প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Sty অপরাজিত S SDuDB BDBD BDBDDDB DBDDB BDDS BDBuDBDD DBSS BDB DD BBDB জানে না-বার বার বইয়ের উপর কুকিয়া পড়িয়া দেখে কি লেখা আছে-“বজ্রায় হং’ বলিবার পর শিবের মাথায় বঞ্জের কি গতি করিতে হইবে-'ও” ব্ৰহ্মপীঠ ঋষি সমতলছন্দঃ কুমো দেবতা’ বলিয়া কোন মাদ্রায় আসনের কোণ কি ভাবে ধরিতে হইবে।-কোনরকমে গোঁজামিল দিয়া কােজ সারিবার মত পটুত্বও তাহার: আয়ত্ত হয় নাই, সতরাং পদে পদে আনাড়ীপনা টুকু ধরা পড়ে । একদিন সেটুকু বেশী করিয়া ধরা পড়িল ওপাড়ার সরকারদের বাড়ি । যে ব্রাহ্মণ তাহদের বাড়িfঠ পাজা করিত, সে কি জন্য রাগ করিয়া চলিয়া গিয়াছে, গহদেবতা নারায়ণের পাজার জন্য তাহদের লোক অপকে ডাকিয়া লইয়া গেল। বাড়ির বড় মেয়ে নিরপেমা, পাজার যোগাড় করিয়া দিতেছিল, চৌদ্দ বৎসরের ছেলেকে চেলী পরিয়া পথি বগলে গম্ভীর মখে আসিতে দেখিয়া সে একটু অবাক হইল। জিজ্ঞাসা করিল, তুমি পজো করতে পারবে ? কি নাম তোমার ? চক্কতি মশায় তোমার কে হন ? মািখচোরা অপাের মদখে বেশী কথা যোগাইল না, লাজক মখে সে গিয়া আনাড়ীর মত আসনের উপর বসিল । পজা কিছদার অগ্রসর হইতে না হইতে নিরপেমার কাছে পাজারীর বিদ্যা, ধরা পড়িয়া গেল। নিরপেমা, হাসিয়া বলিল, ওকি ? ঠাকুর নামিয়ে আগে নাইয়ে নাও, তবে তো তুলসী দেবে । শােপ থিতামত খাইয়া ঠাকুব । মইতে, ö何日 নিরুপমা বসিয়া পড়িয়া বলিল-উগ্ৰহ, তাড়াতাড়ি ক’রো না। এই টাটে আগে ঠাকুর নামাও-আচ্ছা, এখন বড় ভাম কুণ্ডতে জল ঢালো আপ কুকিয়া পড়িয়া বইয়ের পাতা উলটাইয়া স্নানের মন্ত্র খজিতে লাগিল । তুলসীপত্র পরাইয়া শালগ্রামকে সিংহাসনে উঠাইতে যাইতেছে, নিরপেমা বলিল, ওকি ? তুলসীপাতা উপড়ে ক’রে পরাতে হয় বঝি ? চিৎ করে পরাও— ঘামে রাঙামািখ হইয়া কোনরকমে পজা সাঙ্গ করিয়া অপচলিয়া আসিতেছিল, নিরপেমা ও বাড়ির অন্যান্য মেয়েরা তাহাকে আসন পাতিয়া বসাইয়া ভোগের ফলমল ও সন্দেশ জলযোগ করাইয়া। তবে ছাড়িয়া দিল । মাসখানেক কাটিয়া গেল । অপর কেমন মনে হয় নিশ্চিন্দিপরের সে অপােব মায়ারপে এখানকার কিছুতেই নাই। এই গ্রামে নদী নাই, মাঠ থাকিলেও সে মােঠ নাই, লোকজন বেশী, গ্রামের মধ্যেও লোকজন বেশী । নিশ্চিন্দিপরের সেই উদার সর্বপ্নমাখানো মাঠ, সে এখানে নাই, তাদের দেশের মত গাছপালা, কত ফলাফল, পাখি, নিশিচন্দপরের bাস অপােব কন-বৈচিত্র্য, কোথায় সে সব’? কোথায় সে নিবিড় পাম্পিত ছাতিম বন, ডালে ডালে সোনার সিদর ছড়ানো সন্ধ্যা ? সরকার বাড়ি হইতে আজকাল প্রায়ই পজা করিবার ডাক আসে। শান্তস্বভাব ও সন্দির চেহারার গণে আপকেই আগে চায়। বিশেষ বারৱতের দিনে পাজাপত্ৰ সারিয়া অনেক বেলায় সে ধামা করিয়া নানাবাড়ির পাজার নৈবেদ্য ও চাল-কলা