প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/৮৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ゲa অন্ধকারের আফ্রিকা ऊाञ्ज्ञ' আমাদের অনেক দূর যেতে হবে। ড্রাইভারের হাবভাব দেখে বুঝলাম দুই-একশ মাইলের ভেতর কোথাও জল পাওয়া । যাবে না । জলহীন স্থানে মানুষও বাস করে না । সংগীকে জিজ্ঞাসা করে জানলাম, জল সর্বত্রই এ অাছে। তবে জল উঠিয়ে । আনার সুবন্দোবস্ত নাই। পূর্বেই বলেছি। পূর্ব আফ্রিকার নদী মোটে গজাতে আরম্ভ করেছে। কোনটা কল্লোলিনী, কোনটা প্রস্রবণ আর কোনটা এখনও নদীতে পরিণত হয় নি। সংগীর কথা শুনে জলের চিন্তা হতে মুক্ত হলাম k গাড়ি চল্প। ক্রমেই গাড়ির বেগ বাড়তে লাগল। ঘণ্টায় যাট মাইল করে” চলতে লাগল। দুপাশের দৃশ্যাবলী ছায়াচিত্রের মত দেখাতে লাগিল । তবে পথের দুপাশ যে সুজলা সুফলা তা ছায়াচিত্র দেখেও অনুভব হল । সূৰ্য যখন মাথার উপর উঠল। তখন গাড়ি থামল। আমরা গাড়ি হতে নেমে একটি নিগ্রো রেন্তোরায় গেলাম। সুন্দর ইংলিশ চা এবং পবিত্র গুরুর দুধেয় ঘিয়ে ভাজা মোটা রুটি আমাদের সামনে বয় এনে রাখল। নিগ্রোদের ইংলিশ চা অৰ্থাৎ লিপ্টন, দারাজিলি” অথবা আসামের চা খেতে দেওয়া হয় না। এসব চা-কেই ইংলিশ চা বলা হয় । "আফ্রিকারই কোথাও এক রকমের চা হয়, তাই নিগ্ৰোৱা চা বলেই খায়, তবে তাতে চায়ের শ্বন্ধ নাই। এখনও নিগ্রোরা ঘিতে ভেজাল দিতে শেখেনি এবং ভবিষ্যতেও শিখবে না, কারণ নিগ্ৰোয়া আমাদেৱ মত অমানুষ লোভী নয়, তাদের ভেতর এখনও সামাজিক ছােট বন্ধু বুলে কিছুই নাই। মান ইজ্জত বজায় রাখার জন্য তাদের কষ্ট পেতে হয় না । উত্তম খাদ্য খেয়ে ফিরে আসব। এমনি সময় দেখলাম একটা კაზe