পাতা:অনুরাধা - শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.pdf/১০৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অনুরাধ রইলাম, বিষয় আশয়গুলো সব এলোমেলো হয়ে রয়েছে, একটু চিৰ্হিত করে নিয়ে যদি আমিই--- গুরুচরণ ক্ষণকাল ছোট ভাইয়ের মুখের প্রতি চাহিয়া থাকিয়া কহিল, বিষয়-আশয় আমাদের সামান্যই, আর তা এলোমেলো হয়েও নেই,- কিন্তু তুমি কি পৃথক হবার প্রস্তাব কোরচ ? হরিচরণ লজ্জায় জিভা কাটিয়া কহিল, আজ্ঞে না না, যেমন আছে যৈমন চলচে তেমনিই সব থাকবে, শুধু যা যা আমাদের আছে একটু অমনি চিত্ন দিয়ে নেওয়া, আর রান্না বান্নাটাও বড় কুঞ্জাটের ব্যাপার-সমস্ত একই থাকৃবে—তবে ডালটা ভাতটা আলাদা করে নিলে বুঝলেন না।-- গুরুচরণ বলিলেন বুঝিছি বই কি। বেশ, কাল থেকে তাই হবে । হরিচরণ জিজ্ঞাসা করিল, চিকুটা কি ভাৰে দেবেন স্থির করেছেন ? গুরুচরণ কহিলেন, স্থির করার তা এতদিন আবশ্যক হয়নি, তবে আজ যদি হয়ে থাকে আমরা তিন ভাই দ্বিত্তন অংশ সমান ভাগ করে নিলেই হবে। হরিচরণ আশ্চৰ্য্য হইয়া বলিল, তিন অংশ কি রকম ? মেজ বেী বিধবা, ছেলে পুলে নেই। তঁর আবার অংশ কি ? দু ভাগ হবে। গুরুচরণ মাথা নাড়িয়া বলিলেন, না তিন ভাগ হৰে । মেজ S 8