পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/৩৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| তৃতীয় পরিচ্ছেদ দিয়া ব্যাপারটি মিটমাট করিয়া লইলেই এই ভয়াবহ কাণ্ড ঘটিত না। ইহার প্রমাণ এই যে, তিনি কাসিমবাজারের কিছুই স্পর্শ করেন নাই। “এই পত্রের সঙ্গে ড্রেক সাহেব ও নিম্নলিখিত ব্যক্তিগণের পত্র থাকিল"••••• | জুনিয়র গ্রে সাহেব কলিকাতার পতন সম্বন্ধে একটা উপাখ্যান প্রণয়ন করিয়াছেন, তিনি সেই স্থানে সর্বক্ষণ উপস্থিত ছিলেন । উক্ত উপাখ্যানটীও এই পত্রের সঙ্গে পাঠান হইল••••••এই পত্র লেখার পর ফলতা হইতে যে সব পত্র পাইলাম, তাহাও ইহার সহিত প্রেরিত হইল•••• কলিকাতা অধিকার করিয়া মুর্শিদাবাদ অভিমুখে ফিরিবার কালে নবাব আমাদিগকে মুক্তি দিয়া ফরাসীগণের জিম্মায় রাখিয়া দিয়াছেন এবং তাহাদের নিকট হইতে একটা লিখিত রসিদ লইয়া আমাদিগকে মাদ্রাজ পাঠাইবার জন্য তাহাদিগকে বলিয়া দিয়াছেন। আমরা তাহাদের নিকট বেশ ভদ্ৰব্যবহারই পাইয়াছি। অামাদের প্রায় ১১০ জন নাবিক ও সৈন্য তাহাদের হাসপাতালে রহিয়াছে। আমরা হুজুরের নিকট নিশ্চিত করিয়া বলিতে পারি যে, উক্ত ঘটনার সহিত আমরা যতদূর সংশ্লিষ্ট আছি, তাহা সঠিক ও সত্য এবং যে ঘটনাবলীর সহিত আমাদের কোন সম্বন্ধ নাই এবং যাহা যাহা অপরের নিকট গ্রহণ করিয়াছি••••••তাহাতে যদি কোন ভুলভ্রান্তি হইয়া থাকে, তার জন্য আমরা ক্ষমা প্রার্থনা করি তেছি।” (১৭) ওয়াট এবং কোলেট ইংরাজগণের কাসিমবাজার কুঠীর উচ্চপদস্থ কর্মচারী ছিলেন এবং উক্ত কুঠী,নবাবের হস্তে সমর্পণকালে তাহারাও তাহার হন্তে বন্দী হইয়াছিলেন। কলিকাতা অভিযানকালে তাহারা নবাবের সঙ্গে কলিকাতা আসিয়াছিলেন এবং উক্ত নগর দখলের পর নবাব মুর্শিদাবাদ | | ৭ ) Letter from Watts and Coltet to the Court of Directors, Hill: vol. 1. PP, 99io6. ১৫