প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জািগয়াজিত Sve আপ হিসাব করিয়া বলিল- তা ধর প্রায় আজ বিশ-বাইশ বছর আগেকার কথা । লীলা খানিকটা চুপ করিয়া থাকিয়া বলিল-অপর্বে, কেন্টু মোটরটা কিনবে বলতে পারো, তোমার সন্ধানে আছে ? লীলার অতি সাধের গাড়িটা--এত কন্টে পড়িয়াছে সে.- লীলা বলিল,-আমি সে সব গ্রাহ্য করি নে। কিন্তু মা-ও ভাবেন- যাক সে: সব কথা । তুমি আমাকে কোথাও নিয়ে যাবে অপাব ? -क्राथान्न ? - যেখানে হোক। তোমার সেই পোতো প্লাতায়ান-মনে নেই, সেই যে সমাদের মধ্যে কোন ডুবো জাহাজ উদ্ধার করে বলেছিলে সোনা আনবে ? সেই ফে 'মাকুলে’ পড়ে বলেছিলে ? কথাটা অপর মনে পড়িল । হাসিয়া বলিল, হ্যাঁ সেই-ঠিক । উঃ, সে কথা AS GE FSTNT

  • - আমি বলেছিলাম, কেমন ক’রে যাবে ? তুমি বলেছিলে, জাহাজ কিনে । সমন্দ্রে যাবে।

অপৰ হাসিল । শৈশবের সাধ-আশার নিম্মফলতা সম্বন্ধে সে কি একটা বলিতে যাইতেছিল, কিন্তু হঠাৎ তাহার মনে পড়িয়া গেল, লীলাও এ ধরণের নানা আশা পোষণ করিত, বিদেশে যাইবে, বড় আর্টিস্ট হইবে ইত্যাদি-ওর সামনে আর সে কথা বলার আবশ্যক নাই । কিন্তু লীলাই আবার খানিকটা চুপ করিয়া থাকিয়া বলিল -যাবে না ? যাও ষাও-পরে-হি-পিঁহি কারিয়া হাসিয়া কেমন একটা অদ্ভুত সরে বলিল-সমােন্দ্র থেকে সোনা আনবে তো তোমরাই-পোতো প্লাতা থেকে, না ? “দ্যাখো, এখনও ঠিক মনে ক’রে রেখেছি।-রাখি নি ? হি-হি-একটু চা খাবে ? ‘লীলার মাখের শীণ হাসি ও তাহার বাঁধনীহারা উদভ্ৰান্ত আলগা ধরণের কথাবাতা অপাের বকে তীক্ষম তীরের মত বিধিল । সঙ্গে সঙ্গে বঝিল এত ভালবাসে নাই সে লীলাকে আর কোনো দিন আজ যত বাসিয়াছে । --দাপার বেলা চা খাব কি ?- সেজন্যে ব্যস্ত হয়ো না লীলা । লীলা বলিল-তোমার মাখে। সেই পরনো গানটা শনি নি। অনেকদিন-সেই "etifs Bayar (23-79 C\5 ? মেঘলা দিনের দাপার। বাহিরের দিকে একটা সাহেব-বাড়ির কম্পাউন্ডে গাছের ডালে অনেকগালি পাখি কলরব করিতেছে। অপর গান আরম্ভ করিল, লীলা জানালার ধারেই বসিয়া বাহিরের দিকে মািখ রাখিয়া গানটা শনিতে লাগিল।. লীলার মনে আনন্দ দিবার জন্য অপর গানটা দা-তিনবার ফিরাইয়া ফিরাইয়া গাহিল। গান শেষ হইয়া গেল, তব লীলা জানালার বাহিরেই চাহিয়া: আছে, অন্যমনসকভাবে যেন কি জিনিস লক্ষ্য করিতেছে । খানিকক্ষণ কাটিয়া গেল। দাজনেই চাপ করিয়া ছিল । হঠাৎ লীলা বলিল -একটা কথার উত্তর দেবে ?