পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/৪৯৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মাখা স্থাত কতই কোমল, আর কোড়ায় কোড়ায় কড়া পড়িয়া আমার পিঠ কতই কঠিন! ওর । হাতে কতই না আঘাত লাগিল!” । । দ্বিতীয় যুবক তাঁহা দেখিয়া নিরঞ্জনকে সন্ধো ধন কবিয়া বলিল-“দেখুন বাহাদুর, লোকটা কতবড় বেয়াদব দেখুন।” । । নিরঞ্জন জীবনে প্ৰধম দেখিলেন পথিমধ্যে - সৰ্ব্বসমক্ষে নিরপরাধে অপমানিত হইয়া প্রতিকার-সামর্থ্য সত্ত্বে একজন লোকে না } } একটা লোক হাসিল। - মারা খাইয়া চোখ রাঙাইল না, গালােগালি দিল না, উকিল छतिळ न्!, সমন বাহির করিল না, আমি হাকিম দাড়াইয়া আছি, আমার কাছেও প্রতিকার চাহিল না-শুধু মুখ মুচকিয়া হাসিল !-- * নিরঞ্জন তখন তাহার মুখখানা যেন কেমন কেমন । দেখিলেন । দেখিলেন, তার 6नोभा *ङ्ठ । চোঙদার বলিলেন-“আরে ভাই রাগ । | করিও না, থামো থামে।” বদন, দেখিলেন তার সরলতা-মাখা নয়ন, আর দেখিলেন চক্ষুদ্বার ভেদ করিয়া তাহার বিশাল । বক্ষের আবরণে ঢাকা সেই রমণীকোমল হৃদয় । । আহা, সে হৃদয় কি সুন্দর। নিরঞ্জন প্ৰথমে | বলেন পাকাড়ো পাকাড়ে ; চােঙদার বলে বুঝিলেন, কাঠগড়ায় দাড়াইয়া কখন কখন ? ' ' ' ' 1s. : ن. . . . . . . . . . . . . . . . . . | বলে কর কি করা কি ; পাহারাওয়ালা বলে । ' : ای : আসামীও হাকিমের বিচার করিতে পারে। । নিরঞ্জন চিত্তসংযম না শিখিলে হয় তা তাহার গলা জড়াইয়া বলিষ্মা ফেলিতেন, - । !” | বলিতে বলিতে উভয়ের বিবাদ মিটাইয়া দিলেন। , ! বাহিরের বিবাদ থামিয়া গেল। তবে যা একটু | জনমে জনমে | প্ৰাণনাথ হাইও তুমি . . . י লোকে হাসিল । নিরঞ্জন তার মুখে ক্রোধের চিহ্নও দেখিলেন | | উদ্ধত প্রহারকারী। আমি উহার হুঙ্কর্মের প্রতি দৃষ্টি নিক্ষেপ করিয়া- যুবকটাকে তিরস্কার করলেন। তাঁহার তির- ২ ছিলাম, উনি সেই অপরাধে আমার পৃষ্ঠে মুষ্টি | নিক্ষেপ করিলেন। আহা ! ওর ননী মাখন | স্কারে প্রশ্ৰঃ পাষ্টয়া দ্বিতীয় যুবক সাক্ষীর হইয়া । প্রথমকে প্রহার করিতে উদ্ভূত হইল। তখন দুই । | জনে আবার লড়াই বাধিয়া, গেল। নিরঞ্জন । প্রাণপণ চীৎকারে পাহারাওয়ালাকে ডাকিলেন। , | এক দিক হইতে পাহারাওয়ালা, অন্য দিক । | হইতে মিষ্টার চোঙদার আসিয়া পড়িলেন। } | চােঙদার আসিয়াই নিরঞ্জনকে জিজ্ঞাসা করি- ; | লেন,-“মিষ্টার সেন ব্যাপার কি ?” নিরঞ্জন তাঙ্গার উত্তর দিতে অবকাশ পাই দো আদমিকো পাকোঁড়ে।” । পাহারাওয়ালা আসিয়া | লেন না। পাহারাওয়ালাকে বলিলেন,-“এই | দেখত হায় গাধা ! জলদি পাকড় কর।” । পাহারাওয়ালা কিছুই না করিয়া কেবল । সেলাম ঠুকিতে লাগিল। আর বলিল,-“হুজুর ঃ উতো অনাহারী হুজুরকে লেড়কা ट्रक्षु ।” "ሷ . নিরঞ্জন সে কথায় কাণ দিলেন না; ক্ষত্র । তখন নিরঞ্জন । আরে বাবু, আরে বাবু জখম হােগা। । দেখিতে দেখিতে লোক জমিয়া গেল। : তাহারা বলে লাগাঁও লাগাঁও ! চােঙদার । ... " ,". . ، حسطنس: যোদ্ধযুগলকে । দেখিয়া থতামত খাইয়া গেল। নিরঞ্জন তার { আচরণে প্ৰদীপ্ত হুতাশনের ন্যায় গনুগ্ৰন করিয়া । { বলিলেন- “ক্যা va- . .