প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৩৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


• জীবনের উষায় মজুির প্রথম আমবাদের সেপাগল-করা আনন্দের সাক্ষাৎ আর পাই मि-उाई রোবাত সেই বেতস তারতলেই অবাক মন বার বার ছটে ঘটে যায় যদি, তাকে দোষ দিতে পারি। কৈ ?• • • আজ একথা বঝি ভাই যে, সখি ও দঃখ দিইই অপব । জীবন খাব বড় একটা রোমান্স-বেচে থেকে একে ভোগ করাই রোমান্স-অতি তুচ্ছতম, হীনতম একঘেয়ে জীবনও রোমান্স । এ বিশবাসটা এতদিন আমার ছিল না - ভাবতুম লাফালাফি ক'রে বেড়ালেই বঝি জীবন সাথািক হয়ে গেল - তা নয়, দেখলাম एछ३ ॥ এর সখ্য, দঃখ, আশা, নিরাশা-আত্মার যে কি বিচিত্র, অমল্য য়্যাডভেঞ্চার --তা বয়ে দেখতে ধ্যানদীটির প্রয়োজনীয়তা আছে, তা আসে এই রহস্যমাখা যাত্রাপথের অমানবীয় সৌন্দয্যের ধারণা থেকে ।*** শৈশবের গ্রামখানাতে ফিরে এসে জীবনের এই সৌন্দযাির পটাই শােধ চোখে দেখছি । এতদিনের জীবনটা এক চমকে দেখবার এমন সংযোগ আর হয় নি। কখনও । এর বিচিত্র অনভূতি, এত পরিবতন, এত রস। --অনেকক্ষণ শায়ে শয়ে চারিধারের রৌদ্রদীপ্ত মধ্যান্ত্রের অপব শান্তির মধ্যে কত কথাই মনে আসে, কত বছর আগেকার সে শৈশবসরটা যেন কানো বাজে, এক পরনো শান্ত দাপরের রহস্যময় সর***াকত দিগন্তব্যাপী মাঠের মধ্যে এই শান্ত দাপরে কত বটের তলা, রাখলের বাঁশির সরের ওপারের যে দেশটি অনন্ত তার কথাই মনে ওঠে । কিছুতেই আমাদের দেশের লোকে বিস্মিত হয় না কেন বলতে পাের, প্রণব ? বিস্মিত হবার ক্ষমতা একটা বড় ক্ষমতা । যে মানষ কোনও কিছর দেখে বিস্মিত হয় না, মগধ হয় না, সে তো প্রাণহীন। কলকাতায় দেখেছি কি তুচ্ছ জিনিস নিয়েই সেখানকার বড় বড় লোকে দিন কাটায় । জীবনকে যাপন করা একটা আট-তা। এরা জানে না বলেই অলপ বয়সে আমাদের দেশে জীবনের ব্যবসায়ে দেউলে হয়ে পড়ে । দিনের মধ্যে খানিকটা অন্তত নিজনে বসে একে ভাবতে হয় - উঃ সে দেখেছিলাম নাগপারে ভাই-সে কী অবর্ণনীয় আনন্দ পেতুম । বৈকালটিতে যখন কোনো শালবনের ছায়ায় পাথরের ওপর গিয়ে বসতুম-লোকাতীত যে বড় জীবন শত শত জন্মমতু্যর দীর পারে অক্ষম, তার অস্তিত্বকে মন যেন চিনে। DS DuDBS DDDBBDBDB BBDBB OOLD DDD DDD এখানে এসেও তাই মনে হচ্ছে প্রণব • • • এখানে বঝেছি জগতে কত সামান্য জিনিস থেকে কত গভীর আনন্দ আসতে পারে। তুচ্ছ টাকা, তুচ্ছ যাশমান । আমার জীবনে এরাই হোক অক্ষয় । এত ছায়া, এত ডসি খোঁজরের-আতাফুলের সগন্ধ, এত সমিতির আনন্দ কোথায় আর পাব ? হাজার বছর কাটিয়ে দিতে পারি। এখানে, তব এ পরিনো হবে না যেন । লীলাকে জানতে ? আমার মাখে দা একবার শনেছ । সে আর নেই । সে সব অনেক কথা। কিন্তু যখনই তার কথা ভাবি, অপর্ণার কথা ভাবি, তখন BMOBB BB LYYSkS KY EED DB S gDDD ED0L BB ttYYYBgLE