প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:অপরাজিত - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


bታ8 অপরাজিত DD DDDBB DDDS BB DBDSuuu BuBDDS DBDBB BB BDDDO BDB BDBB uDS পাকাইয়া, কখনও মােঠাদ্বারা বাতাস অাঁকড়াইয়া, কখনও বা সম্পমাখের টেবিলে সশব্দে চাপড় মারিয়া বাল্য বিবাহের প্রয়োজনীয়তা ও সস্ত্রীশিক্ষার অসারত্ব প্রমাণ করিয়া দিল। প্ৰণবের বন্ধদলের ঘন ঘন করতালিতে প্রতিপক্ষের কানে তালা লাগিব।ার উপক্ৰম হইল । লাটিন জানে বলিয়া ক্লাসে সকলে তাহাকে ভয় করিয়া চলে, তাহার সামনে কেহ সাহেবদের চাল-চলন, ডেনারের এটিকেট, আচার-ব্যবহার সম্পবন্ধে ক্লাসের মধ্যে সে অথরিটি-তাহার উপর কার্যয় কথা খাটে না। ক্লাসের এক হতভাগ্য ছাত্র সাহেবপাড়ার কোন রেস্তোরাঁতে তাহার সহিত খাইতে গিয়া ডান হাতে কাঁটা ধরিবার অপরাধে এক সপ্তাহকাল ক্লাসে সকলের সামনে মন্মথর টিটােকারি সহ্য কয়ে । মন্মথর ইংরেজী আরও চোখা, কম আড়ষ্ট, উচ্চারণও সাহেবী ধরনের। কিন্তু একেই তাহার উপর ক্লাসের অনেকের রাগ আছে, এদিকে আবার সে বিদেশী বলি আওড়াইয়া সনাতন হিন্দধমের চিরাচরিত প্রথার নিন্দাবাদ করিতেছে ; ইহাতে একদল ছেলে খািব চটিয়া উঠিল-চারিদিক হইতে ‘shame shame,- withdraw, withdraw,’ রব উঠিল--তাহার নিজের বন্ধদল প্রশংসাসাচক হাততালি দিতে লাগিল- ফলে এত গোলমালের সদৃষ্টি হইয়া পড়িল যে, মন্মথ বস্তুতার শেষের দিকে কি বলিল সভার কেহই তাহার একবণ ও বঝিতে পারিল না। প্ৰণবের দলই ভারী । তাহারা প্রণবকে আকাশে তুলিল, মন্মথকে স্বধৰ্মবিরোধী নাপ্তিক বলিয়া গালি দিল, সে যে হিন্দীশাস্ত্র একছত্ৰও না পড়িয়া কোন পদ্ধায় বৰ্ণাশ্রম ধর্মের ফিরদ্ধে প্রকাশ্য সভায় কথা বলিতে সাহস করিল, তাহাতে কেহ কেহ আশ্চর্য হইয়া গেল । লাটিন-ভাষার সহিত তাহার পরিচয়ের সত্যতাও দ'-' একজন তীব্র মন্তব্য প্রকাশ করিলা ( লাটিন জানে বলিয়া অনেকের রাগ ছিল তাহার উপর ) - একজন দাঁড়াইয়া উঠিয়া বলিল,- প্রতিপক্ষের বক্তার সংস্কৃতে যেমন অধিকার, যদি তাঁহার লাটিন ভাষার অধিকারও সেই ধরনের ঋক্রমণ কুমেই ব্যক্তিগত হইয়া উঠিতেছে দেখিয়া সভাপতি-অৰ্থনীতির vīrs tīja: ēter-Come, come, Manmatba has rcver said that he is a Seneca or a Lucretius-have the goodless to come to the point, হেডমাস্টার প্রতিবারই হইবার অ্যাশ বাস দিতেন । এখানে এদিনকার ব্যাপারটা তাহার কাছে নিতান্ত হাস্যাস্পদ ঠেকিল । ওসব মামলি কথা মামলিভাবে বলিয়া লাভ কি ? সামনের অধিবেশনে সে নিজে একটা প্রবন্ধ পড়িবে। সে দেখাইয়া দিবে-ওসব একঘেয়ে মামলি বলি না আওড়াইয়া কি ভাবে প্রবন্ধ লেখা যায়। একেবারে নিতেন এমন বিষয় লইয়া সে লিখিবে, যাহা লইয়া কখনও কেহ আলোচনা করে নাই ।