প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


R r অন্ধকারের আফ্রিকা “শরীর একটু ভাল হলেই এবার টাংগার (Tanga ) দিকে, রেওয়ানা হ’ব।” • &r তারু আমার আরও একটু কাছে এসে আমার হাত এবং পী ভাল করে পরীক্ষা করে। ক’ৰ্ট ডুডু পোকা বের করে ফেলল এবং সিগারেট পেকেট হতে একটা সিগারেট ধরিয়ে বাইরে চলে গেল । সে যখন বাইরে যাচ্ছিল তখন তার দিকে তুমি চেয়ে বেশ ভাল করে বুঝতে পেরেছিলাম। এবার ছেলেটার অশান্ত মন শান্ত হয়েছে। সে গিয়েছিল। পাক ঘরে ; পাক ঘরে সে আমার জন্য গরম জল কয়ে বাথ রুমে রেখে কাছে এসে বলল, “বানা, স্নান করে এস, আমি কতক্ষণ পর, তোমার জন্য পাক করব।” আমি যখন স্নান করতে গিয়েছিলাম তখন আমার ম্যানিবেগ বিছানার উপরই রেখে গিয়েছিলাম। স্নান করে ফিরে এসে দেখি তারু আমার ম্যানিবেগ খুলে টাকা শুনছে। আমাকে দেখেই বল্ল “বানা, এবার অনেক পাউণ্ড তোমার কাছে আছে, এবার আরও চারটা সাখী নেব, কেমন রাজী আছি ত ?” মাথা নেড়ে সম্মতি জানালাম এবং তাকে একটি শিলিং দিয়ে বাজারে বিদায় করে দিলাম। তারু খাবার নিয়ে এল। বেশ মোটাসোটা মুঠ মাছ ভাজা আর ভাত । তাই খেলাম। এরূপ খাবার কিন্তু আমার সহ হ’ত না, তাই ফের দুধ নিয়ে আসতে পাঠালাম। পরদিন থেকে তারু আমার গৃহ-কাজের সকল ভারই নিয়েছিল আর আমি মুক্ত মনে নতুন পথের সন্ধান নিতে লাঙ্গুলাম । মোম্বাস হতে টাংগাতে প্ৰায় ভারতবাসীই জাহাজে করে যায়, সেজন্য স্থলপথের সংবাদ বড় কেউ রাখে না । যারা সে সংবাদ রাখে। তারা নিতান্ত দরিদ্র লোক এবং অল্পবয়সী । তাদের কাছ