পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/৬১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চতুর্থ পরিচ্ছেদ বন্দিগণের সংখ্যা সম্বন্ধেও তাহারা একমত হইতে পারেন নাই। তাহা দের কাহারও মতে উৰ্দ্ধ সংখ্যা ২০০ জন ও অন্য কাহারও মতে নিম্ন সংখ্যা ১২০ জন লোেক বন্দী হইয়াছিল। কেহ বলেন তাহাদিগকে গুদামঘরে বন্ধ করিয়া ৭ দিন ভুলিয়া গিয়াছিলেন ; আবার অন্য কেহ বলেন ইহা মৃত্তিকা নিম্নস্থ কারাগার ( Dungeon)। লেখকগণের প্রায় প্রত্যেকেই এই সব দুর্ঘটনার জন্য ড্রেককেই দায়ী করিয়া গিয়াছেন। | ফরাসীগণ ২০শে জুন হইতে ৩রা জুলাই পর্যন্ত ঢাকা, পণ্ডিচেরী, মসলিপত্তম প্রভৃতি স্থানে অসংখ্য পত্র লিখিয়াছিলেন; কিন্তু কোন পত্রেই ঘুণাক্ষরেও অন্ধকূপের উল্লেখ করেন নাই। গ্রে, মিলস্ ও নকস্ সাহেব যেমনই চন্দননগরে পৌঁহুছিয়াছেন তেমনই আবহাওয়ার পরিবর্তন হইয়া গিয়াছে। অবশ্য হলওয়েলও চন্দননগরে গিয়াছিলেন কিন্তু তিনি স্বাধীন ভাবে সকলের সঙ্গে মেলামেশা করিতে পারেন নাই। এই জন্যই এরা জুলাইর পর হইতে ফরাসীগণ যত পত্র লিখিতেছেন তাহার প্রায় সব গুলিতেই অন্ধকূপের উল্লেখ আছে। ডাচ-রেকর্ড ৩০। (ক) হুগলীস্থিত ডাচ কাউন্সিল হইতে লিখিত এবং বাটাভিয়া’য় সুপ্রিম কাউন্সিলে প্রেরিত একখানি ডাচ পত্রের আংশিক অনুবাদ। ২৪শে নবেম্বর, ১৭৬৫। •••••••••••••প্রথমতঃ উত্তেজনার বশবর্তী হইয়া যেখানে ৪০ জন বন্দীরও স্থান হয় না অন্ধকুপ নামে এমন একটি ক্ষুদ্র কারাকক্ষে ১৬০ জন লােককে তিনি বন্দী করিয়া রাখেন এবং তাহাদের মধ্যে কেহবা পদদলিত, কেহবা শ্বাসরুদ্ধ হইয়া প্রাণত্যাগ করে। মাত্র ১৫১৬ জন লােককে ৫৩