পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তৃতীয় পরিচ্ছেদ ... । | |

| । ৫। ২য় পত্র ঃমাদ্রাজের কাউন্সিলারগণ। সমীপেষু ৩রা আগষ্ট, ১৭৫৬, হুগলী। (এই পত্রখানি হলওয়েল মুর্শিদাবাদ হইতে ফিরিয়া আসিয়া হুগলী হইতে মাদ্রাজে লিখিতেছেন।)। | “মাননীয় মহােদয়গণ•••••••••আশা করি এতদিন মুর্শিদাবাদ হইতে ১৭ই জুলাই তারিখে দূত মারফৎ, প্রেরিত অমার পত্রখানি পাইয়া থাকিবেন, পুনরায় পাঠ করিয়া উহাতে যে সব ভুলভ্রান্তি ছিল তাহা এই পত্রে শুদ্ধ করিয়া দিলাম। | “•••••••• ১৭ই তারিখের পত্রে ‘অন্ধকূপ’এ অবরুদ্ধ ব্যক্তি এবং যাহারা উহাতে প্রাণত্যাগ করিয়াছিল ও জীবিতাবস্থায় বাহির হইয়াছিল তাহাদের সংখ্যা বেশী করিয়াই বলা হইয়াছিল। বন্দিগণের সংখ্যা প্রকৃতপক্ষে ১৪৬ ছিল এবং উহাদের মধ্যে ১২৩ জন প্রাণত্যাগ করে , অবশিষ্ট ব্যক্তিগণ দরজা খুলিলে বাস পাইয়া সংজ্ঞাপ্রাপ্ত হয়। আমাদিগকে এইরূপ অশ্রুতপূর্ব নির্দয়ভার সহিত বন্দী করার জন্য আমি নবাবকে সে পত্রে দায়ী করিয়াছিলাম কিন্তু এখন ভাবিয়া দেখিতেছি যে তাহা করিয়া অন্যায় করিয়াছিলাম ; আমাদিগকে বন্দী করার জন্য তিনি যে আদেশ দিয়াছিলেন তাহা সাধারণ আদেশ মাত্ৰ•••••••••এবং তাহার জমিদার ও বরকন্দাজগণ আমাদিগকে এরূপ নিৰ্ম্মরূভাবে বন্দী করেন, কারণ এই যুদ্ধে তাহাদের অনেক আত্মীয়-স্বজনপ্রাণত্যাগ করে। আমি সেই পত্রে বলিয়াছিলাম যে ১৮ই জুন রাত্রে যে সামরিক সভা হয় তাহাতে কোম্পানীর টাকা-প, কাগজপত্র ও মহিলাগণকে সরাইবার রিজলিউশান পাশ করা হয়; কিন্তু এখন আমার মনে হয় কোম্পানীর কাগজপত্র ১৩