পাতা:অন্ধকূপ-হত্যা-রহস্য - মুজিবর রহমান.pdf/৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


“অন্ধকূপ-হত্যা”-রহস্য কোন কোন ইংরাজ মহিলাও বন্দী হইয়াছিল। ঐতিহাসিক গােলাম হােসেন বলেন যে কতকগুলি ইংরেজ মহিলা বন্দী হইলে মীরজাফরের অনুচর মির্জা ওমর বেগ তাহাদিগকে তাহাদের স্বামীর নিকট রাখিয়া আসেন। (১১১) এই সব বিভিন্ন প্রকার রেকর্ড পাঠে সঠিক খবরটা বাহির করা কঠিন হইতে পারে এবং মনে হয় যে কোন একটা রেকর্ড মিথ্যা, কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তাহা নহে, উভয় রেকর্ডই সত্য। দুর্গে যে কোন মহিলা ছিল না সেটাও সত্য এবং কোন কোন মহিলা যে নবাব কর্তৃক বন্দী হইয়াছিল তাহাও সত্য। ১লা আগষ্ট তারিখে লিখিত (১৭৫৬) একখানি ফরাসী পত্ৰ এই প্ৰহেলিকার রহস্য উদঘাটন করিয়াছে। উক্তপত্রে লিখিত আছে যে ইংরাজগণের দুইখানি জাহাজ কলিকাতার কিছু নীচে চড়ায় আটকাইয়া গিয়া নবাবের সৈন্যকর্তৃক ধৃত হইয়াছিল ; এবং ইহাতে অনেকগুলি মহিলা ছিল। তাহারাই নবাবের আদেশে তৎক্ষণাৎ মুক্ত হয়। (১১২) নবাব মহিলাগণের প্রতি কোনই দুর্ব্যবহার করেন নাই। তিনি তৎক্ষণাৎ তাহাদিগকে মুক্তি প্রদান করেন। কাসিমবাজার কুঠীর পতন হইলে তিনি ওয়াটস্ ও কোলেট সাহেবকে বন্দী করেন এবং তাহাদের স্ত্রী পরিবারকে ফরাসীগণের নিকট সমৰ্পণ করিয়া তাহাদিগকে সাবধান করিয়া দেন যে, তাহাদের যেন কোন প্রকার ক্ষতি না হয়। (১১৩) নবাবের এসব ভদ্ৰব্যবহারে ফরাসীগণ সন্তুষ্ট হইয়া একখানি পত্রে লিখিয়াছিলেন :“Moors are very respectful to women” অর্থাৎ “মুসলমানগণ (১১১) Siyarul Mutakh khirin, vol ll. p. 91 (১১২) Hill: vol,l. P, 183. জাহাজ ২ খানির নাম ছিল 'Neptune* ও "Diliegence (১১৩) Hill: vol,l. p. 229, ৭৪