পাতা:অনাথ আশ্রম - ক্ষীরোদপ্রসাদ বিদ্যাবিনোদ.pdf/৫১৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


4 भांनांद्र श्रेन हे ? थांश श! - कूक्ष কিন্তু মেনুর কানু কই ? : - । ? নিরঞ্জন'ভাবিলেন, আর কিছু ফিরিয়া শয়ন করিলেন। কানুর কথা ভাবিতে বাড়ীর মাথার উপর উড়িতেছে। তাহার কাননিকা উড়িয়া গেল। নিরঞ্জন ভাবিলেন, দৈত্যটাকে গ্রেপ্তার করিতে পুলিশকে । হুকুম দিই। তাহারা ; শূন্যমার্গে ওয়ারেন্ট | উড়াইয়া দিক । পুলিশের ওয়ারেন্টের কাছে । কার নিস্তার আছে ? সে জলে ডুবিয়া মাছ। ধরিতে পারে, আর আকাশে উড়িয়া দৈত্য। ধরিতে পারে না । দৈত্যরাজ । ন্যায় ঘুরিতে ঘুরিতে উপরে উঠিল। তার বাহু অর্গালাবদ্ধ হৃদয়গৃহশ্ৰিত কাননিকা এখনও ঘুমঘোরে অচেতনা । কম। কপালে লাগি পড়িয়া ওড়না কেশরাশি, ধীর চুম্বিত হইয়া উড়িতেছে। . . . . . . . . . . ; " . ... و " r . ، ، ، ، ,,۔‘‘۔: .. " . " . . *አ . . . . . . 懿 - • r 季 ーく * k 、也,"常”洲。 . . . . . . . . . . . . . . . . ، با "... ، Öቕ፲ A.Y. . . : ■*, , l. ., ს" . ... is .. ' ' ' ' ' ' . . . . . . ;יין : : - . . . . . . . - - . | . ۵۰ ه

  • %; - *

bጳ ইতেছে, রাশি চাঁদের করা হিয়াছে। সঙ্গীত ঠেলিয়া মেঘের আক্রমণ উপেক্ষা করিয় | বহু দূৱ চলিল। সাত সমুদ্র তের নদী পাের, কাননীকে ধরিয়া ঈগল পক্ষীর কমলপত্রাক্ষীর নিমীলিত { নয়নযুগলে গুচ্ছে গুচ্ছে অলক পড়িয়াছে। । গ্ৰীবা ঈষৎ হেলিয়া আধ-আঁধার আধ-কৌমুদী। মাখা চাদমুখখানি দৈত্যের বাহুর উপর ভর দিয়া। রাখিয়ছে। সঞ্চারিকম্পনে শিথিলীকৃত কবরীর | শরীর S S কখন | করিল। ঘর ছাড়িয়া নিরঞ্জন দ্বিতল ত্রিতল। খসিয়া তুরি ; ডাকিল,-“দ তে| দেখিলেন, এ কর তাঁর চিবুকে পড়িয়া জড়াইয়া । গেল। দেখিতে দেখিতে দৈত্যবর সমীরণের ঠেলিয়া মেঘের আক্রমণ উপেক্ষা করিয়া। ,মধুসূর গিরিশ্রণী, শ্যাম रुांखांद्र, नैौनव्रश्न ... م... শ্বেত সৌধমালা, দিগন্তবিস্তৃত আরব্যদেশের

মরুপ্রান্তর, গগনস্পৰ্শী হৈমচূড় প্রাসাদ ভরা তন্ত্রীবেশে দেখিতে পাইলেন,যেন আরব্য | কালিফের ভূবনমোহিনী বেগমকুল-নিষেবিত উপন্যাসের একটা দৈত্য স্বন স্বন করিয়া তাঁহার |

উড়িতে ছো। মারিল, আর “ছোঁ”-এর সঙ্গে । বৈাগদাদ-সকলের উপরের আকাশ দিয়া ভাসিয়া ভাসিয়া দৈত্যরাজ তাঁহার আদরের। ! কাননীকে কোন দূরদেশের অচল উদ্দেশ্যে লষ্টয়া চলিল। নিরঞ্জন কানুর আদর্শন সহিতে পারিলেন না । কঁাদিয়া ফেলিলেন ও উচ্চৈঃস্বরে বলিয়া উঠিলেন, “ওরে পাষণ্ড । দৈত্যাধম! দে, আমার কানুধন ফিরাইয়া দে।” দৈত্য কি বৃদ্ধ, দুর্বল, তুচ্ছ নিরঞ্জনের কথা শুনে ! সে হু হু করিয়া উড়িয়া যাইতে লাগিল । কিন্তু এ দৈত্যটাকে যেন কেমন কেমন বোধ হইতেছে! রে দৈত্য ! কে তুই-মটুক ? বটুকের দেহ হইতে বাহির হইয়া, ভূত্য সাজিয়া। তুইই আমার কাননিকাকে হরণ করিতে আসিয়াছিস্ ? ' ' তখন নিরঞ্জন দৈত্যকে ধরিবার জন্য { নিজে উড়িবার চেষ্টা করিলেন। দুই একবার | গা ঝাকাৰিয়া লইলেন। দেখিতে দেখিতে রিট পতঙ্গদেহবৎ লঘু হইয়া উড়িতে আরম্ভ অভ্র ভেদিয়া ধূমকেতু হইতে যাইতেএমন সময় ধরণী,পৃষ্ঠ হইতে কে যেন !” নিরঞ্জন মুখ নামাইয়া । أن لا . Լէ { কঁধে । বনের ধারে, একটি শৈবলিনীর জলকল্লোল বরণে বসিয়া, রাহুভয়ে ভূতল