প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


RR অন্ধকারের আফ্রিকা ভাষা পরিত্যাগ করল। হিন্দুস্থানী ভাষার সবাক চিত্ৰকেও গুজরাতীর বলতে লাগল “গুজরাতী ফিলিমু আউছে”। অর্থাৎ গুজরাতী | সবাক চিত্র cert -: কয়েক দিন পর জানজিবারের প্রসিদ্ধ গহ্বরটি দেখতে বের হলাম। পথের দুপাশে লবংগের গুদাম । গুদাম হতে লবংগের গন্ধ আসছিল। সে গন্ধ বড়ই কটু। গন্ধটা আমি ভাল কয়ে অনুভব করছিলাম আর ত্ৰিপাটীকে জিজ্ঞাসা করছিলাম। এত লং জমা হয়ে রয়েছে কেন ? ত্ৰিপাটী বলছিলেন-ভারতবাসী আর লং কিন্‌ছে না। তাই গুদাম ভর্তি হয়ে রয়েছে। যাদের একমাত্র উৎপন্ন দ্রব্য হল লং এবং যে লং এর একমাত্র ক্রেতা হল ভারতবর্ষ সেই দেশের লোকের সংগে আরবগণ বঁধিয়ে দিন, ঝগড়া-কোেন সাহসে ? ঝগড়া বঁধিয়ে দিয়ে ফল যা হল তা চোখেই দেখতে পাচ্ছেন। আরব ভাল করেই বুঝেছিল এ ঝগড়ায় ভাদের পোষাবে না, এখন পুজিবাদী বৃটিশ এবং পুজিবাদী হিন্দীতে লড়াই হোক, এই মতলব ঠিক করেই আরবগণ লং-এর ব্যবসা অর্থাৎ কুকুরের মত আক্রমণ করা হতে বিরত হয়েছিল। আরবন্ধে ? বাহাদুরি দিতে হবেই, কারণ আরবরা অতি সহজে অনেক কথা বুঝে ফেলে। শহর থেকে পাচ মাইল দূরে গিয়ে পেলাম সেই ঐতিহাসিক গহবর। গহবর প্রকাণ্ড। আমাদের সংগে টিপবাতি ছিল । আমি টিপবাতি হাতে করে গহবরে প্রবেশ করলাম। ক্রমেই অন্ধকার ধাড়তে লাগল এবং গহবরের আকৃতিও বড় দেখাতে লাগল। অনেকক্ষণ চলার পর মনে হ’ল যেন আর 'বাতাস পাচ্ছি না এবং অত্যন্ত পরিশ্রাস্ত হয়েছি । কাছেই দুজন নিগ্ৰেী যুবক বসে কি লিখছিল। আমি তাদের কাছে না বসে আরও একটু আগে গিয়ে বসে বিশ্ৰাম কয়লাম, তার পর আগিয়ে চললাম । আরও কতক্ষণ হেঁটে গিয়ে দেখলাম। একস্থানে জল জ্বামী হয়ে