পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/৯৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অন্ধকারের আফ্রিকা سس! পাহাড়ের গায়ে যতগুলি বনজ গাছ হয়েছে তার প্রত্যেকটির গোড়াটা পরিষ্কার করে রাখা হয়েছে যাতে করে সকলেই এই গ বৃক্ষয়াজির নীচে গরমের সময় বেড়াতে পারে। এতগুলি কাজ দেখতে অনেক মজুরের দরকার হয়। তাদের মজুরী, তাদের খাদ্য এবং বস্ত্ৰ জুগিয়ে যাওয়া কম কথা নয়। এতে অনেক টাকা লাগে। বুঝলাম দোকানগুলি কি করে বেঁচে আছে। , দুদিন পর চেলারামের দৃষ্টি আমার উপর পড়ল। ভাল খাবার, ভাল বিছানা আমার জন্য বরাদ হল । এই হঠাৎ পরিবতনের কারণ প্ৰথম আমি বুঝতে পারিনি। তবে পরে জেনেছিলাম। চেলারামের দোকানে যে, দিন আমি প্ৰবেশ করি সেদিন হতেই তার জিনিস বিক্রয় এত বাড়ছিল যে এ কদিনের মাঝেই সে কয়েক শ’ পাউণ্ড * কমিয়ে নিয়েছিল। হিন্দুরা যেমন করে ভাগ্যকে মানে আর কেউ তেমন মানে না। মানসিক দুর্বলতাই তার একমাত্র কারণ । ষা হ’ক আমার সময় বেশ আরামেই কাটতে লাগিল । এখানে একটি সিনেমা আছে । আড়াই শিলিং-এর কমে কোন টিকিটাই বিক্রি হয় না। তারই একখানা টিকিট একজন ধনী আমাকে উপহার দিয়েছিলেন । যথা সময়ে গিয়ে দেখলাম সিনেমা ঘর লোকে ভতি হয়েছে । সবাই ব্যবসায়ী। কেহ কেহ মবিয়া এবং মায়া এসব স্থান হতেওঁ এসেছেন। যদিও ফিল্মখানা হিন্দুস্থানী। তবুও গুজরাতীরা বলতে লাগলেন গুজরাতী ফিল্ম কত সুন্দর। এতে আমার দুঃখ হল না, হল আনন্দ কারণ গুজরাতীদের পত্নকে আপন করে, নেবার শক্তি এখনও আছে।

  • সিনেমা ঘৱে নানা রকমের বিষয় আলোচনা হতে লাগল। আমি ভেবেছিলাম সিনেমা আরম্ভ হলে এসব বাজে কথা বন্ধ হবে, কিন্তু {

s s: -