারে পুরে এই বিশ্বাসঘাতক স্বদেশ- | দ্রোহীকে আগরীর পশুশালায় রক্ষা করব । । বিজাপুর রাণী! বাদসার পুত্র মুরাদ আপনাকে । | সেলাম দিতে এসেছে । ।