পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/৭৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ङ८°′′′ శిలి আমি দেখছিলাম, কি করে পাহাড়ের জন্ম হচ্ছে, 同 কক্সে নদীগুলি ক্ৰমেই প্রশস্ত এবং গভীর হচ্ছে। প্ৰাকৃতিক দৃশ্য দেখে, ভৌগোলিক তথ্য গবেষণা করে সে দিনের পথ চলা শেষ করে আমরা একটি পরিত্যক্ত লোকালয়ে, আসলাম ।। ঘর ক’খানা তখনও দাড়িয়ে ছিল । ঘরের পেছনে তখনও দুধের পুরাতন খালি টিন এবং অনেকগুলি বোতল স্থূপীকৃত হয়ে রয়েছিল। আমরা সে ঘরেই খাবার ঠিক করলাম। একজনকে জল আনতে পাঠালাম। সে একটা ভাংগা বালতিতে ঋরে পরিষ্কার জল নিয়ে এল । অন্য লোকটি ঘরেরই পেছন হতে কতকগুলি কাঠ কুড়িয়ে এনে আগুন জালাল । মিনিট দশকের মধ্যে চা হয়ে গেল । চা খেয়ে আমরা সিগারেট ধরিয়ে নানী কথা বলাকওয়া করতে লাগিলাম। ঠিক করলাম। পরের দিনটাও এখানে থাকব । বিকাল বেলা মাংসের বন্দোবস্ত করার জন্য একজন সাথীকে বললাম। সে এক টুকরা রুটি দিয়ে একটি ছোট ফাদ পেতে আসল । আধা ঘণ্টার মাঝেই একটি গিনি ফাউল সেই ফদে আটকে গেল। বিকালে গিনি ফাউলের উত্তম মাংস ভারতীয় প্ৰথা মতে মাখনের সাহায্যে ভাজা করে খেয়েছিলাম। এদিকে মাংসের অভাব নাই । গরু পালিলে দুধেরও অভাব হবে না। নদীতে সামান্য জলেও প্রচুয়া মাছ দেখতে পাওয়া যায়। মাটি উর্বরা। গৃহস্বামীর পরিত্যক্ত ঘরে নানারূপ বীজ ছিল । সেই বীজগুলি হতে নানা রকমের স্ববজি আপনি হয়ে রয়েছিল। সবজির সৎ ব্যবহার করার জন্যই পরের দিন এখানে থাকিব বলে ঠিক করেছিলাম। আমাদের সংগে লবণ, লংকা এবং মাখন ছিল। সেইজন্যই সবজি সৎ ব্যবহার করতে উৎসাহিত হয়েছিলাম । এখানে রাত্রে আমাদের জেগে থাকতে হয় নি। প্ৰকাণ্ড હરી ক্ষমাগুন জালিয়ে তারই পাশে শুয়ে রয়েছিলাম। পরের দিন কয়েক