প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অন্ধকারের আফ্রিকা.djvu/৯৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অরণ্যে SS চলত, খনিতে কি করে চুরি করতে হয় তা একটু দেখাও ! বানা, তুমি কে ? আমি একজন পৰ্যটক। তোমাদের দেশে বেড়াতে এসেছি মাত্ৰ ! তুমি ত ইংলিশ জান, এই দেখি আমার পাসপোর্ট, কত দেশের ছাপ তাতে পড়েছে । নিগ্রো লোকটি আমার হাঙ্গে থেকে পাসপোর্টখানা নিয়ে মন দিয়ে তাই দেখল তারপর বঙ্গল “বানা, তোমাদের দেশে আমাদের যেতে দেওয়া । হয় না। সেজন্য তোমরা দায়ী, না বৃটিশ দায়ী ? ' ' তুমি কি কখন ভারতে যাবার জন্য চেষ্টা করেছিলে ? ই, বানা, আমি একবার ভারতে গিয়ে মজুরী করার জন্য আবেদন করেছিলাম। শুনছিলাম তোমাদের দেশেৱ লোক নাকি আমাদের দেশের লোক হতে বেশী মজুরী পায়। পাসপোর্ট অফিসার আমার আবেদনে জানিয়েছিলেন যদি আমি এক শত পাউণ্ড জমা রাখতে সক্ষম হই তবে আমাকে ভারতে যেতে দেওয়া হবে। আজ পর্যন্ত একখানা বাইসাইকেল কেনার টাকা জমল না ; এখন এক শ পাউণ্ড চিন্তা করাও আমার পক্ষে অন্যায় হবে । নিগ্রোটিকে পুনরায় কি করে চুরি করতে হয় তারই কথা জিজ্ঞাসা করেছিলাম। কি করে চুরি করতে হয় তা দেখাতে সে অস্বীকার করেছিল। চুনিয়া একটি পার্বত্য সমতলু ভূমি। • এই পার্বত্য সমতল ভূমি পাঁচ হাজার ফিটের কম উচু হবে না। এখানে দাঁড়ালে বহুদূরের দৃপ্ত দেখু যায়। পার পর পাহাড়গুলি আকাশের গায়ে গিয়ে মিশেছে। নিগ্ৰোলৈাকটিকে জিজ্ঞাসা করে অবগত হলাম, এখানে বহুদূর হতে লোক্স কাজ করতে আসে। তবে আজ পর্যন্তু কেউ এখান থেকে বড় লোক সেজে দেশে যেতে পারে নি। যারা চুরি করে বড় লোক হয়েছে তারা