প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


gorffluores R নিমালাকে অপর ভাল লাগে, কিন্তু সে তাহা দেখাইতে জানে না । পরের বাড়ি বলিয়াই হউক, বা একটু লাজক প্রকৃতির বলিয়াই হউক, সে বাহিরের ঘরে শান্তভাবে বাস করে---কি তাহার অভাব, কোনটা তাহীর দরকার, সে কথা কাহাকেও জানায় না । অপর এই উদাসীনতা নিমালার বড় বাজে, তবও সে না। চাহিতেই নিমালা তাহার ময়লা বালিশের ওয়াড় সাবান দিয়া নিজে কাচিয়া দিয়া যায়, গামছা পরিস্কার করিয়া দেয়, ছোড়া কাপড় বাড়ির মধ্যে লইয়া গিয়া মাকে দিয়া সেলাইয়ের কলে সেলাই করিয়া আনিয়া দেয় । নিমালা চায় অপবা-দাদা তাহাকে ফাই-ফরমাশ করে, তাহার প্রতি হকুমজারি করে। কিন্তু অপ, কাহারও উপর কোনো হকুম কোনোদিন করিতে জানে না-এক মা ছাড়া । দিদি ও মায়ের সেবায় সে অভ্যস্ত বটে, তাও সে-সেবা অযাচিতভাবে পাওয়া যাইত তাই ! নইলে অপ। কখনও হাকুম করিয়া সেবা আদায় করিতে শিখে নাই। তা ছাড়া সে সমাজের যে স্তরের মধ্যে মানষ, ডেপটীবাবরা সেখানকার চোখে ব্ৰহ্মলোকবাসী দেবতার সমকক্ষ জীব। নিমালা ডেপটীবাবর বড় মেয়ে-রূপে, বেশভূষায়, পড়ােশানায়, কথাবাতায় একমাত্র লীলা ছাড়া সে এ পর্যন্ত যত মেয়ের সংস্পশে আসিয়াছে।--সকলের অপেক্ষা শ্রেষ্ঠ। সে কি করিয়া নিমালার উপর হকুমজারি করিবে ? নিমিলা তাহা বোঝে না-সে। দাদা বলিয়া ডাকে, অপর প্রতি একটা আন্তরিক টানের পরিচয় তাহার প্রতি কাজে-কেন অপবৰ্গ-দাদা তাহাকে প্রাণপণে খাটাইয়া লয় না, নিষ্ঠুরভাবে অযথা ফাই-ফরমাশ করে না ? তাহা হইলে সে খাশী হইত । চেত্র মাসের শেষে একদিন ফুটবল খেলিতে খেলিতে অপাের হটুিটা কি ভাবে মুচুকাইয়া গিয়া সে মাঠে পড়িয়া গেল। সঙ্গীরা তাহাকে ধরাধরি করিয়া আনিয়া ডেপাৰ্টীবাবার বাসায় দিয়া গেল। নিমালার মা ব্যস্ত হইয়া বাহিরের ঘরে আসিলেন, কাছে গিয়া বলিলেন-দেখি দেখি, কি হয়েছে ? অপর উক্তজবল গৌরবণ সন্দর মািখ ঘাম ও যন্ত্রণায় ব্লাঙা হইয়া গিয়াছে, ডান পা-খানা সোজা। করিতে পারিতেছে না । মনিয়া চাকর নিমালার মা’র ফিলিপ লইয়া ডাণ্ডারখানায় ছটিল । নিমালা বাড়ি ছিল না, ভাইবোনদের লইয়া গাড়ি করিয়া মন্সেফ বাবর বাসায় বেড়াইতে গিয়াছিল। একটু পরে সরকারী ডাক্তার আসিয়া দেখিয়া শনিয়া ঔষধের ব্যবস্থা করিয়া গেলেন । সন্ধ্যার আগে নিমালা আসিল । সব শনিয়া বাহিরের ঘৰে আসিয়া বুলিল-কই দেখি, বেশ হয়েছে—দুস্যিবৃত্তি কু ,ফল হবে না ? ভারী খশী হয়েছি আমি- . . . নিমালা কিছ না বলিয়া চলিয়া গেল । অপ, মনে মনে ক্ষণ হইয়া ভাবিলযাক না, আর কখনও যদি কথা কই-- আধা ঘণ্টা পরেই নিৰ্মলা আসিয়া হাজির। কৌতুকেপ্লািদরে বলিল-পায়ের ব্যথা-ট্যথা জানি নে, গরম জল আনতে বলে দিয়ে qTq్యక్స్టి ক’রে সোণক দেবেন। —লাগে তো লাগবে-দন্টুমি করার বাহাদরি বেরিয়ে যু:"কমলা লেব, খাবেন काँग्रे?-ना, उ७ का ? মনিয়া চাকর গরম জল আনিলে নিমালা অনেকক্ষণ বসিয়াfবসিয়া ব্যথার উপর