প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২১০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


RSO Turs অপর ইতিমধ্যে গলির মোড়ের দোকান হইতে আট আনার খাবার কিনিয়া আনিল । খাবারের ঠোঙা হাতে যখন সে ফিরিয়াছে তখন বন্ধ ও বন্ধপত্নী বাসায় ফিরিয়াছে। - বাঃ রে, আবার কোথায় গিয়েছিলে-ওতে কি ? খাবার ? বাঃ রে? খাবার তুমি আবার কেন আপ হাসিমখে বলিল— তোমার আমার জন্য তো আনি নি ? খাকী রয়েছে, g BBD BBLBLYS DB D DBDSDD DBD D SBBB S DLL DDDDS DBEB EK দ্যাখ-রিমালা ! বৌ-ঠাকরণ-ধরন তো এটা । বন্ধপত্নী আধঘোমটা টানিয়া প্রসন্ন হাসিভরা মাখে ঠোঙাটি হাত হইতে লাইলেন । সকলকে চা ও খাবার দিলেন । সেই খাবারই । আধাঘন্টাটাক পর অপ বলিল-উঠি ভাই, আবার চাঁপদানীতেই ফিরববেশ ভাল ভাই -কন্টের সঙ্গে তুমি এই যে লড়াই করছি- এতে তোমাকে ভাল করে চিনে নিলাম-কিন্তু বৌ-ঠাকরণকে একটা কথা বলে যাই—অত ভালমানষে হবেন না-আপনার স্বামী তা পছন্দ করেন না ৷ দৰা-একদিন একটু আধটু চুলো চুলি, হাতী-যন্ধ, বেলন-যন্ধ -জীবনটা বেশ একটু সরস হয়ে উঠবে।-বাঝলেন না ? এ আমার মত নয়। কিন্তু, আমার এই বন্ধটির মতআচ্ছা আসি, নমস্কার'। বন্ধটি পিছৰ পিছ আসিয়া হাসিমখে বলিল-ওহে তোমার বৌ-ঠাকরণ বলছেন, ঠাকুরপোকে জিজ্ঞেস কর, উনি বিয়ে করবেন, না, এই রকম সন্নিষ্যসি হয়ে ঘরে ঘরে বেড়াবেন ?- * -উত্তর দাও । অপ. হাসিয়া বলিল - দেখে শনে আর ইচ্ছে নেই ভাই, বলে দাও । বাহিরে আসিয়া ভাবে-আচ্ছা, তবও এরা আজ ছিল বলে বিজয়ার আনন্দটা করা গেল । সত্যিই শান্ত বৌটি । ইচ্ছে করে এদের কোনও হেলপ করি।--কি ক’রে হয়, হাতে এদিকে পয়সা কোথায় ? তাহার পর কিসের টানে সে ট্রামে উঠিয়া একেবারে ভবানীপরে লীলাদের বাড়ি গিয়া হাজির হইল । রাত তখন প্রায় সাড়ে-আটাটা । লীলার দাদামশায়ের লাইব্রেরী-ঘরটাতে লোকজন কথাবাতা বলিতেছে, গাড়িবারান্দাতে দাখানা মোটর দাঁড়াইয়া আছে-পোকার উপদ্রবের ভয়ে হলের ইলেকট্ৰিক আলোগলিতে রাঙা সিলোেকর ঘেরাটোপ বাঁধা । মাবেলের সিড়ির ধাপ বাহিয়া হলের সামনের চাতালে উঠিবার সময় সেই গান্ধটা পাইল-কিসের গন্ধ ঠিক সে জানে না, হয়ত দামী আসবাব-পত্রের গন্ধ, হয়ত লীলার দাদামশায়ের দাম চুরাটের গন্ধ-এখানে আসলেই ওটা পাওয়া যায় । লীলা- এবার হয়ত লীলা-অপাের বািকটা ঢিপ ঢপ করিতে লাগিল । লীলার ছোট ভাই বিমলেন্দ তাহাকে দেখিতে পাইয়া ছটিয়া আসিয়া হাত ধরিলা । এই ফলকটিকে অপর বড় ভালো লাগে-মাত্র বার দই ইহার আগে সে অপকে দেখিয়াছে, কিন্তু কি চোখেই যে দেখিয়াছে ! একটু বিস্ময়মাখানো আনন্দের সরে বলিল-অপােব বাবা, আপনি এতদিন পর কোথা থেকে ?