পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/৪৯৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্বাকী তখন বলিল, “আপুনি আর দাড়াইলা । • এ বিবাদ মিটিবার নয় । তুমি ঘরে গিয়া বিশ্রাম কর।” নিরঞ্জন বলিলেন - “কিসের বিবাদ ?-- কিসের দোষ?” । । চােঙদার। এই ত দাদা, তুমিও সময় বুঝিয়ে নেকা হইলে ! / ! নিরঞ্জন। সত্য চোঙদার, আমি কিছুই জানি না । ” বন্ধুর পুত্র । এই বলিয়া চোঙদার নিরঞ্জনের - কাণে কাণে কি বলিল। নিরঞ্জন সেই নীরব | কথা শুনিয়া কেবল একটী সশব্দ হী করিলেন। তারপর বললেন—তা দুজনে পরস্পরে বিবাদ | করিতেছে কেন ? ) আধটু গােলমাল রছিল, তাহা কেবল পাহারা আমি এই নব্য যুবকদের আচরণ | দী . . . . . . . . . . . . | সঙ্গীত-মূৰ্ত্তিতে মাঝে মাঝে এই—গ্রান আমাকে খুপি খ্যা সাক্ষী সেই গঙ্গাতীরে একটা জেটীর উপর উঠা "গান চলে গেলে কোন সোনার দেশে; } খুঁজতে গোল বেজায় ফুলে ঢোলের মত হই । গান শুনিয়াই কণ্ঠস্থ করিয়া নিরঞ্জন কিংকৰ্ত্তব্যবিমূঢ় হইয়া বাড়ী ফিরিতেছিলেন, তাহার গান শুনিয়া থমকিয়া দাড়াইলেন। “এ কণ্ঠস্বর যে শুনিয়াছি! দুরের হইতেই, ইহাদেৱ মধুত্ব প্রেম টকিয়া গিয়াছে। এমন প্রহার করিয় অস্থির করিয়া তুলে -সে কি এই সাক্ষী ? সাক্ষা কি অন্তৰ্য্যামী ? না, হইল না,-গৃহে যাওয়া হইল না। সাক্ষীকে গ্রেপতার না । করিয়া গৃহে ফিরিব না। : “সাক্ষী সাক্ষী”- জেটীর কাছে গিয়া নিরঞ্জন চীৎকার করিলেন। , কিন্তু কই সাক্ষী, কোথা সাক্ষী- কোথা হইতে ইহাদের মাথায় দুই ঢালিয়া। :দিয়াছে। এরা | নিরঞ্জন তাহার আচরণে বড়ই বিরক্ত হইয়া- ৷ আগে ছিল দুই বন্ধু। মাথায় দই পড়বার পর | ছিলেন লন, এমন কি যষ্টি পৰ্যন্ত তুলিয়াছিলেন।৮০ | কিন্তু শেষ লুই দৃষ্টি তাঁহার ক্লোবের উপর । দলগতজলমিব তরলং।” নিরঞ্জন এখন , । मिति ना । नकद 6थम वाक्। निश्न ५न নদী, . ་| ཀ་ཀྲེ་༡ ཁྲི་མཐགནtsག་དགེ་རྩ་བའི་དགག་