প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/৮৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 , অন্ধকারের আফ্রিকা ফেরাল এবং পাহাড়ের গা বয়ে যে পথটি চলেছে তাই ধরে চলতে লাগল। বোধহয় দশমাইল চলার পরই নতুন দৃশ্যাবলী আমার সামনে এবং পেছনে আসতে লাগল। সামনে ছিল প্ৰকাণ্ড একটি পৰ্বত, আর নীচের দিকে ছিল ছোট ছোট নিগ্ৰেী জনপদ । জনপদগুলি পরিষ্কার স্থানে অবস্থিত । দুটি পাহাড়ের মাঝ দিয়ে যেখানে নদী বয়ে চলছে তার আশেপাশে* ভীষণ বন । সে বনেয় কাছে নিগ্রে বসতুি ছিল না। নিগ্রে বসতি ছিল পাহাড়ের গায়ে যেখানে দূৰ্বাদল পাহাড়টাকে একেবারে শুষ্ঠামল করে রেখেছে। দুৱ থেকে নিগ্রেী রমণীদের দিনান্তের কাজ দেখেই আমি নানা কথা ভাবতেছিলাম। অনেক নিগ্রেী এবং নিগ্রে-রমণ্ট পর্বতের উপর হতেও নেমে আসছিল। তারা মোটরকারের সামনে এসে হঠাৎ থমকে দাড়িয়ে যে যেদিকে পারে সেদিকেই পালাচ্ছিল। তাদের পালিয়ে যাওয়া এক সুন্দর দৃশ্য। তারা প্রায়ই দিগম্বরী। তাদের অংগ সৌষ্ঠব ছুটিাছুটিতে বেড়েই যেত। তাদের মুখে৷ ” “স্কার কোন লক্ষণই দেখা যেত না, এতে তাদের প্রতি কারো অনুরাগ হওয়া দূরের কথা বিরাগই হয়ে থাকত বেশি । আমি ছিলাম নির্বিকার এবং অনুসনধিৎসু তাই তাদের সরলতাপূর্ণ প্রিমিটিভ অবস্থা দেখে *আমার আনন্দ হ’ত। আমার আনন্দ আমার মুখে মোটেই প্ৰকাশ পেত না। আমি দেখতাম আর ভাবতাম । গাড়ি চলতেছিল । কোথাও মােড় ফুেল্লার সময় উৎসুক নয়নে চেয়ে থাকতাম সামনে নতুন কিছু দেখব বলে। যখন মোড় ফিরল নতুন কিছু দেখতে গ্রেগুলাম না, শুধু উপরের দিকেই চলেছি বলে মনে হল তখন আর ভাল লাগল না। মুখ ফিরিয়ে পেছনের দিকে তাকালাম, দেখলাম আমরা বহু দূরে, সমতলভূমির বহু ঊর্কে এসেছি। “ আমাদের